Bartaman Patrika
সম্পাদকীয়
 

বোধোদয় হবে কি?

বলা হচ্ছিল, পাঁচ রাজ্যের ভোট নাকি আসলে ২০২৪-এর লোকসভা ভোটের ‘সেমি ফাইনাল’। এই ভোটের যে ফলাফল উঠে এল তাতে ফাইনাল-এ নরেন্দ্র মোদির ললাট লিখন এখনই পড়ে ফেলতে পারছেন অনেকে। গেরুয়া শিবিরের অন্তত সেরকমই দাবি। যদিও এবছর কর্ণাটক ও হিমাচলপ্রদেশ হাতছাড়া হওয়ার পর মোদির ভাবমূর্তি নিয়ে বড়সড় প্রশ্ন উঠে গিয়েছিল। বিরোধীদের ‘ইন্ডিয়া’ জোটের সলতে পাকানোও তারপরেই শুরু। জোটের নড়াচড়া দেখে এই বার্তাই দৃঢ় হচ্ছিল যে, ‘আব কি বার মোদি সরকার’ বোধহয় পদ্মশিবিরের কাছে অধরাই থেকে যাবে। সন্দেহ নেই, সেই ভাবনায় আপাতত জল ঢেলে দিয়েছে সেমি ফাইনালের এই ফলাফল। ফের আলোচনার কেন্দ্রে চলে এসেছে ‘মোদি ম্যাজিকের’ কথা। যদিও রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একাংশের মতে, বিধানসভা ও লোকসভার ভোট এক নয়। তাছাড়া অতীতের একাধিক নজির বলছে, কোনও রাজ্যে বিধানসভা ভোটে ভালো ফল করেও লোকসভায় সেই দলকে চাঁদমারি ঠেকিয়েছে জনগণ। কিন্তু এই ব্যাখ্যার বাইরেও বাস্তব সত্যটা হল, পাঁচ রাজ্যের ফলাফলের পর ‘অ্যাডভান্টেজ’ বিজেপি। তাই লোকসভা ভোট নিঃসন্দেহে বিরোধীদের কাছে অত্যন্ত বড় চ্যালেঞ্জ। এই চ্যালেঞ্জ ফলপ্রসূ করতে  হলে জোটের আঞ্চলিক দলগুলিকে আরও বেশি গুরুত্ব দিতে হবে। জোট শরিকদের নিজ নিজ দলীয় ক্ষুদ্র স্বার্থ বিসর্জন দিয়ে বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ফর্মুলা অক্ষরে অক্ষরে মেনে জোটবদ্ধ হয়েই লড়াই চালাতে হবে। মনে রাখা দরকার, এখনও বিজেপির হাতে রয়েছে অযোধ্যা রাম মন্দির উদ্বোধন। একথা সকলেরই জানা, মন্দির রাজনীতি মোদি-শাহদের অত্যন্ত পছন্দের বিষয়। যথাযথভাবে ধর্মীয় আবেগ উস্কে দিতে পারলে তা যে অনেকসময় আফিমের মতো কাজ করে তা বারবার প্রমাণিত। ভোটের বাজারে এই ব্রহ্মাস্ত্রকে কাজে লাগাতে অযোধ্যার রাম মন্দির উদ্বোধন তাই গেরুয়া শিবিরের সেরা বাজি। এবং এই অস্ত্রে শান দিতে দেড় মাস ধরে উৎসব করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। এহেন পরিস্থিতিতে মোদি সরকারের ব্যর্থতা, বেকারি, মূল্যবৃদ্ধি, অপশাসন, অর্থনীতির অধোগতির প্রচার দিয়ে মোকাবিলা করতে হলে বিরোধী জোটকে সর্বশক্তি প্রয়োগের চ্যালেঞ্জই গ্রহণ করতে হবে। কারণ রাজনীতিতে অসম্ভব বলে কিছু নেই। 
প্রশ্ন হল, এই পাঁচ রাজ্যের ভোটে আসলে বিজেপি জিতল, নাকি কংগ্রেস হারল? গত দু’মাস ধরে এই পাঁচ রাজ্যের ভোটের গতি প্রকৃতি নজর করলে দেখা যাবে, জোটের বড় শরিক কংগ্রেসের মধ্যে একটা জমিদারি ভাব। একথা এখন স্পষ্ট যে, গো-বলয়ে বিজেপির সঙ্গে সরাসরি লড়াইয়ে কংগ্রেস প্রায় হেরে ভূত। কিন্তু এই সারসত্যটা ভোটের আগে বুঝে যদি জোট শরিকদের সঙ্গে আসন সমঝোতা করে বিজেপির মুখোমুখি হওয়া যেত, তাহলে হয়তো এমনভাবে মুখ পুড়ত না কংগ্রেসের। কিন্তু সমাজবাদী পার্টির মতো শরিকদের আবেদন অগ্রাহ্য করে কংগ্রেস আসলে নিজেই নিজের বিপদ ডেকে এনেছে। তাই রাহুল-প্রিয়াঙ্কা-মল্লিকার্জুন খাড়্গেরা এই পরাজয়ে নিজেদের ব্যর্থতা এড়িয়ে যেতে পারেন না। এখনও সময় আছে। কংগ্রেসকে এটা বুঝতে হবে, শক্তিশালী ও প্রভূত ক্ষমতাশালী বিজেপি’র বিরুদ্ধে জোটবদ্ধ হয়েই তাদের লড়াই করতে হবে। ছাড়তে হবে দাদাগিরির মানসিকতা ও ছুঁৎমার্গ। কংগ্রেসের অভ্যন্তরীণ ব্যর্থতাই এই পরাজয়ের কারণ, ইন্ডিয়া জোটের নয়। তাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নীতি মেনে আসন সমঝোতা করে ‘একের বিরুদ্ধে এক’ ফর্মুলায় ইন্ডিয়া জোটকে লড়াই করা দরকার। সুতরাং, এই ভোটের ফলাফল থেকে শিক্ষা নিয়ে শীত ঘুম থেকে বেরিয়ে আসতে হবে কংগ্রেসকে। ইগো ছেড়ে এখন মমতার দেখানো পথেই হাঁটা উচিত কংগ্রেসের।
একথা ঠিক যে, ইন্ডিয়া জোটে সবচেয়ে বড় দল কংগ্রেস। একমাত্র তাদেরই সব রাজ্যে কম-বেশি সংগঠন আছে। কিন্তু এর পাশাপাশি এটাও ঠিক, বাংলায় পরপর তিনবার বিজেপিকে হারিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দল প্রমাণ করেছে বিজেপি অপরাজেয় নয়। পাঁচ রাজ্যে বিধানসভা ভোটে জোট গড়ে যদি কংগ্রেস লড়াই করত তাহলে হয়তো এই দিনটা দেখতে হতো না। ভোটের মধ্যে জোট বৈঠক ডাকলে তার একটা প্রভাব পড়ত ভোটারদের মনে। সে পথে না হাঁটায় এই ব্যর্থতার দায় বর্তাচ্ছে কংগ্রেসের উপর। এরজন্য ক্ষুব্ধ জোট শরিকদের কেউ কেউ। কংগ্রেসের ‘দাদাগিরি’ নিয়েও প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। একথা ঠিক, একে অপরের বিরুদ্ধে কাদা ছোড়াছুড়ি করে নিজেদের পায়ে কুডুল না মেরে আশা করা যায় ইন্ডিয়া জোট পরিস্থিতি পর্যালোচনা করবে। কারণ মহাজোটের যে শক্তি আছে তার নিরিখেই ২০২৪-এ তারা লড়াই করে উঠে আসারও ক্ষমতা ধরে। এর জন্য সবার আগে চাই জনগণের আস্থা অর্জন। ৩৪ বছরের সিপিএম শাসন থেকে বাংলাকে মুক্ত করার জন্য লড়াকু নেত্রী মমতার লড়াই ভোলবার নয়। সে পথেই হেঁটে সত্যিই ইন্ডিয়া জোট মোদিবাহিনীকে একটা সত্যিকারের চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিতে পারবে কি না—সময়ই তা বলবে।
চ্যালেঞ্জের মুখে নয়া বিশল্যকরণী
 

ভয়ঙ্কর কিছু ব্যাকটেরিয়ার আক্রমণে মানুষ, এমনকী পশুপাখিও গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ে। এমন রোগ সংক্রমণ অনেক ক্ষেত্রে তাদের মৃত্যুরও কারণ হয়। এইসব সমস্যা সাফল্যের সঙ্গে মোকাবিলায় চিকিৎসকদের প্রধান সহায়ক হয়েছে যে ওষুধ, তার নাম নিঃসন্দেহে অ্যান্টিবায়োটিকস। বিশদ

04th  December, 2023
স্বচ্ছতার প্রশ্নে বিদ্ধ শাসক

বিতর্ক শুরু হয়েছিল গোড়া থেকেই। এবার যুক্ত হল স্বচ্ছতার প্রশ্ন। মোদি জমানার দশ বছরে বোধহয় সরকারের সেরা ‘কীর্তি’ সেন্ট্রাল ভিস্তা প্রকল্প নির্মাণের সিদ্ধান্ত।
বিশদ

03rd  December, 2023
কুনাট্যের রকমফের

ন্যায্যপাওনার ক্ষেত্রে দেওয়ালের রং কখনও বাধা হতে পারে কি? সুস্থ মস্তিষ্কে এর উত্তর অবশ্যই ‘না’ হওয়া উচিত। কিন্তু দাতা যদি হয় নরেন্দ্র মোদির সরকার এবং রাজ্যে যদি কোনও বিরোধী সরকার থাকে, তাহলে সবই সম্ভব হতে পারে। বিশদ

02nd  December, 2023
গেরুয়া ভাঁওতার নয়া দফা

‘ভোট’-এর সঙ্গে লাগসই সেরা শব্দটি হল ‘ভাওঁতা’। বাংলার মাটিতে সবচেয়ে বেশি ভাওঁতা দেওয়া যায় ‘উদ্বাস্তু’ শ্রেণিকে। ভারতের স্বাধীনতা, থুড়ি দেশভাগের সঙ্গেই ওতপ্রোত হয়ে রয়েছে শব্দটি। স্বাধীনতা আন্দোলনে যে বাংলার অবদান অপরিমেয়, দেশভাগের মূল্য সেই প্রদেশকেই চোকাতে হয়েছে সবচেয়ে বেশি। বিশদ

01st  December, 2023
বিরলপ্রায় সাফল্য

সফল অভিযান। উত্তরকাশীর মরণফাঁদের অতল থেকে অবশেষে উদ্ধার করা গিয়েছে ৪১ জনকেই। সম্পূর্ণ অক্ষত অবস্থায়। মঙ্গলবার রাতে অবসান হয়েছে টানা ১৭ দিনের এক রুদ্ধশ্বাস লড়াইয়ের। শুধু ওই শ্রমিকরা এবং তাঁদের পরিবারগুলিই নয়, হাঁপ ছেড়ে বেঁচেছে সারা ভারতও। বিশদ

30th  November, 2023
বাংলাকে জব্দ করার নয়া ফিকির

‘ডাবল ইঞ্জিন সরকার’ তত্ত্ব হাজির হতেই মোদি-শাহদের মতিগতি বুঝে নেওয়া উচিত ছিল। তখনই পরিষ্কার হয়ে গিয়েছিল, দিল্লির এই শাসকের কাছে ‘ওরা’ অচিরেই ভয়ানক না-পছন্দের পাত্র হয়ে উঠবে। 
বিশদ

29th  November, 2023
কুমির ছানার গল্প

কুমির ছানা দেখানোর গল্প শোনেননি বা পড়েননি, এমন বাঙালি খুঁজে পাওয়া দুষ্কর। এক কুমিরের ছিল সাতটি ছানা। এক দুষ্টু শেয়াল কীভাবে ওই কুমিরকে দিনের পর দিন ঠকিয়ে বুদ্ধু বানাত তা নিয়েই গল্প এগিয়েছে।
বিশদ

28th  November, 2023
নয়া হিড়িক, আরও যন্ত্রণা

শুধু ‘ভেজাল’-এর জায়গায় ‘লাইন’ শব্দটি বসিয়ে, সুকান্ত ভট্টাচার্যের ‘ভেজাল’ ছড়াটিকে একটু বদলে নেওয়া যায়—‘‘লাইন, লাইন, লাইন রে ভাই, লাইন সারা দেশটায়,/ লাইন ছাড়া খাঁটি জিনিস মিলবে নাকো চেষ্টায়! … কলিতে ভাই ‘লাইন’ সত্য লাইন ছাড়া গতি নেই।’’ বিশদ

27th  November, 2023
অপশাসন

হকের বেতনের টাকা চাইতে গিয়ে জুটল নিদারুণ প্রহার। সঙ্গে মালকিনের জুতো মুখে নেওয়ার অভিনব শাস্তি! ঘটনাস্থল, মোদি জমানায় ‘এগিয়ে থাকা’ রাজ্য গুজরাত। প্রধানমন্ত্রী এ রাজ্যের ভূমিপুত্রও বটে। খবরে প্রকাশ, অভিযুক্ত ব্যবসায়ী মহিলার সংস্থায় ১৬ দিনের কাজের বেতন চাওয়ায় এক যুবককে বেধড়ক মারধর করা হয়েছে। বিশদ

26th  November, 2023
প্রভুভক্তি নাকি চাটুকারিতা?

মাত্র মাস দু’য়েক আগের কথা। একশো দিনের কাজ, আবাস যোজনার মতো বিভিন্ন প্রকল্পে রাজ্যকে বঞ্চনার প্রতিবাদে অক্টোবরের গোড়াতে রাজধানী দিল্লিতে প্রতিবাদ কর্মসূচির ডাক দিয়েছিল তৃণমূল। সেই কর্মসূচিতে অংশ নিতে দলীয় নেতা-কর্মীরা দিল্লি যাবেন বলে একটা আস্ত ট্রেন ভাড়া চেয়ে চিঠি দিয়েছিল রাজ্যের শাসক দল। বিশদ

25th  November, 2023
বর্গি এল দেশে!

কেন্দ্র ও রাজ্যের ব্যবসা সংক্রান্ত আইনের ধারা, উপধারা সর্বমোট লক্ষাধিক! স্বভাবতই তাতে নাজেহাল ছোট ও মাঝারি ব্যবসায়ী মহল (এমএসএমই)। তাঁরা ব্যবসা বাড়াবেন কী, পুরনো ব্যবসা চালিয়ে যেতেই পদে পদে বাধা পাচ্ছেন বলে অভিযোগ। বিশদ

24th  November, 2023
যোগীর গর্জনই সার 

মহিলাদের বিরুদ্ধে অপরাধ দমনে মোদি সরকার ‘জিরো টলারেন্স’ নীতি ঘোষণা করেছে। সেইমতো, একটি স্পেশাল পোর্টাল চালু করে এনসিআরবি।
বিশদ

23rd  November, 2023
যে বৃদ্ধি অবাঞ্ছিত

বৃদ্ধিই কাম্য। ভারতও কিছু ক্ষেত্রে বৃদ্ধির মধ্যে আছে। যেমন—জনসংখ্যা, ক্ষুধা, বেকারত্ব এবং অবশ্যই নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিসপত্রের দাম।
বিশদ

22nd  November, 2023
মোদির বিশ্বাসযোগ্যতা তলানিতে

আচ্ছে দিনের স্বপ্ন ফেরি করে কুর্সিতে বসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন, ৫ লক্ষ কোটি ডলারের অর্থনীতির দেশ হবে ভারত। কমবে বেকারত্ব।
বিশদ

21st  November, 2023
প্রচেষ্টা, প্রার্থনা, আশা

চারধাম তীর্থপথ কেন্দ্রিক জাতীয় সড়ক প্রকল্পের অংশ। উত্তরাখণ্ডের উত্তরকাশী এলাকায় সিন্ধিয়ারা থেকে বারকোটের মধ্যে তৈরি করা হচ্ছে সাড়ে চার কিমি দীর্ঘ টানেল বা সুড়ঙ্গ।
বিশদ

20th  November, 2023
চেনা অস্ত্রে শান

আগামী ২৪ ডিসেম্বর শীতের কলকাতায় এক অভিনব আসর বসছে। নিজেদের ‘অরাজনৈতিক’ বলে দাবি করা কয়েকটি সংগঠনের উদ্যোগে ব্রিগেড ময়দানের সেই আসরে লক্ষ কণ্ঠে গীতা পাঠ হবে। এই মেগা ইভেন্টে প্রধান পুরোহিত হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির। বিশদ

19th  November, 2023
একনজরে
আজ, মঙ্গলবার বালুরঘাট এয়ারপোর্ট পরিদর্শনে আসছে এয়ারপোর্ট অথরিটি অব ইন্ডিয়ার প্রতিনিধি দল। আজ সকাল ১০টা নাগাদ ওই প্রতিনিধি দল বালুরঘাট এয়ারপোর্ট পরিদর্শন করবে বলে জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে। ...

আমেরিকায় ফের শ্যুটআউট। এবার ডালাসের একটি বাড়িতে গুলিবিদ্ধ হয়ে চারজনের মৃত্যু হল। ...

পরিযায়ী শ্রমিকের কাজে গিয়ে উত্তরপ্রদেশে পথ দুর্ঘটনায় মৃত্যু হল সালার থানার খাড়েরা গ্রামের এক যুবকের। মৃতের নাম বাদশা শেখ (২৪) । গ্রামের অঞ্চলপাড়ার বাসিন্দা ছিলেন তিনি। মাসতিনেক আগে তিনি রাজমিস্ত্রির কাজে সেখানে গিয়েছিলেন। ...

জবজের চিত্রগঞ্জ কালীবাড়িতে ভক্ত ও দর্শনার্থীদের আনাগোনা দিনে দিনে বাড়ছে। দূর-দূরান্ত থেকে প্রতিদিন হাজার হাজার মানুষ ছুটে আসছেন। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

যে কোনও ব্যবসায় শুভ ফল লাভ। বিশেষ কোনও ভুল বোঝাবুঝিতে পারিবারিক ক্ষেত্রে চাপ। অর্থপ্রাপ্তি হবে। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

বিশ্ব মাটি দিবস
১৩৬০: ফ্রান্সের মুদ্রা ফ্রাঁ চালু হয়
১৮৫৪: রিভলবিং থিয়েটার চেয়ারের পেটেন্ট করেন অ্যারোন অ্যালেন
১৮৭৯: স্বয়ংক্রিয় টেলিফোন সুইচিং সিস্টেম প্রথম পেটেন্ট হয়
১৯০১: মার্কিন চলচ্চিত্র প্রযোজক, নির্দেশক ও কাহিনীকার ওয়াল্ট ডিজনির জন্ম
১৯১১: প্রবাদপ্রতিম গীতিকার ও কবি প্রণব রায়ের জন্ম
১৯১৩: বাঙালি চিত্রশিল্পী গোপাল ঘোষের জন্ম
১৯২৪: গীতিকার গৌরীপ্রসন্ন মজুমদার জন্ম
১৯৩২: অভিনেত্রী নাদিরার জন্ম
১৯৩৫: কলকাতায় মেট্রো সিনেমা হল প্রতিষ্ঠা হয়
১৯৩৯: অভিনেত্রী বাসবী নন্দীর জন্ম
১৯৪০: সঙ্গীত শিল্পী গুলাম আলির জন্ম
১৯৪৩: জাপানী বোমারু বিমান কলকাতায় বোমা বর্ষণ করে
১৯৫০: বিপ্লবী, দার্শনিক ও আধ্যাত্মসাধক ঋষি অরবিন্দের প্রয়াণ
১৯৫১: শিল্পী ও লেখক অবনীন্দ্রনাথ ঠাকুরের মৃত্যু
১৯৬৯: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান পূর্ব-পাকিস্তানের নামকরণ করেন ‘‘বাংলাদেশ ”
১৯৮৫: ক্রিকেটার শিখর ধাওয়ানের জন্ম
১৯৯৯: যানজট এড়াতে ব্যাংককে আকাশ ট্রেন সার্ভিস চালু
১৯৯৯: মিস ওয়ার্ল্ড হলেন যুক্তামুখী
২০১৩: দক্ষিণ আফ্রিকার বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনের অবিসংবাদিত নেতা নেলসন ম্যান্ডেলার মৃত্যু



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৮২.৪৫ টাকা ৮৪.১৯ টাকা
পাউন্ড ১০৩.৯২ টাকা ১০৭.৩৯ টাকা
ইউরো ৮৯.১৩ টাকা ৯২.৩০ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৬৩,৮০০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৬৪,১০০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৬০,৯৫০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৭৬,৭০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৭৬,৮০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১৮ অগ্রহায়ণ, ১৪৩০, মঙ্গলবার, ৫ ডিসেম্বর ২০২৩। অষ্টমী ৪৬/১৯ রাত্রি ১২/৩৮। পূর্বফল্গুনী নক্ষত্র ৫৩/৪৯ রাত্রি ৩/৩৮। সূর্যোদয় ৬/৬/১৪, সূর্যাস্ত ৪/৪৭/৪২। অমৃতযোগ দিবা ৬/৪৮ মধ্যে পুনঃ ৭/৩২ গতে ১১/৫ মধ্যে। রাত্রি ৭/২৮ গতে ৮/২১ মধ্যে পুনঃ ৯/১৪ গতে ১১/৫৪ মধ্যে পুনঃ ১/৪১ গতে ৩/২৭ মধ্যে পুনঃ ৫/১৪ গতে উদয়াবধি। বারবেলা ৭/২৭ গতে ৮/৪৭ মধ্যে পুনঃ ১২/৪৭ গতে ২/৮ মধ্যে। কালরাত্রি ৬/২৮ গতে ৮/৭ মধ্যে। 
১৮ অগ্রহায়ণ, ১৪৩০, মঙ্গলবার, ৫ ডিসেম্বর ২০২৩। অষ্টমী রাত্রি ১১/২। পূর্বফল্গুনী নক্ষত্র রাত্রি ২/৫৯। সূর্যোদয় ৬/৮, সূর্যাস্ত ৪/৪৮। অমৃতযোগ দিবা ৭/৩ মধ্যে ও ৭/৪৫ গতে ১১/৬ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/৩৫ গতে ৮/২৯ মধ্যে ও ৯/২৩ গতে ১২/৪ মধ্যে ও ১/৫২ গতে ৩/৩৯ মধ্যে ও ৫/২৭ গতে ৬/৮ মধ্যে। বারবেলা ৭/২৮ গতে ৮/৪৮ মধ্যে ও ১২/৪৮ গতে ২/৮ মধ্যে। কালরাত্রি ৬/২৮ গতে ৮/৮ মধ্যে। 
২০ জমাদিয়ল আউয়ল।

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
বচসার জেরে গুলি চালানোর অভিযোগে উত্তরপ্রদেশে গ্রেপ্তার অভিনেতা ভূপিন্দর সিং, মৃত ১, জখম ৩

08:26:58 PM

তেলেঙ্গানার মুখ্যমন্ত্রী হচ্ছেন রেবন্ত রেড্ডিই, জানাল কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্ব

07:00:00 PM

ভাইফোঁটায় সলমন খানকে আমন্ত্রণ মমতার

06:56:35 PM

অনুষ্ঠানের সঞ্চালনার দায়িত্বে জুন মালিয়া, চূর্ণী গঙ্গোপাধ্যায়

06:45:00 PM

কেউ আমাদের ভাগ করতে পারবে না: মমতা

06:44:48 PM

বাংলা এখন ফিল্ম ডেস্টিনেশন হতে পারে: মমতা

06:43:53 PM