Bartaman Patrika
রাজ্য
 
 

পরিবেশ দিবসে কলকাতার হরিশ পার্কে নিম গাছ প্রতিস্থাপন করছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। রয়েছেন মন্ত্রী ফিরহাদ হাকিম, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় এবং মুখ্যসচিব। -নিজস্ব চিত্র 

স্বাস্থ্যসাথীর রোগী ফেরালে বেসরকারি
হাসপাতালের লাইসেন্স বাতিল: মমতা
তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে চরম হুঁশিয়ারি মুখ্যমন্ত্রীর

দেবাঞ্জন দাস, দুর্গাপুর: স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পের কার্ড থাকা সত্ত্বেও তালিকাভুক্ত যে সমস্ত বেসরকারি নার্সিংহোম এবং হাসপাতাল রোগী ফেরাবে, তাদের লাইসেন্স বাতিল করার মতো সিদ্ধান্ত নিতে রাজ্য সরকার পিছপা হবে না। বৃহস্পতিবার দুর্গাপুরে পশ্চিম বর্ধমান জেলার প্রশাসনিক পর্যালোচনা বৈঠকের মঞ্চ থেকে এভাবেই স্পষ্ট বার্তা দিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, নিম্ন ও মধ্য আয়ের মানুষের স্বাস্থ্য পরিষেবা সুনিশ্চিত করতেই স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্প চালু করা হয়েছে। রাজ্যের সাড়ে সাত কোটি মানুষকে স্বাস্থ্যসাথী কার্ড দেওয়া হয়েছে। মঞ্চ থেকে মমতার হুঁশিয়ারি, সেই কার্ডধারী কাউকে যদি কোনও তালিকাভুক্ত বেসরকারি হাসপাতাল ও নার্সিংহোম প্রত্যাখ্যান করে, তার লাইসেন্স বাতিল করা হবে। করা হবে না রিনিউ। শুধু তাই নয়, প্রত্যাখ্যাত ব্যক্তিকে মমতার নিদান, ভর্তি করতে না চাইলে, সোজা থানায় চলে যান। সেখানে অভিযোগ জানান। অভিযোগ জানান বিডিও অফিসে। সেখান থেকে তা পৌঁছে যাবে স্বাস্থ্যদপ্তরে। যে সমস্ত বেসরকারি হাসপাতাল এবং নার্সিংহোম রোগী প্রত্যাখ্যান করবে, তাদের বিরুদ্ধে দ্রুত ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য দপ্তরের প্রধান সচিব বিবেক কুমারকে নির্দেশও দেন মুখ্যমন্ত্রী।
স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পের কার্ড থাকা সত্ত্বেও ফেরানো হচ্ছে রোগী, প্রশাসনিক বৈঠকে এই বিষয়টি উত্থাপিত হওয়া মাত্রই দৃশ্যত ক্ষুব্ধ মমতা বলেন, গরিব মানুষকে স্বাস্থ্য পরিষেবা থেকে কোনওভাবেই বঞ্চিত করা যাবে না। তাছাড়া ওরা (বেসরকারি হাসপাতাল) কোনও দয়াদাক্ষিণ্য করছে না। বিনা পয়সায় চিকিৎসা দিচ্ছে, এমনটাও নয়। চড়া স্বরে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পে অন্তর্ভুক্ত করতে বেসরকারি হাসপাতালগুলির সঙ্গে চুক্তি করে ১২০০ কোটি টাকা স্বাস্থ্যবিমা বাবদ খরচ করেছে রাজ্য সরকার। এত টাকা খরচ করার পর যদি কেউ রোগী ফেরায়, তাহলে কড়া ব্যবস্থা তো নিতেই হবে। ক্ষোভ উগরে মমতা বলেন, কোটা নির্দিষ্ট করে গরিব মানুষকে চিকিৎসা দেওয়ার কথা ছিল বেসরকারি হাসপাতালের। সেটা ওরা করে না। তাঁর স্পষ্ট বার্তা, এবার রোগী ফেরানোর মতো ঔদ্ধত্য যেন কেউ না দেখায়। প্রসঙ্গত, গত ২০১৭ সালের পয়লা ফেব্রুয়ারি মুখ্যমন্ত্রী সাধারণ মানুষের জন্য চালু করেছিলেন স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্প। রাজ্যের সমস্ত সরকারি হাসপাতালের সঙ্গে ১৫০০ বেসরকারি স্বাস্থ্য প্রতিষ্ঠান এই প্রকল্পের অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। কিন্তু নানা অজুহাত দেখিয়ে বেসরকারি হাসপাতালগুলি রোগী ফেরাচ্ছে বলে বিস্তর অভিযোগ আসছে। নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে, চালু হওয়ার দিন থেকে আজ পর্যন্ত স্বাস্থ্যসাথী প্রকল্পের ওয়েবসাইটে, কল সেন্টার এবং পোর্টাল মারফত বেসরকারি হাসপাতাল থেকে প্রত্যাখ্যাত হয়েছেন, এমন চার হাজার অভিযোগ পাওয়া গিয়েছে। স্বাস্থ্যদপ্তরের হস্তক্ষেপে কয়েক ঘণ্টার মধ্যে রোগী ভর্তি করতে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ বাধ্য হয়েছে। কয়েকদিন আগে দক্ষিণ ২৪ পরগনার সোনারপুরের একটি নার্সিংহোম স্বাস্থ্যসাথীর কার্ডধারী এক ব্যক্তিকে ভর্তি না করে ফিরিয়ে দেয়। নার্সিংহোম কর্তৃপক্ষের যুক্তি ছিল, বকেয়া সরকারি বিল তারা পায়নি। নবান্নের ওই সূত্রটি জানিয়েছে, এরপর স্বাস্থ্যদপ্তর ওই নার্সিংহোমের বকেয়া বিলের বিষয়টি খোঁজ নিয়ে দেখে, ইতিমধ্যেই তা মেটানো হয়েছে। বিষয়টি জানানো হয় নার্সিংহোমকে। তারাও খোঁজ নিয়ে সঠিক বিষয়টি জানতে পেরে স্বাস্থ্যদপ্তরের কাছে ক্ষমা চেয়ে সংশ্লিষ্ট কার্ডধারী ব্যক্তিকে ভর্তি করে নেয়। স্বাস্থ্যদপ্তরের প্রধান সচিব বলেন, রোগী প্রত্যাখ্যান করার কারণে এখনও পর্যন্ত কোনও বেসরকারি হাসপাতালের লাইসেন্স বাতিল হয়নি। কিন্তু মুখ্যমন্ত্রীর এই কড়া অবস্থানের পর এই পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।
প্রশাসনিক বৈঠকে এদিন পুলিসের কাজকর্ম নিয়েও সরব হন মুখ্যমন্ত্রী। শান্তিরক্ষকদের তাঁর নির্দেশ, সবার সব অভিযোগ থানায় নিতে হবে। অভিযোগ সত্যি কি না, তা যাচাই করেই ব্যবস্থা নিন। কিন্তু এটা উত্তরপ্রদেশ নয়। ধর্ষণের অভিযোগ করায় নির্যাতিতার পরিবারের কাউকে মরতে হয় না এখানে। সাধারণ মানুষের অভিযোগ নিতেই হবে। মমতার নিদান, কেস ডায়েরিটা (সিডি) ঠিকঠাক করে লিখবেন। বহু সময় দেখা যাচ্ছে, সিডি ঠিকঠাক না হওয়ায়, অপরাধী জামিন পেয়ে যাচ্ছে। এটা যেন না হয়। পুলিসের পাশাপাশি সরকারি আইনজীবীদের মুখ্যমন্ত্রীর পরামর্শ, এরটাও নিলাম, ওরটাও নিলাম, এমন করবেন না। একটা পক্ষ হয়ে থাকতে হবে। সরকার আপনাদের পয়সা দেয়। সরকারের মামলাগুলো ভালো করে দেখুন, ঝুলিয়ে রাখবেন না। নিষ্পত্তি করার ব্যবস্থা করুন।

14th  February, 2020
উম-পুনে ক্ষতি প্রায় ৮০ হাজার কোটি,
কেন্দ্রীয় দলকে আজ খতিয়ান দেবে রাজ্য
দুই ২৪ পরগনার দুর্গত এলাকা পরিদর্শন

নিজস্ব প্রতিনিধি, দক্ষিণ ও উত্তর ২৪ পরগনা: উম-পুন তাণ্ডবে রাজ্যের ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে প্রায় ৮০ হাজার কোটি টাকার। আজ, শনিবার দুপুরে কেন্দ্রীয় পরিদর্শক দল নবান্নে আসছে। তাদের হাতে ওই ক্ষয়ক্ষতির খতিয়ান তুলে দেবেন রাজ্যের মুখ্যসচিব রাজীব সিনহা। নবান্ন সূত্রে খবর, সব থেকে বেশি ক্ষতি হয়েছে বসতবাড়ির, সংখ্যাটা ২১ লাখ। 
বিশদ

এমন দুর্দিনেও বাংলাকে শুধু
বঞ্চনা অসম্মান কেন: মমতা
সঙ্কট নিয়ে বিজেপির রাজনীতিতে তীব্র ক্ষোভ মুখ্যমন্ত্রীর

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ‘বাংলাকে এত অসম্মান কেন? আমরা তো রাজনীতি করছি না! তাহলে দুর্যোগের সময় বাংলার ভাগ্যে শুধু বঞ্চনা কেন?’ গর্জে উঠলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুক্রবার বিকেলে দক্ষিণ কলকাতার হরিশ পার্কে বৃক্ষরোপণ অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। অরাজনৈতিক সেই অনুষ্ঠান থেকে তিনি নাম না করেই সঙ্কটের মধ্যেও বিজেপির রাজনীতির বিরুদ্ধে সরব হন। 
বিশদ

বেসরকারি বাসের দেখা নেই দ্বিতীয়
দিনেও, রাস্তায় অটো-ট্যাক্সি নগণ্য

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: আশ্বাস-প্রতিশ্রুতিই সার। বেসরকারি বাসের তেমন দেখাই নেই শহরে। সরকারের বারবার অনুরোধ, আলোচনার পরও শুক্রবার বেসরকারি বাসের সংখ্যা বেড়েছে খুবই কম। অন্যদিকে, এদিনও রাস্তায় পর্যাপ্ত অটো এবং ট্যাক্সি ছিল না। আগামী সোমবার থেকে বিভিন্ন অফিস-কাছারিতে আরও বেশি কর্মী যেতে শুরু করবেন। 
বিশদ

স্কুল খোলা দূরঅস্ত, সিলেবাসের
চাপ কমাতে উদ্যোগী শিক্ষাদপ্তর

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: কমছে স্কুলের সিলেবাস। তবে, শুধুমাত্র চলতি বছরের বাকি থাকা পরীক্ষাগুলির জন্য ওই সঙ্কুচিত সিলেবাস প্রযোজ্য হবে। সিলেবাস কতটা কমানো যেতে পারে, তা নিয়ে শিক্ষকদের পরামর্শ চেয়েছে শিক্ষা দপ্তর। গোটা বিষয়টি বিশেষজ্ঞ কমিটিকে দেখতে বলেছেন শিক্ষামন্ত্রী।
বিশদ

পরিকল্পনামাফিক ও বিজ্ঞানসম্মত উপায়ে বৃক্ষরোপণের পরামর্শ মন্ত্রীর 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ঘূর্ণিঝড় উম-পুনের দাপটে কলকাতা, সুন্দরবন সহ গোটা রাজ্যে বহু গাছ পড়ে গিয়েছে। এই অবস্থায় পরিবেশের ভারসাম্য ঠিক রাখতে বৃক্ষরোপণেই জোর দিচ্ছে পরিবেশ দপ্তর।  বিশদ

নয়া বিদ্যুৎ বিলে আপত্তি জানিয়ে কেন্দ্রকে চিঠি দিল রাজ্য সরকার 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: দেশের বিদ্যুৎ আইনে প্রস্তাবিত সংশোধনী নিয়েও এবার কেন্দ্রের সঙ্গে সংঘাতের পথে হাঁটল রাজ্যের তৃণমূল সরকার। এই সংশোধনী বিল সার্বিকভাবে অসাংবিধানিক এবং যুক্তরাষ্ট্রীয় কাঠামোর সম্পূর্ণ বিরোধী বলে মনে করছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রশাসন।   বিশদ

একাদশের নম্বর জমা করতে হবে ১০ আগস্টের মধ্যে 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: স্কুল খোলার সাতদিনের মধ্যে নয়, ১০ আগস্টের মধ্যে জমা দেওয়া যাবে একাদশ শ্রেণীর পরীক্ষার নম্বর। সংশোধিত নির্দেশিকা জারি করে একথা জানিয়ে দিয়েছে উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা সংসদ। বিশদ

বিপর্যস্ত মানুষের পাশে দাঁড়াতে দলকে বার্তা মমতার 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: করোনা ও ঘূর্ণিঝড় বিপর্যস্ত মানুষের পাশে দাঁড়াতে দলের সর্বস্তরের কাছে বার্তা দিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 
বিশদ

১১ জুন একগুচ্ছ শর্তাবলী মেনে খুলছে হাইকোর্ট 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ১১ জুন থেকে পরীক্ষামূলকভাবে খুলছে কলকাতা হাইকোর্ট। লকডাউন পর্বে শুধুমাত্র অনলাইনে কোর্ট চলেছে। এবার আইনজীবীরা সশরীরে এজলাসে হাজির হয়ে শুনানিতে অংশ নিতে পারবেন।
বিশদ

বকেয়া জিএসটি পুরো মেটালো না কেন্দ্র 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: জিএসটি খাতে রাজ্যকে কেন্দ্রীয় সরকার দিয়েছে ১৪৪৪ কোটি টাকা। তবে নবান্ন সূত্রে জানা গিয়েছে, গত ফেব্রুয়ারি মাস পর্যন্ত জিএসটি খাতে রাজ্যের পাওনা ছিল ১৮০০ কোটি টাকার বেশি। তারমধ্যে এসেছে মাত্র ১৪৪৪ কোটি টাকা। 
বিশদ

মানুষের পাশে থাকুন, বার্তা নেত্রীর 

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: করোনা ও ঘূর্ণিঝড় বিপর্যস্ত মানুষের পাশে দাঁড়াতে দলের সর্বস্তরকে বার্তা দিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। 
বিশদ

আশ্বাসই সার, রাস্তায় নামল
১০ শতাংশ বেসরকারি বাস
বাড়তি ভাড়ার অভিযোগ বহু রুটে

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বাসমালিকদের সংগঠনগুলি আশ্বাস দিয়েছিল, বৃহস্পতিবার থেকে রাস্তায় আরও বেশি সংখ্যক বেসরকারি বাসের দেখা মিলবে। কিন্তু এত ঢাকঢোল বাজিয়েও প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়িত হল না। বাসের সংখ্যা বাড়ল একেবারেই নগণ্য হারে। কলকাতা ও শহরতলি হোক, বা বিভিন্ন জেলা—সর্বত্রই ছবিটা ছিল এক। দিনের শেষে হিসেব কষে দেখা গিয়েছে, মোট বাসের ১০ শতাংশও এদিন রাস্তায় নামেনি। পরিবহণ দপ্তর সূত্রে খবর, এদিন গোটা রাজ্যে বেসরকারি বাস চলেছে মাত্র ২ হাজার ৫৯টি।
বিশদ

05th  June, 2020
বঙ্গে নতুন আক্রান্ত ৩৬৮, মৃত ১০,
সুস্থতার হার বেড়ে হল ৪০ শতাংশ

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা: বাংলায় ৩৬৮ জন নতুন করে আক্রান্ত হলেন করোনায়। মারা গিয়েছেন ১০ জন। মৃতদের মধ্যে পাঁচজন কলকাতার, তিনজন হাওড়ার ও দু’জন উত্তর ২৪ পরগনার বাসিন্দা। মোট আক্রান্ত বেড়ে হল ৬ হাজার ৮৭৬।
বিশদ

05th  June, 2020
রাস্তায় মাস্ক না পড়লেই
আইনানুগ ব্যবস্থা রাজ্যে

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: গত ১২ এপ্রিলই সকলকে মাস্ক ব্যবহারের নির্দেশ জারি করেছিল রাজ্য সরকার। কিন্তু দেখা যাচ্ছে, অনেকেই মাস্ক না পড়েই রাস্তায় বেরিয়ে পড়ছেন। তাই রাজ্য সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে, মাস্ক না পড়লে এবার আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। রাজ্য পুলিশ বা কলকাতা পুলিশকে সেই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে নবান্নের তরফে।
বিশদ

05th  June, 2020

Pages: 12345

একনজরে
লন্ডন, ৫ জুন: প্রথম ফুটবলার হিসেবে বিলিয়নিয়ারদের তালিকায় নাম লেখাতে চলেছেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডো। ফোর্বসের প্রকাশিত বিশ্বের ধনী ক্রীড়াবিদদের তালিকায় লায়োনেল মেসিকে আগেই টেক্কা দিয়েছেন সিআর ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: আক্রান্তের পরিবারের করোনা পরীক্ষা হয়নি। উপরন্তু দিব্যি তারা বাইরে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। এমনটাই ক্ষোভ কলকাতা পুরসভার সেন্ট্রাল স্টোর কর্মী ও শ্রমিক আবাসনে।  ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: লকডাউনের বিধি শিথিল করে রা‌঩জ্যের চটকলগুলিতে ১০০ শতাংশ হাজিরার পাশাপাশি উৎপাদন চালুর অনুমতি দিয়েছে নবান্ন। কিন্তু সিংহভাগ চটকলে শ্রমিকদের বড় অংশই ভিনরাজ্যের বাসিন্দা। ...

সংবাদদাতা, রামপুরহাট: করোনা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে শুক্রবার রামপুরহাট মহকুমার প্রতিটি ব্লক অফিস ঘুরে বিডিওদের সঙ্গে কথা বললেন সংসদ সদস্য শতাব্দী রায়। হঠাৎ লকডাউনের ফলে পরিযায়ীরা চরম দুর্দশার শিকার হয়েছেন ও জেলায় আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে বলে দাবি করেন তিনি।   ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম ( মিত্র )
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

উচ্চপদস্থ ব্যক্তির সহায়তায় কর্মস্থলে জটিলতার সমাধান। বাতজবেদনায় কষ্ট পাবার সম্ভাবনা। প্রেম-প্রণয়ে সাফল্য। পরশ্রীকাতর ব্যক্তির দ্বারা ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১০৯৯: প্রথম ধর্মযুদ্ধের শুরু, অবরোধের সূচনা জেরুজালেমে
১৬৫৪: ফ্রান্সের সিংহাসনে বসলেন রাজা চতুর্দশ লুই
১৮২৯: ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল কংগ্রেসের অন্যতম প্রতিষ্ঠাতা অ্যালান অক্টাভিয়ান হিউমের জন্ম
১৮৬৭: কলকাতা হাইকোর্টের প্রথম ভারতীয় বিচারপতি শম্ভুনাথ পণ্ডিতের মৃত্যু
১৯১১: লেখক নীহাররঞ্জন গুপ্তের জন্ম
১৯২৮: অভিনেতা ও রাজনীতিক সুনীল দত্তের জন্ম
১৯৪২: লিবিয়ার প্রাক্তন স্বৈরাচারী শাসক মুয়াম্মার গদ্দাফির জন্ম
১৯৬৭: ছ’দিনের যুদ্ধে জেরুজালেমে প্রবেশ করল ইজরায়েলি সেনা
১৯৭০: ইংরাজি সাহিত্যিক ই এম ফস্টারের মৃত্যু
১৯৭২: কবি হুমায়ুন কবিরের মৃত্যু
১৯৭৫: ইংল্যান্ডে প্রথম বিশ্বকাপ ক্রিকেটের উদ্বোধন 



ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭৪.৫৯ টাকা ৭৬.৩০ টাকা
পাউন্ড ৯৩.৪২ টাকা ৯৬.৭১ টাকা
ইউরো ৮৩.৯৯ টাকা ৮৭.১০ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৪১,৮৮০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩৯,৭৩০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৪০,৩৩০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৮,৮০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮,৯০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
22nd  March, 2020

দিন পঞ্জিকা

২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ৬ জুন ২০২০, শনিবার, প্রতিপদ ৪৪/৬ রাত্রি ১০/৩৩। জ্যেষ্ঠা নক্ষত্র ২৫/৪৩ দিবা ৩/১২। সূর্যোদয় ৪/৫৫/৯, সূর্যাস্ত ৬/১৪/৫৫। অমৃতযোগ দিবা ৩/৩৪ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ৬/৫৭ গতে ৭/৩৯ মধ্যে পুনঃ ১১/১৩ গতে ১/২১ মধ্যে পুনঃ ২/৪৭ গতে উদয়াবধি। বারবেলা ৬/৩৫ মধ্যে পুনঃ ১/১৪ গতে ২/৫৫ মধ্যে পুনঃ ৪/৪৩ গতে অস্তাবধি। কালরাত্রি ৭/৩৫ মধ্যে পুনঃ ৩/৩৬ গতে উদয়াবধি।  
২৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭, ৬ জুন ২০২০, শনিবার, প্রতিপদ রাত্রি ১১/২৯। জ্যেষ্ঠা নক্ষত্র অপরাহ্ন ৪/২০। সূর্যোদয় ৪/৫৬, সূর্যাস্ত ৬/১৬। অমৃতযোগ ৩/৩৮ গতে ৬/১৬ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/২ গতে ৭/৪৪ মধ্যে ও ১১/১৬ গতে ১/২৩ মধ্যে ও ২/৪৭ গতে ৪/৫৬ মধ্যে। কালবেলা ৬/৩৬ মধ্যে ও ১/১৬ গতে ২/৫৬ মধ্যে ও ৪/৩৬ গতে ৬/১৬ মধ্যে। কালরাত্রি ৭/৩৬ মধ্যে ও ৩/৩৬ গতে ৪/৫৬ মধ্যে।
১৩ শওয়াল  

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
দাঁতালের হামলায় নাগরাকাটায় ক্ষতিগ্রস্ত একটি বাড়ি 
নাগরাকাটার সুখানী বস্তিতে বুনোহাতির হামলায় ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্ত হল এক মহিলার ...বিশদ

12:29:00 PM

ঝাড়খণ্ডে একদিনে করোনা আক্রান্ত ৯৫ 
ঝাড়খণ্ডে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৯৫ জন। ফলে ...বিশদ

12:10:08 PM

বেহাল সড়ক, সংস্কারের দাবিতে আরামবাগে বিক্ষোভ
বেহাল সড়ক সংস্কারের দাবিতে বিক্ষোভ আরামবাগের নৈসরা এলাকায় বিক্ষোভে শামিল ...বিশদ

12:07:00 PM

আরামবাগে খাল থেকে উদ্ধার অজ্ঞাতপরিচয় কিশোরীর দেহ, চাঞ্চল্য
শনিবার সকালে আরামবাগের বলরামপুর এলাকা সংলগ্ন কানা দ্বারকেশ্বর খাল থেকে ...বিশদ

12:06:05 PM

বিরোধীদের মধ্যে সহমর্মিতা নেই: শশী পাঁজা 

11:24:00 AM

কষ্টের সময়েও রাজনীতি করছে বিজেপি: শশী পাঁজা 

11:22:00 AM