বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দেশ
 

বিশ্ব পর্যটক দিবসে জয়পুরের যন্তরমন্তরে ভিড়। ছবি: পিটিআই

২০১৯ সাপেক্ষে মে-জুলাই মাসে যাত্রী
পরিবহণে পূর্ব রেলের ক্ষতি ৭৪ কোটি

রাজু চক্রবর্তী, কলকাতা: প্রাক করোনা পর্বের তুলনায় বর্তমানে ট্রেন চালিয়ে লোকসানে ডুবছে রেল। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে আগামীদিনে পরিষেবা এবং রেল কর্মীদের বেতন-পেনশন নিয়েও বড়সড় প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে। রেল সূত্রের খবর, পূর্ব রেলের অধীনে থাকা চারটি ডিভিশনে লোকসানের মাত্রা হু হু করে বাড়ছে। ২০১৯ সালে সাপেক্ষে মে, জুন এবং জুলাই মাসে শিয়ালদহ, হাওড়া, আসানসোল এবং মালদহ শাখায় চলতি বছর ৭৪ কোটি টাকার বেশি আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়েছে রেল। উল্লেখ্য, ২০২০ সালের মার্চ থেকে করোনার জেরে গোটা ভারতবর্ষ জুড়ে লোকাল দূরপাল্লা, এক্সপ্রেস সহ সমস্ত রকমের ট্রেন পরিষেবা বন্ধ হয়ে গিয়েছিল। তারপর দীর্ঘসময় লকডাউন চলায় যাত্রীবাহি ট্রেন চলাচল কার্যত স্তব্ধ হয়ে পড়ে। রেলের ভাঁড়ারে যার প্রভাব পড়তে শুরু করেছিল। বর্তমানে সেই পরিস্থিতি ভয়াবহ আকার নিয়েছে।
রেল সূত্রের খবর, ২০১৯ সালের মে মাসে পূর্ব রেলের চারটি ডিভিশনে সব মিলিয়ে ৮ লক্ষ ২০ হাজার ৬১৭টি টিকিট বিক্রি হয়েছিল। চলতি বছরের মে মাসে টিকিট যাত্রীর সংখ্যা কমে হয়েছে মাত্র ৯৩ হাজার ৬৯৪। একইভাবে ২০১৯ সালের জুন ও জুলাই মাসে সংশ্লিষ্ট চারটি ডিভিশনে যথাক্রমে ৮ লাখ ৫১ হাজার ১০৮টি এবং ৭ লাখ ৬১০টি টিকিট ইস্যু হয়েছিল। এ বছর জুন ও জুলাই মাসে টিকিট ইস্যু হয়েছে যথাক্রমে ১ লাখ ৪০ হাজার ৫০৯টি এবং ২ লাখ ২৪ হাজার ৫৩৯টি। জানা গিয়েছে, ২০১৯ সালের সাপেক্ষে চলতি বছরের মে, জুন এবং জুলাই মাসে লোকসানের হার যথাক্রমে ৮৮, ৮৩ এবং ৬৭ শতাংশ। 
দু’দশক আগে ভারতীয় রেলকে ‘সোনার ডিম পাড়া হাঁস’ বলে আখ্যা দেওয়া হতো। কিন্তু কালের নিয়মে পরিষেবার আধুনিকীকরণ, যাত্রী স্বাচ্ছন্দ্যের কথা মাথার রেখে পরিকাঠামো তৈরির জন্য খরচ বহুগুণ বেড়ে গিয়েছে। কিন্তু ট্রেনের টিকিটের দাম সেই হারে বাড়েনি বলে অভিযোগ রেল কর্তাদের একাংশের। যার জেরে টিকিট বিক্রি করে আয়ের পরিমাণ দিন দিন কমছে। করোনাকালে যাত্রীবাহী ট্রেনের সংখ্যা হ্রাস পাওয়ায় বিকল্প আয়ের পথ হিসেবে পণ্য বহন কয়েকগুণ বৃদ্ধি করেছে ভারতীয় রেল। তা থেকে সন্তোষজনক আয় হচ্ছে। কিন্তু টিকিট বিক্রি থেকে আয়ের তলানিতে ঠেকে যাওয়ায়, সেই লাভের অঙ্ক দেখাই যাচ্ছে না। পূর্ব রেলের ক্ষেত্রে পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ। কারণ, পশ্চিমবঙ্গ সরকার এখনও লোকাল ট্রেন পরিষেবা আগামী ১৫ আগস্ট পর্যন্ত বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কেবলমাত্র স্টাফ স্পেশাল চালিয়ে কাঙ্খিত আয় হচ্ছে না। সার্বিক এই পরিস্থিতি নিয়ে পূর্ব রেলের মুখ্য জনসংযোগ আধিকারিক একলব্য চক্রবর্তী বলেন, টিকিট বাবদ আয় মারাত্মক হ্রাস পেয়েছে। কোভিড পরিস্থিতিতে সত্যিই রেল সমস্যায় রয়েছে।   

 ২০১৯               আয় (টাকায়)
 মে    ১৪ কোটি ৫৪ লাখ ৫ হাজার ৫২
জুন        ৫৫ কোটি ৫৫ লাখ ৪৬ হাজার ৬৬১
জুলাই    ১২ কোটি ৫৪ লাখ ১ হাজার ৭৫৩

 ২০২১                আয় (টাকায়)
 মে     ১ কোটি ৬০ লাখ ১৩ হাজার ২৪৯
 জুন     ২ কোটি ৬৬ লাখ ৪৮ হাজার ৬৫
 জুলাই         ৪ কোটি ৯ লাখ ৯ হাজার ৪৯০ 
  হিসাব ২২ জুলাই পর্যন্ত  সূত্র: পূর্ব রেল

1st     August,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021