Bartaman Patrika
অমৃতকথা
 

অমৃতকথা 

মহাপ্রভুর মহাজাতি গঠন
মহাপ্রভুর অনবদ্যরূপ, অনুপম গুণ, সুচিশুদ্ধ চরিত্র ও অনির্বচনীয় মাধুর্যে সে যুগের প্রত্যেকটি মানুষ আকৃষ্ট হইয়াছিল। তাঁহার স্পর্শে ক্রূর শ্বাপদও হিংসা ভুলিয়াছিল। দুর্বৃত্ত, পাষণ্ড, দস্যু ও লম্পট বহু ব্যক্তি তাঁহার সংস্পর্শে ধর্মাত্মা হইল। সমাজের সকল আত্মিক দৈন্য ও নীচতার বেদনা তিনি দূরীভূত করিলেন এবং বৈষম্যছিন্ন অগণিত নরনারীকে এক মহাসাম্যের ভূমিকায় উন্নীত করিতে প্রভূত যত্ন করিলেন। অশান্তির হাহাকারে ব্যাকুল জীবকুলকে ডাকিয়া ডাকিয়া থাকিয়া থাকিয়া শাশ্বত শান্তির সন্ধান দিলেন। অবতীর্ণ হইয়াছিলেন নদীয়ায় কিন্তু তিনি সমগ্র জগতের সর্ব মানবের। বিশ্ব পৃথিবীর ইতিহাসে এমন একটি মহাপ্রাণ মহাপুরুষের আর সন্ধান নাই। যাঁহাকে সেই যুগে আপামর সকলে রাজা প্রজা ধনী দরিদ্র উচ্চবর্ণ নিম্নবর্ণ অন্ত্যজ পণ্ডিত মূর্খ পুরুষ নারী সকলেই আন্তরিক ভালোবাসিয়াছে এবং তাঁহাকে পরম হিতৈষী ভাবিয়া তাঁহার শিক্ষা মস্তকে ধারণ করিয়াছে।
মহাপ্রভু তৎকালে প্রচলিত হিন্দুর বর্ণাশ্রম বা মুসলমানের বা অন্য জাতির কোনও ধর্মের নিন্দা করেন নাই বা কাহাকেও ধর্মান্তরিত করার জন্য কখনও চেষ্টা করেন নাই। তিনি এমন এক বিশুদ্ধ ও উদার পরমধর্ম বা আত্মধর্মের বাণী প্রচার করিয়াছেন যাহার মধ্যে হিন্দুর বর্ণাশ্রমী, অন্ত্যজ, মুসলমান, খৃষ্টান, বৌদ্ধ, শিখ এবং অন্যান্য সকল ধর্মাবলম্বীর স্থান আছে এবং কাহারও প্রত্যাখ্যান নাই। বিমল প্রেমধর্মের প্রতি মানবজাতির দৃষ্টি আকর্ষণ করিলেন এবং এক অখণ্ড মানব মহাজাতি স্থায়ীভাবে গঠনের উদ্বোধন করিয়া গেলেন।
ঈশ্বরপ্রেমই ঘনীভূত হইয়া প্রকৃত জীবপ্রেমরূপে প্রকাশিত হয়। সকল জাতি ও ধর্মের ঊর্ধ্বে ঈশ্বরপ্রেমের বাণী মহাপ্রভুর শ্রেষ্ঠ অবদান। ইহাই প্রকৃত ধর্মবিপ্লব। মহাপ্রভু ও তাঁহার পার্ষদগণ দ্বারে দ্বারে গ্রামে গ্রামে ভক্তিধর্মের সর্বোৎকর্ষের বাণী প্রচার করিলেন। তাহাতে সকল জাতির ব্যক্তিগণ নিজেদের মানবজন্মের দুর্লভতা বুঝিয়া ভক্তিধর্মে প্রবেশ করিয়া ধন্য হইলেন। বর্তমান সময়ে মহাপ্রভুর বিমল প্রেমভক্তি ধর্মই বিশ্বের সকল জাতি ও ধর্মের লোককে এক ঈশ্বরভজনের মাধ্যমে একসূত্রে আবদ্ধ করিয়া অখণ্ড মানব মহাজাতি নির্মাণের সাহস ও যোগ্যতা রাখে।
প্রেমাবতার মহাকারুণিক মহান বন্ধু শ্রীচৈতন্য মহাপ্রভুই এই
পরিচালনার উদ্বোধন করিয়া গিয়াছেন এবং অদূর ভবিষ্যতে তাঁহার এই পরিচালনা বাস্তবে পরিণত হইবে। সেইদিনই প্রকৃত সত্যযুগ আসিবে এবং বিশ্বশান্তি স্থাপিত হইবে। পরবর্তী মহামানবগণ সকলেই এক অখণ্ড মানবসমাজ গঠনের অনুপ্রেরণা মহাপ্রভুর বিশুদ্ধ আদর্শ, শিক্ষা ও প্রচার হইতে লাভ করিয়াছেন ইহা বলিলে সত্যই বলা হইবে। জাতি ধর্ম
নির্বিশেষে পৃথিবীর প্রত্যেকটি নর নারীকে দৈক্ষ ব্রাহ্মণ পর্যায়ে উন্নীত করিয়া হরিভজন শিক্ষা দিলেই এক অখণ্ড মানবসমাজ ও সংহতি হইতে পারিবে এবং তাহার দ্বারাই জগতের প্রভূত কল্যাণ হইবে। ঐহিক ও পারত্রিক সকল বিচারেই প্রত্যেকের মঙ্গল হইবে।
পণ্ডিতপ্রবর জ্যোতির্ময় নন্দের ‘জ্যোতির্ময় রচনাঞ্জলি’ থেকে 
আকর্ষণ 

“মস্তিষ্ক-মধ্যগত ব্রহ্মরন্ধ্রস্থ অবকাশ বা আকাশে অখণ্ড-সচ্চিদানন্দস্বরূপ পরমাত্মার বা শ্রীভগবানের জ্ঞানস্বরূপে অবস্থান। তাঁহার প্রতি কুণ্ডলীশক্তির বিশেষ অনুরাগ, অথবা শ্রীভগবান তাঁহাকে নিরন্তর আকর্ষণ করিতেছেন।”  
বিশদ

13th  August, 2019
রামকৃষ্ণগতপ্রাণা

যখন ঠাকুর চলে গেলেন, আমারও ইচ্ছা হল, আমিও চলে যাই। তিনি দেখা দিয়ে বললেন, ‘না, তুমি থাক। অনেক কাজ বাকী আছে।’ শেষে দেখলুম, তাইতো, অনেক কাজ বাকী। ঠাকুরের শরীরত্যাগের পর বৃন্দাবনে আছি। সকলেই তাঁর শোকে কাতর। একদিন রাত্রে ঠাকুর বলছেন, ‘তোমরা অত কাঁদছ কেন? আমি আর গেছি কোথা? এঘর আর ওঘর বৈ তো নয়?’
বিশদ

12th  August, 2019
 সদ্‌গুরু

 কেবল সদ্‌গুরুর অপেক্ষায় বসিয়া না থাকিয়া যথাসাধ্য ঈশ্বরচিন্তা, সাধুসঙ্গ ও সদ্‌গ্রন্থাদি পাঠ করিবার চেষ্টা করিও। জমি প্রস্তুত হইলে বীজ বপন করিলে সুফল ফলে ; এবং ইহা একটি প্রকৃতির রহস্য যে জমি প্রস্তুত হইলেই বীজ আপনি আসিয়া উপস্থিত হয়। অভাববোধ হইলেই তাহার পূরণ হয়। বিশদ

11th  August, 2019
দেবীমানবী

তিনি(ঠাকুর) বলতেন, ‘ওরে, ওর নাম সারদা, ও সরস্বতী।’(ঠাকুর গোলাপ-মাকেও বলেছিলেন, ‘ও সারদা, সরস্বতী—জ্ঞান দিতে এসেছে।’) সকলেই কি আর চিনতে পারে, মা? ঘাটে একখানা হীরা পড়ে ছিল। সব্বাই পাথর মনে করে তাতে পা ঘষে স্নান করে উঠে যেত। একদিন এক জহুরি সেই ঘাটে এসে দেখে চিনলে যে, সেখানে এক প্রকাণ্ড মহামূল্য হীরা। ঠাকুর সাক্ষাৎ ভগবান। আমি আর কে, আমিও ভগবতী।
বিশদ

10th  August, 2019
শ্রীগুরু

 প্রশ্ন: গুরুর কাছে কিছু চাওয়া উচিত কি? উত্তর: আমরা গুরুর কাছে সাধারণত বাস্তব অভাব পূরণের দাবী করে থাকি। কিন্তু যিনি প্রকৃত গুরু তিনি জানেন শিষ্যের প্রকৃত অভাব কি? যাতে শিষ্যের কল্যাণ হয়, তা শিষ্য চাইবার আগেই তিনি দিয়ে থাকেন। তাই গুরুর কাছে কিছু চাইতে নেই। বিশদ

09th  August, 2019
জ্ঞান

যথার্থ জ্ঞানের দ্বারা জীবের অবিদ্যারূপ উপাধির বিনাশ হয়, অন্য কোন উপায়ে ইহার নাশ হয় না। ব্রহ্মের সহিত আত্মার একাত্বানুভবই জ্ঞান, শ্রুতি ইহা বলেন। আত্মা কি, অনাত্মাই বা কি, এই বিচার যথাযথ ভাবে করিতে পারিলে আত্মজ্ঞানের উৎপত্তি হয়। অতএব জীব ও ব্রহ্মের স্বরূপ বিচারের দ্বারা নির্ণয় করা কর্তব্য। বিশদ

08th  August, 2019
ঈশ্বর

বিশ্বাস মানে এটি যে ঈশ্বরের নাম, এই প্রক্রিয়ায় আমি ঈশ্বরকে লাভ করব এবং এটি আমার একান্তই করণীয়—এই আস্থা ও দৃঢ়তা। বিশ্বাস ও আস্থা না থাকলে জপ শুধু যে হয় না তাই নয়, জপ-সাধনা বেশীদিন চালানো যায় না।  বিশদ

07th  August, 2019
গুরু মাহাত্ম্য

গুরু কে শিষ্য কে?—এই নিয়ে আজকের সমাজে নানা মতভেদ আছে। অনেকে আবার গুরুর সন্ধানে যত্রতত্র ঘুরে বেড়ান, মনোমত গুরুকরণ করবেন এ আশায়। এ ধরণের শিষ্যলাভ একদিকে খুবই ভাল। কারণ এর ফলে শিষ্যের প্রতি গুরুর দায়িত্ব কমে যায়। স্বভাবতই এই শিষ্যরাই গুরুদেবকে পরিচালনা করে থাকেন।
বিশদ

06th  August, 2019
 শ্রীম

অটল সংকল্প ও স্থির সিদ্ধান্তের মানুষ ছিলেন শ্রীম। তাঁর চরিত্রে ছিল কঠোর নিয়মানুবর্তিতা। যে মহৎ আদর্শকে তিনি অপরিহার্য, মূল্যবোধ এবং আলোকসন্ধানী বলে অবলম্বন করতেন, কখনো তাদের জলাঞ্জলি দিতে কোনো আপোষ রফা করেননি।
বিশদ

05th  August, 2019
শ্রীগুরুর সতর্কবাণী

তোমরা মাঝে মাঝে মনে কর যে কোন্‌ পথ ধরে চললে তোমাদের নিজভাব সংস্কার হয়ে মানুষের মঙ্গল হবে। কিন্তু এ ভাবনা সত্য নয়। কারণ নিজের ভাব কি তা মানুষ নিজেই জানে না, অথচ অপরের ভাব ও পথকে নিন্দা করে থাকে।
বিশদ

04th  August, 2019
অমৃতকথা 

হে বিদ্বন্‌, ভয় পাইও না। তোমার আর সংসারে গতাগতি হইবে না। এই সংসারসিন্ধু উত্তীর্ণ হওয়ার উপায় আছে। যে উপায়-অবলম্বনে সাধকগণ ইহার পাড়ে গিয়াছেন তোমাকে সেই উপায়ের উপদেশ দিব।   বিশদ

03rd  August, 2019
বন্ধন

 ব্যষ্টিসত্তা যখন মায়াজালে আবদ্ধ থাকে তখন তাকে বলে জীব বা অনুমন, অর্থাৎ জীবের বৈশিষ্ট্যই হ’ল বন্ধন। ব্রহ্মকৃপায় সাধনার দ্বারা যাঁরা এই বন্ধন ছিন্ন করে যখন নিজেকে মুক্ত করতে পারেন তখন তাঁরা শিবত্বে উন্নীত হন। তাহলে দেখা যাচ্ছে, শিব ও জীবের মধ্যে মূলগত পার্থক্য মাত্র একটি বিষয়ে—শিব হলেন বন্ধনমুক্ত আর জীব বন্ধনযুক্ত। বিশদ

02nd  August, 2019
সংসার-সংসারী জীব

“সব কাজ করবে কিন্তু মন ঈশ্বরেতে রাখবে। স্ত্রী, পুত্র, বাপ, মা—সকলকে নিয়ে থাকবে ও সেবা করবে। যেন কত আপনার লোক। কিন্তু মনে জানবে যে, তারা তোমার কেউ নয়।
“কচ্ছপ জলে চরে বেড়ায়, কিন্তু তার মন কোথায় পড়ে আছে জান?—আড়ায় পড়ে আছে। যেখানে তার ডিমগুলি আছে। সংসারের সব কর্ম করবে, কিন্তু ঈশ্বরে মন ফেলে রাখবে।
বিশদ

01st  August, 2019
বৌদ্ধধর্ম-প্রসঙ্গে

এথিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি ডক্টর জেন্‌স্‌ স্বামী বিবেকানন্দকে বক্তৃতামঞ্চে উপস্থাপিত করিলে তিনি তাঁহার ভাষণ আরম্ভ করেন। উহার কিয়দংশ উদ্ধৃত হইতেছে: বৌদ্ধধর্ম-প্রসঙ্গে হিন্দুদের একটি বিশিষ্ট স্থান আছে।
বিশদ

31st  July, 2019
শ্রীরামকৃষ্ণ আধ্যাত্মিক গগনে উজ্জ্বলতম তারকা

অনিঃশেষ সেই আনন্দ, অদম্য সেই শক্তি। সে এক অনন্ত সুখের আকর। ধারণার উচ্চতায়, সুপ্রাচীন জ্ঞানের প্রকাশে, অন্তর্দৃষ্টির গভীরতায়, ধ্যানতন্ময় প্রশান্তিতে, ভক্তির উচ্ছ্বাস ও উদ্দীপনায়, সাধকজীবনের কঠোরতায়, বাণীর মনোহারিত্বে তাঁর জীবনকে সমৃদ্ধ অধ্যাত্মজীবনের বিস্ময়কর উদাহরণ।
বিশদ

30th  July, 2019
কামিনী-কাঞ্চন

 “...কামিনী-কাঞ্চন অনিত্য। ঈশ্বরই একমাত্র বস্তু। টাকায় কি হয়? ভাত হয়, ডাল হয়, কাপড় হয়, থাকবার জায়গা হয়—এই পর্যন্ত। ভগবানলাভ হয় না। তাই টাকা জীবনের উদ্দেশ্য হতে পারে না।...”
বিশদ

29th  July, 2019
একনজরে
নয়াদিল্লি, ১৩ আগস্ট (পিটিআই): উন্নাওয়ের নির্যাতিতা এবং তাঁর পরিবারের বিরুদ্ধে ২০টি মামলা দায়ের হয়েছে উত্তরপ্রদেশে। মঙ্গলবার উত্তরপ্রদেশ সরকারের কাছ থেকে সেই মামলাগুলির স্ট্যাটাস রিপোর্ট তলব করার ব্যাপারে অসম্মতি জানাল সুপ্রিম কোর্ট।  ...

 মুম্বই, ১৩ আগস্ট: স্বার্থের সংঘাতের অভিযোগ থেকে রেহাই পেলেন প্রাক্তন অধিনায়ক রাহুল দ্রাবিড়। তার ফলে জাতীয় ক্রিকেট অ্যাকাডেমির কোচ হতে তাঁর সামনে আর কোনও বাধা রইল না। প্রশাসক কমিটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, রাহুল দ্রাবিড়ের বিরুদ্ধে স্বার্থের সংঘাতের যে অভিযোগ ...

সংবাদদাতা রায়গঞ্জ: নানা অনিয়মের অভিযোগ তুলে উত্তর দিনাজপুর জেলাজুড়ে সমস্ত ভূমি ও ভূমি সংস্কার দপ্তরের বিরুদ্ধে আন্দোলনে নামছে কংগ্রেস। অভিযোগ, জেলা ও ব্লক স্তরের ভূমি সংস্কার দপ্তরগুলিতে নানা বেআইনি কাজ হচ্ছে। অনৈতিক ভাবে টাকা নিয়ে গরিব মানুষদের নামে থাকা জমি ...

বিএনএ, কৃষ্ণনগর: ঘূর্ণির শিল্পী সুবীর পাল ‘লিমকা বুক অব রেকডর্সে’ নাম তুলে ফেললেন। সুবীরবাবুর ঝুলিতে অনেক আগেই এসেছে রাষ্ট্রপতি পুরস্কার। একইসঙ্গে বৃহৎ মূর্তি(লার্জার দ্যান লাইফ) এবং ক্ষুদ্র ভাস্কর্য তৈরি করে তিনি ঠাঁই পেয়েছেন লিমকা বুকে। ভেঙে ফেলেছেন আগের রেকর্ডও। সম্প্রতি ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কোনও কিছুতে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে ভাববেন। শত্রুতার অবসান হবে। গুরুজনদের কথা মানা দরকার। প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় সুফল ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯৪৭- পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবস
১৯৪৮- শেষ ইনিংসে শূন্য রানে আউট হলনে ডন ব্র্যাডম্যান
১৯৫৬- জার্মা নাট্যকার বের্টোল্ট ব্রেখটের মৃত্যু
২০১১- অভিনেতা শাম্মি কাপুরের মৃত্যু 



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.২৭ টাকা ৭১.৯৭ টাকা
পাউন্ড ৮৪.২৫ টাকা ৮৭.৩৭ টাকা
ইউরো ৭৮.০৭ টাকা ৮১.০৭ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,৪৩০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৪৬০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭,০০৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৪,৬০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৪,৭০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২৮ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৪ আগস্ট ২০১৯, বুধবার, চতুর্দশী ২৬/১৩ দিবা ৩/৪৬। উত্তরাষাঢ়া ০/৫ প্রাতঃ ৫/১৯। সূ উ ৫/১৬/৩৫, অ ৬/৬/১৬, অমৃতযোগ দিবা ৬/৫৮ মধ্যে পুনঃ ৯/৩৩ গতে ১১/১৫ মধ্যে পুনঃ ৩/৩২ গতে ৫/১৫ মধ্যে। রাত্রি ৬/৫২ গতে ৯/৬ মধ্যে পুনঃ ১/৩৩ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ৮/২৯ গতে ১০/৫ মধ্যে পুনঃ ১১/৪২ গতে ১/১৮ মধ্যে, কালরাত্রি ২/২৯ গতে ৩/৫২ মধ্যে। 
২৮ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৪ আগস্ট ২০১৯, বুধবার, চতুর্দশী ২৪/৩১/৩ দিবা ৩/৪/৩। উত্তরাষাঢ়ানক্ষত্র ২/১০/১৭ দিবা ৬/৭/৪৫, সূ উ ৫/১৫/৩৮, অ ৬/৮/৪২, অমৃতযোগ দিবা ৭/০ মধ্যে ও ৯/৩২ গতে ১১/১৪ মধ্যে ও ৩/২৮ গতে ৫/১০ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৪৬ গতে ৯/১ মধ্যে ও ১/৩২ গতে ৫/১৬ মধ্যে, বারবেলা ১১/৪২/১০ গতে ১/১৮/৪৮ মধ্যে, কালবেলা ৮/২৮/৫৪ গতে ১০/৫/৩২ মধ্যে, কালরাত্রি ২/২৮/৫৪ গতে ৩/৫২/১৬ মধ্যে। 
১২ জেলহজ্জ 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
তৃতীয় একদিনের ম্যাচ: বৃষ্টিতে ফের বন্ধ খেলা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৫৮/২(২২ওভার)  

09:25:56 PM

তৃতীয় একদিনের ম্যাচ: ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৩১/২(১৫ওভার)  

08:44:01 PM

তৃতীয় একদিনের ম্যাচ: ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১১৪/০(১০ ওভার)  

08:19:26 PM

 আগামীকাল কম ট্রেন মেট্রোয়
আগামীকাল ১৫ আগস্ট স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ছুটি থাকায় ...বিশদ

08:12:59 PM

তৃতীয় একদিনের ম্যাচ: ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২৯/০(৫ ওভার)  

07:49:21 PM

তৃতীয় একদিনের ম্যাচ: বৃষ্টিতে বন্ধ খেলা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৮/০(১.৩ ওভার) 

07:24:54 PM