Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

সিআইএ প্রধানের
কুনজরে আসলে কে?
মৃণালকান্তি দাস

মার্কিন গুপ্তচর সংস্থা সিআইএ’র ডিরেক্টর উইলিয়াম জে বার্নস গোটা বিশ্বের কাছে বিশেষ পরিচিত মুখ নন। ফলে, ডিরেক্টর কবে কোথায় যাচ্ছেন, তা নিয়ে এজেন্সি যেমন কোনও আলোচনা করে না, তেমনই দুনিয়ার কেউ ঘুণাক্ষরে টের পায় না তাঁর গতিবিধি।
মার্কিন বিদেশ দপ্তরে প্রায় ৩৩ বছর কাজ করেছেন বার্নস। দুঁদে কুটনীতিবিদ বলে যথেষ্ট সুনাম রয়েছে কাজপাগল এই আমলার। মার্কিন ক্ষমতার অলিন্দে বার্নসের রাজনৈতিক নিরপেক্ষতা নিয়েও প্রশ্ন করার মতো লোক সেই অর্থে নেই। প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামার প্রশাসনে ডেপুটি বিদেশ সচিবের পদে কাজ করেছেন বার্নস। গুপ্তচর সংস্থা সিআইএ’র ইতিহাসে তিনিই প্রথম ডিরেক্টর, যিনি আপাদমস্তক একজন পেশাদার কূটনীতিবিদ।
সিআইএ’র ডিরেক্টর হওয়ার পর উইলিয়াম বার্নস চষে বেরিয়েছেন আঙ্কারা থেকে তেল আভিভ, নয়াদিল্লি থেকে কিয়েভ। কেউ টের পায়নি তাঁর অবস্থান। কিন্তু সম্প্রতি দক্ষিণ এশিয়া সফরে এসে ল্যাজেগোবরে হতে হয়েছে তাঁকে। প্রথমে তাঁর নেপাল সফর নিয়ে আপত্তি, পরে শ্রীলঙ্কা সফর শেষে সেই দেশে রাজনৈতিক শোরগোল সিআইএ প্রধানকে বিব্রত হওয়ার মতো অবস্থায় ফেলে দিয়েছে। সিআইএ’র ইতিহাসে এমন ঘটনা নজিরবিহীন। প্রশ্ন উঠেছে, এর পিছনে কার মদত থাকতে পারে? এটা অস্বাভাবিক নয়, নেপাল ও শ্রীলঙ্কায় বার্নসকে নিয়ে বিতর্ক তৈরির পিছনে বেজিংয়ের উৎসাহ থাকতে পারে। কিন্তু এরকম অনুমান প্রমাণ করা কঠিন।
ঘটনা হল, ফেব্রুয়ারির তৃতীয় সপ্তাহে বার্নসের নেপাল সফরের কথা ছিল। সিআইএ’র দায়িত্ব নেওয়ার পর এই প্রথম তাঁর কাঠমান্ডু যাওয়ার কথা। কিন্তু ফেব্রুয়ারির শেষপ্রান্তে হঠাৎ খবর ছড়ায়, নেপালের প্রধানমন্ত্রী পুষ্প কুমার দহল ওরফে প্রচণ্ড এই সফরে আপত্তি জানিয়েছেন। নেপালে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের যুক্তি দেখিয়ে প্রচণ্ড বলেন, এই সময় সিআইএ প্রধানের সফর ‘চারদিকে’ ভুল বার্তা দেবে। সেই নির্বাচন ছিল ৯ মার্চ। নেপালে সংসদীয় পদ্ধতির শাসনব্যবস্থায় প্রধানমন্ত্রী পদ সবচেয়ে গুরুত্ববহ, প্রেসিডেন্ট নয়। এই রকম একটা কম গুরুত্বের নির্বাচনে সিআইএ প্রধানের প্রায় তিন সপ্তাহ আগের সফর কীভাবে প্রভাব ফেলতে পারে, কারও কাছে তা স্পষ্ট হয়নি। প্রচণ্ডর সেই আপত্তির পর উইলিয়াম বার্নসের ১৮ ঘণ্টার ওই সফর বাতিল হয়ে যায়।
নেপালে উইলিয়াম বার্নসের যাওয়ার কথা ছিল শ্রীলঙ্কা থেকে। শ্রীলঙ্কার নাগরিকরা অবশ্য সিআইএ প্রধানের সফর সম্পর্কে কিছুই জানতেন না। সেটা ফাঁস করে দেয় স্থানীয় এক কমিউনিস্ট পার্টি। ওই দলের সাধারণ সম্পাদক ডা. উইরিসিংহে প্রথম ৪ মার্চ বিষয়টি সংবাদমাধ্যমকে জানান। তিনি শ্রীলঙ্কার সরকারের কাছে ব্যাখ্যা চান, ১৪ ফেব্রুয়ারি ‘সি-১৭ গ্লোবমাস্টার-৩’ বিমানে আমেরিকা থেকে যাঁরা কলম্বোয় এসেছেন, তাঁদের মধ্যে কি উইলিয়াম বার্নস ছিলেন? তিনি অভিযোগ তোলেন, বার্নস ও তাঁর সঙ্গীদের সফর সম্পর্কে তথ্যপ্রমাণ গোপন করা হচ্ছে। কারণ, ইমিগ্রেশন কর্তৃপক্ষ তার কোনও রেকর্ড রাখেনি। উইরিসিংহের বিবৃতি শ্রীলঙ্কায় বেশ সাড়া ফেলে দেয়। তাকে আরও উস্কে দেন এমপি উদয় গাম্মানপিলে। তিনি অনেক নতুন তথ্য জুড়ে দেন। তাঁর দাবি, বার্নসের সফরে ওয়াশিংটন কলম্বোর কাছে কয়েকটি নিরাপত্তা ইস্যু তুলেছে। শ্রীলঙ্কার সংসদে গাম্মানপিলের অবস্থান রাজাপক্ষে দলের নেতৃস্থানীয় একজন হিসেবে। আর উইরিসিংহের কমিউনিস্ট পার্টি সর্বশেষ নির্বাচনে রাজাপক্ষের জোটেই ছিল। শ্রীলঙ্কার রাজাপক্ষে এবং নেপালে প্রচণ্ডদের ‘মাওবাদী কমিউনিস্ট পার্টি’ উভয়ে ইতিহাসের বিভিন্ন পর্বে চীনের শাসকদের বেশ ঘনিষ্ঠ ছিল বা আছে। ফলে উভয় দেশে উইলিয়াম বার্নসকে নিয়ে তাঁদের অবস্থানে ভূরাজনৈতিক উপাদান থাকা বিচিত্র নয়।
তবে শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট বা সরকারের কেউই সিআইএ নিয়ে বিতর্কে মুখ খুলছেন না। যদিও এমপি গাম্মানপিলের সূত্রে স্থানীয় পত্রপত্রিকাগুলি জানিয়েছে, বার্নসের সঙ্গে প্রযুক্তিভিত্তিক যন্ত্রপাতি ভর্তি আরও দু’টি পরিবহণ বিমান এসেছিল। প্রযুক্তিগত লড়াইকে অত্যন্ত গুরুত্ব দেন সিআইএ প্রধান। সিআইএ’র দায়িত্ব নেওয়ার পর বার্নস এজেন্সিতে একটি নতুন পদও যোগ করেছেন। যার নাম চিফ টেকনোলজি অফিসার বা সিটিও। সিআইএ-র সেই প্রযুক্তি বিভাগের মাথায় বসিয়েছেন ভারতীয় বংশোদ্ভূত নন্দ মুলচন্দানিকে। ৫২ বছরের মুলচন্দানি বেসরকারি ক্ষেত্রে বহু স্টার্ট আপ সংস্থার সিইও হিসেবে সাফল্যের সঙ্গে কাজ করেছেন। তারপরে আমেরিকার প্রতিরক্ষা দপ্তরের প্রযুক্তি বিভাগের দেখাশোনার দায়িত্বেও ছিলেন। সিআইএ প্রধান শ্রীলঙ্কায় যৌথ উদ্যোগে গোয়েন্দা তথ্য বিশ্লেষণের একটা সেন্টার গড়ার প্রস্তাব দিয়েছেন। তবে শ্রীলঙ্কা সফরে মুলচন্দানি ছিলেন কি না তা জানা যায়নি। এছাড়া ওয়াশিংটন শ্রীলঙ্কায় ‘বায়োমেট্রিক ইমিগ্রেশন কন্ট্রোল সিস্টেম’ গড়তে চাইছে। এরকম উদ্যোগ নেওয়ার অর্থ, শ্রীলঙ্কায় চীন ও ভারতের শিল্পপতিদের তথ্যের গোপনীয়তা আর থাকবে না। এর বাইরে আমেরিকা ‘সোফা’ চুক্তিও (স্ট্যাটাস অব ফোর্সেস এগ্রিমেন্ট) করতে চায়। এসব প্রস্তাব এমন সময় এসেছে, যখন শ্রীলঙ্কার শাসকদের জন্য আইএমএফের ঋণ পাওয়া অতি জরুরি। ২.৯ বিলিয়ন ডলারের একটা ঋণের অঙ্ক নিয়ে আলোচনাও চলছে।
নেপালের অর্থনৈতিক অবস্থা শ্রীলঙ্কার মতো টানাপোড়েনে না থাকলেও আমেরিকা তার ভারত-প্রশান্ত মহাসাগর অঞ্চলের কৌশলগত কর্মসূচিতে এই দেশটিকেও চায়। ফলে নেপালে ইতিমধ্যে ৫০ কোটি ডলারের একটা অনুদান দিয়েছে আমেরিকা। ওই অনুদান নেওয়ার স্পষ্ট বিরোধিতা করেছিল বেজিং। ২০২২-এর ১৮ ফেব্রুয়ারি চীন সরকারের ঘনিষ্ঠ সংবাদমাধ্যম গ্লোবাল টাইমস ওই অনুদানকে ‘জবরদস্তিমূলক কূটনীতি’ হিসেবে মন্তব্য করে। 
ঠিক একই সময় নেপালের কমিউনিস্টরাও অনুদান গ্রহণের বিরুদ্ধে ব্যাপক বিক্ষোভ দেখায়। প্রতিবাদী 
ওই বিরোধী শক্তিই এখন কাঠমান্ডুর ক্ষমতায়। সেই শক্তি সিআইএ প্রধানের নেপাল সফর বাতিল করতে উঠে পড়ে লেগেছিল।
নেপালের মতো অবস্থান অবশ্য শ্রীলঙ্কার নেতৃত্ব নেননি। উইলিয়াম বার্নসের সফর নিয়ে তাঁরা চুপচাপ থাকলেও ইতিমধ্যে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে খবর ছড়িয়েছে, প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের নিরাপত্তা বিষয়ে দায়িত্বপ্রাপ্ত ওয়াশিংটনের গুরুত্বপূর্ণ অফিসারদের আরও একটা দল ১৬ ফেব্রুয়ারি কলম্বো সফর করে গিয়েছে। এই দলের প্রধান ছিলেন জেদিদিয়া পি রয়্যাল। জেদিদিয়া আগে ন্যাটোতেও কাজ করেছেন। জেদিদিয়ার এই সফরের পর থেকে শ্রীলঙ্কায় ব্যাপক গুজব ছড়িয়েছে, ত্রিঙ্কোমালিতে আমেরিকা কিছু সেনা রাখার জায়গা চায়। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় এই ত্রিঙ্কোমালি ছিল ব্রিটিশ নেভির ঘাঁটি। তারও আগে ডাচদের হাত থেকে প্রথম এই জায়গাটি দখল করেই ব্রিটিশরা শ্রীলঙ্কায় ঢুকেছিল। সেই ত্রিঙ্কোমালিতে আমেরিকার নজর যে চীন-ভারতের উদ্বেগ বাড়াবে, সেটাই স্বাভাবিক।
একসময় সোভিয়েত রাশিয়ার সমস্ত পদক্ষেপের উপর নজরদারি চালানো ছিল আমেরিকার কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। কারণ, মস্কোই ছিল সেই সময়ে ওয়াশিংটন ডিসির সবচেয়ে বড় প্রতিদ্বন্দ্বী। মার্কিন গুপ্তচর সংস্থা সিআইএ সেই সময়ে এজেন্ট তৈরি করেছিল সোভিয়েতের নানা প্রান্তে। মস্কোর অজান্তে রুশ সরকারি অফিসারদের মধ্যেই অনেকে মার্কিন এজেন্ট হয়ে উঠেছিলেন। একইভাবে আমেরিকার উপরেও নজরদারি চালাত রুশ গুপ্তচর সংস্থা কেজিবি। আমেরিকা এবং রাশিয়ার গুপ্তচর সংস্থা পরস্পরের উপর গোপন নজরদারি এখনও চালায়। কিন্তু ওয়াশিংটনের কাছে এখন অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ চীনের উপর নজরদারি। বিশেষজ্ঞরা অনেকে মনে করছেন, সম্প্রতি রাশিয়া-ভারতের জ্বালানি বাণিজ্যকে কেন্দ্র করে নয়াদিল্লির অবস্থানও 
সন্দেহের চোখে দেখা শুরু করেছে আমেরিকা। 
মার্কিন মিত্র ইজরায়েল ও তুরস্কের মতো ভারতও ইউক্রেনের যুদ্ধে নিরপেক্ষ অবস্থান নিয়েছে। ফলে ভারতের উপর নজরদারি বাড়াতে শ্রীলঙ্কাতেও ঘাঁটি গাড়তে চাইছে ওয়াশিংটন।
ইয়েল বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষক আক্সেল দ্য ভারনিউ এশিয়া টাইমসে লিখেছেন, নিউ স্টার্ট চুক্তি (পরমাণু চুক্তি) থেকে মস্কোর বেরিয়ে আসার পর রাশিয়া ও চীনের মধ্যে সম্পর্ক দ্রুতগতিতে বিকশিত হচ্ছে। চীনের নতুন বিদেশমন্ত্রী ঝিন গ্যাং বলেছেন, ‘বিশ্বে আজ যেভাবে অস্থিতিশীলতা বাড়ছে, তাতে রাশিয়া-চীনের সম্পর্ক টেকসই হওয়া প্রয়োজন।’ রাশিয়ানদের সঙ্গে চীনাদের কূটনৈতিক সম্পর্ক কোন দিকে গড়াচ্ছে, সেটা এখন আমেরিকার কৌশলগত অগ্রাধিকারের বিষয়। তাই ভারতের প্রতি ওয়াশিংটনের সরাসরি মনোযোগ দেওয়া উচিত। ভারতকে ক্রেমলিনের প্রভাব থেকে বিচ্ছিন্ন করাই ওয়াশিংটনের লক্ষ্য হওয়া উচিত। একই সুরে নয়াদিল্লির সেন্টার ফর পলিসি রিসার্চের স্ট্র্যাটেজিক স্টাডিজ বিষয়ের অধ্যাপক ব্রহ্ম চেলানি বলেছেন, আমেরিকাকেও মনে রাখতে 
হবে পারস্পরিক শ্রদ্ধা না থাকলে দ্বিপক্ষীয় অংশীদারি ধ্বংস হয়ে যায়। ওয়াশিংটন যদি কৌশলগত ফোকাস ইন্দো-প্যাসিফিকের দিকে সরাতে চায়, তবে 
এশিয়ায় তার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ কৌশলগত মিত্র ভারতের সঙ্গে সম্পর্ক বাড়াতে হবে। কিন্তু আমেরিকা উল্টো অবস্থান নিয়ে পাকিস্তানের এফ-১৬ বিমানবহরের আধুনিকীকরণের জন্য ইসলামাবাদের সঙ্গে ৪৫ কোটি ডলারের চুক্তি করেছে। যা ভারতের বিরুদ্ধে পাকিস্তানকে মার্কিন অস্ত্র দেওয়ার তিক্ত 
স্মৃতি জাগিয়ে তুলেছে।
প্রশ্ন উঠছে, ওয়াশিংটন ভারতের প্রতিবেশী দেশগুলিতে ঘাঁটি গাড়তে চাইছে কেন? সিআইএ প্রধান উইলিয়াম বার্নসের কু-নজরে আসলে কে?
23rd  March, 2023
মমতা-মডেল ছাড়া গতি নেই বিজেপির
তন্ময় মল্লিক

টার্গেট সবসময় উঁচুতে বাঁধা হয়। তাতে লক্ষ্যের ধারেকাছে না হোক, অর্ধেকটা গেলেও সম্মান বাঁচে। বিজেপির দিল্লি নেতৃত্বও সেই নীতিতেই নির্বাচনে আসন লাভের লক্ষ্য স্থির করে। কখনও সখনও শিকে ছিঁড়লেও বেশিরভাগ সময়েই তা মুখ থুবড়ে পড়ে। তাই কেন্দ্রে ফের ক্ষমতায় ফেরা নিয়ে সন্দিহান বিজেপির এবার লোকসভার টার্গেট চারশো। বিশদ

মোদি সরকার এত স্বল্পে ভীত কেন?
সমৃদ্ধ দত্ত

১৯৭৫ সালের এপ্রিল মাসে মোরারজি দেশাই অনশনে বসেছিলেন। তাঁর অন্যতম দাবি ছিল এক বছর আগে ভেঙে দেওয়া গুজরাত বিধানসভা আবার গঠনের জন্য অবিলম্বে নতুন করে নির্বাচন ঘোষণা করা হোক। বিশদ

24th  March, 2023
অন্য স্বাধীনতার লড়াই কি দুর্বল হচ্ছে?
হারাধন চৌধুরী

শেষ জনগণনা রিপোর্ট সামনে এসেছে ২০১১ সালে। ওই রিপোর্টে ভারতের যে নারীচিত্র প্রকাশিত হয়, তা ভয়াবহ। ন্যাশনাল কমিশন ফর প্রোটেকশন অফ চাইল্ড রাইটসের (এনসিপিসিআর) রিপোর্ট অনুসারে, ২০০১ পরবর্তী একদশকে ভারতে ২৯ লক্ষ বাল্যবিবাহের ঘটনা সামনে আসে। বিশদ

22nd  March, 2023
রাজনীতির জটিল জ্যামিতি এবং বিরোধী জোট
শান্তনু দত্তগুপ্ত

রাজনীতি বিষয়টার সঙ্গে বিজ্ঞানের এক অদ্ভুত যোগাযোগ। কখনও মনে হয়, নিউটনের তৃতীয় সূত্রের সঙ্গে এর মিলমিশ সবচেয়ে বেশি। যেমন ক্রিয়া, তার ঠিক সমান এবং বিপরীত প্রতিক্রিয়া। বিশদ

21st  March, 2023
সংসদীয় গণতন্ত্রের ধ্বংসযজ্ঞ চলছে
পি চিদম্বরম

মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র-ভিত্তিক সংস্থা ফ্রিডম হাউস ভারতকে ‘আংশিকভাবে মুক্ত গণতন্ত্র’-এর স্তরে রেখেছে। এটা ভারতের গণতন্ত্রের পক্ষে অবনমন বলেই ধরতে হবে। অন্যদিকে, সুইডেনের ভি-ডেম ইনস্টিটিউট ভারতকে ‘ইলেক্টোরাল অটোক্রেসি’ আখ্যা দিয়েছে।
বিশদ

20th  March, 2023
দেশের অপমান নিয়েও রাজনীতি!
হিমাংশু সিংহ

রাজনীতি আমাদের মজ্জায়। দুর্নীতি, লোভ আর উচ্চাকাঙ্ক্ষা শিরায় শিরায়। ডানবাম সবাই এই দোষে কমবেশি দুষ্ট। শিক্ষা নিয়ে রাজনীতি বড় কম হয়নি। ধর্ম, সম্প্রদায় নিয়েও লড়াই সপ্তমে। অর্থনীতি, সমাজনীতি, কর্মসংস্থান, কেন্দ্র-রাজ্য সম্পর্ক, দুর্নীতির আমি তুমি, বিশ্ববিদ্যালয় প্রাঙ্গণ, সবই সঙ্কীর্ণ দলীয় আকচাআকচির শিকার। বিশদ

19th  March, 2023
মমতাকে চাষি-বিরোধী
প্রমাণ অত সোজা নয়
তন্ময় মল্লিক

মন জয়ের সহজতম উপায় হল, বঞ্চনার অভিমানকে উস্কে দেওয়া। পঞ্চায়েত ভোট আসন্ন। তাই বাংলায় শুরু হয়েছে চাষিদের খ্যাপানোর চেষ্টা। বিরোধীদের দাবি, এরাজ্যের চাষিরা আলুর দাম পাচ্ছেন না। অবস্থা এতটাই নাকি খারাপ যে আলুচাষি আত্মহত্যা করতে বাধ্য হচ্ছেন। বিশদ

18th  March, 2023
জোট করে ভোট? নাকি
ভোটের পর জোট?
সমৃদ্ধ দত্ত

বিজেপি বনাম বিরোধীদের মধ্যে রাজনৈতিক লড়াইয়ে বিরোধীদের বারংবার পরাস্ত হতে হচ্ছে এক ও একটিমাত্র মানদণ্ডে। সেটি হল প্রচার অথবা প্রোপাগান্ডা। প্রচারকে বিজেপি একটি ৩৬৫ দিনের প্রকল্প হিসেবেই গ্রহণ করেছে। পরিণত করেছে উন্নত শিল্পে। বিশদ

17th  March, 2023
ডলারের আধিপত্যে থাবা
মৃণালকান্তি দাস

ডলারের আগে বিশ্বব্যাপী আধিপত্য ছিল ব্রিটিশ মুদ্রা পাউন্ডের। ১৯২০ সাল পর্যন্ত দুনিয়ায় রাজত্ব করেছে এই মুদ্রাই। ডলারের আত্মপ্রকাশের আগে ৫০০ বছর ধরে যেসব মুদ্রা রাজত্ব করেছে তার মধ্যে রয়েছে ব্রিটেন, ফ্রান্স, পর্তুগাল, নেদারল্যান্ডস ও স্পেনের মুদ্রা। বিশদ

16th  March, 2023
এখন বিজেপি ও দ্বিচারিতা শব্দের অর্থ একই
সন্দীপন বিশ্বাস

এ যেন এক অবিশ্বাস্য ঘটনা! মনে হয়, এ আবার হয় নাকি! কিন্তু সেটা যে সম্ভব, তা করে দেখিয়েছে নেদারল্যান্ডস। গত কয়েক বছরে ধীরে ধীরে সেখানে জেল উঠে গিয়েছে। ২০১৮ সালে পুরোপুরি জেল উঠে যায়। বিশাল বিশাল জেলগুলি এখন নানা কাজে ব্যবহৃত হচ্ছে।
বিশদ

15th  March, 2023
অসম্পূর্ণ শিক্ষার বেসাতি
শান্তনু দত্তগুপ্ত

সমাজ এবং ব্যবসার মধ্যে মিল কোথায়? দু’টি ক্ষেত্রেই পাবলিকের ভাবনাচিন্তাটাকে একটা নির্দিষ্ট ট্র্যাকে নিয়ে ফেলতে হয়। তাহলে দু’টোই সফল। আর তা না হলে দু’টোই ফ্লপ। বোঝা গেল না তো?
বিশদ

14th  March, 2023
হতাশা ঢাকতে চলছে সংখ্যার কারসাজি
পি চিদম্বরম

২০০৮ সালের কথা। মার্কিন প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচার পর্ব চলছে। রিপাবলিকান পার্টির প্রচারকে লক্ষ্য করে ডেমোক্র্যাটিক দলের প্রার্থী বারাক ওবামা বলেছিলেন, ‘একটা শূকরকে আপনি লিপস্টিক দিয়ে সাজাতেই পারেন, কিন্তু সেটা শেষমেশ শূকরই থাকবে।’ 
বিশদ

13th  March, 2023
একনজরে
মোদি সরকারের আমলে গত পাঁচ বছরে রেলে বেসরকারি বিনিয়োগ হয়েছে ৩০ হাজার কোটি টাকারও বেশি। শুক্রবার সংসদে এমনই চমকপ্রদ তথ্য দিয়েছেন রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব। যার ফলে রেলের বেসরকারিকরণ নিয়ে জল্পনা আরও তীব্র হয়ে উঠেছে। ...

স্বামীর পরকীয়ার প্রতিবাদ করে খুন হতে হল স্ত্রীকে। ঘটনাটি ঘটেছে বৃহস্পতিবার রাতে তুফানগঞ্জের নাককাটিগছ পঞ্চায়েতে। স্বামীর বিরুদ্ধে স্ত্রীর গলার নলি কেটে নৃশংসভাবে খুন করার অভিযোগ উঠেছে। পুলিস জানিয়েছে, মৃতার বয়স ৪১ বছর। ...

সোনার গয়না ও কাঁসার বাসন পালিশ করার নামে অলঙ্কার হাতানোর ঘটনায় এবার বিহার যোগ মিলল। বাঁকুড়া জেলার একাধিক থানা এলাকায় এমন ঘটনায় কপালে চিন্তার ভাঁজ পড়ে পুলিসের। অবশেষে নাকা চেকিং করে বিহার ও পশ্চিম বর্ধমান জেলার দুই দুষ্কৃতীকে গ্রেপ্তার করেছে ...

হিন্ডেনবার্গ রিসার্চের রিপোর্ট প্রকাশ্যে আসার পরই জোর ধাক্কা খেলেন ব্লক ইনকর্পোরেটেডের সহ-প্রতিষ্ঠাতা জ্যাক ডর্সি। বৃহস্পতিবারই ডর্সির সম্পত্তি কমেছে ৫২ কোটি ৬০ লক্ষ মার্কিন ডলার। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

সাংগঠনিক কর্মে বড় সাফল্য পেতে পারেন। উপস্থিত বুদ্ধি আর সাহসের জোরে কার্যোদ্ধার। বিদ্যায় সাফল্য। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

 
১৫৭০: পোপ পঞ্চম পায়াম কর্তৃক ব্রিটেনের রানী প্রথম এলিজাবেথ ধর্মচ্যুত হন
১৫৮৬: সম্রাট আকবরের সভাসদ বীরবলের মৃত্যু
১৭৫৪: ইংরেজ কবি উইলিয়াম হ্যামিলটনের মৃত্যু
১৮৪৩: টেমস নদীর বিখ্যাত সুড়ঙ্গ খোলা হয়
১৮৬২: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে প্রথম কাগজের মুদ্রা চালু হয়
১৮৯৬: আধুনিক অলিম্পিক ক্রীড়ার প্রথম স্বর্ণপদক প্রদান করা হয়
১৮৯৮: স্বামী বিবেকানন্দ মার্গারেট এলিজাবেথ নোবেলকে দীক্ষান্তে নিবেদিতা নামকরণ করেন
১৯২৭: হকি খেলোয়াড় লেসলি ক্লডিয়াসের জন্ম
১৯৪৮: অভিনেতা ফারুক শেখের জন্ম
১৯৮৪: ক্রিকেটার অশোক দিন্দার জন্ম
২০১০: ভারতীয় বাঙালি আলোকচিত্রী নিমাই ঘোষের মৃত্যু



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৮১.৪৮ টাকা ৮৩.২২ টাকা
পাউন্ড ৯৯.৩৬ টাকা ১০২.৮০ টাকা
ইউরো ৮৭.৫৯ টাকা ৯০.৭৩ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৬০,১০০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৫৭,০০০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৫৭,৮৫০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৭০,১৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৭০,২৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

১০ চৈত্র, ১৪২৯, শনিবার, ২৫ মার্চ ২০২৩। চতুর্থী ২৬/৪৮ অপরাহ্ন ৪/২৪। ভরণী নক্ষত্র ১৯/৬ দিবা ১/১৯। সূর্যোদয় ৫/৪০/২৩, সূর্যাস্ত ৫/৪৫/২৯। অমৃতযোগ দিবা ৯/৪১ গতে ১২/৫৫ মধ্যে। রাত্রি ৮/৮ গতে ১০/৩১ মধ্যে পুনঃ পুনঃ ১২/৬ গতে ১/৪১ মধ্যে পুনঃ ২/২৯ গতে ৪/৪ মধ্যে। বারবেলা ৭/১২ মধ্যে পুনঃ ১/১৩ গতে ২/৪৪ মধ্যে পুনঃ ৪/১৪ গতে অস্তাবধি। কালরাত্রি ৭/১৪ মধ্যে পুনঃ ৪/১১ গতে উদয়াবধি। 
১০ চৈত্র, ১৪২৯, শনিবার, ২৫ মার্চ ২০২৩। চতুর্থী রাত্রি ৭/৩। ভরণী নক্ষত্র দিবা ৩/৫৯। সূর্যোদয় ৫/৪২, সূর্যাস্ত ৫/৪৬। অমৃতযোগ দিবা ৯/৩৫ গতে ১২/৫৩ মধ্যে এবং রাত্রি ৮/১০ গতে ১০/২৯ মধ্যে ও ১২/২ গতে ১/৩৫ মধ্যে ও ২/২১ গতে ৩/৫৪ মধ্যে। কালবেলা ৭/১২ মধ্যে ও ১/১৪ গতে ২/৪৫ মধ্যে ও ৪/১৫ গতে ৫/৪৬ মধ্যে। কালরাত্রি ৭/১৫ মধ্যে ও ৪/১২ গতে ৫/৪১ মধ্যে। 
২ রমজান।

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
মল্লারপুরে উদ্ধার বিপুল আগ্নেয়াস্ত্র ও বোমা তৈরির মশলা, ধৃত ১
বীরভূমের মল্লারপুর থানার জুবুনি গ্রামে তল্লাশি অভিযান চালিয়ে বিপুল পরিমাণে ...বিশদ

03:05:16 PM

সিভিক ভলান্টিয়ারদের এক্তিয়ার নিয়ে জারি হল নির্দেশিকা
রাজ্যে সিভিক ভলান্টিয়ারদের দায়িত্ব কী! প্রশাসনিক ও আইনগত দিক দিয়ে ...বিশদ

02:37:00 PM

প্রশ্ন করা থামাব না, সাংবাদিক বৈঠকে বললেন রাহুল
গতকাল সাংসদ পদ খারিজের পর আজ সাংবাদিক বৈঠক করলেন কংগ্রেস ...বিশদ

01:29:00 PM

আদালতে ২ বছরের বেশি সাজাপ্রাপ্ত বিধায়ক-সাংসদদের সদস্যপদ খারিজের বিরুদ্ধে সুপ্রিম কোর্টে মামলা
কোনও অভিযোগে আদালতে দোষী সাব্যস্ত হওয়ার পর দু’বছর বা তার ...বিশদ

12:56:34 PM

দিল্লির ইডি অফিসে হাজিরা দিলেন সিউড়ির ইনস্পেক্টর মহম্মদ আলি

12:48:16 PM

আজ সাংবাদিক বৈঠক করবেন রাহুল গান্ধী
সাংসদ পদ খারিজ হয়ে যাওয়ার পর প্রথম সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি ...বিশদ

12:10:06 PM