বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
কলকাতা
 

আজ রাজস্থান ও গুজরাতের আইপিএল ম্যাচ কলকাতায়। সেজে উঠেছে ইডেন গার্ডেন্স। ছবি: দেবাশিস মণ্ডল

করোনা থেকে সুস্থ, ১০১ ডুব
দিয়ে মানত পূরণ তিন বোনের

নিজস্ব প্রতিনিধি, দক্ষিণ ২৪ পরগনা: বাড়ির তিন বোনেরই করোনা হয়েছিল। মানত করেছিলেন, সুস্থ হওয়ার পর গঙ্গাসাগরে এসে ১০১টি ডুব দেবেন। সুস্থ হয়ে তিনজনই সাগরে পুণ্যস্নান করে মানত রক্ষা করলেন। 
উত্তরপ্রদেশের লাখিম লক্ষ্মী, মধুবালা এবং সরস্বতী তিন বোন ডুব দিয়ে ভগবানকে ধন্যবাদ জানালেন। সুস্থ জীবন পাওয়ার প্রার্থনা করলেন। পরপর কয়েকটি ডুব দেওয়ার পর বলে উঠলেন, ‘কপিলমুনি বাবা কী জয়। এই সে হি আশীর্বাদ বানায় রাখিয়েগা।’
গতমাসে তিনজনেরই করোনা হয়েছিল। বড় বোন লক্ষী ঝা বললেন, নানা রকমের জটিলতা দেখা দিয়েছিল। তখনই আমরা সাগরে গিয়ে ডুব দেওয়ার মানত করি।। সেই মত বৃহস্পতিবার রাতে এখানে চলে আসি। ভোর থেকে ঝিরিঝিরি বৃষ্টি শুরু হয় সাগরে। তার সঙ্গে হালকা হাওয়া কনকনে ঠাণ্ডার পরিবেশ তৈরি করেছিল। কিন্তু তাতে দমে না গিয়ে ১০১টি ডুব দেন। ঠাকুরের কাছে কথা দিয়ে কথা রাখাটাই ধর্ম-বলনে মেজ বোন। ঠাণ্ডা ও বৃষ্টিকে উপেক্ষা করেই মানত পূরণ করলেন, পুজোও দিলেন তিনজন।
লক্ষী, সরস্বতী এবং মধুবালার মত এরকম অনেকেই বৃহস্পতি ও শুক্রবার ডুব দিলেন সাগরে। তবে সেই সংখ্যা খুব একটা বেশি ছিল না। তবে মকর সংক্রান্তি উপলক্ষে শুক্রবার কিছুটা ভিড় বেড়েছিল। কিন্তু সিংহভাগই পাড়ে বসেই স্নান সারেন। পুজো এবং মন্ত্র উচ্চারণের মৃদু আওয়াজ গোটা তটে ছড়িয়ে অন্যরকম একটা পরিবেশ তৈরি হয়েছিল। ধূপের গন্ধে ম ম করছিল চারদিক। জ্যারিকেনে জল ভরে সেটা মাথায় ছিটিয়ে নিয়ে প্রদীপ, ধূপকাঠি জ্বালিয়ে গঙ্গাপুজা সারেন অনেকে। তবে জলে ডুব দেওয়ার সংখ্যা ছিল অনেক কম। বৃষ্টি পড়লেও তাতে ‘কুছ পরোয়া নেহি’  মনোভাব দেখিয়ে সাগর তটে জমা হন পুণ্যার্থীরা।
এবারের পুণ্যস্নান একটি তাৎপর্যপূর্ণ বিষয় দেখা গেল। সেটা হল, তরুণ তরুণীদের উপস্থিতি ছিল চোখে পড়ার মতো। কেউ পরিবারের সঙ্গে এসেছেন কেউ বন্ধুবান্ধবদের নিয়ে। সেরকমই এক তরুণী লখন‌উয়ের শামা শর্মা। তিনি বলেন, কুম্ভ মেলা কেমন হয় দেখার ইচ্ছে ছিল। কিন্তু করোনার জন্য সেটা বন্ধ। তাই গঙ্গাসাগরে এসে কিছুটা স্বাদ পূরণ করলাম। পুণ্যার্থীরা ভিড় করলেও সজাগ ছিল জেলা প্রশাসন ও পুলিস। থেকে থেকে ড্রোনের মাধ্যমে স্যানিটাইজও করা হয়। সব শেষে একটি পাত্রে একটু পুণ্যজল নিয়ে বাড়ির উদ্দেশ্যে রওনা দেন পুণ্যার্থীরা। যাওয়ার আগে সবার গলাতেই ‘গঙ্গা মাইয়া কী জয়’।  নিজস্ব চিত্র

15th     January,   2022
 
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ