Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

বিজেপির নয়া স্টান্ট,
সরকার পড়বে ডিসেম্বরে
তন্ময় মল্লিক

আজ মহাষষ্ঠী, দেবীর বোধন। মা আনন্দময়ীর আগমনে বাংলা আনন্দমুখরিত। বন্ধ হয়েছে করোনার চোখ রাঙানি। থেমে গিয়েছে মৃত্যুর মিছিল। তাই উৎসবে মেতেছে বাংলা। তবে, সুকান্ত মজুমদারের ডিসেম্বরে সরকার ফেলে দেওয়ার হুমকি সেই উৎসবের আবহেও রাজনীতির চর্চায় জুগিয়েছে ইন্ধন। দলীয় কর্মীদের চাঙ্গা করার উদ্দেশ্যেই যে বঙ্গ বিজেপির এই হুঙ্কার, তা বলাই বাহুল্য। তবে কর্মী ধরে রাখার জন্য মিথ্যে আশ্বাস দিতে গিয়ে বঙ্গ বিজেপি আসলে বাঘের পিঠেই চেপে বসছে। অনেকে বলছেন, ডিসেম্বরে বড় কোনও ধামাকা না দেখাতে পারলে বিজেপি পঞ্চায়েত ভোট করার লোক পাবে না। 
ফাঁকা আওয়াজ দেওয়ায় বিজেপির ধারেকাছে কেউ নেই। ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের সময় থেকে শুরু হয়েছিল ডায়ালগবাজি। দিল্লির নেতারা বাংলায় এসে হুঙ্কার দিয়েছিলেন, লোকসভা নির্বাচনের রেজাল্ট যেদিন বেরবে তার এক মাসের মধ্যেই পড়ে যাবে মমতা দিদির সরকার। বিপুল শক্তি নিয়ে কেন্দ্রের ক্ষমতায় এসেছিল বিজেপি। কিন্তু তৃণমূল সরকারের গায়ে আঁচড় পর্যন্ত কাটতে পারেনি। 
একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আগেও তৃণমূলকে ভাঙার জন্য আদাজল খেয়ে নেমেছিল বিজেপি। জেলযাত্রার ভয়ে অনেকেই বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন। তা দেখে উৎসাহিত নরেন্দ্র মোদি দাবি করে বসেছিলেন, তাঁর সঙ্গে ৫০জন তৃণমূল বিধায়ক যোগাযোগ রাখছেন। কিন্তু দলবদলু বিধায়কের সংখ্যা তার ধারেকাছেও পৌঁছয়নি।
বিজেপি প্রথমে লক্ষ্য স্থির করে। তারপর ঢাকঢোল পিটিয়ে তা প্রচার করে। উদ্দেশ্য, বিরোধী শিবিরের উপর চাপ সৃষ্টি। কৌশল লা-জবাব। কিন্তু লক্ষ্যভেদ করতে পারে না। এটাই বিজেপির ট্রাজেডি! একুশের নির্বাচনী প্রচারে বিজেপি দু’শোর বেশি আসন পাবে বলে গলা ফাটিয়েছিল। কিন্তু পেয়েছিল মাত্র ৭৭টা। 
তিনবারের চেষ্টায় মহারাষ্ট্র দখলের পরই বিজেপি ঝাড়খণ্ড, দিল্লি, বাংলা দখলের হুঙ্কার ছেড়েছিল। সেই লক্ষ্য পূরণ হয়নি, উল্টে বিহার বিজেপির হাতছাড়া হয়েছে। বিধায়ক কিনে ঝাড়খণ্ড দখলের চেষ্টা করতে গিয়ে বিজেপির মুখ পুড়েছে। দিল্লিতেও সেই চেষ্টা হয়েছে ব্যর্থ। এবার বাংলায় ডিসেম্বরেই সরকার ফেলার হুমকি। তবে অনেকে বলছেন, বিজেপি নেতারা মুখে যা বলেন বাস্তবে ঘটে ঠিক তার উল্টো। কেবল মিলে যায় সিবিআই, ইডি নিয়ে তাদের করা ভবিষ্যদ্বাণী। কারণ দিল্লির কর্তাদের তৈরি করে দেওয়া রুটম্যাপ ধরেই চলতে অভ্যস্ত কেন্দ্রীয় এজেন্সি। 
নতুন কিছু করাটা নরেন্দ্র মোদি ও অমিত শাহের নেশা। তারজন্য বিজেপি হাঁটে উল্টো পথে। সব রাজনৈতিক দল মানুষের মন জয় করে ভোটে 
জিতে সরকার গড়ে। আর বিজেপি মানুষকে চটিয়ে ভোটে হারে। তারপর বিধায়ক ভাঙিয়ে ক্ষমতা দখল করে। বিজেপি পায়ের মাপে জুতো না কিনে, জুতোর মাপে পা তৈরি করতে ভালোবাসে। তাই তদন্তের আগেই ঠিক করে দেয়, কোথায় হানা দিতে হবে, আর কাকে কাকে গ্রেপ্তার করতে হবে। কেন্দ্রীয় এজেন্সিও সেটাই অনুসরণ করে। 
বিজেপির অন্দরের খবর, পার্থ চট্টোপাধ্যায় গ্রেপ্তার হওয়ায় তাদের খুব একটা ফায়দা হয়নি। ক্ষীরটা খেয়ে নিয়েছে বামেরা। কিন্তু অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে হিট করতে পারলে তার পুরো বেনিফিট পাবে বিজেপি। তাই অভিষেকের উইকেটটা গেরুয়া শিবিরের কাছে খুব মূল্যবান। তারজন্য তাঁকে দু’দুবার দপ্তরে ডেকে ম্যারাথন জেরা করেছে ইডি। কিন্তু বাগে আনতে পারেনি। তাই তৃণমূলের সেকেন্ড ইন কমান্ডের ঘনিষ্ঠ আত্মীয়দের জালে তুলতে চাইছে কেন্দ্রীয় এজেন্সি। আর সেটা করতে গিয়েই এমন সব কাণ্ড করছে যার জন্য আদালতে গিয়ে ভুল স্বীকার করতে বাধ্য হচ্ছে।
প্রথম থেকেই কেন্দ্রীয় এজেন্সির বিরুদ্ধে আঙুল তুলেছিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অভিযোগ, মানুষের রায়ে পরাজিত বিজেপি সিবিআই, ইডি লাগিয়ে তৃণমূলকে শায়েস্তা করতে চাইছে। প্রতিহিংসার রাজনীতি করছে। অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় প্রকাশ্যে ঘোষণা করছেন, তাঁর বিরুদ্ধে দশ পয়সার দুর্নীতি প্রমাণ করতে পারলে তিনি নিজে ফাঁসির মঞ্চে চলে যাবেন। তাঁর অভিযোগ, নরেন্দ্র মোদি সরকারের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর জন্যই তাঁকে হেনস্তা করা হচ্ছে।
কলকাতা হাইকোর্টে ইডির দাখিল করা হলফনামায় তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্বের তোলা সেই অভিযোগই মান্যতা পেল। অভিষেকের শ্যালিকাকে কলকাতা এয়ারপোর্টে আটকে রাখা যে ভুল পদক্ষেপ, তা 
ইডির আইনজীবী লিখিতভাবে স্বীকার করেছেন। 
তিনি আদালতে জানিয়েছেন, ‘মেনকা গম্ভীরকে কলকাতা বিমান বন্দরে আটকে রাখা ঠিক হয়নি। 
তবে এটা ইচ্ছাকৃত নয়। ঘটনাকে হয়রানি হিসেবে ব্যাখ্যা করা যেতে পারে।’ 
কেন্দ্রীয় এজেন্সি প্রভূত ক্ষমতার অধিকারী। 
তার সেই ক্ষমতাকে বিজেপি নেতৃত্ব দলীয় স্বার্থে 
কাজে লাগাচ্ছে। কেন্দ্রীয় এজেন্সির কাঁধে ভর দিয়ে ম্যাচ জিততে চাইছে। কিন্তু বিরোধী শিবিরের বাঘা বাঘা ব্যাটসম্যানকে আউটের দায়িত্ব যাদের উপর দিয়েছে, তারাও চাপ নিতে পারছে না। তাই মাঝেমধ্যেই করছে ‘নো বল’। তাতে বিরোধীরা পেয়ে যাচ্ছে ফ্রি হিটের সুযোগ। 
প্রত্যাশার চাপ কাকে বলে, তা হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছেন কেন্দ্রীয় এজেন্সির কর্তারা। আসমুদ্র হিমাচল বিরোধী শিবিরকে দুরমুশ করার দায়িত্ব তাঁদের কাঁধে চাপিয়ে  দিয়েছে বিজেপি। নেতৃত্বের সেই প্রত্যাশা পূরণের প্রবল চাপের মুখে অনেক সময়ই তাঁরা ধরে আনার বদলে বেঁধে আনছেন। ফলে ক্রমশ স্পষ্ট হয়ে যাচ্ছে, নিরপেক্ষ তদন্তের চেয়ে প্রভুদের খুশি করাই কেন্দ্রীয় এজেন্সির লক্ষ্য। তাতে প্রশ্নের মুখে পড়েছে তাদের বিশ্বাসযোগ্যতা।
বঙ্গ বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্বের মুখ দেখাদেখি প্রায় বন্ধ। তা সত্ত্বেও তিন শীর্ষ নেতা এক সুরে বলেছেন, ডিসেম্বরে রাজ্যের সরকার ভাঙছে। কিন্তু বিবিধের মাঝে এমন মিলনটা হল কী করে? কারণ সুর বেঁধে দিয়েছে দিল্লি। তাদের কাছে বঙ্গের কর্মীদের চাঙ্গা করার এটাই একমাত্র রাস্তা। সুর বেঁধে দিলেও কথাগুলি ভিন্ন। তাই খুব ভালো করেই বোঝা যাচ্ছে, সবটাই ফাঁকা আওয়াজ। 
বিজেপি নেতাদের কথা এখন আর দলের কর্মী-সমর্থকরাও বিশ্বাস করেন না। সেইজন্যই ময়দানে নামানো হয়েছে মিঠুন চক্রবর্তীকে। মিঠুনের দাবি, তাঁর সঙ্গে তৃণমূল কংগ্রেসের অনেক বিধায়ক যোগাযোগ রাখছেন। তবে দল পচা আলু চাইছে না, বেছে বেছে ভালো আলু নিতে চাইছে। 
কিন্তু দিলীপ ঘোষের কথায় স্পষ্ট হয়েছে, বিজেপির সঙ্গে ভালো বা খারাপ কোনও ‘আলু’ই যোগাযোগ রাখছে না। অর্থাৎ পুরোটাই ফাঁকা আওয়াজ। বিরোধী শিবিরের উপর মনস্তাত্ত্বিক চাপ সৃষ্টির এও এক কৌশল।
অনেকে অবশ্য বলছেন, ডিসেম্বরে তৃণমূল সরকার ভেঙে যাবে বলে বিজেপি যে প্রচার চালাচ্ছে, তার পিছনেও রয়েছে একটা অঙ্ক। রাজ্যের কয়েকজন 
মন্ত্রী সহ ১৯ জন তৃণমূল নেতার সম্পত্তি বৃদ্ধির মামলায় ইডিকে যুক্ত করার নির্দেশ দিয়েছিল হাইকোর্ট। তাতেই উৎফুল্ল গেরুয়া শিবির ভেবেছিল, তদন্তের সূত্র ধরেই ঘাসফুল শিবিরকে আতঙ্কিত করা যাবে। আর সেই ভয়ে তৃণমূলের বিধায়করা মহারাষ্ট্রের পথে হাঁটবেন। বাধ্য হবেন বিজেপির সঙ্গে হাত মেলাতে। কিন্তু সুপ্রিম কোর্ট তৃণমূল নেতাদের সম্পত্তি বৃদ্ধির মধ্যে কোনও অন্যায় খুঁজে পায়নি। তাই ইডিকে যুক্ত করার ব্যাপারে কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশ খারিজ করে দিয়েছে। সুপ্রিম কোর্টের এই রায়ে গেরুয়া শিবিরে নেমে এসেছে চরম হতাশা। 
তবে, বিজেপি নেতৃত্বকে আরও হতাশ করেছে পুজোর উদ্বোধনের বাজারে তাদের রেকর্ড সেনসেক্স পতন। দুর্গাপুজোর উদ্বোধনে তাদের কেউ ডাকছে না। এমনকী মোটা চাঁদা দিয়ে উদ্বোধক হতে পারেননি অনেকে। এই অবস্থায় পশ্চিম বর্ধমানের এক বিজেপি বিধায়ক সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বিনা আমন্ত্রণেই যাবেন মণ্ডপে মণ্ডপে। অর্থাৎ পুজোর আনন্দযজ্ঞেও বিজেপি অনাহূত। তাদের সঙ্গ সন্তর্পণে এড়িয়ে চলতে চাইছে সকলেই। হ্যাঁ, ‘গ্রাউন্ড জিরো’য় এটাই প্রকৃত চিত্র।
01st  October, 2022
রাজনীতি এমন করে মেলাতে পারে না কেন?

কিছুই হারায়নি। এই সুপ্রাচীন সংস্কৃতি আর স্বতঃস্ফূর্ত মিলনমেলা ঠিক যেমনটি ছিল তেমনই আছে। হাতের কাছেই নিখুঁত গোছানো টানটান। প্রবাসীর ঘরে ফেরা, রাত জেগে উদ্বেল ঠাকুর দেখা, ভোররাতে পায়ে ফোস্কা—সব একই আছে। গত দু’বছর বিশ্বব্যাপী মহামারীর আঘাত, ভোটের স্বার্থে মানুষে মানুষে বিভেদ তৈরির কুটিল ষড়যন্ত্র, মূল্যবৃদ্ধির ধাক্কা, কাজ হারানো শ্রমিকের কান্না, নেতাদের কথা না রাখা, এখানে ওখানে টাকার পাহাড় আবিষ্কার নিশ্চিতভাবে নাড়া দিয়েছে বঙ্গজীবনকে, কিন্তু বদলে দিতে পারেনি অনাবিল মনটাকে।
বিশদ

পরিবার বনাম পদযাত্রা:
শেষ চেষ্টা রাহুলের
সমৃদ্ধ দত্ত

রাহুল গান্ধীর মতো কঠিন লড়াইটা আর কেউ লড়ছেন না। কেন তাঁর এই লড়াইটা আকর্ষণীয়? কারণ, তিনি মাঠ ছেড়ে পালাচ্ছেন না। তিনি বারংবার ভুলুণ্ঠিত হচ্ছেন। তাঁকে নিয়ে প্রচুর হাসিতামাশা হয়। কিন্তু সব সহ্য করে এই শতাব্দীপ্রাচীন দলকে বাঁচিয়ে রাখা এবং আরও ঘুরে দাঁড়ানোর লড়াই চালিয়েই যাচ্ছেন। বহু রাজনৈতিক ভুল সিদ্ধান্ত নিয়ে, বহুবার বিশ্বাসঘাতকতার শিকার হয়ে অবশেষে ২০২২ সালে রাহুল গান্ধী সম্ভবত শেষ বাজিটি খেলতে নেমেছেন তাঁর দলের অস্তিত্ব রক্ষায়।
বিশদ

30th  September, 2022
অসুখের নাম হাবরিস সিনড্রোম!
মৃণালকান্তি দাস

বিশ্ব ইতিহাসে নিন্দিত শাসকদের চরিত্রের উপর বিস্তর গবেষণা করেছেন ব্রিটিশ রাজনীতিবিদ ও চিকিৎসক লর্ড ডেভিড ওয়েন। এই প্রবীণ ব্যক্তিত্ব ব্রিটিশ সরকারের ফরেন সেক্রেটারি ছাড়াও আরও গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করেছিলেন।
বিশদ

29th  September, 2022
দীর্ঘদিনের ঘাটতি পূরণের উদ্যোগ 

সাধারণ মানুষের আয়-রোজগারের ব্যবস্থা করার দিকেই আন্তরিক পদক্ষেপ করতে হবে মোদি সরকারকে। এই কাজ কেন্দ্র একা পারবে না। সব রাজ্য সরকারকে পাশে নিয়ে, তাদের পূর্ণ সহযোগিতাতেই করতে হবে। গণতন্ত্র এবং যুক্তরাষ্ট্রীয় ব্যবস্থার আদ্যশ্রাদ্ধের ভিতরে এরকম পথ কখনও ছিল না, এখনও নেই, ভবিষ্যতেও খুঁজে পাওয়া যাবে না।
বিশদ

28th  September, 2022
দাবিসর্বস্ব ‘চাঙ্গা অর্থনীতি’
শান্তনু দত্তগুপ্ত

প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বারবার বলেন, কংগ্রেস ৭০ বছর সরকারে থেকে কী করেছে? এ কথা ঠিক, কংগ্রেসের জমানায় জরুরি অবস্থা আছে, পাহাড়প্রমাণ দুর্নীতি আছে, খানকতক যুদ্ধও আছে। কিন্তু যে ভিতের উপর দাঁড়িয়ে ৫ লক্ষ কোটি ডলারের অর্থনীতির স্বপ্ন-ঘোষণা করেছেন, সেটা তৈরি কংগ্রেসেরই এক অর্থমন্ত্রীর—মনমোহন সিং। আপনার তো সরকারের একচ্ছত্র আধিপত্য পাওয়া মাত্র দেশের অর্থনৈতিক কাঠামোর খোলনলচে বদলে দেওয়া  উচিত ছিল। সেটাও আপনি করেননি।
বিশদ

27th  September, 2022
নেতা ও সভাপতি
পি চিদম্বরম

কংগ্রেস দলের অভ্যন্তরীণ নির্বাচন ঘিরে এক ধরনের অস্বাভাবিক এবং প্রায় গায়ে-পড়া গোছের আগ্রহ সৃষ্টি হয়েছে। দু’বছর আগে জে পি নাড্ডা যখন বিজেপির সভাপতি ‘নির্বাচিত’ হন তখন বিষয়টিকে সাধারণ বিজেপি কর্মীসহ ভারতের কেউই এবং অবশ্যই কংগ্রেস দলের কোনও সদস্য একটুও গুরুত্ব দেননি।
বিশদ

26th  September, 2022
কংগ্রেসের ভোটরঙ্গ ও চিতার অট্টহাসি!
হিমাংশু সিংহ

পরিবারই আশীর্বাদ, আবার পরিবারই অভিশাপ! তাকে বাদ দিয়ে কংগ্রেসে গণতন্ত্র প্রতিষ্ঠা আর বৃদ্ধ বয়সে আলেকজান্ডারের দাঁতের মাজন বেচা, প্রায় সমার্থক। নেহরু-গান্ধী পরিবার বাদে শতাব্দী প্রাচীন এই রাজনৈতিক প্ল্যাটফর্মটা অনেকটাই সোনার পাথরবাটির মতো! বিশদ

25th  September, 2022
বিজেপির গিমিক পলিটিক্স
বনাম ‘লালগুণ্ডা’
তন্ময় মল্লিক

শত্রুর শত্রু, আমার বন্ধু। এই নীতিতেই বিজেপি ও সিপিএমের মধ্যে গড়ে উঠেছিল পারস্পরিক বোঝাপড়া। এক সুরে বাঁধা ছিল মমতা বিরোধী লড়াই। বিজেপিকে দিয়েই সিপিএম তাদের ‘পথের কাঁটা’ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সরাতে চেয়েছিল। তাই শুরু হয়েছিল গোপন ক্যাম্পেন, ‘একুশে রাম ছাব্বিশে বাম’। তার পরিণতি? বিজেপি ৭৭, সিপিএম জিরো।
বিশদ

24th  September, 2022
প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক সিলেবাস
সমৃদ্ধ দত্ত

নরেন্দ্র মোদি কিন্তু একদিনের জন্যও নিজের অস্তিত্ব ও উপস্থিতি জনগণকে ভুলতে দিতে চান না। তাই নিয়ম হল, প্রতিদিনই কোনও না কোনও অনুষ্ঠানে ভাষণ দিচ্ছেন,  উদ্বোধন করছেন, এমনকী রাজ্যের ক্ষুদ্র প্রকল্পেরও সূচনা করছেন তিনি। ফলে ভারতবাসী রোজ তাঁর কথা শুনছে। অতীতের প্রধানমন্ত্রীরা ভাবতেন, কাজের মাধ্যমেই ইতিহাসে স্থান হয়। মোদি ভাবেন, কাজ করছি এই প্রচারটি এমন পর্যায়ে নিয়ে যেতে হবে, যাতে জনমনে বিভ্রম তৈরি হয় যে, হ্যাঁ, তাহলে বোধহয় সত্যিই কাজ হচ্ছে। ওই বিভ্রমই হবে ইতিহাস।
বিশদ

23rd  September, 2022
জ্ঞানবাপী মামলা, উত্তেজনার চোরাস্রোত
মৃণালকান্তি দাস

বিশ্ব হিন্দু পরিষদের সভাপতি অলোক কুমার নাকি উত্তেজনার চোরাস্রোতে ভাসছেন! ইতিউতি যা মন্তব্য করছেন তাতেই টের পাওয়া যাচ্ছে সেই উত্তেজনা। 
বিশদ

22nd  September, 2022
চিতা নিয়ে নৌটঙ্কি বনাম আত্মহত্যার পাঁচালি
সন্দীপন বিশ্বাস

এরাজ্যে শুরু থেকেই বিজেপির অস্তিত্ব অনেকটা নেতিয়ে যাওয়া বাসি কচুরির মতো। মোদি-শাহরা মাঝেমাঝে এসে কিছুটা গরম করে দিয়ে যান বটে, কিন্তু আবার তাঁরা দিল্লি ফিরে গেলেই এখানকার নেতৃত্ব নেতিয়ে পড়ে।
বিশদ

21st  September, 2022
মহাত্মা হওয়ার লড়াই!
শান্তনু দত্তগুপ্ত

কর্তৃত্বের সঙ্কট? নাকি অস্তিত্বের? ‘ভারত জোড়ো যাত্রা’র ১২ দিন পরও এই প্রশ্নটার উত্তর কিছুতেই মিলছে না। রাহুল গান্ধী হাঁটছেন। আমরাও দেখছি, শুনছি এবং বোঝার চেষ্টা করছি।
বিশদ

20th  September, 2022
একনজরে
ইউক্রেনের চারটি অঞ্চল অন্তর্ভুক্ত করেছে রাশিয়া। সেই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রসঙ্ঘের নিরাপত্তা কাউন্সিলে আনা খসড়া নিন্দা প্রস্তাবে ভোটদানে বিরত থাকল ভারত। তবে অবিলম্বে আলোচনার মাধ্যমে হিংসা বন্ধের দাবি জানিয়েছে ভারত।  ...

আগস্ট থেকে শুরু হয়েছিল একটু একটু করে দাম কমা। অক্টোবরেও রেশনে কেরোসিনের দাম কমতে চলেছে। রাষ্ট্রায়ত্ত তেল সংস্থাগুলি এ মাসে কেরোসিনের যে ‘ইস্যু প্রাইস’ নির্ধারণ ...

থিমের পুজো এবার নজর কাড়ছে গঙ্গারামপুর শহরের বাসিন্দাদের। শহরে বিগ বাজেটের পুজো উদ্যোক্তারা থিম পুজোর উপর ভর করে একে অপরকে টেক্কা দিচ্ছে। শিল্পীদের ভাবনায় তৈরি হয়েছে এসব থিম। গঙ্গারামপুর জ্বলন্ত অগ্নি সঙ্ঘ ক্লাবের এবারের ৪৭তম বর্ষের পুজোর থিম নারী। ...

শুক্রবার আইএসএল অভিযান শুরু করছে ইস্ট বেঙ্গল। প্রতিপক্ষ কেরল ব্লাস্টার্স। বুধবার কোচি পৌঁছনোর কথা ইভান গঞ্জালেস-শৌভিক চক্রবর্তীদের। ইস্ট বেঙ্গলের প্রস্তুতি প্রায় শেষ পর্যায়ে। শনিবার কোচ ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

যে কোনও কর্মেই একটু বাধা থাকবে। তবে উপার্জন মন্দ হবে না। ললিতকলায় ব্যুৎপত্তি ও স্বীকৃতি। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

আন্তর্জাতিক অহিংস দিবস
ভারতে গান্ধী জয়ন্তী
পথশিশু দিবস 
১৭৯০: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে আদমশুমারি শুরু হয়
১৮১৪: সমাজ সংস্কারক দক্ষিণারঞ্জন মুখোপাধ্যায়ের জন্ম
১৮৬৬: হিন্দু সন্ন্যাসী ও রামকৃষ্ণ বেদান্ত মঠের প্রতিষ্ঠাতা স্বামী অভেদানন্দর জন্ম
১৮৬৮: কলকাতায় জেনারেল পোস্ট অফিস উদ্বোধন হয়
১৮৬৯: মহাত্মা গান্ধীর জন্ম
১৮৮৯: অভিনেতা ও নাট্যাচার্য শিশিরকুমার ভাদুড়ীর জন্ম
১৯০৪: দ্বিতীয় প্রধানমন্ত্রী লাল বাহাদুর শাস্ত্রীর জন্ম
১৯০৬: শিল্পী রাজা রবি বর্মার মৃত্যু
১৯১৭: কবি অক্ষয়চন্দ্র সরকারের মৃত্যু
১৯২৪: বিশিষ্ট চলচ্চিত্র পরিচালক তপন সিংহের জন্ম
১৯৫০ - কিংবদন্তি ফুটবলার ও কোচ সুভাষ ভৌমিকের জন্ম
১৯৬২: ‘টারজান’ খ্যাত হলিউড তারকা জো লারার জন্ম
১৯৭২: মুম্বই তথা তৎকালিন বোম্বেতে ভারতের প্রথম টেলিভিশন কেন্দ্র চালু হয়
১৯৯৬ : মাদার তেরেসা আমেরিকার সম্মানিক নাগরিকত্ব লাভ করেন



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৮০.৭৮ টাকা ৮২.৫৩ টাকা
পাউন্ড ৮৯.৫৪ টাকা ৯২.৭৬ টাকা
ইউরো ৭৮.৫৬ টাকা ৮১.৫৪ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৫০,৮৫০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৪৮,২৫০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪৯,০০০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৫৬,৭০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৫৬,৮০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১৫ আশ্বিন, ১৪২৯, রবিবার, ২ অক্টোবর, ২০২২।  সপ্তমী ৩৩/১০ রাত্রি ৬/৪৮। মূলা নক্ষত্র ৫০/৫১ রাত্রি ১/৫৩। সূর্যোদয় ৫/৩১/৫২, সূর্যাস্ত ৫/২০/৩২। অমৃতযোগ দিবা ৩/১৯ গতে ৮/৪০ মধ্যে পুনঃ ১১/৫০ গতে ২/৫৮ মধ্যে। রাত্রি ৭/৪৭ গতে ৯/২৪ মধ্যে পুনঃ ১১/৫১ গতে ১/২৮ মধ্যে পুনঃ ২/১৭ গতে উদয়াবধি। মাহেন্দ্রযোগ দিবা ৩/৪৬ গতে ৪/৩৩ মধ্যে। বারবেলা ৯/৫৮ গতে ১২/৫৬ মধ্যে। কালরাত্রি ১২/৫৮ গতে ২/২৯ মধ্যে। 
১৫ আশ্বিন, ১৪২৯, রবিবার, ২ অক্টোবর, ২০২২। সপ্তমী রাত্রি ৬/২২। মূলা নক্ষত্র রাত্রি ২/২৬। সূর্যোদয় ৫/৩২, সূর্যাস্ত ৫/২২। অমৃতযোগ দিবা ৬/২৬ গতে ৮/৪২ মধ্যে ও ১১/৪৪ গতে ২/৪৬ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৩৪ গতে ৯/১৫ মধ্যে ও ১১/৪৬ গতে ১/২৮ মধ্যে ও ২/১৮ গতে ৫/৩২ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ দিবা ৩/৩১ গতে ৪/১৬ মধ্যে। 
৫ রবিউল আউয়ল

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
শারদ শুভেচ্ছা ও ছুটি
দেবীর আবাহনে গোটা বাংলা মেতেছে উৎসবের আনন্দে। শারদোৎসব উপলক্ষে ‘বর্তমান’-এর সকল ...বিশদ

04:00:00 AM

সাংসদ পদ ছাড়লেন খাড়্গে
কংগ্রেস প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের আগেই রাজ্যসভা থেকে পদত্যাগ করলেন কংগ্রেস নেতা ...বিশদ

01-10-2022 - 02:42:50 PM

দিল্লিতে পিইউসি ছাড়া মিলবে না তেল
২৫ অক্টোবরের পর থেকে দূষণ নিয়ন্ত্রণের ছাড়পত্র  ছাড়া দিল্লিতে পাওয়া ...বিশদ

01-10-2022 - 02:32:37 PM

চিকিৎসক নীলরতন সরকার ও সঙ্গিতজ্ঞ শচীনদেব বর্মণের জন্মদিনে শ্রদ্ধা জানাচ্ছেন মন্ত্রী অরূপ রায়

01-10-2022 - 01:21:00 PM

ভারতে বন্ধ করা হল পাকিস্তানি সরকারের টুইটার অ্যাকাউন্ট

01-10-2022 - 12:54:30 PM

ভারতীয় সংস্থার ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করল আমেরিকা
ইরান থেকে তেল কেনার জন্য একটি ভারতীয় কোম্পানিকে নিষেধাজ্ঞা আরোপ ...বিশদ

01-10-2022 - 12:42:02 PM