বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
বিনোদন
 

ফার্স্ট লুক

প্রকাশিত হল মিমি চক্রবর্তীর নতুন ছবি ‘মিনি’র ফার্স্ট লুক। দুই অসমবয়সি মেয়ের বন্ধুত্বের গল্প বলবে মৈনাক ভৌমিকের এই ছবি। তিতলির চরিত্রে মিমি আর নামভূমিকায় শিশুশিল্পী অনন্যা চট্টোপাধ্যায়। প্রযোজনায় সম্পূর্ণা লাহিড়ী ও রাহুল ভঞ্জ।

মোটের উপর ভালো,  তবে প্রশ্ন থেকে গেল
মিমি

সোহম কর: বেশ কিছু চিরাচরিত বিতর্ক এই ছবির মাধ্যমে উঠে এসেছে। যেমন— সন্তানের জন্ম দিলেই কি পিতা-মাতা হওয়া যায়, নাকি যাঁরা সন্তানকে মায়া-মমতা দিয়ে বড় করেন, তাঁরা আসল মা-বাবা? সারোগেসিকে কেন্দ্র করে এক মর্মস্পর্শী গল্প শুনিয়েছেন পরিচালক লক্ষ্মণ উটেকর। রাজস্থানের ছোট্ট গঞ্জ এলাকার রূপসী যুবতী মিমি (কৃতী শ্যানন)। সে সুনর্তকীও বটে। তার একটাই স্বপ্ন, একদিন সে মুম্বইয়ে গিয়ে বড় নায়িকা হবে। রণবীর সিং তার স্বপ্নের নায়ক। মধ্যবিত্ত বাড়ির মেয়ে মুম্বই যাওয়ার টাকা পাবে কোথা থেকে?
এদিকে, আমেরিকা থেকে এক দম্পতি ভারতে এসেছে। তারা স্বাস্থ্যবান এক মহিলার খোঁজ করছে। কারণ, সারোগেসি পদ্ধতিতে তারা তাদের সন্তান পেতে চায়। সেই কারণেই চাই একজনের গর্ভ। ন’মাসের জন্য গর্ভ ভাড়া বাবদ তারা ২০ লক্ষ টাকা দেবে। এই দম্পতির গাড়ির চালক ভানু (পঙ্কজ ত্রিপাঠী) মহিলা খুঁজে দেওয়ার কাজ নিজের কাঁধে তুলে নেয়। অবশ্যই টাকার জন্য। রাজস্থানের এক জলসাতে গিয়ে মিমিকে খুব পছন্দ হয় সেই দম্পতির। ভানু কথাবার্তা বলে মিমিকে রাজি করে। 
মিমি মুম্বই যাওয়ার স্বপ্নে বিভোর। টাকার জন্য গর্ভ ভাড়া দেওয়ায় রাজি হয়ে যায়। কিন্তু ন’টা মাস বাড়িতে থাকবে কী করে? অগত্যা পাশের পাড়ায় বন্ধু শামার (সাই তামহানকর) বাড়িতে চলে যায় সে। এইখানেই অনেকগুলো প্রশ্ন জাগে। ভারতের মতো দেশের প্রত্যন্ত জায়গায় এত প্রগতিশীল মানসিকতার মানুষ কি সত্যিই দেখা যায়? গাড়িচালক ভানুর চরিত্রটিকে এতই সরল দেখানো হয়েছে যে, তার দিল্লিতে স্ত্রী রয়েছে। অথচ, এদিকে সে মিমির স্বামী সেজে এত সহজে থেকে গেল! মিমি সন্তানসম্ভবা হয়ে বাড়ি ফিরল, কিন্তু গোটা পাড়ার লোক টুঁ শব্দ পর্যন্ত করল না! সারোগেসির মাধ্যমে মিমির কোলে সাদা চামড়ার সন্তান এল। তা দেখতে গোটা পাড়ার লোক ভিড় জমিয়েছিল। সাদা চামড়ার প্রতি ভারতীয়দের যে অগাধ টান, সেই বিষয়টা ভালো ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। পাড়ার অনেকেই জানতে চায় কেমন করে হল সাদা চামড়ার বাচ্চা। এদিকে বাচ্চাটি ভারতেই বড় হল, অথচ তার হিন্দির মধ্যে বিদেশি টান। পরিচালকের এই বিষয়গুলো দেখার দরকার ছিল। 
এসবের মাঝখানে বিস্তর ঘটনা ঘটে গিয়েছে। প্রায় আড়াই ঘণ্টার ছবিতে অভিনয়ের দুর্দান্ত সুযোগ থাকলেও সকলেই কেমন যেন ম্রিয়মাণ। এই সমাজে সারোগেট মাদারদের কত সমস্যার সম্মুখীন হতে হয়, সেইসব ক্রাইসিস দেখানোই হয়নি। বরং স্বপ্ন আর সম্পর্কের একটা খিচুড়ি পাকানো হয়েছে। পঙ্কজ ত্রিপাঠীর মতো শক্তিশালী অভিনেতাই ছবিটিকে ধরে রেখেছিলেন। কৃতী খারাপ অভিনয় করেননি। অন্যান্য চরিত্রে সুপ্রিয়া পাঠক, সাই তামহানকর, মনোজ পাওয়ার বিশেষ কিছু করার ছিল না। সারোগেসি নিয়ে এই ছবির গল্প যেহেতু অনেকের চোখেই জল এনে দিতে পারে, তাই সেই গল্পের উপর দাঁড়িয়েই বৈতরণী পার করা যায়। সেই কাজটিই করেছেন পরিচালক। ছবিটি দেখতে খারাপ লাগবে না, কিন্তু ওই যে প্রশ্নগুলো, সেগুলো কানের পাশে দিন-রাত মশার মতো ঘুরবে।

28th     July,   2021
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021