বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
বিনোদন
 

জঙ্গলের হত্যালীলার গভীর ক্ষত

• গাছেরও প্রাণ আছে। জঙ্গলেরও আছে চোখ। সেই চোখ কখনও বাজপাখি হয়ে, কখনও বাঘ বা চিতা হয়ে, হরিণ, বানর বা কাঠবিড়ালি হয়ে দেখে গেল ‘পোচার’! যেন লক্ষ্য রাখল, তাদের হত্যালীলা নিয়ে পরিচালক যে ওয়েব সিরিজ করার পরিকল্পনা করেছেন, তা কতটা সম্ভব হল, কতটা সার্থক হল, কতটা নিঁখুত হল, রেখে গেল কতটা গাঢ়, দীর্ঘ, গভীর ক্ষত! 
নির্ভয়া হত্যা নিয়ে ‘দিল্লি ক্রাইম’ তৈরি করে ওয়েব সিরিজে আত্মপ্রকাশ করেছিলেন তিনি। বুঝিয়ে দিয়েছিলেন, আমি হলাম রিচি মেহতা। শুধু থাকতেই আসিনি, ভারতীয় সিনেমা ও সিরিজের ইতিহাসে নিজের জন্য আলাদা পরিচ্ছদ বরাদ্দ করতে এসেছি। সেই পরিকল্পনা ‘পোচার’ তৈরি করে পাকাপাকি করে ফেললেন রিচি। যা করেছেন, তা আর দক্ষিণী, বলিউড বা ভারতীয় সিরিজে সীমাবদ্ধ রইল না। প্লট, দৃশ্যায়ন, থ্রিলারের টানটান ভাব, বন্যপ্রাণ নিয়ে গভীর আন্তরিকতা, আন্তর্জাতিক পশু পাচারচক্র, সেই টাকা সন্ত্রাসবাদে ব্যবহার হওয়া—সব মিলিয়ে হয়ে উঠল এক আন্তর্জাতিক ওয়েব সিরিজ। মূলস্রোতের কাজেও তিনি ‘সমান্তরাল’ সিনেমার এমন সব রূপক ব্যবহার করেছেন, যা করতে বুকের পাটা লাগে। কার্যনির্বাহী প্রযোজনা করে নিশ্চয়ই মুচকি হাসছেন আলিয়া ভাটও। নতুন ভূমিকায় অল্প বয়সেই দূরদর্শিতার পরিচয় দিলেন। 
সত্য ঘটনা অবলম্বনে তৈরি সিরিজটির প্রেক্ষাপট কেরল। দাঁতের লোভে চোরাশিকারীদের হাতে ২০১৫ সালে ১৮টি হাতিকে নৃশংসভাবে খুন করা ও তার তদন্ত করে দিল্লি ও দেশের বাইরে ছড়িয়ে থাকা আন্তর্জাতিক পাচারচক্রের মাথাদের খোঁজার চেষ্টা। দিল্লির এক স্পর্শকাতর জায়গা থেকে উদ্ধার করা ৫০০ কেজি হাতির দাঁত ও সামগ্রী। যা কিনা ভারতে পাচারদ্রব্য উদ্ধারের এখনও পর্যন্ত সবচেয়ে বড় কেস! 
কেরলের ঘন, গভীর, অনন্যসুন্দর অরণ্যে শ্যুটিং হয়েছে। ওস্তাদ পরিচালক, অভিনেতা-অভিনেত্রী, সিনেমাটোগ্রাফার—প্রত্যেকেই বুঝিয়ে দিয়েছেন, আসলে এটা কোনও শ্যুটিংই নয়। যা ঘটেছিল তা যেন তখনই ক্যামেরায় তোলা ছিল। ৯ বছর পর সেই স্মৃতির ‘লাইভ’ আমাজন প্রাইমে ছেড়েছেন রিচি! 
একজন নৃশংস পাচারকারীর কন্যা ও পাচার তদন্তের প্রধান তদন্তকারী, রেঞ্জ অফিসার মালার ভূমিকায় মালায়ালম অভিনেত্রী রঞ্জিতা মেনন অসাধারণ। অবশ্য কে অসাধারণ নন! বন্যপ্রাণ সংরক্ষণকর্মী অ্যালনের ভূমিকায় মালায়ালম অভিনেতা রোশন ম্যাথিও, পাচারতদন্তের মুখ কেরল বনবিভাগের ফিল্ড ডিরেক্টর নীল তথা বাঙালি অভিনেতা দিব্যেন্দু ভট্টাচার্য—পাচারকারীদের ভূমিকায় অভিনয় করা জ্ঞাত-অজ্ঞাত কুশীলবরাও অসাধারণ। 
সরকারি তদন্ত কীভাবে চলে, সীমাবদ্ধতার মধ্যে কীভাবে নিজেকে বাজি রেখে প্যাশনের সঙ্গে কাজ করে যান তিন-চার জন, সমাজের উপরমহলের একাংশের চাহিদা ও জোগানের মাঝে কতজন আছেন, কার কী ভূমিকা, পাচারকারীদের বন্য হিংস্রতা এবং তারই মাঝে আবার সন্তানের জন্য অপত্যস্নেহের বিচিত্র চরিত্র, তদন্তকারীদের পরিবারের নিজস্ব গল্প—কোনও ডিটেলিংই বাদ রাখেননি পরিচালক। হাতি শিকারের ভয়ঙ্কর দৃশ্য পর্যন্ত দেখিয়ে জোরে জোরে কড়া নাড়তে চেয়েছেন আমাদের বরফ হয়ে জমে যাওয়া মস্তিষ্ক ও হৃদয়ের প্রকোষ্ঠে। যেন বলছেন, ‘বোধবুদ্ধি হল?’
বিশ্বজিৎ দাস

28th     February,   2024
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ