বিদেশ

আওয়ামি লিগ সাংসদ খুন কলকাতায়? নিউটাউনের অভিজাত আবাসন ঘিরে রহস্য

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: চিকিৎসা করাতে কলকাতায় এসে কি খুন হয়েছেন বাংলাদেশি সাংসদ? পড়শি দেশের জাতীয় সংসদের আওয়ামি লিগ সদস্য মহম্মদ আনোয়ারুল আজিম আনার (৫৬) ‘খুন হয়েছেন’, এমনটা দু’দেশের তদন্তকারীরা সূত্র মারফত জানতে পেরেছেন। কিন্তু আনুষ্ঠানিকভাবে দেহ উদ্ধার না হওয়ায় রহস্য ক্রমেই ঘনীভূত হচ্ছে। তদন্তে নেমেছে বাংলাদেশ পুলিস এবং ভারতের একাধিক কেন্দ্রীয় এজেন্সি ও রাজ্য সিআইডি। গত ১২ মে চিকিৎসার জন্য ওপারের দর্শনা (এপারের গেদে) সীমান্ত অতিক্রম করে এ রাজ্যে ঢোকেন খুলনার ঝিনাইদহ উপজেলার কালীগঞ্জের বাসিন্দা এই এমপি। ওঠেন পূর্ব পরিচিত গোপাল বিশ্বাস নামে বরানগরের বাসিন্দা এক স্বর্ণ ব্যবসায়ীর বাড়িতে। পরদিন সেখান থেকে নিউটাউনের অভিজাত আবাসনে যান তিনি। ছিলেন আমেরিকা প্রবাসী এক ব্যক্তির ভাড়ার ফ্ল্যাটে। তারপর থেকেই ফোনে যোগাযোগ করা যাচ্ছিল না এমপির সঙ্গে। বাংলাদেশে তাঁর পরিবারের লোকজনের কাছ থেকে খবর পেয়ে গত ১৮ মে বরানগর থানায় নিখোঁজ ডায়েরি করেন গোপালবাবু। প্রথমে বারাকপুর কমিশনারেট সিট গঠন করে তদন্ত শুরু করলেও, বুধবার থেকে মামলার ভার সিআইডির হাতে। বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের ‘বাহুবলী’ এই এমপির ‘খুন’ রহস্যকে ঘিরে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন সে দেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও।  
এদিকে বাংলাদেশ গোয়েন্দা বিভাগ সূত্রে খবর, সাংসদকাণ্ডে তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ধৃতরা পুলিসকে জানিয়েছে, তারাই নিউটাউনের আবাসনে খুন করেছে আওয়ামি লিগের ঝিনাইদহ-৪ আসনের সাংসদকে। তারপর সীমান্ত অতিক্রম করে নির্বিঘ্নে দেশে ফিরে এসেছে। বাংলাদেশ পুলিস জানিয়েছে, ধৃতদের বিরুদ্ধে সোনা, মাদক পাচার এবং হুন্ডি-হাওলা কারবারের অভিযোগ রয়েছে। তবে বুধবার গভীর রাত পর্যন্ত সিআইডি ও নিউটাউন পুলিস সূত্রে খবর, সাংসদের দেহের খোঁজ মেলেনি।  বাংলাদেশের বিদেশমন্ত্রী হাসান মাহমুদ সাংবাদিকদের সেকথা জানিয়েছেন। তবে তিনি এও বলেন, ‘এদেশে যে তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে, তারা খুনের কথা স্বীকার করেছে।’ ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিসের কাছে বাবাকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ দায়ের করেছেন আনোয়ারুল আজিমের মেয়ে মুমতারিন ফেরদৌস ডোরিন। কলকাতায় এসে নিউটাউন থানাতেও তিনি অভিযোগ জমা দেবেন বলে জানা গিয়েছে।   
বাংলাদেশে ‘আনার ভাই’ নামে পরিচিত এই ‘বাহুবলী’ সাংসদ।  ১৩ মে যে তিনি নিউটাউনের ওই আবাসনের ফ্ল্যাটে (৫৬-বি/ইউ) গিয়েছিলেন,  সিসি ক্যামেরার ফুটেজ সেই প্রমাণই দিচ্ছে। তবে আবাসন থেকে তাঁর বের হওয়ার কোনও ফুটেজ মেলেনি। তদন্তকারীরা বলছেন, নিউটাউনের ওই ফ্ল্যাটে ১৩ তারিখ বাংলাদেশের এমপির সঙ্গে এক মহিলা সহ আরও তিনজন ছিল। এমপিকে ছাড়া আবাসন থেকে একটি বড় ট্রলি ব্যাগ হাতে তাদের বেরিয়ে যাওয়ার ফুটেজও মিলেছে। ওই তিনজনই বাংলাদেশে ধরা পড়েছে বলে খবর। তাহলে এমপি’র দেহ গেল কোথায়? উত্তর হাতড়াচ্ছেন তদন্তকারীরা। গোপালবাবুর কথায়, ‘সাংসদ বলেছিলেন, ডাক্তার দেখিয়ে ভিআইপিদের সঙ্গে জরুরি কাজে দিল্লি যেতে হচ্ছে। সেখানে পৌঁছে হোয়াটসঅ্যাপে মেসেজও করেছিলেন। ফোনে যোগাযোগ করতে নিষেধ করা হয়েছিল।’ পাঁচদিন পরও খোঁজখবর না মেলায়, মিসিং ডায়েরি করা হয়। 
এমপি নিখোঁজের খবরে তৎপর হয় ঢাকা। দু’দেশের শীর্ষস্তরে আলোচনার  তদন্তে নামে বিভিন্ন এজেন্সি। এমপির মোবাইল ফোনের অবস্থান যাচাই করতে তদন্তকারীরা দেখেন, ১৩ মে নিউটাউনের অ্যাক্সিস মলে কিছুক্ষণ অপেক্ষা করে অ্যাকোয়াটিকার পাশে ‘সঞ্জীবা গার্ডেন’ নামে একটি আবাসনে যান আনোয়ারুল। অ্যাক্সিস মলের সিসি ক্যামেরার ফুটেজ বলছে, যাওয়ার আগে গাড়ি বদল করেন সাংসদ। সেই গাড়িতে আরও তিনজন ওঠেন। দু’জন পুরুষ ও একজন মহিলা। তাঁরা একসঙ্গেই আবাসনে এসেছিলেন। সিআইডি সূত্রের খবর, ওই ফ্ল্যাটের মালিক সন্দীপ রায় রাজ্য সরকারের আবগারি দপ্তরের অফিসার। সেই ফ্ল্যাটটি তিনি ভাড়া দিয়েছিলেন আফতাব উল জামান নামে এক আমেরিকা প্রবাসীকে। দালাল মারফত সেই ফ্ল্যাট পুনরায় ভাড়া নিয়েছিলেন বাংলাদেশি সাংসদ। এদিন সকালেই এক গোপন সূত্রে সিআইডিও জেনেছে, ‘খুন’ই হয়েছেন বাংলাদেশি এমপি। 
28d ago
কলকাতা
রাজ্য
দেশ
খেলা
বিনোদন
ব্ল্যাকবোর্ড
শরীর ও স্বাস্থ্য
বিশেষ নিবন্ধ
সিনেমা
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
আজকের দিনে
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
mesh

উচ্চশিক্ষায় নামী স্বদেশি/ বিদেশি প্রতিষ্ঠানে সুযোগ পেতে পারেন। স্ত্রীর স্বাস্থ্য বিষয়ে চিন্তা। কর্মে অগ্রগতি।...

বিশদ...

এখনকার দর
ক্রয়মূল্যবিক্রয়মূল্য
ডলার ৮২.৫৬ টাকা৮৪.৩০ টাকা
পাউন্ড১০৪.৩৩ টাকা১০৭.৮১ টাকা
ইউরো৮৮.০৪ টাকা৯১.১৭ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
*১০ লক্ষ টাকা কম লেনদেনের ক্ষেত্রে
দিন পঞ্জিকা