Bartaman Patrika
হ য ব র ল
 

ক্ষুদিরামের ছেলেবেলা 

আমাদের এই দেশকে গড়ে তোলার জন্য অনেকে অনেকভাবে স্বার্থত্যাগ করে এগিয়ে এসেছিলেন। এই কলমে জানতে পারবে সেরকমই মহান মানুষদের ছেলেবেলার কথা। এবার শহিদ ক্ষুদিরাম বসু। লিখেছেন চকিতা চট্টোপাধ্যায়।

ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামের ইতিহাসে শহিদ ক্ষুদিরামের নাম অমর হয়ে আছে। ফাঁসির মঞ্চে যাঁরা দেশের স্বাধীনতার জন্য প্রাণ বিসর্জন দিয়েছেন তাঁদের মধ্যে প্রথম বিপ্লবী ছিলেন ক্ষুদিরাম বসু। আজ তোমাদের শোনাব তাঁর ছেলেবেলার কথা, কেমন করে তিনি হয়ে উঠলেন বীর বিপ্লবী ক্ষুদিরাম। ১৮৮৯ সালের ৩ ডিসেম্বর মেদিনীপুরের হাবিবপুর গ্রামে ত্রৈলোক্যনাথ ও লক্ষ্মীদেবীর ঘরে জন্ম হয়েছিল ক্ষুদিরামের। ক্ষুদিরামের নাম কেন ‘ক্ষুদিরাম’ হয়েছিল জানো? ক্ষুদিরামের জন্মের ঠিক আগে তাঁর দুই দাদা শিশু অবস্থাতেই মারা যান। সেই সময় মানুষের মনে একটা সংস্কার ছিল যে, যদি শিশুর জন্মের পর কোনও আত্মীয় তাকে কিনে নেন ‘কড়ি’ অথবা ‘খুদ’-এর বিনিময়, তাহলে সেই শিশুর অকাল মৃত্যু হবে না। তাই ক্ষুদিরামের মা ছেলের জীবন বাঁচাতে নিজের মেয়ে অপরূপার কাছে তিন মুঠো খুদের বিনিময় তাঁকে বিক্রি করে দিয়েছিলেন। এই জন্যই তাঁর নাম হয় ‘ক্ষুদিরাম’। মাত্র দু’বছর বয়সেই মাকে হারালেন ক্ষুদিরাম। বাবাকে হারালেন সাত বছর বয়সে। দিদি অপরূপা নিজের শ্বশুরবাড়ি দাসপুরের হাটগাছা গ্রামে তাঁকে নিয়ে এলেন। ক্ষুদিরাম বড় হতে লাগলেন দিদির বাড়িতেই। জামাইবাবু অমৃতলাল রায় বদলি হয়ে গেলেন তমলুকে। ক্ষুদিরাম তাঁদের সঙ্গে তমলুকে চলে এলেন। ভর্তি হলেন তমলুকের হ্যামিলটন স্কুলে। পড়াশুনোয় কিন্তু একদম মন ছিল না তাঁর। মন পড়ে থাকত নানান রকম দুরন্তপনার দিকে। যদিও তিনি খুব একগুঁয়ে ছিলেন, কিন্তু তাঁর স্বভাবটি ছিল খুব মিষ্টি। তাই মাস্টারমশাইরা তাঁকে খুব ভালোবাসতেন। জামাইবাবু অমৃতলাল আবার বদলি হলেন। এবার মেদিনীপুর শহরে। ক্ষুদিরামও এসে ভর্তি হলেন মেদিনীপুর কলেজিয়েট স্কুলে। তখন দেশে স্বদেশি আন্দোলনের জোয়ার বয়ে চলেছে চারদিকে। এই মেদিনীপুর কলেজিয়েট স্কুলে ক্ষুদিরাম শিক্ষক হিসেবে পেলেন সত্যেন্দ্রনাথ বসুকে। গুরুশিষ্যর এখানেই হল প্রথম দেখা।
মেদিনীপুরের কাঁসাই নদীর ধারে ঘন জঙ্গলের মধ্যে ছিল এক ভাঙা মন্দির। সেই মন্দিরের দেবতা বুড়ো শিব নাকি খুব জাগ্রত। ভক্তের প্রার্থনা অপূর্ণ রাখেন না তিনি। ক্ষুদিরাম গুটি গুটি পায়ে একদিন এসে দাঁড়ালেন সেই মন্দিরের দরজায়। তাঁর মনের ইচ্ছের কথা জানালেন বুড়ো শিবকে। এমন সময় হঠাৎ শোনেন তাঁর নাম ধরে কেউ ডাকছে। দেখেন মাস্টারমশাই সত্যেন্দ্রনাথ। চমকে গেলেন ক্ষুদিরাম। সত্যেন্দ্রনাথ জিজ্ঞেস করলেন, ‘তুমি এখানে? কেন এসেছ?’ ক্ষুদিরাম বললেন, ‘বর চাইতে’। সত্যেন্দ্রনাথ জানতে চাইলেন, ‘কী বর চাইলে?’ ক্ষুদিরাম বললেন, ‘দেশের মুক্তি। দেশের স্বাধীনতা।’ অবাক হয়ে গেলেন মাস্টারমশাই! বললেন, ‘দেশকে তুমি এত ভালোবাসো? নিজের জন্য কিছু না চেয়ে ভগবানের কাছে দেশের স্বাধীনতা চাইতে এসেছ?’ ক্ষুদিরাম বললেন, ‘দেশকে যে আমি খুব ভালোবাসি মাস্টারমশাই!’ মাস্টারমশাই বোধহয় এইটুকু শোনার জন্যই অপেক্ষা করছিলেন। বললেন, ‘পারবে প্রয়োজন হলে দেশের জন্য প্রাণ দিতে?’ ক্ষুদিরাম নির্ভীক কণ্ঠে বললেন, ‘পারব মাস্টারমশাই।’ সত্যেন্দ্রনাথ বললেন, ‘দেশের জন্য তোমার প্রাণ উৎসর্গ করতে হবে। দেশের মুক্তির জন্য তোমায় দীক্ষা নিতে হবে।’ ক্ষুদিরাম ব্যাকুল হয়ে বললেন, আমায় দীক্ষা দিন মাস্টারমশাই! দেশের জন্য আমি প্রাণ বিসর্জন দেব!’ তাঁর ব্যাকুলতা দেখে তিনি বললেন, ‘বেশ। আজ থেকে তুমি হবে আমাদের গুপ্ত সমিতির সদস্য।’
এই গুপ্ত সমিতিতে ছেলেদের লাঠিখেলা, তলোয়ার চালানো, কুস্তি করা, বন্দুক চালানো, ঘোড়ায় চড়া, সব কিছু শেখানো হতো। অল্প ক’দিনের মধ্যেই ক্ষুদিরাম সব কিছুতেই পারদর্শী হয়ে উঠলেন।
দিদির নিরাপদ আশ্রয় এবার ছাড়লেন ক্ষুদিরাম। পুরোপুরি দেশের কাজে নিজেকে সঁপে দিলেন। এই সময় থেকে তাঁর কাজ হল বিলিতি কাপড়ের গাঁট লুঠ করা, বিলিতি কাপড় পোড়ানো, বিলিতি লবণের নৌকা ডুবিয়ে দেওয়া। পাশাপাশি পিস্তল ছোঁড়াও অভ্যাস করতেন তিনি।
পরের দুঃখ দেখলে ক্ষুদিরাম আর নিজেকে স্থির রাখতে পারতেন না। জীবন পণ করে ঝাঁপিয়ে পড়তেন সমস্যা সমাধানের জন্য। একবার কাঁসাই নদীর বন্যায় গ্রাম ভেসে গেল। ক্ষুদিরাম ‘রণ-পা’ পরে সেখানে ছুটে গেলেন ত্রাণ কাজ করার জন্য। গ্রামে কোনও কারণে আগুন লাগলে, কিংবা ওলাওঠা বা বসন্তের মতো রোগের মহামারী শুরু হলে ক্ষুদিরাম তাঁদের সমিতির ছেলেদের নিয়ে নিজের জীবন তুচ্ছ করে ঝাঁপিয়ে পড়তেন মানুষের সেবায়।
১৯০৬ সালে মেদিনীপুরের মারাঠা কেল্লা অর্থাৎ পুরোনো জেলখানার মাঠে ‘কৃষিশিল্প প্রদর্শনী ও মেলা’ বসেছে। প্রচুর লোক এসেছে সেই মেলায়। বিপ্লবী দলের পত্রিকা ‘সোনার বাংলা’ বিলি করছেন ক্ষুদিরাম। পুলিস হঠাৎ শুরু করল স্বদেশিদের ধরপাকড়। ক্ষুদিরাম পুলিসকে মেরে সেখান থেকে পালালেন। তাঁর বিরুদ্ধে মামলা উঠল আদালতে। বয়স কম বলে তাঁকে শাস্তি দেওয়া হল না।
এর কিছুদিন পরই ঘটল সেই ঐতিহাসিক ঘটনা। অত্যাচারী ম্যাজিস্ট্রেট কিংসফোর্ডকে হত্যা করার জন্য নির্বাচিত হলেন ক্ষুদিরাম ও প্রফুল্ল চাকী। বিপ্লবী দলের আদেশে তাঁরা দু’জন ১৯০৮ সালের ৩০ এপ্রিল কিংসফোর্ডের ঘোড়ার গাড়ি লক্ষ্য করে বোমা ছুঁড়লেন। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত, সে গাড়িতে কিংসফোর্ড ছিলেন না, ছিলেন দু’জন নিরীহ স্ত্রীলোক মিসেস এবং মিস কেনেডি। ক্ষুদিরাম ও প্রফুল্ল চাকী সেখান থেকে পালালেন।
সারারাত রেললাইন ধরে হেঁটে পরদিন ভোরে চব্বিশ মাইল দূরের ওয়াইনি স্টেশানে পৌঁছলেন ক্ষুদিরাম। খিদে তেষ্টায় বাধ্য হয়ে একটি মুদির দোকানে যখন খাবার কিনে খাচ্ছেন, তখন তাঁকে দেখতে পেয়ে গেল দু’জন কন্সটেবল ফতে সিং আর শিবপ্রসাদ মিশ্র। ক্ষুদিরাম কোমরে গোঁজা পিস্তল বার করবার আগেই তারা দু’জন দু’পাশ থেকে জাপটে ধরে ফেলল তাঁকে।
পয়লা মে ধরা পড়লেন তিনি। কোর্টে মামলা উঠল। বিনা পারিশ্রমিকে আইনজীবী কালিদাস বসু, সতীশ চক্রবর্তী, নৃপেন লাহিড়ী মামলা লড়লেন। কিন্তু তবু বাঁচাতে পারলেন না তাঁকে।
১৯০৮ সালের ১১ আগস্ট ফাঁসির দিন ধার্য হল তাঁর। ভারত মায়ের সোনার ছেলে ক্ষুদিরাম হাসতে হাসতে নিজেই এগিয়ে গেলেন ফাঁসির মঞ্চের দিকে। সোজা দৃপ্ত ভঙ্গিতে দাঁড়িয়ে দেশের স্বাধীনতার জন্য নিজের অমূল্য প্রাণ-বিসর্জন দিলেন তিনি। অমর হয়ে রয়ে গেলেন শুধু ইতিহাসেই নয়, প্রতিটি ভারতবাসীর মনের মধ্যেও। দেশের পথে প্রান্তরে বাউল, ফকিরদের কণ্ঠে ছড়িয়ে পড়ল ক্ষুদিরামকে নিয়ে পল্লীকবির বাঁধা সেই
চিরন্তন গান —
‘একবার বিদায় দে মা ঘুরে আসি—
হাসি হাসি পরব ফাঁসি
দেখবে ভারতবাসী।’
ছবি: সংশ্লিষ্ট সংস্থার সৌজন্যে 
11th  August, 2019
স্বাধীনতা দিবস 

আমাদের স্বাধীনতা দিবস
‘স্বাধীনতা হীনতায় কে বাঁচিয়ে চায় হে, কে বাঁচিতে চায়’— কবির এই বাণী সর্বাংশে সত্য। আকাশের নক্ষত্র থেকে মাটির ক্ষুদ্রতম প্রাণটি পর্যন্ত স্বাধীনতা চায়।
অজস্র রক্তপাতের মূল্যে ছিনিয়ে আনে স্বাধীনতা।  
বিশদ

11th  August, 2019
ইস্কুলে বায়োস্কোপের সমাপ্তি অনুষ্ঠান 

সম্প্রতি ‘ইস্কুলে বায়োস্কোপ’-এর সমাপ্তি অনুষ্ঠান হয়ে গেল। সস ব্র্যান্ড কমিউনিকেশনসের উদ্যোগে সাহিত্য অ্যাকাডেমির সহযোগিতায় প্রায় ২০ দিন ধরে বিভিন্ন স্কুলে এই ‘ইস্কুলে বায়োস্কোপ’ অনুষ্ঠানটি চলেছিল। 
বিশদ

04th  August, 2019
সোনার লক্ষ্যে ছুটে চলেছেন ধিং এক্সপ্রেস 

বড় হয়ে কী হবি?— ছোট্ট বন্ধুরা, তোমরা নিশ্চয়ই প্রায়ই এমন প্রশ্নের সম্মুখীন হও। আবার কখনও কখনও নিজেরাও মনে মনে চিন্তা কর, বড় হয়ে ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, ক্রিকেটার, ফুটবলার, কবি, সাহিত্যিক, গায়ক বা অভিনেতা হব। কিন্তু, বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই এই চিন্তা মনে দানা বাঁধে পারিপার্শ্বিক তারকাদের পারফরম্যান্স বা সাফল্যে প্রভাবিত হয়ে।  
বিশদ

04th  August, 2019
চাঁদের হাসি বাঁধ ভাঙার অপেক্ষা 

মঙ্গলযান-২ চাঁদে পা রাখবে ৪৮তম দিনে। মারাত্মক ঝুঁকি নিয়ে কোন পথে কীসের খোঁজে সে এগিয়ে চলেছে চাঁদের উদ্দেশ্যে, সে বিষয়ে তোমাদের জানানোর জন্য কলম ধরেছেন ইন্ডিয়ান স্ট্যাটিস্টিক্যাল ইনস্টিটিউট, কলকাতার রাশিবিজ্ঞানের অধ্যাপক অতনু বিশ্বাস। 
বিশদ

04th  August, 2019
শুরু হয়েছে সানফিস্ট কলকাতা স্কুল ফুটবল লিগ 

তোমাদের একটি ভালো খবর দিই। গতবারের মতো এবারও শুরু হয়েছে সানফিস্ট কলকাতা স্কুল ফুটবল লিগ (কে এস এফ এল)। এটি দ্বিতীয় সংস্করণ। কে এস এফ এল লিগ শুরু হয়েছে গত বছর থেকে।   বিশদ

28th  July, 2019
মার্কশিট
মাধ্যমিকে চলতড়িৎ খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি অধ্যায় 

তোমাদের জন্য চলছে মার্কশিট। এই বিভাগে থাকছে পরীক্ষায় নম্বর বাড়ানোর সুলুক সন্ধান। এবারের বিষয় ভৌতবিজ্ঞান। 
বিশদ

28th  July, 2019
রুকু ও ছেলেটি 

বিজলি চক্রবর্তী: টলটল পায়ে ট্রাম রাস্তার ধারে এসে রুকু দাঁড়াল। রাস্তা কীভাবে পার হতে হয় সে এখন বুঝতে পারে। মায়ের পেছন পেছন এখন যায় না। দুধ খেয়ে পেট ভর্তি করে রুকু মাকে ছেড়ে একাই রাস্তায় চলে এসেছে।   বিশদ

28th  July, 2019
স্পাইসি অ্যালফানসো ও ওয়াটারমেলন ফেটা স্যালাড 

তোমাদের জন্য চলছে একটি আকর্ষণীয় বিভাগ ছোটদের রান্নাঘর। এই বিভাগ পড়ে তোমরা নিজেরাই তৈরি করে ফেলতে পারবে লোভনীয় খাবারদাবার। বাবা-মাকেও চিন্তায় পড়তে হবে না। কারণ আগুনের সাহায্য ছাড়া তৈরি করা যায় এমন রেসিপিই থাকবে তোমাদের জন্য। এবার সেরকমই দুটি জিভে জল আনা রেসিপি দিয়েছেন ওয়াটস আপ ক্যাফে রেস্তরাঁর শেফ দেবব্রত রায়। 
বিশদ

21st  July, 2019
কলকাতায় ডাবর ওডোমসের ডেঙ্গু-মুক্তি প্রচারাভিযান 

আজ তোমাদের একটা ভালো খবর দিই। ডাবর ইন্ডিয়া লিমিটেডের ওডোমস ব্র্যান্ড ভারতকে ডেঙ্গুমুক্ত করতে একটি বিশেষ প্রচারাভিযানের উদ্যোগ নিয়েছে। নাম দেওয়া হয়েছে ‘#মেকিংইন্ডিয়াডেঙ্গুফ্রি’। উদ্যোগটিকে সফল করতে ওডোমসের বিশেষজ্ঞ দল ভারতে বিভিন্ন জায়গায় প্রায় দশ লক্ষ অফিসকর্মীর কাছে পৌঁছেছিলেন।   বিশদ

21st  July, 2019
বিস্ময়কর নদী 

নদীর জল হবে স্বচ্ছ ও নীলাভ। আমরা ছোটবেলা থেকে এমন কথাই পড়েছি বইয়ের পাতায়। দেখেছিও তাই। বাস্তবের সঙ্গে কল্পনার রং মেলে না ঠিকই। কিন্তু আজ যেসব নদীর গল্প তোমাদের বলব, শুনলে মনে হবে রূপকথার গল্প। পৃথিবীতে এমন কিছু নদী আছে যার জলের রং প্রকৃতির আপন খেয়ালে তৈরি। কোনওটা বা মানুষের দুষ্কর্মের ফলে অন্য রং ধারণ করেছে। কোনওটির আবার গতিপথ এতটাই অদ্ভুত যে অবাক হতে হয়। এই নদীগুলির কথা জানলে সত্যিই মনে হবে, বিপুলা এ পৃথিবীর কতটুকু জানি। অদ্ভুত এই পাঁচটি নদীর রোমাঞ্চকর গল্প শুনিয়েছে সৌম্য নিয়োগী।  
বিশদ

21st  July, 2019
অগ্রসেন বালিকা শিক্ষা সদনের পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান 

অগ্রসেন বালিকা শিক্ষা সদন গত ২৮ জুন একটি বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল। এদিন এবছরের আই সি এস ই পরীক্ষায় ভালো ফলের জন্য এই বিদ্যালয়েরই ছাত্রী রত্না নাঙ্গালিয়াকে পুরস্কৃত করা হয়। পরীক্ষায় রত্না জাতীয়স্তরে তৃতীয় এবং রাজ্যে দ্বিতীয় স্থান অর্জন করেছে।   বিশদ

14th  July, 2019
মার্কশিট
মাধ্যমিক পরীক্ষার জন্য কবিতা মুখস্থ
করো শব্দার্থ ও ব্যাখ্যা বিশ্লেষণসহ

তোমাদের জন্য চলছে মার্কশিট বিভাগটি। এই বিভাগে থাকছে পরীক্ষায় নম্বর বাড়ানোর সুলুক সন্ধান। এবারের বিষয় বাংলা। 
বিশদ

14th  July, 2019
যদি ফিরে আসে ডাইনোসর 

কয়েক কোটি বছর আগের কথা! তখন আমাদের চেনাজানা পৃথিবী ছিল সম্পূর্ণ আলাদা। ঘন অরণ্যে ঘুরে বেড়াত দানবাকৃতি ডাইনোসররা। কালের নিয়মে তারা অবলুপ্ত। তবে বিজ্ঞান এখন খুবই উন্নত। গবেষণা চলছে সেই হারিয়ে যাওয়া ডাইনোসরদের ফিরিয়ে আনার। যদি ফিরে আসে তারা তাহলে কী হবে? কেমনই বা দেখতে ছিল সেই ডাইনোসরদের। লিখেছেন সুপ্রিয় নায়েক। 
বিশদ

14th  July, 2019
মার্কশিট 

তোমাদের জন্য চলছে মার্কশিট বিভাগটি। এই বিভাগে থাকছে পরীক্ষায় নম্বর বাড়ানোর সুলুক সন্ধান। এবারের বিষয় ইংরেজি। পরামর্শ দিচ্ছেন বাণীপুরের গভর্নমেন্ট বেসিক কাম মাল্টিপারপাস স্কুলের ইংরেজির শিক্ষিকা পর্ণা চৌধুরী।
বিশদ

07th  July, 2019
একনজরে
প্রসেনজিৎ কোলে, কলকাতা: জোর করে দরজা আটকে পাতাল পথের ট্রেনে ওঠার অভিযোগে এক মাসেই জরিমানা বাবদ আদায় হয়েছে ১০ হাজার টাকা। স্টেশনে চলছে প্রচারও। তবুও ...

বিএনএ, কৃষ্ণনগর: ঘূর্ণির শিল্পী সুবীর পাল ‘লিমকা বুক অব রেকডর্সে’ নাম তুলে ফেললেন। সুবীরবাবুর ঝুলিতে অনেক আগেই এসেছে রাষ্ট্রপতি পুরস্কার। একইসঙ্গে বৃহৎ মূর্তি(লার্জার দ্যান লাইফ) এবং ক্ষুদ্র ভাস্কর্য তৈরি করে তিনি ঠাঁই পেয়েছেন লিমকা বুকে। ভেঙে ফেলেছেন আগের রেকর্ডও। সম্প্রতি ...

বেজিং, ১২ আগস্ট (পিটিআই): ঘূর্ণিঝড় লেকিমার তাণ্ডবে চীনে মৃতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়াল ৪৯ জন। এখনও নিখোঁজ রয়েছেন ২১ জন। প্রশাসন সূত্রে এই তথ্য জানা গিয়েছে। ...

সংবাদদাতা রায়গঞ্জ: নানা অনিয়মের অভিযোগ তুলে উত্তর দিনাজপুর জেলাজুড়ে সমস্ত ভূমি ও ভূমি সংস্কার দপ্তরের বিরুদ্ধে আন্দোলনে নামছে কংগ্রেস। অভিযোগ, জেলা ও ব্লক স্তরের ভূমি সংস্কার দপ্তরগুলিতে নানা বেআইনি কাজ হচ্ছে। অনৈতিক ভাবে টাকা নিয়ে গরিব মানুষদের নামে থাকা জমি ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কোনও কিছুতে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে ভাববেন। শত্রুতার অবসান হবে। গুরুজনদের কথা মানা দরকার। প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় সুফল ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৯৪৭- পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবস
১৯৪৮- শেষ ইনিংসে শূন্য রানে আউট হলনে ডন ব্র্যাডম্যান
১৯৫৬- জার্মা নাট্যকার বের্টোল্ট ব্রেখটের মৃত্যু
২০১১- অভিনেতা শাম্মি কাপুরের মৃত্যু 



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.২৭ টাকা ৭১.৯৭ টাকা
পাউন্ড ৮৪.২৫ টাকা ৮৭.৩৭ টাকা
ইউরো ৭৮.০৭ টাকা ৮১.০৭ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৮,৪৩০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৬,৪৬০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৭,০০৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪৪,৬০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪৪,৭০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

২৮ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৪ আগস্ট ২০১৯, বুধবার, চতুর্দশী ২৬/১৩ দিবা ৩/৪৬। উত্তরাষাঢ়া ০/৫ প্রাতঃ ৫/১৯। সূ উ ৫/১৬/৩৫, অ ৬/৬/১৬, অমৃতযোগ দিবা ৬/৫৮ মধ্যে পুনঃ ৯/৩৩ গতে ১১/১৫ মধ্যে পুনঃ ৩/৩২ গতে ৫/১৫ মধ্যে। রাত্রি ৬/৫২ গতে ৯/৬ মধ্যে পুনঃ ১/৩৩ গতে উদয়াবধি, বারবেলা ৮/২৯ গতে ১০/৫ মধ্যে পুনঃ ১১/৪২ গতে ১/১৮ মধ্যে, কালরাত্রি ২/২৯ গতে ৩/৫২ মধ্যে। 
২৮ শ্রাবণ ১৪২৬, ১৪ আগস্ট ২০১৯, বুধবার, চতুর্দশী ২৪/৩১/৩ দিবা ৩/৪/৩। উত্তরাষাঢ়ানক্ষত্র ২/১০/১৭ দিবা ৬/৭/৪৫, সূ উ ৫/১৫/৩৮, অ ৬/৮/৪২, অমৃতযোগ দিবা ৭/০ মধ্যে ও ৯/৩২ গতে ১১/১৪ মধ্যে ও ৩/২৮ গতে ৫/১০ মধ্যে এবং রাত্রি ৬/৪৬ গতে ৯/১ মধ্যে ও ১/৩২ গতে ৫/১৬ মধ্যে, বারবেলা ১১/৪২/১০ গতে ১/১৮/৪৮ মধ্যে, কালবেলা ৮/২৮/৫৪ গতে ১০/৫/৩২ মধ্যে, কালরাত্রি ২/২৮/৫৪ গতে ৩/৫২/১৬ মধ্যে। 
১২ জেলহজ্জ 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
আজকের রাশিফল
মেষ: প্রতিযোগিতামূলক পরীক্ষায় সুফল হবে। বৃষ: কর্মপ্রার্থীদের কর্মলাভ হবে। মিথুন: ফাটকাতে ...বিশদ

07:11:04 PM

ইতিহাসে আজকের দিনে 
১৯৪৭- পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবস১৯৪৮- শেষ ইনিংসে শূন্য রানে আউট হলনে ...বিশদ

07:03:20 PM

তৃতীয় একদিনের ম্যাচ: বৃষ্টিতে ফের বন্ধ খেলা, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৫৮/২(২২ওভার)  

09:25:56 PM

তৃতীয় একদিনের ম্যাচ: ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১৩১/২(১৫ওভার)  

08:44:01 PM

তৃতীয় একদিনের ম্যাচ: ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১১৪/০(১০ ওভার)  

08:19:26 PM

 আগামীকাল কম ট্রেন মেট্রোয়
আগামীকাল ১৫ আগস্ট স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে ছুটি থাকায় ...বিশদ

08:12:59 PM