বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
শিল্প -বাণিজ্য
 

চটের বদলে গমের সিন্থেটিক
বস্তার বরাত দিতে পারে কেন্দ্র
প্রতিবাদে সুর মেলাবে বাংলাও?
 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: কাঁচাপাটের অভাব এবং প্রাকৃতিক দুর্যোগের জোড়া সমস্যার জেরে রাজ্যের চটকলগুলি চলতি বছরে এখনও পর্যন্ত তাদের উৎপাদন ক্ষমতা পুরোপুরি কাজে লাগাতে পারেনি। ফলে চটের বস্তা সরবরাহে উদ্বেগজনক ঘাটতি তৈরি হয়েছে বর্তমান খরিফ মরশুমে। কেন্দ্রীয় খাদ্য ও বস্ত্রমন্ত্রক চটকলগুলির এই ‘গাফিলতি’ বেশিদিন বরদাস্ত করতে চাইছে না। আগস্ট মাসে চটকলগুলি যদি তাদের প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে না পারে, তাহলে অন্তত গমের জন্য চটের পরিবর্তে সিন্থেটিক বস্তার বরাত দেওয়ার পথে হাঁটতে পারে কেন্দ্র। সরকারিভাবে কোনও আদেশ বের না হলেও, মন্ত্রক সূত্রে এই খবর পেয়ে চটকল মালিকরা প্রমাদ গুনতে আরম্ভ করেছেন।
এতে রাজ্যের চটশিল্প নতুন করে সঙ্কটে পড়তে পারে। বিষয়টি রাজ্য খাদ্যদপ্তরের নজরেও রয়েছে। তাই পাঞ্জাব, ছত্তিশগড়ের মতো অ-বিজেপি দুই রাজ্যের সঙ্গে একসুরে চটের বস্তার পক্ষেই সওয়াল করেছেন খাদ্যমন্ত্রী রথীন ঘোষ। সিন্থেটিক লবির চাপে এই ধরনের কোনও সিদ্ধান্ত নেওয়া হলে বাংলা যে তা মানবে না, সেটা তিনি স্পষ্ট করেছেন। প্রয়োজনে এই ইস্যুতে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও দিল্লিতে চিঠি দিতে পারেন বলে জানিয়েছেন রথীনবাবু। পাঞ্জাব ও ছত্তিশগড় ইতিমধ্যে এক ধাপ এগিয়ে চটের ব্যাগ কেনার জন্য আলাদা করে টেন্ডার ডেকে দিয়েছে। পাঞ্জাবের খাদ্যসচিব রাহুল তিওয়ারি শুক্রবার কলকাতায় এসে চটকল মালিকদের সংগঠন আইজেএমএ’র কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকও করেছেন এনিয়ে। পাশাপাশি তিনি বস্ত্রমন্ত্রকের অধীনস্থ জুট কমিশনার মলয়চন্দন চক্রবর্তীর সঙ্গেও কথা বলেছেন। মলয়বাবু অবশ্য বলেন, সিন্থেটিক বস্তা ব্যবহার নিয়ে কোনও লিখিত অর্ডার মন্ত্রক বের করেনি। চটশিল্পের একাংশ বিষয়টি নিয়ে আগাম শোরগোল তুলছে।  
জুট কমিশনারের দপ্তর ও আইজেএমএ সূত্রের খবর, খরিফ মরশুমের জন্য ১৫ লক্ষ গাঁট বস্তা সরবরাহের প্রতিশ্রুতি দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু এখনও পর্যন্ত প্রায় ১৭ শতাংশ কম বস্তা সরবরাহ করা হয়েছে। মলয়বাবুর তরফে চটকল মালিকদের কড়া চিঠি দিয়ে সম্প্রতি জানানো হয়েছে, আগামী নভেম্বর পর্যন্ত এই প্রতিশ্রুতি রক্ষা করতে হবে মাসওয়ারি। তবে জুন থেকে যেভাবে সরবরাহে ঘাটতে চলছে, তা বেশি দিন বরদাস্ত করা যাবে না। সেক্ষেত্রে কেন্দ্র সিন্থেটিক বস্তার বরাত দেওয়ার পথে হাঁটবে। আর এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হলে বছরে ১৪ হাজার কোটি টাকার চটশিল্প বড় রকমের ধাক্কা খাবে। চটকলগুলিতে কর্মহীন হয়ে পড়বেন বহু শ্রমিক। 
তবে পাঞ্জাবের খাদ্যসচিব চটকল মালিকদের সঙ্গে বৈঠকে বলেছেন, খরিফ বা রবি, কোনও মরশুমেই গমের জন্য তাঁদের রাজ্যের কৃষকরা সিন্থেটিক বস্তা ব্যবহার করতে চান না। তাই কেন্দ্রকে এড়িয়ে পাঞ্জাব সরাসরি বস্তা কিনতে চায়। একই মনোভাব নিয়েছে কংগ্রেস শাসিত অপর রাজ্য ছত্তিশগড়ও। এবার এই ইস্যুতে অমরেন্দ্র সিং-ভূপেশ বাঘেলদের সঙ্গে মমতাও হাত মিলিয়ে মোদি সরকারের বিরুদ্ধে সরব হবেন বলে মনে করা হচ্ছে।

8th     August,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021