বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
খেলা
 

রাসেলের পেসে কোণঠাসা মুম্বই ইন্ডিয়ান্স 

চেন্নাই: ২-০-১৫-৫। স্বপ্নের একটি স্পেল। আন্দ্রে রাসেলের আগুনে পেসেই ছারখার মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের তারকাখচিত ব্যাটিং লাইন-আপ। তা সত্ত্বেও ১০ রানে রুদ্ধশ্বাস জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ল পাঁচবারের চ্যাম্পিয়নরা। সৌজন্যে কলকাতা নাইট রাইডার্সের ব্যাটিংয়ের ভরাডুবি। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে ২০ ওভারে ১৫২ রানে গুটিয়ে যায় মুম্বই। জবাবে কলকাতা থামে ১৪২ রানে। মুম্বইয়ের হয়ে রাহুল চাহার ৪টি উইকেট নেন।
জয়ের জন্য কেকেআরের প্রয়োজন ছিল ১৫৩ রান। দুলকি চালেই ইনিংস এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন ওপেনার শুভমান গিল ও নীতীশ রানা। এই জুটির পতন ঘটে ৭২ রানে। গিল ৩৩ করে আউট হন। মাত্র ৫ রানে রাহুল চাহারের বলে কট বিহাইন্ড হয়ে মাঠ ছাড়েন রাহুল ত্রিপাঠি। পরপর দু’টি উইকেট তুলে নিয়ে লড়াইয়ে ফেরার চেষ্টা করে মুম্বই। তবে নীতীশ রানা গত ম্যাচের মতোই জয়ের পথে দলকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করেন। ৪৭ বলে ৫৭ রান করেন এই বাঁ-হাতি ওপেনার। কিন্তু ক্যাপ্টেন মরগ্যান (৭) একেবারেই যে ফর্মে নেই, সেটা স্পষ্ট। উইকেটে টার্ন ছিল। তাই বল হাতে তুলে নেন রোহিতও। তবে নাইট মিডল অর্ডারে বড় ধাক্কাটা দেন রাহুল চাহার। ৪ ওভার হাত ঘুরিয়ে ২৭ রনে চার উইকেট তুলে মুম্বইকে ম্যাচে ফেরান এই তরুণ স্পিনার। একটা সময় ৩০ বলে ৩২ রান বাকি থাকলেও তা সংগ্রহ করতে পারেননি নাইটরা। মিডল অর্ডারে ব্যাট হাতে ব্যর্থ সাকিব-আল হাসান (৯), দীনেশ কার্তিক (৮ অপরাজিত)। আর শেষ ওভারে রাসেল (৯) ও কামিন্সকে (০) ফিরিয়ে মুম্বইয়ের জয় নিশ্চিত করেন টেন্ট্র বোল্ট।
মঙ্গলবার টসে জিতে প্রথমে ফিল্ডিং নেন কলকাতার ক্যাপ্টেন ইয়ন মরগ্যান। তাঁর সিদ্ধান্ত যে ঠিক ছিল, তা প্রমাণ হতে বেশি সময় লাগেনি। পাওয়ার প্লে’তে দ্রুত গতিতে রান তোলার যেমন সুযোগ থাকে, তেমনই আউট হওয়ার সম্ভাবনাও বেশি। আর সেই ঝুঁকিই এদিন নেয় নাইট রাইডার্স। দ্বিতীয় ওভারেই কুইন্টন ডি’কক ২ রানে আউট হয়ে মাঠ ছাড়েন। প্রাথমিক ধাক্কা সামলে ক্যাপ্টেন রোহিত শর্মা ও সূর্যকুমার যাদব কেকেআরের বোলারদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ান। স্বভাবসিদ্ধ ভঙ্গিতে সূর্য হাফ-সেঞ্চুরি পূর্ণ করে নাইটদের আরও চাপে ফেলে দেন। কিন্তু তিনি ৫৬ রানে আউট হওয়ার পর আচমকাই মুম্বইয়ের ব্যাটিংয়ে ধস নামে। এক্ষেত্রে অজি পেসার প্যাট কামিন্সের প্রশংসা করতেই হবে। তিনি দু’টি মূল্যবান উইকেট নেন। তাঁর প্রথম শিকার ঈশান কিষান (১)। মুম্বই অধিনায়ক রোহিতও ৪৩ রানে কামিন্সের বলে বোল্ড হন।
মুম্বইয়ের মিডল অর্ডার পুরোপুরি ব্যর্থ। হার্দিক পান্ডিয়া (১৫) নামের প্রতি সুবিচার করতে পারেননি। তারপর একে একে মুম্বইয়ের পাঁচ ব্যাটসম্যানকে আউট করেন রাসেল। নিজের প্রথম ওভারে ক্যারিবিয়ান অলরাউন্ডারটি ৫ রান দিয়ে দু’টি উইকেট নেন। দ্বিতীয় ওভারের প্রথম দু’টি ডেলিভারিতে বাউন্ডারি হজম করলেও দারুণভাবে ফিরে আসেন তিনি। পর পর ডাগ-আউটে ফেরান ক্রুনাল পান্ডিয়া (১৫) ও বুমরাহকে (০)। হ্যাটট্রিকের সুযোগ ছিল রাসেলের সামনে। কিন্তু তা হয়নি। অন্তিম ডেলিভারিতে চাহারকে ফিরিয়ে অবশ্য ৫ উইকেটের স্বাদ পেয়েছেন তিনি। 

14th     April,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
কিংবদন্তী গৌতম
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
12th     May,   2021