Bartaman Patrika
চারুপমা
 

সালঙ্কারা

বিয়ের সাজে গয়নার গুরুত্ব চিরকালের। টুকটাক বদল হলেও সাবেক নকশা এখনও বিয়ের কনেদের পছন্দ। কেমন গয়নার দিকে নজর দিচ্ছেন তাঁরা? বিশেষজ্ঞদের মতামত তুলে ধরলেন কমলিনী চক্রবর্তী।

বাঙালি বধূদের কাছে গয়নার চিরকালই স্ত্রীধন। ঩ঘরের ঘেরাটোপ ডিঙিয়ে বাঙালি কন্যারা রোজগেরে হয়ে উঠলেও তাই বিবাহকালে ‘স্ত্রীধন’-এর কমতি পড়ে না। এই প্রসঙ্গে শ্যামসুন্দর জুয়েলার্স-এর কর্ণধার রূপক সাহা বললেন, ‘আসলে স্ত্রীধন সর্বকালের সব মেয়ের কাছেই একটা বড় ভরসার জায়গা। পারিবারিক সমর্থন। বিয়ের মাধ্যমে যে নতুন জীবনে মেয়েটি পদার্পণ করতে চলেছে সেখানে সে একা নয়, বরং পরিবারের সকলের ভালোবাসায় পরিপূর্ণ হয়ে সে নতুন বাড়িতে নতুন জীবনে পা রাখুক এই কামনাই থাকে স্ত্রীধন বা বিয়ের গয়নার প্রতিটি স্তরে।’ ফলে বিয়ের গয়নার মধ্যে একটা আলাদা মাধুর্য রয়েছে, যা তার নকশায় প্রকাশ পায়।
আগেকার দিনে সুরক্ষার বন্ধন হিসেবে যে গয়নার কদর করতেন বাঙালি মহিলারা সেই সুরক্ষার বন্ধন আজও স্বর্ণালঙ্কারে অটুট রয়েছে। তবু এখনকার বিয়ের গয়নার নকশার নানা পরিবর্তন দেখা যায়। একটা সময় ছিল যখন লাল বেনারসিতে শোভিত হয়ে বঙ্গ কনে বউটির বিয়ের গয়না শুরু হতো মাথার সিঁথি দিয়ে। সোনার তারের কাজে মুক্ত ও অন্যান্য পাথর দেওয়া চওড়া সিঁথির সঙ্গে অনেক সময়ই আবার লাগানো থাকত কপালজোড়া টায়রা। তা অনেক সময় সিঁথির নকশার সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে গড়ানো হতো, কখনও বা একটু ভিন্ন নকশায়। অনেক কনে আবার খোঁপার সোনার জালিও বানাতেন। কেউ বা খোঁপার ফুল গড়াতেন সোনা ও মীনাকারি নকশায়। যুগ আর একটু আধুনিক হলে সিঁথি ও টায়রার বদলে এল সোনার মুকুট। ক্রমশ মুকুটের নকশায় পরিবর্তন আসতে লাগল। পাতের উপর ফুলেল নকশা ছাপিয়ে এল স্টোন ও ডায়মন্ডের কারুকাজ।
সেকালে ছিল কান বালার কদর। একটু মোটা চেনের মুখে ছোট সোনার ফুল লাগানো। তার থেকে গোলাকার বালার মতো দুল ঝুলছে। কিছুদিন পর এল কান পাশা। পুরো কান জোড়া গোলাকার পাশা।  পরিবর্তনের সঙ্গে সঙ্গে গোলাকারের বদলে অর্ধচন্দ্রাকার পাশাও দেখা দিল। কানবালার বদলে এল ঝুমকো। তা যদি বেশি ভারী করে গড়ানো হতো তাহলে তারই সঙ্গে টানা দেওয়া থাকত। অর্থাৎ ঝুমকোর মুখে একটা চেন লাগানো যেটা গিয়ে চুলের খোঁপায় গোঁজা। তাতে কানে অতিরিক্ত চাপ পড়ত না। 
এরপর হল নথ। নাকের এই গয়নায় কেউ বা পাথরের কাজও পছন্দ করছেন। কারও আবার শুধুই ছিলেকাটা সোনার রিং পছন্দ ছিল। কেউ হয়তো তাতেই মুক্তোর বাহুল্য পছন্দ করতেন। ক্রমশ বড় নথের বদলে এল নাকচাবি। এই গয়নার চল মোটামুটি কান পাশার সময়ই হয়েছিল। তাতে ফুল ও পাতার নকশাই মূলত দেখা যেত। কেউ বা নাকের গয়নায় নোলকও পরতে চাইতেন। এখনকার কনেদের পছন্দ কেমন? অঞ্জলি জুয়েলার্স-এর কর্ণধার অনর্ঘ্য চৌধুরী জানান, ‘বিয়ের গয়নায় আজও কনের চেয়ে মা কাকিমাদের মতামত বেশি থাকে। ফলে তাঁরা যেমন পছন্দ করেন তেমনই গয়নার নকশায় অদলবদল ঘটে। আজকাল তারের কাজের গয়না অনেকেই পছন্দ করছেন। অনেকে আবার সোনার সঙ্গে মুক্তোর কাজ চাইছেন। তবে আজকালকার কনেদের একটাই চাহিদা, গয়না যেন তাঁর ব্যক্তিত্বকে ফুটিয়ে তোলে।’ একই কথা বললেন রূপকবাবু। তাঁর কথায়, ‘বিয়ের গয়নায় যতই আধুনিক ছোঁয়া লাগুক না কেন, তা আজও সাবেক স্টাইলকে মাথায় রেখেই তৈরি করা হয়। ফলে বিয়ের গয়নায় সোনা নিয়ে বিশেষ পরীক্ষানিরীক্ষা কেউ পছন্দ করেন না। হলুদ সোনার গয়নাই বিয়ের ক্ষেত্রে এযুগের আধুনিকাদের কাছেও শ্রেষ্ঠ পছন্দ। নকশার ক্ষেত্রেও সনাতনী ও আধুনিকের মেলবন্ধন ঘটে।’ একটু বিশ্লেষণ করতে তিনি বলেন, আজকাল মাল্টিপারপাস গয়নার চল দেখা দিয়েছে। যেমন একটা নেকলেস তাকে কখনও গলাভরা হার হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে কখনও বা ছোট পার্টিওয়্যার হিসেবেও ব্যবহার করা হচ্ছে। একইভাবে কানের ঝুমকো দুলের ক্ষেত্রেও একটা ডিট্যাচেবল স্টাইল খুবই জনপ্রিয়। তাতে তিন বা চারটে লেয়ার থাকছে। সেগুলো সবই একে অপরের থেকে আলাদা। প্রয়োজনে তা একসঙ্গে লাগিয়ে পরছেন আধুনিকারা আবার চাইলে আলাদাভাবেও তা ব্যবহার করছেন। 
হাতের গয়নার ক্ষেত্রে এযুগের পছন্দের বাছবিচারে চূড় আর বালার কথাই বিশেষ করে জানালেন সেনকো গোল্ড অ্যান্ড ডায়মন্ডস-এর কর্ণধার জয়িতা সেন। তিনি বললেন, ‘একটা সময় ছিল বিয়ের কনে হাতে উঠত মানতাসা, রতনচূড়, সরু চুড়ি ও বলা। তারপর সরু সলিড সোনার চুড়ির বদলে একটু চওড়া পাতের মতো নকশার চুড়ির চল হল। এখন আবার চুড়ি আর বালার একটা মিলমিশ দেখা যাচ্ছে কনের হাতের গয়নায়। বালার নকশায় একটু আধুনিকতার ছোঁয়াও লেগেছে। গোল বালার পাশাপাশি একটু কোণ বিশিষ্ট ডিজাইনও দেখা যাচ্ছে। আবার নকশায় তারের কারুকাজ এখন জনপ্রিয়। অনেকে আবার তার আর জালের নকশা চাইছেন। একইসঙ্গে জিওমেট্রিক প্যাটার্নও এখন খুবই ইন।’ হাতের গয়নার ক্ষেত্রে কঙ্কণ ও বালার মিক্স অ্যান্ড ম্যাচ লক্ষ করা যাচ্ছে। আগেকার দিনে যেমন বালা জোড়ায় গড়ানো হতো, সেই চল আর নেই। এখন অধিকাংশ মহিলাই এক হাতে বালা পরেন। সেক্ষেত্রে বিয়ের সময় একই নকশায় একজোড়া বালা না গড়িয়ে বরং তাঁরা একটা বালার সঙ্গে একটা কঙ্কণ বানিয়ে নেন। অনেক কনেই এক হাতে ভরাট নকশার চূড় পরেন আর অন্য হাতে বালা চুড়ি ও কঙ্কণের মিলমিশে সাজতে পছন্দ করেন। 
হারের প্রসঙ্গে অনর্ঘ্য বলেন, লম্বা হারের চাহিদা চিরকালই ছিল, আজও আছে। গোট চেন বা জালের নকশা করা লম্বা হার যেহেতু বিভিন্ন পোশাকের সঙ্গে মানিয়ে যায়, সেহেতু এই ধরনের হার সব বয়সের মহিলা ও মেয়েদের কাছেই আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছে। শাড়ি ছাড়াও গাউন, লেহেঙ্গা, সারারা ইত্যাদি যে কোনও পোশাকের সঙ্গেই লম্বা হার মানানসই। এছাড়া বড় লকেট বা পেনডেন্ট এখনকার বিয়ের গয়নায় খাস পসন্দ। একটু পাতলা নকশার চেনের সঙ্গে বড় একটা লকেট। তার সঙ্গে ম্যাচ করা দুল এযুগের কনেরা চাইছেন।
হীরের গয়নার ক্ষেত্রে সকলেই জানান, ওটা এযুগের কনেদের বউভাতের পছন্দ। জয়িতা জানালেন, আজকালকার মেয়েরা বিয়ে বা বউভাতে পোশাক ও তার রং নিয়ে নানা এক্সপেরিমেন্ট করে। লালের বদলে রানি পিংক, মেরুন, বারগেন্ডি ইত্যাদি রঙের বেনারসি অনেকেই বিয়ের জন্য বেছে নেন। ফলে গয়নাতেও স্টোন ও ডায়মন্ড তাদের বিশেষ পছন্দ।  
09th  December, 2023
নবাবের বাড়িতে বাঙালি পোশাক

সম্প্রতি বলিউড তারকা সইফ আলি খানের পোশাক ডিজাইন করলেন অভিষেক রায়। কেমন ছিল সেই অভিজ্ঞতা, কথা বললেন অন্বেষা দত্ত। বিশদ

24th  February, 2024
নারকেল জলে চুলের যত্ন

ডাব ও নারকেল জল দিয়ে চুলের যত্নের হদিশ দিলেন বিশেষজ্ঞ। লিখছেন স্বরলিপি ভট্টাচার্য। বিশদ

17th  February, 2024
বেনারসি জ্যাকেট

শাড়ি বা অন্য পোশাকের সঙ্গে বেছে নিন মানানসই বেনারসি জ্যাকেট। কেমন সেই সাজ? বিশদ

17th  February, 2024
নানা রূপে বেনারসি

বেনারসির নকশা ও রূপের নানারকম নিয়ে মতামত জানালেন বিশেষজ্ঞরা। বিশদ

10th  February, 2024
ভালোবাসার মতো সুন্দর কিছু নেই

ভালোবাসা থেকে ভালো থাকার হদিশ দিলেন জয়া আহসান। শুনলেন স্বরলিপি ভট্টাচার্য। বিশদ

10th  February, 2024
শালে সুতোর নকশা
 

হাল্কা শীতে বাহারি শাল বা স্টোলে সুতোর কাজের ধরন বিষয়ে জানালেন কমলিনী চক্রবর্তী। বিশদ

03rd  February, 2024
নিজের মতো সুন্দর হোন

সৌন্দর্যচর্চা থেকে জীবনযাপনের ধরন— সবকিছু নিয়ে কথা বললেন মিমি চক্রবর্তী। লিখছেন স্বরলিপি ভট্টাচার্য। বিশদ

20th  January, 2024
চিনে নিন পচমপল্লি 

দক্ষিণ ভারতের জনপ্রিয় শাড়ি পচমপল্লি। এই শাড়ি বোনার কায়দা, রঙের ব্যবহার ও নকশার নতুনত্ব নিয়ে বিশেষজ্ঞদের সঙ্গে কথা বলে লিখেছেন কমলিনী চক্রবর্তী। বিশদ

13th  January, 2024
টোটার টিপস

অন্দর থেকে সুস্থ থাকলে সেটাই ফুটে উঠবে চেহারায়। টোটা রায়চৌধুরী-র সঙ্গে কথায় অন্বেষা দত্ত। বিশদ

13th  January, 2024
লিপস্টিকের ভালোমন্দ

রোজ লিপস্টিক ব্যবহার করা কি ঠিক? শর্মিলা সিং ফ্লোরা-র সঙ্গে কথা বলে লিখছেন স্বরলিপি ভট্টাচার্য। বিশদ

13th  January, 2024
 কাজল কালো চোখ

আই মেকআপে ফিরে আসছে অতীতের স্টাইল। লিখেছেন অন্বেষা দত্ত।  বিশদ

06th  January, 2024
সৌন্দর্যের ম্যাজিক লুকিয়ে ঘুমে 

অনিদ্রার জেরে ত্বক তো বটেই, ক্ষতি হয় শরীরেরও। ঘুম ভালো হলে জেল্লা দেবে ত্বক। রইল পরামর্শ।  বিশদ

06th  January, 2024
ত্বকের যত্নে এলইডি মাস্ক

বলিরেখা কমাতে, ব্রণর দাগ পরিষ্কার করতে অথবা ত্বকের ঔজ্জ্বল্য বাড়াতে ব্যবহার করতে পারেন এলইডি ফেস মাস্ক। বিশেষজ্ঞদের কথা শুনে লিখেছেন কমলিনী চক্রবর্তী। বিশদ

06th  January, 2024
কাজই শেষ কথা বলবে

বছর শেষের মুখে চারূপমার জন্য শ্যুট করলেন অভিনেত্রী দিতিপ্রিয়া রায়। আড্ডা হল নানা বিষয়ে। শুনলেন অন্বেষা দত্ত।   বিশদ

30th  December, 2023
একনজরে
মাধ্যমিক-উচ্চ মাধ্যমিক স্তরের শিক্ষক পদপ্রার্থীদের শর্তসাপেক্ষে নিয়োগ দেওয়া যায় কি না, খতিয়ে দেখবে শিক্ষাদপ্তর ও স্কুল সার্ভিস কমিশন। বিকাশ ভবনে শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু, শিক্ষাসচিব এবং ...

ই এম বাইপাস সংলগ্ন শহরের বিভিন্ন অঞ্চলে পানীয় জলের মিটার চুরির ঘটনা ঘটছে। কলকাতা পুরসভার দাবি, পাটুলি, কসবা ও যাদবপুর থানায় গত এক বছরে এ ...

‘মোরা একই বৃন্তে দুটি কুসুম, হিন্দু-মুসলমান...।’ বিদ্রোহী কবির এই সম্প্রীতির বাণীকে ছড়িয়ে দিতে আজ, বৃহস্পতিবার থেকে কাঁথি-১ ব্লকের মাজনার তাজপুর সুপারস্টার ক্লাবের পরিচালনায় শুরু হচ্ছে ...

বর্তমান সময়ে শতায়ু পার করা বিরল না হলেও অনেক ক্ষেত্রেই তা থেকে যায় চোখের আ‌ড়া঩লে। তবে লন্ডনের বাসিন্দা দহিবেন জীবরাজ কারামশি শাহের গল্পটা একটু অন্যরকম। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

জীবাণুঘটিত রোগ বৃদ্ধিতে দেহ কষ্ট। সন্তানের সাফল্যে আনন্দ। কর্মোন্নতি ও আয় বৃদ্ধি। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৫০৪ - ক্রিস্টোফার কলম্বাস তার জ্যোতির্বিজ্ঞানের জ্ঞান কাজে লাগিয়ে একটি চন্দ্রগ্রহণের ভবিষ্যদ্বাণী করেন
 ১৪৬৮ - পোপ দ্বিতীয় পলের জন্ম
১৭১২ - সুইডেনে ২৯ ফেব্রুয়ারির পর ৩০ ফেব্রুয়ারি পালনের সিদ্বান্ত হয়। এর কারণ তারা আগের নিয়মে ফিরতে চেয়েছিল।
১৮৯৬ - ভারতের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী মোরারজি দেসাইয়ের জন্ম



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৮২.৪৩ টাকা ৮৩.৫২ টাকা
পাউন্ড ১০৩.৮১ টাকা ১০৬.৪৪ টাকা
ইউরো ৮৮.৬৮ টাকা ৯১.১১ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৬২,৬৫০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৬২,৯৫০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৫৯,৮৫০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৬৯,৮৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৬৯,৯৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১৬ ফাল্গুন, ১৪৩০, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪। পঞ্চমী অহোরাত্র। চিত্রা নক্ষত্র ১০/৪৯ দিবা ১০/২২। সূর্যোদয় ৬/২/৩৭, সূর্যাস্ত ৫/৩৫/৫৭। অমৃতযোগ রাত্রি ১/৩ গতে ২/৩৩ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ দিবা ৭/৩৫ মধ্যে পুনঃ ১০/৪০ গতে ১২/৫৮ মধ্যে। বারবেলা ২/৪২ গতে অস্তাবধি। কালরাত্রি ১১/৪৯ গতে ১/২৩ মধ্যে। 
১৬ ফাল্গুন, ১৪৩০, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৪। পঞ্চমী রাত্রি ২/৩৪। চিত্রা নক্ষত্র দিবা ৭/৪৪। সূর্যোদয় ৬/৫, সূর্যাস্ত ৫/৩৫। অমৃতযোগ রাত্রি ১২/৫৫ গতে ৩/১৯ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ দিবা ৭/২৯ মধ্যে ও ১০/৩১ গতে ১২/৫৬ মধ্যে। কালবেলা ২/৪৩ গতে ৫/৩৫ মধ্যে। কালরাত্রি ১১/৫০ গতে ১/২৪ মধ্যে। 
১৮ শাবান।

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
শেখ শাহজাহানকে ৬ বছরের জন্য সাসপেন্ড করল তৃণমূল, সরানো হল দলীয় সমস্ত পদ থেকেও

03:22:38 PM

৫৩ পয়েন্ট উঠল সেনসেক্স

02:54:45 PM

অশীতিপর যাত্রীর মৃত্যুর ঘটনায় এয়ার ইন্ডিয়া বিমান সংস্থাকে ৩০ লক্ষ টাকার জরিমানা

02:42:24 PM

কোচবিহারে একাধিক জায়গায় তল্লাশি অভিযান পুলিসের
কোচবিহারে একই সঙ্গে একাধিক জায়গায় তল্লাশি অভিযান পুলিসের। ওই বাড়িগুলির ...বিশদ

02:19:42 PM

দুর্গাপুরের একটি কারখানায় দুর্ঘটনা, গুরুতর জখম ৪ জন

02:13:30 PM

১৫৯ পয়েন্ট উঠল সেনসেক্স

01:27:29 PM