Bartaman Patrika
বিশেষ নিবন্ধ
 

কৃষির সঙ্কট কি নির্বাচনী ইস্যু ছিল না? 
শান্তনু বসু

নরেন্দ্র মোদি দ্বিতীয়বার লোকসভা নির্বাচন মোকাবিলায় নামার কিছু আগে সংবাদ মাধ্যমের একাংশের বক্তব্য ছিল, ‘‘খরকবলিত মারাঠাওয়াড়ার কৃষকরা মোদিকে আর একটি সুযোগ দিতে চান।’’ কিংবা একটি প্রখ্যাত ইংরেজি দৈনিক নির্বাচনের ফলাফল ঘোষিত হওয়ার পরও লিখল, ‘‘নির্বাচনোত্তর সমীক্ষা: কৃষকদের সমস্যাগুলি এবার ভোটে প্রধান বিবেচ্য হয়ে ওঠেনি।’’ আবার এই প্রতিবেদনের সঙ্গে যে ছবিটি দেওয়া হয়েছে, সেখানে দেখা যাচ্ছে সারি সারি মহিলা বিশেষ করে মায়েরা, স্ত্রীয়েরা তাঁদের প্রিয়তমের ছবি বুকে নিয়ে দাঁড়িয়ে আছেন অথবা শতমাইলব্যাপী কৃষক লংমার্চে অংশ নিচ্ছেন। অর্থাৎ কৃষকেরা আত্মহত্যা করার পর সেই ফটোগুলি গণমাধ্যমে ভেসে উঠলেও গণমাধ্যমেরই একাংশ দাবি করছে যে কৃষির সংকট নির্বাচনের মূল ইস্যু ছিল না! ভারতের ৬০-৬৫ শতাংশ মানুষ কৃষিকাজের উপর নির্ভরশীল। এখানে জিডিপি বহুলাংশে নির্ধারিত হয় কৃষিউৎপাদনের ভিত্তিতে। আর সেই কৃষিব্যবস্থাই তীব্র সংকটে। এই বিপদের কথা ভারতে তো বটেই গোটা বিশ্বেও আলোচিত হচ্ছে। আর একটি মহল থেকে বলা হচ্ছে যে সেটা নাকি ভারতে নির্বাচনের ইস্যু হয়নি! ব্যাপারটি বড় বিস্ময়কর নয় কি? স্বভাবতই গুরুত্ব হারাচ্ছে কৃষির এই তীব্র সংকটের কারণ নির্ধারণের বিষয়টি। এটাই পরিতাপের।
নামী গবেষণা সংস্থা লোকনীতি বলেছে, ‘‘The majority of farmers didn’t vote or issues that concern them most.’’ যেটা কৃষকের জীবনে সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ সেটাই যদি নির্বাচনের ইস্যু না-হয় তাহলে প্রশ্ন থাকে নির্বাচনী ইস্যু কাকে বলে। এবারের লোকসভা নির্বাচনটা কি তাহলে কোনও ইস্যু ছাড়াই হল? মহারাষ্ট্রের মারাঠাওয়াড়ার নান্দেদ, বিদ সহ আটটি জেলার ৭৬টি তালুকের ৫ হাজারের বেশি গ্রামে ভূগর্ভস্থ জলস্তর সাংঘাতিকভাবে নেমে গিয়েছে। বিদের যে কোথায় জল আছে এবং সেখানে কীভাবে ট্যাঙ্কার পাঠানো হবে সেটা নির্ধারণ করাও কঠিন হয়ে যাচ্ছে। গত অক্টোবর থেকেই ১৪ হাজার গ্রামের জলস্তর নামতে থাকে। গোটা মারাঠাওয়াড়ায় সাধারণভাবে দেশান্তরী শ্রমিকের সংখ্যা থাকে প্রায় আট লক্ষ। এঁরা মূলত বিদ, আহমেদনগর, নাসিক থেকে মহারাষ্ট্র, কর্ণাটক, গুজরাত, মধ্যপ্রদেশের চিনিকলগুলিতে কাজ করবার জন্য যান। এবার তাঁদের সংখ্যা দ্বিগুণ হয়ে গিয়েছে। কারণ খরা এতটাই তীব্র যে নিজেদের গ্রামে তাঁরা কোনও কাজ পাচ্ছেন না। অথচ, গত বছরই চিনিকল শ্রমিক পাওয়াটা ছিল নিদারুণ সমস্যার। এ বছরই বন্যার মতো ভুখা শ্রমিকের মিছিল চিনিকলগুলিতে।
বিদের গিওরাই তালুকের ৯০ শতাংশ কর্মক্ষম মানুষ গ্রাম ছেড়েছেন। জালনার ভোকরদান তালুক থেকে ট্রাকভর্তি শ্রমিকেরা কাজের খোঁজে অন্যত্র চলে যাচ্ছেন। ঔরঙ্গবাদের খুলতাবাদ তালুকের বেশ কিছু কর্মহীন মানুষ মহারাষ্ট্র শিল্প উন্নয়ন নিগমে সাময়িক বা অস্থায়ী শ্রমিকের কাজ নিয়েছেন। কানাড়াগাঁও এবং মহম্মদপুর গ্রামের শ্রমিকেরা ওয়ালুজ শিল্প উন্নয়ন নিগমে কাজ নিয়েছেন। তাও অস্থায়ী। সুদূর মহারাষ্ট্রের মারাঠাওয়াড়াতে রোহিলাগড় গ্রামের ৪০ বছরের চাষি বিলাস টাকলে তাঁর ৪০০টি মিষ্টি মোসাম্বি লেবু গাছে জল দেওয়া বন্ধ করে দিয়েছেন। জালনা জেলাতে এই কৃষকের ৩০ একরের উপর তুলো চাষের জমি ছিল। তাঁর ৫৫০টি মোসাম্বি লেবুর গাছ এবং ১১৫০টি বেদানার গাছ ছিল। কিন্তু ২০১৮-র খরার পর থেকে এইসব ফলের গাছ পরিচর্যা করার আর কোনও উপায় তাঁর ছিল না। আরও এক মরিয়া চাষি প্রহ্লাদ পাতিল তার মুমূর্ষু অবস্থা বোঝাতে গিয়ে এক অত্যন্ত করুণ গল্পের অবতারণা করেছেন। এক বাঁদর তার একটি বাচ্চাকে নিয়ে নদী পেরচ্ছিল। বাচ্চাটিকে মাথায় নিয়ে নদীতে সাঁতার দিচ্ছিল। সবাই অবাক। ওঠার সময় বাঁদরটি সেই বাচ্চাটিকে পাড়ে তুলে আনার পরিবর্তে জলেই ফেলে দিল! লোকজনের অনুমান, বাঁদরটি হয়তো ভেবেছিল যদি বাচ্চাটি বেঁচে থাকে তাহলে হয়তো তার আরও একটি বাচ্চা হতে পারে। টাকলে নামে এক কৃষকের অবস্থা বোঝাতে গিয়ে পাতিল বলছেন, ২০০৪ সালে টাকলে অনেকগুলি জলের ট্যাঙ্কার কিনেছিলেন। সেগুলিতে করে ২০ কিলোমিটার দূর থেকে জল নিয়ে এসে তাঁর জমিতে জলসেচ করতেন। অর্থাৎ যদি তিনি জলসেচটুকু করতে পারেন তবে হয়তো তিনি বেঁচে যাবেন।
মরাঠাওয়াড়া রোহিলাগড়ের তুলোচাষ এবছর দারুণভাবে মার খায়। টাকলে বলছেন, যদি টাকাই না-থাকে তাহলে তোমার জলও থাকবে না। জালনা জেলার রোহিলাগড়ের আম্বাদ তালুক গোটা ভারতে মোসাম্বি লেবু চাষের জন্য বিখ্যাত। কিন্তু এখন সেগুলি শুকিয়ে কঙ্কাল হয়ে গিয়েছে, যা আর কিছুদিনের মধ্যেই জ্বালানির জন্য কেটে ফেলা হবে। কিছু কৃষক অত্যন্ত চড়া সুদে মহাজনের কাছ থেকে ঋণ করে জলসেচ করে যাচ্ছেন কিছু গাছে। এই আশায় যে যদি আগামী বছর সেখানে কিছু ফল ধরে। রোজ চাষিরা নিজেদের আলোচনায় এটাই বলতে থাকেন যে তাঁরা কীভাবে শেষ হয়ে যাচ্ছেন!
রোহিলাগড়ের প্রথম বেদানা চাষি আড়াই লক্ষ টাকা ঋণ নিয়ে আড়াই হাজার গাছ রুয়েছিলেন। তাঁকে রোজ ৯ হাজার টাকার জলসেচ দিতে হতো। কিন্তু জলসেচের পরেও ফলন হবে এমন কোনও নিশ্চয়তা ছিল না। তিনি বলেছেন, মাসের শেষ হলে জলও শুকিয়ে যায়, টাকাও শেষ হয়ে যায়। মধ্য মহারাষ্ট্রের মারাঠাওয়াড়া অঞ্চলের আটটি জেলা ২০১২-১৩ সাল থেকে উপর্যুপরি খরায় জ্বলে যাচ্ছে। গান্ধীনগর আইআইটির গবেষকেরা দেখিয়েছেন, গোটা দেশের ৪১ শতাংশ অঞ্চল খরায় জ্বলছে।
নান্দেদ শহর থেকে ৩১ কিলোমিটার দূরের সায়েল গ্রামের সমস্ত নলকূপ গত পাঁচবছর ধরে শুকিয়ে গিয়েছে। শুকিয়ে গিয়েছে কুয়োও। প্রায় ৪০০ ফুট খুঁড়ে নলকূপ বসানোর কাজ চলছে। এখান থেকে তিন কিমি দূরে কিছুটা জলের খোঁজ আছে। সব বয়সি মহিলাকে সেখানে যেতে হয় জলের জন্য। এপ্রিলের শেষ সপ্তাহে এক কিশোরী জল আনতে গিয়ে কড়া রোদে অজ্ঞান হয়ে যায়। তার জ্ঞান আর ফেরেনি। ট্যাঙ্কার দিয়ে জল দেওয়া হচ্ছে ঠিকই কিন্তু সেগুলি খাওয়ার অযোগ্য। রান্নার জন্য বেশি দামে জল কিনতে হচ্ছে। তীব্র গরমে সমস্ত জলাধার শুকিয়ে গিয়েছে। কৃষকরা প্রশ্ন করছেন, এর পর কী? দু’-তিনদিন অন্তর স্নান। গোখাদ্যের নিদারুণ অভাব। মাসাধিক কাল যাবৎ গবাদি পশুদেরও স্নান নেই। জল টেনে আনার কারণে মহিলাদের শিরদাঁড়ায় প্রচণ্ড ব্যথা। মারাঠাওয়াড়ার জলচিত্র এককথায় নিষ্ঠুর। কিন্তু, সব ছাপিয়ে আরও একটি ঘটনা। তীব্র খরাতেও বিদ থেকে পারভানি যাওয়ার পথে অন্তত ২০০ বছরের পুরনো কয়েকশো বটগাছ কেটে ফেলা হচ্ছে, শুধু রাস্তা চওড়া করার জন্য! কিন্তু কৃষির সংকট বা খরা কোনোটিই মারাঠাওয়াড়ার নির্বাচনী ফলাফলকে প্রভাবিত করেনি!
নান্দেদ লোকসভা কেন্দ্রে বিজেপি প্রার্থী প্রতাপ রাও পাতিল ছিকালিকার জিতেছেন। অথচ, অনেকেরই ধারণা ছিল, এখানে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী অশোক চ্যবন জিতে যাবেন। ২০১৭ সালেই নান্দেদ ওয়াঘালা পুর নির্বাচনে অশোক চ্যবন জয় ছিনিয়ে এনেছিলেন। হিঙ্গোলিতেও শিবসেনা-বিজেপি জোট জয়লাভ করে। একমাত্র ঔরঙ্গাবাদেই প্রকাশ আম্বেদকরের সংগঠনের প্রার্থী সেনা বিজেপিকে হারায়। কিন্তু ব্যবধান ছিল মাত্র ছ’হাজারের। ২০১৮-র আগস্টে এই ঔরঙ্গাবাদেই মারাঠা এবং দলিতদের মধ্যেই তীব্র দাঙ্গা বেধে গিয়েছিল। ওসমানাবাদ এবং পারভানিতেও বিরোধীরা জিততে পারেনি। বিদ এবং জালনাতেও বিজেপি প্রার্থীরা তাঁদের জয়কে অক্ষুণ্ণ রেখেছেন।
কাজেই প্রশ্ন হচ্ছে, জলের অভাবে কৃষিজমি ফুটিফাটা হয়ে গেলেও এইসব অঞ্চলে অ্যান্টি-ইনকাম্বেন্সি ভোট শক্তিশালী হওয়ার কথা। কিন্তু হচ্ছে প্রো-ইনকাম্বেন্সি ভোট! অস্বীকার করার উপায় নেই যে কেন্দ্রীয় সরকার পিএম কিষাণ সম্মান, পিএম আশা, ফসল বিমা যোজনা, কৃষিঋণ মকুব, কৃষকের অ্যাকাউন্টে সরাসরি নগদ অর্থপ্রদান সহ অনেকগুলি কৃষকমুখী কর্মসূচি নিয়েছিল। এবারের ভোটে তারই প্রতিফলন দেখা গেল কি? কিন্তু খরাক্লিষ্ট কৃষকদের অভিজ্ঞতা অন্যকথা বলছে।
মারাঠাওয়াড়ার হাতনুরের কৃষক রামচন্দ্র কলের কথাই ধরা যাক। কেন্দ্রের ডিজিটাল ইন্ডিয়া স্লোগান তাঁর কাছে নিরর্থক। কৃষক পান্ধারিনাথ বির্ভের কথায়, ৭৫ শতাংশ কৃষক অনলাইন ফর্মফিলাপ করতে গিয়ে চরম নাজেহাল হচ্ছেন। ঋণমকুবের দরখাস্ত পূরণ করবার জন্য নিকটবর্তী সেবাকেন্দ্রে, যেটা অন্তত সাত কিমি দূরে, তাঁকে এবং তাঁর স্ত্রীকে দিনে চারবার ছোটাছুটি করতে হয়। কারণ আধার কার্ডের সঙ্গে তাঁদের আঙুলের ছাপের মিল খুঁজে পাওয়া যাচ্ছিল না। প্রতিদিন অন্তত ৪০০ দরখাস্তকারী সেবাকেন্দ্রে ভিড় করায় হয় কম্পিউটার হ্যাং হয়ে গিয়েছিল অথবা সার্ভার কাজ করছিল না। প্রধানমন্ত্রীর প্রতিশ্রুতিমতো প্রতি মাসে দু’হাজার টাকাও তাঁরা পাননি।
এতদ্‌সত্ত্বেও খরাপীড়িত মারাঠাওয়াড়া থেকে বিজেপি জয়কে অক্ষুণ্ণ রেখে দিয়েছে! পলসওয়ারি গ্রামে (খুলদাবাদ তহসিল) প্রায় ৪০০ কৃষকের ব্যাঙ্কে ২০০০ করে টাকা ঢুকলেও কৃষি দপ্তর থেকে পাঠানো অ্যাকাউন্ট নম্বর ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের সঙ্গে না-মেলায় তাঁরা টাকাই তুলতে পারেনি। এরকম উদাহরণ অগুনতি। মূল কথা হচ্ছে, এসব প্রতিবন্ধকতা সত্ত্বেও প্রধানমন্ত্রী মোদিজির দলের বিজয়রথ অব্যাহত। কিন্তু যে প্রশ্নটা অনিবার্যভাবে ওঠে, তা হল, নির্বাচনে ঠিক কোনটা মূল ইস্যু ছিল? কথাগুলি এই মরশুমেরও তীব্র খরা আর-একবার প্রাসঙ্গিক করে তুলেছে।
 লেখক মালদহের চাঁচল কলেজে রাষ্ট্রবিজ্ঞানের অধ্যাপক 
25th  July, 2019
এনকাউন্টার, আইন এবং ন্যায়বিচার
শান্তনু দত্তগুপ্ত 

জাস্টিস ইজ ডান। নীচে একটা স্মাইলি... প্ল্যাকার্ডে লেখা বলতে শুধু এটাই। কোনও কায়দা নেই। নেই রাজনীতির রং। নেহাতই সাদা কাগজে মোরাদাবাদের স্কুলের ছাত্রীদের হাতে লেখা কাগজগুলো বলছে, এবার হয়তো আমরা নিরাপদ হব।
বিশদ

10th  December, 2019
আর ক’জন ধর্ষিতা হলে রামরাজ্য পাব
সন্দীপন বিশ্বাস 

রাত অনেক হল। মেয়েটি এখনো বাড়ি ফেরেনি। কোথাও আটকে গিয়েছে। অনেক লড়াই করে, পুরুষের সঙ্গে পাশাপাশি ঘাম ঝরিয়ে তাকে বেঁচে থাকতে হয়। বাড়িতে বাবা-মা অস্থির হয়ে ওঠেন।  বিশদ

09th  December, 2019
অর্থনীতিবিদদের ছাড়াই অর্থনীতি
পি চিদম্বরম

প্রত্যেকেই অর্থনীতিবিদ। যে গৃহবধূ পরিবার সামলানোর বাজেট তৈরি করেন, তাঁকে থেকে শুরু করে একজন ডেয়ারি মালিক যিনি দুধ বিক্রির জন্য গোদোহন করেন এবং একজন ছোট উদ্যোগী যিনি বড় নির্মাণ ব্যবসায়ীর জন্য যন্ত্রাংশ তৈরি করেন, সকলেই এই গোত্রে পড়েন।  বিশদ

09th  December, 2019
বাজার আগুন, বেকারত্ব লাগামছাড়া,
শিল্পে মন্দা, সরকার মেতে হিন্দুরাষ্ট্রে
হিমাংশু সিংহ

 দেশভাগ, শরণার্থীর ঢল, বার বার ভিটেমাটি ছাড়া হয়ে উদ্বাস্তু হওয়ার তীব্র যন্ত্রণা আর অভিশাপের মাশুল এই বাংলা বড় কম দেয়নি। ইতিহাস সাক্ষী, সাবেক পূর্ববঙ্গের শত শত নিরাশ্রয় মানুষকে নিজের বুকে টেনে নিতে গিয়ে প্রতি মুহূর্তে তৈরি হয়েছে নতুন নতুন সঙ্কট। বদলে গিয়েছে গোটা রাজ্যের জনভিত্তি।
বিশদ

08th  December, 2019
বাঙালি হিন্দু উদ্বাস্তুর প্রাপ্য অধিকার
জিষ্ণু বসু

 কয়েকদিন আগেই রাজ্যসভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের কথা বলেছেন। চলতি অধিবেশনেই হয়তো পাশ হবে ঐতিহাসিক নাগরিকত্ব সংশোধনী। এটি আইনে রূপান্তরিত হলে পাকিস্তান, বাংলাদেশ ও আফগানিস্তান থেকে ধর্মীয় কারণে অত্যাচারিত হয়ে আসা হিন্দু, জৈন, বৌদ্ধ, শিখ, খ্রিস্টান ও পারসিক সম্প্রদায়ের মানুষেরা এদেশের পূর্ণ নাগরিকত্ব পাবেন।
বিশদ

08th  December, 2019
কর্পোরেটদের যথেষ্ট সুবিধা দিলেও অর্থনীতির বিপর্যয় রোধে চাহিদাবৃদ্ধির সম্ভাবনা ক্ষীণ
দেবনারায়ণ সরকার

রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর তাঁর ‘ক্ষণিকা’ কাব্যগ্রন্থে ‘বোঝাপড়া’ কবিতায় লিখেছিলেন, ‘ভালো মন্দ যাহাই আসুক সত্যেরে লও সহজে।’ কিন্তু কেন্দ্রের অন্যান্য মন্ত্রীরা থেকে শুরু করে অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন ভারতীয় অর্থনীতির চরম বেহাল অবস্থার বাস্তবতা সর্বদা চাপা দিতে ব্যস্ত। 
বিশদ

07th  December, 2019
অণুচক্রিকা বিভ্রাট
শুভময় মৈত্র

সরকারি হাসপাতালে ভিড় বেশি, বেসরকারি হাসপাতালের তুলনায় সুবিধে হয়তো কম। তবে নিম্নবিত্ত মানুষের তা ছাড়া অন্য কোনও পথ নেই। অন্যদিকে এটাও মাথায় রাখতে হবে যে রাজ্যে এখনও অত্যন্ত মেধাবী চিকিৎসকেরা সরকারি হাসপাতালে কাজ করেন। 
বিশদ

06th  December, 2019
সার্ভিল্যান্স যুগের প্রথম পরীক্ষাগার উইঘুর সমাজ
মৃণালকান্তি দাস

চীনের সংবাদ মানেই তো যেন সাফল্যের খবর। সমুদ্রের উপর ৩৪ মাইল লম্বা ব্রিজ, অতিকায় যাত্রী পরিবহণ বিমান তৈরি, প্রতিরক্ষা ক্ষেত্রে নয়া উদ্ভাবন, চাঁদের অপর পিঠে অবতরণ...। মিহিরগুল তুরসুনের ‘গল্প’ সেই তালিকায় খুঁজেও পাবেন না। ১৪১ কোটি জনসংখ্যার চীনে মিহিরগুল মাত্র সোয়া কোটি উইঘুরের প্রতিনিধি। 
বিশদ

06th  December, 2019
আর ঘৃণা নিতে পারছে না বাঙালি
হারাধন চৌধুরী

 এটাই বোধহয় আমার শোনা প্রথম কোনও ছড়া। আজও ভুলতে পারিনি। শ্রবণ। দর্শন। স্পর্শ। প্রথম অনেক জিনিসই ভোলা যায় না। জীবনের উপান্তে পৌঁছেও সেসব অনুভবে জেগে থাকে অনেকের। কোনোটা বয়ে বেড়ায় সুখানুভূতি, কোনোটা বেদনা। এই ছড়াটি আমার জীবনে তেমনই একটি। যখন প্রথম শুনেছি তখন নিতান্তই শিশু। বিশদ

05th  December, 2019
আগামী ভোটেও বিজেপির গলার কাঁটা এনআরসি
বিশ্বনাথ চক্রবর্তী

রাজ্যের তিন বিধানসভা কেন্দ্রে বিজেপির বিপর্যয় বিশ্লেষণ করতে গিয়ে যখন ওই প্রার্থীদের পরাজয়ের ব্যাপারে সকলেই একবাক্যে এনআরসি ইস্যুকেই মূল কারণ হিসেবে চিহ্নিত করেছেন, তখনও বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব এনআরসিতে অটল। তিন বিধানসভা কেন্দ্রের বিপর্যয়ের পর আবারও অমিত শাহ এনআরসি কার্যকর করবার হুংকার ছেড়েছেন।  
বিশদ

03rd  December, 2019
সিঁদুরে মেঘ ঝাড়খণ্ডেও
শান্তনু দত্তগুপ্ত

ভারতের গণতান্ত্রিক রাজনীতিতে একটা কথা বেশ প্রচলিত... এদেশের ভোটাররা সাধারণত পছন্দের প্রার্থীকে নয়, অপছন্দের প্রার্থীর বিরুদ্ধে ভোট দিয়ে থাকেন। ২০১৪ সালে যখন নরেন্দ্র মোদিকে নির্বাচনী মুখ করে বিজেপি আসরে নামল, সেটা একটা বড়সড় চমক ছিল। 
বিশদ

03rd  December, 2019
আচ্ছে দিন আনবে তুমি এমন শক্তিমান!
সন্দীপন বিশ্বাস

আমাদের সঙ্গে কলেজে পড়ত ঘন্টেশ্বর বর্ধন। ওর ঠাকুর্দারা ছিলেন জমিদার। আমরা শুনেছিলাম ওদের মাঠভরা শস্য, প্রচুর জমিজমা, পুকুরভরা মাছ, গোয়ালভরা গোরু, ধানভরা গোলা সবই ছিল। দেউড়িতে ঘণ্টা বাজত। ছিল দ্বাররক্ষী। কিন্তু এখন সে সবের নামগন্ধ নেই। ভাঙাচোরা বাড়ি আর একটা তালপুকুর ওদের জমিদারির সাক্ষ্য বহন করত। 
বিশদ

02nd  December, 2019
একনজরে
নিজস্ব প্রতিনিধি, হাওড়া: রোগীকে অন্য হাসপাতালে স্থানান্তর করার প্রক্রিয়া হতে দেরি হওয়ার অভিযোগে বুধবার বিকেলে ফুলেশ্বরের একটি বেসরকারি হাসপাতালে ভাঙচুর চালাল রোগীর আত্মীয়রা। এই ঘটনাকে ...

বিএনএ, রায়গঞ্জ: কালিয়াগঞ্জ বিধানসভা উপনির্বাচনে বিপর্যয়ের পর উত্তর দিনাজপুরে বিজেপির ঘুরে দাঁড়ানোটাই এখন বড় চ্যালেঞ্জ। একদিকে সাংগঠনিক দুর্বলতা, দলীয় অন্তর্দ্বন্দ্ব, লোকসভা নির্বাচনে সাধারণ ভোটারদের সমর্থন কয়েক মাসের মধ্যে অনেকটা হারিয়ে ফেলায় কার্যত দিশেহারা গেরুয়া শিবিরের নেতৃত্ব।  ...

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ধানের নাড়া পোড়ানো নিষিদ্ধ করল রাজ্য সরকার। প্রতিটি গ্রাম পঞ্চায়েতকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, ধান কাটার পর নাড়া তুলে ফেলতে হবে, পুড়িয়ে দেওয়া যাবে না। ধানের নাড়া পোড়ানোর জন্যই দূষণ মারাত্মক আকার নিচ্ছে। ...

সংবাদদাতা, শিলিগুড়ি: শিলিগুড়ির কাঞ্চনজঙ্ঘা ক্রীড়াঙ্গণে অস্থায়ীভাবে ক্রিকেট পিচ করা হল। শহরের ক্রিকেট খেলোয়াড়দের সুবিধার জন্যই অস্থায়ীভাবে এই পিচ করেছে শিলিগুড়ি মহকুমা ক্রীড়া পরিষদ। স্টেডিয়াম থেকে ক্রিকেট খেলা চাঁদমনির মাঠে স্থানান্তর করার পর অনেক অসুবিধায় পড়তে হয় শিলিগুড়ি ক্রিকেট খেলোয়াড়দের।   ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
aries

আত্মবিশ্বাস এত বৃদ্ধি পাবে যে, কোনও কাজই কঠিন মনে হবে না। সঞ্চয় বেশ ভালো হবে। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯১১: রদ হল বঙ্গভঙ্গ
১৯১১: নতুন রাজ্য হল বিহার ও ওড়িশা
১৯১১: কলকাতা থেকে রাজধানী স্থানান্তরিত হল দিল্লিতে
১৯৫০: অভিনেতা রজনীকান্তের জন্ম
১৯৫৭: পূর্ব রেলে ইএমইউ ট্রেনযাত্রা চালু
২০০৫: পরিচালক রামানন্দ সাগরের মূত্যু





ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.০৪ টাকা ৭১.৭৪ টাকা
পাউন্ড ৯১.৪৭ টাকা ৯৪.৮০ টাকা
ইউরো ৭৭.১৫ টাকা ৮০.১৩ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,২৭৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৩১৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৬,৮৬০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৩,৬০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৩,৭০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, পূর্ণিমা ১১/১৯ দিবা ১০/৪২। রোহিণী ০/২৮ দিবা ৬/২২। সূ উ ৬/১০/৪৫, অ ৪/৪৯/১৯, অমৃতযোগ দিবা ৭/৩৫ মধ্যে পুনঃ ১/১৬ গতে ২/৪১ মধ্যে। রাত্রি ৫/৪২ গতে ৯/১৬ মধ্যে পুনঃ ১১/৫৬ গতে ৩/৩০ মধ্যে পুনঃ ৪/২৪ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ২/১০ গতে অস্তাবধি, কালরাত্রি ১১/২৯ গতে ১/৯ মধ্যে।
২৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৬, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯, বৃহস্পতিবার, পূর্ণিমা ১১/৫৬/৫১ দিবা ১০/৫৯/৫। রোহিণী ২/৩৮/১৪ দিবা ৭/১৫/৩৯, সূ উ ৬/১২/২১, অ ৪/৪৯/৪১, অমৃতযোগ দিবা ৭/৪৭ মধ্যে ও ১/২৩ গতে ২/৪৮ মধ্যে এবং রাত্রি ৫/৪৮ গতে ৯/২৩ মধ্যে ও ১২/৪ গতে ৩/৩৯ মধ্যে ও ৪/৩৩ গতে ৬/১৩ মধ্যে, কালবেলা ২/১০/২১ গতে ৩/৩০/১ মধ্যে, কালরাত্রি ১১/৩১/১ গতে ১/১১/২১ মধ্যে।
১৪ রবিয়স সানি

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
অযোধ্যা মামলার রায় পুনর্বিবেচনার আর্জি খারিজ করল সুপ্রিম কোর্ট

04:54:33 PM

সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউতে গ্রেপ্তার যুব কং কর্মীরা 
ই-মলের সামনে থেকে গ্রেপ্তার করা হল যুব কং কর্মীদের। আজ, ...বিশদ

04:43:00 PM

সেক্টর ফাইভে ভুয়ো ডেটিং সাইট খুলে প্রতারণা, মুম্বইতে গ্রেপ্তার ৩ অভিযুক্ত 

04:26:00 PM

১৬৯ পয়েন্ট উঠল সেনসেক্স 

04:01:36 PM

 অনশন উঠল পার্শ্বশিক্ষকদের
 অবশেষে উঠল পার্শ্বশিক্ষকদের অনশন। টানা ৩২ দিন ধরে আন্দোলন, যার ...বিশদ

04:00:00 PM

ক্যাব ইস্যুতে মুর্শিদাবাদের রঘুনাথগঞ্জে ব্যাপক বিক্ষোভ এলাকাবাসীদের 

03:34:21 PM