বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দেশ
 

বিশ্ব পর্যটক দিবসে জয়পুরের যন্তরমন্তরে ভিড়। ছবি: পিটিআই

জিএসটির আওতায় আসতে পারে পেট্রল-ডিজেল,
সিদ্ধান্ত শুক্রবারের কাউন্সিল বৈঠকে

নয়াদিল্লি: পেট্রল, ডিজেল সহ অন্যান্য পেট্রোলিয়ামজাত দ্রব্যেও কি বসবে জিএসটি? শুক্রবার লখনউতে কাউন্সিলের বৈঠকে এই নিয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হতে পারে। এই বৈঠকে সভাপতিত্ব করবেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারামন। কোভিড পর্বে দীর্ঘদিন ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমেই চলত বৈঠক। কিন্তু, শুক্রবারের জিএসটি কাউন্সিলের বৈঠকে সদস্যরা সরাসরি উপস্থিত থাকবেন। শারীরিক কারণে বাংলার অর্থমন্ত্রী অমিত মিত্র এই সভায় যেতে পারছেন না। তাঁর জায়গায় রাজ্যের হয়ে প্রতিনিধিত্ব করবেন পুরমন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নিজেই তাঁকে বৈঠকে যেতে বলেছেন। চন্দ্রিমা দেবীর সঙ্গে থাকবেন অর্থসচিব মনোজ পন্থ এবং অর্থদপ্তরের আধিকারিকরা। বৈঠকের আলোচ্যসূচিতে ১৮টি বিষয় রয়েছে। তারমধ্যে পেট্রল-ডিজেলকে জিএসটির আওতায় আনার বিষয়টিকে বিশেষ গুরুত্ব দিচ্ছে রাজ্য। তাই ‘হোমওয়ার্ক’ করে ময়দানে নামছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার। মঙ্গলবার অর্থসচিবের উপস্থিতিতে দীর্ঘ সময় বৈঠক করেন মন্ত্রী চন্দ্রিমা ভট্টাচার্য। আগামী বৃহস্পতিবার লখনউ পৌঁছবেন তিনি। তার আগেই কাগজপত্র নিয়ে আধিকারিকরা সেখানে পৌঁছে যাবেন। 
দেশজুড়ে পেট্রল-ডিজেলের দাম আকাশ ছোঁয়া। অবিজেপি রাজ্যগুলির দাবি, জ্বালানি তেলকেও জিএসটির আওতায় আনা হোক। তাহলেই এতে লাগাম টানা যাবে। জুন মাসে কেরল হাইকোর্টও একটি রিট পিটিশনের পরিপ্রেক্ষিতে জ্বালানিকে জিএসটির আওতায় আনতে কাউন্সিলকে প্রস্তাব দিয়েছিল। সূত্রের খবর, কেরল হাইকোর্টের সেই বক্তব্যকে হাতিয়ার করে শুক্রবারের সভায় সরব হতে পারেন কাউন্সিল সদস্যদের একাংশ। যার নেতৃত্বে দেখা যেতে পারে বাংলাকে।  
 সূত্রের খবর, জিএসটি ক্ষতিপূরণের সেস নিয়েও কাউন্সিলের বৈঠকে ঝড় উঠতে পারে। রাজ্যগুলি দাবি করবে, আরও পাঁচ বছর ধরে দেওয়া হোক ক্ষতিপূরণ সেস। কেন্দ্রীয় সরকার পাল্টা কোনও শর্ত আরোপের পাশাপাশি নতুন সেস বসানোর প্রস্তাবও দিতে পারে বলে মনে করা হচ্ছে। দীর্ঘ ২০ মাস পর ফের সদস্যরা সরাসরি এই বৈঠকে উপস্থিত থাকবেন। সভাপতির চেয়ারে থাকবেন স্বয়ং অর্থমন্ত্রী। তাই এই সুযোগকে হাতছাড়া করতে চাইছে না রাজ্যগুলি। ২০২৭ পর্যন্ত জিএসটি ক্ষতিপূরণ সেস দেওয়ার দাবি জানাবে তারা। জিএসটি আইন অনুসারে, ২০২২ সালের জুন মাস পর্যন্ত এই ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা। বিরোধীদের দাবি, করোনার ধাক্কায় রাজস্ব আদায় তলনিতে ঠেকেছে। তাই ক্ষতিপূরণ সেসের সময়সীমা বাড়ানো দরকার। 

15th     September,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021