Bartaman Patrika
বিকিকিনি
 

পায়ে হেঁটে তুঙ্গনাথ

পঞ্চকেদারের সর্বোচ্চ তুঙ্গনাথ। পায়ে হেঁটে সেই পথে ভ্রমণ ও দেবদর্শনের অভিজ্ঞতার কথা লিখেছেন কমলিনী চক্রবর্তী।

শুনেছিলাম স্বয়ং ঈশ্বর না টানলে তীর্থস্থান অদেখাই থেকে যায়। সম্প্রতি কেদার যেতে গিয়ে এই সারসত্যটি অনুভব করলাম। পুজোর সময় কেদার যাওয়ার হেলিকপ্টারের টিকিটের জন্য হন্যে হয়েও যখন কিছুতেই টিকিট হল না, তখন হেলিসার্ভিসে কর্মরত এক বন্ধুর দ্বারস্থ হলাম। সে অভয় দিল, টিকিট এজেন্টের যোগাযোগ নম্বরও দিল এবং বলল আমাদের জন্য নাকি টিকিট রাখা থাকবে। শিব ঠাকুরের নাম জপতে জপতে আমরাও নির্দিষ্ট দিনে রাত থাকতেই ফাটা-র উদ্দেশে রওনা দিলাম। কিন্তু ফাটা হেলি স্টেশনে পৌঁছে দেখলাম বিধি বাম। দেবাদিদেব মহাদেবের ডাক আসেনি আমাদের জন্য। অগত্যা একরাশ মনখারাপ নিয়ে চোপতা অভিমুখে  যাত্রা করলাম। পরের দিন সকালে উঠে প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে চোখ জুড়িয়ে গেল। রোদ ঝলমলে নীল আকাশকে সঙ্গী করে আমরা এবার নতুন অ্যাডভেঞ্চারে মেতে উঠলাম।  গন্তব্য তুঙ্গনাথ। 
পঞ্চকেদারের সর্বোচ্চ মন্দির তুঙ্গনাথ। ১২,১০৬ ফুট উচ্চতায় তুঙ্গনাথের মন্দিরের অবস্থান। তার ঠিক মাথায় চন্দ্রশীলা পর্বতশৃঙ্গ। তুঙ্গনাথ পৌঁছতে গেলে সাড়ে চার কিলোমিটার চড়াই ভাঙতে হয়। পায়ে হাঁটার অভ্যাস আমার মোটেও নেই। তাও মনের জোর আর সঙ্গীদের সাহসে ভর করে রওনা হলাম তুঙ্গনাথের উদ্দেশে। গাড়ি যেখানে নামিয়েছিল, মন্দিরের প্রথম প্রবেশদ্বারটি সেখানেই। মাথার উপর ঝুলন্ত ঘণ্টা বাজিয়ে পাহাড়ি পথ ভাঙতে শুরু করলাম আমরা। প্রথম কয়েক ধাপ ওঠার পরেই দোকান থেকে লাঠি জোগাড় হল একখানা। পঞ্চাশ টাকা জমা। আর কুড়ি টাকা ভাড়া। অতএব ফিরতি পথে লাঠি জমা দিলে তিরিশ টাকা ফেরত দেবেন দোকানি।  
খাড়া রাস্তাটা সোজা উঠে গিয়েছে সাড়ে চার কিলোমিটার। এই পথে প্রকৃতি সারাক্ষণের সঙ্গী। এক ধারে হিমালয়ের সুউচ্চ শৃঙ্গ আর অন্য ধারে বিস্তৃত বুগিয়াল। চোপতা মালভূমির ঢাল বেয়ে তা যেন সবুজ গালিচার মতো বিছানো। বুগিয়ালের ধার দিয়ে টানা চলেছে পাইনের বন। ঘন সবুজ পাইন গাছের মাথায় টুকরো টুকরো সাদা বরফের মুকুট। ঝলমলে রোদ আর কনকনে ঠান্ডার যুগলবন্দি উপভোগ করতে করতে এগিয়ে চললাম তুঙ্গনাথ দর্শনের আশায়। 
গোটা পথ জুড়ে চায়ের দোকান। ফলে ঠান্ডায় উষ্ণ চুমুকের জন্য প্রাণ ব্যাকুল হলেই টি ব্রেক নিতে পারেন। তবে খেয়াল রাখবেন হাঁটার চেয়ে থামার ভাগ বেশি হলে মুশকিল। চা ছাড়াও বিভিন্ন ধরনের এনার্জি ড্রিঙ্ক পাবেন। জারিকেনে ভরা টুকটুকে লাল তরলটি দৃশ্যাকর্ষক। ওটা নাকি গুরাস (রডোডেনড্রন) ফুলের রস। দেখতে সুন্দর হলেও খেতে ভরসা হয়নি। 
চড়াই পথ যদি হাঁটতে না চান তাহলে ঘোড়াতেও পাড়ি দিতে পারেন। তবে ঘোড়ার কখনও লম্ফঝম্প, কখনও বা খাদের ধার ঘেঁষে ঘাস খাওয়ার প্রবণতায় অনেক আরোহীকেই ভয়ে চোখ বন্ধ করে ফেলতে দেখলাম। সেক্ষেত্রে পথের সৌন্দর্য অধরাই থেকে যাবে। পথের ধার বরাবর অনেক জায়গায় রেলিংও লাগানো রয়েছে। হাঁটাপথের অনন্ত চড়াই ভাঙার সময় এই রেলিংগুলো খুবই উপকারী বন্ধুর মতো আপনার হাতে ধরা দেবে। বেশ খানিকটা পথ চলার পর চোখের সামনে চোপতার মালভূমির অসম্ভব সৌন্দর্য দেখলে মনে হবে পৃথিবীতে স্বর্গ যদি কোথাও থাকে, তবে তা এখানেই। যত উপর দিকে উঠবেন ততই প্রকৃতি রুক্ষ হতে থাকবে। ঠান্ডা বাড়বে, পথের চড়াইও ক্রমশ কঠিন থেকে কঠিনতর হবে। তাই বলে হার মানলে চলে? এতটা উঠে এসেছি যখন আর তো মাত্র অল্পই পথ বাকি। ট্রেকপথে অচেনা সফরসঙ্গীদের অভয়বাণী মনের জোর বাড়াতে মহৌষধির কাজ করে। 
তখনও বেশ খানিকটা পথ চড়া বাকি, মন্দিরের চূড়াটা দৃশ্যমান হল প্রথম। সঙ্গে সঙ্গে চলার গতি এক লাফে প্রায় একশো গুণ বেড়ে গেল। শিবের মন্ত্র জপতে জপতে পৌঁছে গেলাম মন্দির চত্বরে। অসম্ভব শান্ত পরিবেশ। বিস্তীর্ণ চাতালকে সমুখে রেখে উঁচু মন্দিরটি দাঁড়িয়ে রয়েছে। দর্শনার্থীরা প্রসাদের থালা হাতে অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন ঠাকুর দর্শনের আশায়। মোটামুটি জনা কুড়ি লোকের লাইন ঠেলে মন্দিরের ভিতরে প্রবেশ করলাম। আলো আঁধারে ঢাকা মন্দিরের প্রবেশদ্বারটির কিছু অংশ রুপোয় মোড়া। সামনে কষ্টিপাথরের শিব। ধূপের ঘ্রাণ আর প্রদীপের শিখায় আবৃত মহাদেব। পুরোহিত মশাই তাঁরই কাছে সামান্য পাশ করে দাঁড়িয়ে ভক্তদের একে একে পুজো করিয়ে দিচ্ছেন মন্ত্র পড়ে। নাম গোত্র জানিয়ে অনেকে বাবার পুজো দিচ্ছেন। কেউ বা শিবের স্তোত্র লেখা একফালি কাপড় মন্দির চত্বরে বেঁধে দিয়ে আসছেন মনোবাঞ্ছা জানিয়ে। এত কিছু যদি না-ও করেন তবু মন্দির চত্বরে বসে থাকলেই শান্তি মিলবে। তুঙ্গনাথে গাড়ওয়াল মণ্ডল বিকাশ নিগমের হোটেলও আছে। চাইলে একরাত সেখানে থাকতেও পারেন। সেক্ষেত্রে পরের দিন রাত থাকতেই চন্দ্রশীলায় সূর্যোদয় দেখে ফেরার পথ ধরতে হবে। আমরা অবশ্য এতটা অ্যাডভেঞ্চার করার সাহস পাইনি। 
মন্দির দর্শন ও পুজো দিয়ে দুপুর নাগাদ নামার পথ ধরলাম। একই চড়াই ভেঙে নামতে বেশ কষ্ট হচ্ছিল আমার। তার উপর আবার পথে লাগাতার ঘোড়ার উপদ্রব। তাদের মর্জিমাফিক চলতে হবে আপনাকে। না হলেই গুঁতো খাওয়ার ভয়। বেলা যত গড়াতে লাগল তত আকাশের মুখ ভার। মেঘ করে বৃষ্টি নামল ঝেঁপে। অন্ধকার পাহাড়। কোনওক্রমে চায়ের দোকানে গা ঢাকা দিলাম। দোকানি বৃদ্ধা সঙ্গে সঙ্গে মুখের সামনে হাজির করলেন ধূমায়িত চায়ের গ্লাস। হিমেল বাতাস আর অঝোর বৃষ্টিতে তাই যেন অমৃত। সেখান থেকেই রেনকোটও জোগাড় হল। রেনকোট মানে পলিথিনের বড় টুকরো, তাতে মাথা আর হাত গলানোর জায়গা করা। বৃষ্টি থেকে বাঁচতে তাই যথেষ্ট। গরম চা থেকে সঞ্চিত শক্তির উপর ভর দিয়ে আবারও পাহাড়ি পথে নেমে পড়লাম। চাপ চাপ অন্ধকার, অঝোর বৃষ্টি, ফাঁকে ফাঁকে বিদ্যুতের  লেলিহান চমকে শিহরন জাগছিল। ভয়মিশ্রিত অসম্ভব রোমাঞ্চও ঘিরে ধরেছিল। পথের শেষ প্রান্তে পৌঁছে বৃষ্টি থামল। মেঘের আড়াল থেকে সূর্যদেব প্রকট। কমলা আভা এঁকেবেঁকে উঁকি দিয়ে যাচ্ছে কালো মেঘের ফাঁকে। আহা, সে কী দৃশ্য!
নিকষ কালো চোপতার আঁকাবাঁকা পথে ছুটেছে গাড়ি। আমাদের রাতের আস্তানা চোপতা মেডোস। পরের দিন রওনা হব বদ্রীনারায়ণের উদ্দেশে।                         
18th  March, 2023
গয়নার নকশায়
বাংলার কথাশিল্প

বাংলার প্রতিটা গলির বাঁকে নতুন নতুন গল্প। সেই গল্পের অনুষঙ্গ এবার গয়নাতেও। সেনকো গোল্ড ও ডায়মন্ডস-এর প্রয়াসের কথা লিখছেন মনীষা মুখোপাধ্যায়
বিশদ

18th  March, 2023
টুকরো খবর

‘গ্রিন আর্কিটেক্ট ২০২৩’ আয়োজন করল হুলাডেক রিসাইক্লিং। বাস্তুতন্ত্রের ভারসাম্য রেখে ও পরিবেশবান্ধব সামগ্রী দিয়ে বিভিন্ন দ্রব্যাদি প্রস্তুত করে এমন কয়েকটি সংস্থাকে সঙ্গে নিয়ে হুলাডেক আলোচনাসভার আয়োজন করেছিল।
বিশদ

18th  March, 2023
বার্ষিক শিল্পসম্ভার নিয়ে
সেজেছে রাজ্য আকাদেমি

শিল্পীদের পাশে থাকতে এবং তাদের প্রতিভাকে সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছে দিতে বরাবরই অঙ্গীকারবদ্ধ পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য নৃত্য নাটক সঙ্গীত ও দৃশ্যকলা আকাদেমি। প্রতি বছরের মতো এবছরও আইসিসিআর-এর নন্দলাল বসু ও যামিনী রায় আর্ট গ্যালারিতে ‘বার্ষিক শিল্প প্রদর্শনী ২০২৩’-এর আয়োজন করেছে তারা।
বিশদ

18th  March, 2023
মডিউলার কিচেনের দেখভাল

রান্নাঘরের ভোল বদলেছে কালের নিয়মে। এসেছে আধুনিক সরঞ্জামে সমৃদ্ধ মডিউলার কিচেন। কিন্তু তা যত্নে না রাখলে আভিজাত্য হারাবে দ্রুত। কীভাবে সাফসুতরো রাখবেন? লিখেছেন ঈপ্সিতা সেনগুপ্ত। বিশদ

11th  March, 2023
শিবের আলয় শিবখৌড়ি  

পুরাণে আছে এই গুহায় নাকি সপরিবার শিবঠাকুরের বাস। কাটরার সেই গুহা, শিবখৌড়ির স্থানমাহাত্ম্যের কথায় তনুশ্রী কাঞ্জিলাল মাশ্চরক। বিশদ

11th  March, 2023
 টু  ক  রো  খ ব র

ভারতের জনপ্রিয় বিস্কুট ও বেকারি ব্র্যান্ড বিস্ক ফার্ম একটি  নতুন  বিজ্ঞাপনী  প্রচারছবি  টেলিভিশনে চালু  করল। বিস্ক ফার্ম মেরির ৩০০ গ্রাম প্যাকের সঙ্গে ১০ গ্রাম সোনার কয়েন জেতার সুযোগ দিচ্ছে সংস্থা। সেই উপলক্ষে তৈরি এই বিজ্ঞাপনী প্রচার। প্রচারছবিতে অংশ নেবেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। বিশদ

11th  March, 2023
রং খেলুন সাবধানে

‘আজ সবার রঙে রং মিশাতে হবে’। তবে এই মেলামেশা রাঙা নেশায় সতর্ক থাকুন। রং বা আবির যেন ত্বক, চোখ ও চুলের ক্ষতি করতে না পারে।  উপায় জানাচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। লিখেছেন মনীষা মুখোপাধ্যায়। বিশদ

04th  March, 2023
দারিংবাড়ির উদাসী পথে

দারিংবাড়িকে নাকি ‘ওড়িশার কাশ্মীর’ বলা হয়। পাথুরে প্রকৃতির মাঝে কয়েকদিনের ছুটিতে নিজেকে উজার করে দিন। বর্ণনায় অরিন্দম ঘোষ। বিশদ

04th  March, 2023
 টু  ক  রো  খ ব র

লতা মঙ্গেশকরের ব্যক্তিগত যাপন ও তাঁর কর্মজীবন উদ্‌যাপিত হল তুলির টানে। প্রখ্যাত সঙ্গীতশিল্পীর অন্যতম প্রিয় শহর কলকাতার বুকে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত হল রামকৃপাল নামদেওয়ের একক চিত্র প্রদর্শনী। বিশদ

04th  March, 2023
হবু বাবা-মায়ের
একান্ত অবসর

নতুন মা-বাবা হতে চলেছেন? সন্তানের দায়িত্ব নেওয়ার আগে ঘুরে আসুন ‘বেবিমুন’-এ। এই প্রজন্মের পছন্দের তালিকায় ইদানীং ঢুকে পড়েছে বেবিমুন। সেটা কী? বিশেষজ্ঞের সঙ্গে কথা বলে লিখছেন স্বরলিপি ভট্টাচার্য।
বিশদ

25th  February, 2023
লাদাখে ক্যাম্পিং

লাদাখের চারপাশ ঘিরে রয়েছে জাঁসকার, লাদাখ ও কারাকোরাম— এই তিন গিরিশ্রেণি। দিল্লি থেকে নিয়মিত বিমান যাচ্ছে লাদাখের প্রধান শহর লেহ্‌-তে।এই দুই সড়কপথই প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর।  স্বপ্নমাখা সেই দুনিয়া ঘুরে এসে লিখছেন অয়ন গঙ্গোপাধ্যায়।
বিশদ

25th  February, 2023
টুকরো খবর

গত ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উদযাপন করল সাহা টেক্সটাইল। প্রতি বছরই এই দিনটি শহিদ স্মরণে ও তাঁদের স্মৃতিকে সম্মান জানিয়ে পালন করেন সংস্থার কর্ণধার কান্তি সাহা।
বিশদ

25th  February, 2023
হেঁশেলের সাজসজ্জা

রান্নাঘরে গলদঘর্ম হয়ে যা রান্না করলেন, তা সাজিয়ে পরিপাটি করে খেতে দেওয়াও এক শিল্প। সার্ভিং ট্রে থেকে শুরু করে খেতে দেওয়ার বাসনকোসন সবেতেই এসেছে বিপ্লব। একঘেয়ে কাচকে সরিয়ে আপ্যায়নে জায়গা করে নিচ্ছে সেরামিক, কাঁসা, কাঠ এমনকী পাথরও। লিখেছেন মনীষা মুখোপাধ্যায়বিশদ

18th  February, 2023
রিভার রাফটিং রোমাঞ্চ  

খরস্রোতা নদীর বুকে ভেলায় ভেসে ঘুরেছেন কখনও? সে নাকি এক অনন্য অনুভূতি। রোমাঞ্চকর অভিজ্ঞতার বর্ণনায় কাকলি পাল বিশ্বাসবিশদ

18th  February, 2023
একনজরে
মহারাষ্ট্রের রাজনীতিতে কি নয়া সমীকরণ? এই প্রশ্নই এখন ঘোরাফেরা করছে রাজ্যের রাজনৈতিক মহলে। রাজ্যের উপ মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়নবীশের পোস্ট করা একটি ছবি জল্পনা উস্কে দিয়েছে। সম্প্রতি তিনি বেশ কয়েকটি ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করেছেন। ...

তিনদিনের মস্কো সফর সেরে ইতিমধ্যেই দেশে ফিরে গিয়েছেন চীনা প্রেসিডেন্ট জি জিনপিং। পশ্চিমি দুনিয়ার শক্তিশালী রাষ্ট্রগুলিকে কার্যত বুড়ো আঙুল দেখিয়ে রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের সঙ্গে বৈঠকও করেন তিনি। ...

উচ্চ মাধ্যমিক দিচ্ছিলেন তনয় মান্না। বাবাকে বলেছিলেন, পরীক্ষা ভালোই হচ্ছে। পরীক্ষার দিয়ে বুধবার সন্ধ্যায় গিয়েছিলেন বন্ধুদের সঙ্গে গ্রুপ স্টাডি করতে। রাত আটটা নাগাদ স্কুটি চালিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। মাঝরাস্তায় একটি মালবাহী গাড়ি সটান এসে ধাক্কা মারে তনয়ের স্কুটিতে। ...

আগামী অর্থবর্ষে প্রায় ২৪ হাজার তরল বর্জ্য নিষ্কাশন ইউনিট বসানোর লক্ষ্যমাত্রা নিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার।   বর্জ্য নিষ্কাশন ব্যবস্থাপনা গড়ে তোলার বিষয়টিকে বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে নবান্ন। সেই অনুযায়ী এখন থেকেই প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ করছে পঞ্চায়েত দপ্তর।  ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

মেয়াদি সঞ্চয় থেকে অর্থাগম যোগ আছে। সন্তানের আবদার মেটাতে অর্থ ব্যয়। ধর্মকর্মে মন আকৃষ্ট হবে। ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

বিশ্ব যক্ষ্মা দিবস
বিশ্ব আবহাওয়া দিবস

১৬০৩: ইংল্যান্ডের রানী প্রথম এলিজাবেথের মৃত্যু
১৬৯৩: ইংরেজ সূত্রধর ও ঘড়ি-নির্মাতা জন হ্যারিসনের জন্ম
১৮৬১: লন্ডনে প্রথম ট্রাম চলাচল শুরু হয়
১৮৭৪:  বিশ্বের অন্যতম সেরা জাদুকর হ্যারি হুডিনির জন্ম
১৯০৫: ফরাসি লেখক জুল ভার্নের মৃত্যু
১৯৩৩: এড্লফ হিটলার জার্মানির একনায়ক হন
১৯৫৬: পাকিস্তানকে ইসলামী প্রজাতন্ত্র ঘোষণা করা হয়
১৯৬১: ইংল্যান্ডের প্রাক্তন ক্রিকেটার ডিন জোন্সের জন্ম
১৯৬৫: মার্কিন পেশাদার কুস্তীগির দ্য আন্ডারটেকারের জন্ম
১৯৭৯: অভিনেতা ইমরান হাসমির জন্ম
২০০৫: সঙ্গীতপরিচালক,আবহসঙ্গীতপরিচালক ও যন্ত্র সঙ্গীত শিল্পী ভি বালসারার মৃত্যু
২০২২: টলিউড অভিনেতা অভিষেক চট্টোপাধ্যায়ের মৃত্যু



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৮১.৩৩ টাকা ৮৩.০৭ টাকা
পাউন্ড ৯৯.৬৭ টাকা ১০৩.০৭ টাকা
ইউরো ৮৮.১২ টাকা ৯১.২৭ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৫৯,৯০০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৫৬,৮৫০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৫৭,৭০০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৬৯,৪০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৬৯,৫০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৯ চৈত্র, ১৪২৯, শুক্রবার, ২৪ মার্চ ২০২৩। তৃতীয়া ২৮/১৭ অপরাহ্ন ৫/১২। অশ্বিনী নক্ষত্র ১৯/১২ দিবা ১/২২। সূর্যোদয় ৫/৪১/২২, সূর্যাস্ত ৫/৪৫/৮। অমৃতযোগ দিবা ৭/১৬ মধ্যে পুনঃ ৮/৪ গতে ১০/৩০ মধ্যে পুনঃ ১২/৫৫ গতে ২/৩২ মধ্যে পুনঃ ৪/৯ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ৭/২১ গতে ৮/৫৬ মধ্যে পুনঃ ৩/১৬ গতে ৪/৪ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ রাত্রি ১০/৩১ গতে ১১/১৯ মধ্যে পুনঃ ৪/৪ গতে উদয়াবধি। বারবেলা ৮/৪২ গতে ১১/৪৩ মধ্যে। কালরাত্রি ৮/৪৪ গতে ১০/১৪ মধ্যে। 
৯ চৈত্র, ১৪২৯, শুক্রবার, ২৪ মার্চ ২০২৩। তৃতীয়া রাত্রি ৭/৩০। অশ্বিনী নক্ষত্র দিবা ৩/৫০। সূর্যোদয় ৫/৪৩, সূর্যাস্ত ৫/৪৫। অমৃতযোগ দিবা ৭/৫ মধ্যে ও ৭/৫৫ গতে ১০/২৪ মধ্যে ও ১২/৫৩ গতে ২/৩২ মধ্যে ও ৪/১১ গতে ৫/৪৬ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/২৩ গতে ৮/৫৬ মধ্যে ও ৩/৭ গতে ৩/৫৩ মধ্যে। মাহেন্দ্রযোগ রাত্রি ১০/২৯ গতে ১১/১৫ মধ্যে ও ৩/৫৩ গতে ৫/৪২ মধ্যে। বারবেলা ৮/৪৩ গতে ১/৪৪ মধ্যে। কালরাত্রি ৮/৪৫ গতে ১০/১৪ মধ্যে। 
১ রমজান।

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
কালীঘাটে জনতা দলের (সেকুলার) নেতা কুমারস্বামীকে স্বাগত জানালেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

05:26:00 PM

৩৫৩ পয়েন্ট পড়ল সেনসেক্স

03:10:12 PM

রাহুল গান্ধীর সাংসদ পদ খারিজ
লোকসভায় সদস্যপদ খোয়ালেন রাহুল গান্ধী। আজ, শুক্রবার সেই বিষয়ে লোকসভার ...বিশদ

02:24:00 PM

কুপওয়ারায় অনুপ্রবেশকারী জঙ্গিকে নিকেশ করল নিরাপত্তা বাহিনী
উপত্যকায় নিকেশ এক জঙ্গি। আজ, শুক্রবার জম্মু-কাশ্মীরের কুপওয়ারা জেলার জাব্দির ...বিশদ

02:00:25 PM

মুর্শিদাবাদে আগ্নেয়াস্ত্র সহ গ্রেপ্তার দুই ব্যক্তি

01:47:17 PM

২৪ পয়েন্ট উঠল সেনসেক্স

01:38:25 PM