কলকাতা

‘এতদিন কোথায় ছিলেন বাহাদুর বেটি?’ ক্ষোভ উগরে রেখাকে প্রশ্ন সন্দেশখালির

নিজস্ব প্রতিনিধি, বারাসত ও সংবাদদাতা, বসিরহাট: ভোট প্রচারের সময় মানুষের পাশে থাকার বার্তা দিয়েছিলেন। কিন্তু ভোটে হেরে যেতেই ভ্যানিশ বসিরহাট লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী রেখা পাত্র। বসিরহাটে বাড়ি ভাড়া নিয়ে ভোট পর্বে প্রচার করেছিলেন। কিন্তু ভোট মিটতেই তিনি সপরিবারে আশ্রয় নিয়েছেন কলকাতার সল্টলেকে। এভাবে তিনি আর ক’দিন বাড়িছাড়া হয়ে থাকবেন, তা নিয়ে প্রশ্ন বিজেপি’র নেতা-কর্মীদের। তবে, বৃহস্পতিবার সন্দেশখালিতে এসেছিলেন রেখা। কিন্তু নদী পেরিয়ে আন্দোলনের আঁতুড়ঘরে পৌঁছতে পারেননি তিনি। রাজবাড়িতে বেশ কয়েকজন বিজেপি কর্মীর সঙ্গে দেখা করলেও বিজেপি নেতাদের বড় অংশই তাঁকে দেখে মুখ ফেরান। অনেকেই বলছেন, ভোট পরবর্তী হিংসায় যাঁরা আক্রান্ত হয়েছেন, তাঁরা প্রার্থীর সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেছিলেন। কিন্তু তাঁর দেখা পাননি। এরপর তাঁদের সংযোজন—‘এতদিন কোথায় ছিলেন বাহাদুর বেটি?’
তৃণমূল নেতাদের বিরুদ্ধে জমি দখল থেকে শুরু করে একের পর এক অভিযোগ তুলে সন্দেশখালিতে শুরু হয় আন্দোলন। সাধারণ মানুষের এই আন্দোলনকে কার্যত হাইজ্যাক করার অভিযোগ ওঠে বিজেপি’র বিরুদ্ধে। টাকা দিয়ে সেই আন্দোলনকে জিইয়ে রাখা হয়েছিল বলে দাবি করেছেন বিজেপি’র মণ্ডল সভাপতি গঙ্গাধর কয়াল। এই এলাকা থেকেই আন্দোলনের প্রতিবাদী মুখ রেখা পাত্রকে বসিরহাট লোকসভা কেন্দ্রে দাঁড় করায় বিজেপি। ভোটপ্রচারে এসে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি তাঁর প্রশংসায় পঞ্চমুখ হন। সভায় রেখাকে ‘বাহাদুর বেটি’ বলতেও শোনা গিয়েছিল প্রধানমন্ত্রীকে। রেখা কখনও তৃণমূলের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন, কখনও আবার পুলিসকে গাছে বেঁধে রাখার হুমকিও দিয়েছিলেন। কিন্তু, তৃণমূল প্রথম থেকে দাবি করে আসছিল যে, বসিরহাট কেন্দ্রে তারাই জয়ী হবে। আদতে হয়েছেও তাই। প্রায় তিন লক্ষেরও বেশি ভোটে বসিরহাট লোকসভা আসনে পরাজিত হয়েছেন মোদির স্নেহধন্য রেখা পাত্র। ভোট গোনার কাজ শেষ হওয়ার আগেই তিনি গণনাকেন্দ্র ছাড়েন। আর সেই যে ছাড়েন, তারপর আর বসিরহাটের পথ মারাননি তিনি, এমনটাই অভিযোগ। শেষমেশ বসিরহাটের ভাড়া বাড়ি ছেড়ে তিনি ‘নিরাপদ’ জায়গা সল্টলেকে আশ্রয় নিয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। ভোট পরবর্তীকালে বিভিন্ন জায়গায় আক্রান্ত হয়েছেন বিজেপি’র নেতা-কর্মীরা। কিন্তু যাঁর জন্য তাঁরা লড়লেন, সেই রেখাই বেপাত্তা! ভোটের ফল বেরিয়েছে ১০ দিন পেরিয়ে গিয়েছে। এরমধ্যে তাঁকে এলাকায় দেখা যায়নি। আক্রান্ত বিজেপি কর্মীদের সঙ্গে দেখা করছেন সাংগঠনিক জেলার নেতৃত্ব। বৃহস্পতিবার সকালে রেখা রাজবাড়িতে আসেন। আক্রান্ত দুই বিজেপি নেতার সঙ্গে দেখা করে সটান চলে যান কলকাতায়। স্থানীয় নেতাদের সঙ্গেও কথা বলেননি। বিজেপি নেতাদের কথায়, আসলে উনি হাতে চাঁদ পেয়ে যাওয়ায় যা হওয়ার তাই হয়েছে। কর্মীরা যখন আক্রান্ত, তখন তিনি নিরাপদে রয়েছেন কলকাতায়। এতদিন বাদে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হতে নামকাওয়াস্তে এসেছেন। নদী পেরিয়ে আন্দোলনের আঁতুড়ঘর সন্দেশখালিতে যাওয়ার সাহস হয়নি তাঁর।
আসলে দলেরই একাংশের মদতে বিজেপি’র এমন অবস্থা হয়েছে। রেখা প্রার্থী হতেই কেন্দ্রীয় নিরাপত্তারক্ষীরা তাঁকে ঘিরে ফেলেন। তা দেখে গ্রামবাসীদের বক্তব্য, আন্দোলনের সময় আমরা ছিলাম। এখন তাঁর সুসময়। নিরাপত্তার ঘেরাটোপে থাকা রেখাকে অভিযোগ জানাতেও ভয় লাগে। তবে, আগামী দিনে মানুষের পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছেন রেখা পাত্র। 
তৃণমূলের টিপ্পনি, সন্দেশখালির মানুষ বুঝতে পেরেছেন, আন্দোলনের নামে ভোটের রাজনীতি করেছিল বিজেপি। ওরা চায় ভোটের রাজনীতি, আর আমরা মানুষের উন্নতি।
1Month ago
রাজ্য
দেশ
বিদেশ
খেলা
বিনোদন
ব্ল্যাকবোর্ড
শরীর ও স্বাস্থ্য
বিশেষ নিবন্ধ
সিনেমা
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
আজকের দিনে
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
mesh

গুরুজনের থেকে অর্থকড়ি লাভ হতে পারে। স্বার্থান্বেষী আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে দূরত্ব রেখে চলুন। মনে চাঞ্চল্য।...

বিশদ...

এখনকার দর
ক্রয়মূল্যবিক্রয়মূল্য
ডলার৮২.৮১ টাকা৮৪.৫৫ টাকা
পাউন্ড১০৬.৫৫ টাকা১১০.০৬ টাকা
ইউরো৮৯.৫৫ টাকা৯২.৭১ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
*১০ লক্ষ টাকা কম লেনদেনের ক্ষেত্রে
দিন পঞ্জিকা