Bartaman Patrika
চাষ আবাদ
 

‘সুধা’ পদ্ধতিতে চাষে আমনে মিলবে প্রচুর ফলন 

ব্রতীন দাস: ‘সুধা’ অর্থাৎ সুনিশ্চিত ধানচাষ পদ্ধতিতে আমন ধানের ফলন ১০-১৫ শতাংশ বাড়বে। এমনটাই বলছেন কৃষি বিশেষজ্ঞরা। তাঁদের বক্তব্য, বৃষ্টিপাতের অনিশ্চয়তা যেভাবে বাড়ছে, তাতে এই পদ্ধতিতে আমন ধান চাষ করলে চাষিরা অনেকটাই নিশ্চিন্ত হতে পারবেন। এই পদ্ধতিতে চাষের বেশ কিছু সুবিধা রয়েছে। তার মধ্যে অন্যতম বীজের পরিমাণ অনেক কম লাগে। বীজতলায় চারা অনেক দিন পর্যন্ত রেখে দেওয়া যায়। চারা অনেক বেশি প্রতিকূল পরিস্থিতি সহনশীল হয়। রোগপোকার দাপট কম লাগে। সাধারণ পদ্ধতির তুলনায় অন্তত ১ সপ্তাহ আগে ধান পাকে। যেসব কৃষক ‘সুধা’ পদ্ধতিতে আমন ধান চাষ করতে পারছেন না, তাঁরা অন্তত ড্রাম সিডার পদ্ধতিতে বীজ রোপণ করতে পারেন বলে জানিয়েছেন কৃষি আধিকারিকরা। এতে বীজের পরিমাণ অনেকটাই কম লাগবে। শ্রমিকও লাগবে কম। ফলে চাষের খরচ অনেকটাই কমে যাবে। তবে সমতল জমি না হলে ড্রাম সিডার পদ্ধতিতে বীজ রোপণের ক্ষেত্রে কিছু প্রতিবন্ধকতা তৈরি হতে পারে। সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। আমনে সুধা পদ্ধতিতে প্রতীক্ষা, শতাব্দী, লালস্বর্ণ, এমটিইউ-৭০২৯ প্রভৃতি জাতগুলি চাষ করা যেতে পারে। হুগলির শ্রীরামপুর মহকুমার সহ কৃষি অধিকর্তা (বিষয়বস্তু বিশেষজ্ঞ) অরূপ পাঠক জানিয়েছেন, ১ লিটার জলে ১৭০ গ্রাম খাওয়ার লবণ দিয়ে বীজ ভিজিয়ে রাখতে হবে। ভেসে ওঠা বা আংশিক ভেসে ওঠা বীজ ফেলে দিতে হবে। যে বীজ ডুবে থাকবে, সেগুলিকে পরিষ্কার জলে ধুয়ে নিতে হবে। এর পর ২ শতাংশ জিঙ্ক সালফেট অর্থাৎ ১ লিটার জলে ২০ গ্রাম দ্রবণে ৩০ ঘণ্টা বীজ ভিজিয়ে রাখতে হবে। পরে আবার পরিষ্কার জলে ধুয়ে নিতে হবে। কাদানো বীজতলার জন্য ওই বীজের কল বের করতে জাগ দিতে হবে। শুকনো বীজতলার জন্য ছায়ায় শুকিয়ে নিতে হবে বীজ।
দীর্ঘ মেয়াদি জাতের ক্ষেত্রে মে মাসের শেষ থেকে জুনের শেষ পর্যন্ত চারা রোয়া করা যাবে। ৫ শতক বীজতলার জন্য তিন থেকে সাড়ে তিন কেজি বীজ লাগবে। প্রতি বর্গ মিটারে ৭০০-র বেশি চারা যেন না থাকে। মধ্য ও স্বল্প মেয়াদি জাতের ক্ষেত্রে জুনের শেষ থেকে জুলাইয়ের শেষ পর্যন্ত রোয়া করা যাবে। ৫ শতক বীজতলার জন্য সাড়ে তিন কেজি থেকে চার কেজি বীজ লাগবে। প্রতি বর্গমিটারে ৭০০-৮০০ চারা থাকবে। সুধা পদ্ধতিতে রোয়া করা ধান দেশীয় পদ্ধতির তুলনায় ৭-১০ দিন আগে পাকে। ফলে পরবর্তী ফসল আলু বা সর্ষে ঠিক সময়ে জমিতে বসানো যায়। বীজতলায় ছিপছিপে জল রাখতে হবে। বীজতলা থেকে চারা তোলার অন্তত সাতদিন আগে অন্তর্বাহী কীটনাশক স্প্রে করতে হবে। বীজতলা থেকে চারা তোলার ৬ ঘণ্টার মধ্যে মূলজমিতে রোয়া করতে হবে। দীর্ঘমেয়াদি ধানের ক্ষেত্রে ৬০দিন, স্বল্প ও মধ্য মেয়াদি ধানের ক্ষেত্রে বীজতলায় ৩৫-৪০ দিন পর্যন্ত চারা রাখা যেতে পারে। বীজতলায় জৈবসারের সঙ্গে ট্রাইকোডার্মা ভিরিডি, অ্যাজোটোব্যাক্টর ও পিএসবি যোগ করতে হবে। বিঘায় বীজ লাগে ১ কেজি। বীজতলা চারিয়ে দিতে হবে অর্থাৎ ফাঁকা ফাঁকা করে ফেলতে হবে। বীজতলায় অবশ্যই ফসফরাস ও জিঙ্ক, বোরণ দিতে হবে।
সুধা পদ্ধতিতে ধানের চারার শিকড়ের সংখ্যা বেশি হয়। চারা সুস্থ ও সবল হয়। মূল জমিতে চারা ৫ দিনের মধ্যে ধরে যায়। রোগপোকা কম হয়। পশ্চিম মেদিনীপুরের পিংলার কৃষি দপ্তরের ব্লক টেকনোলজি ম্যানেজার অরুণাভ সামন্ত জানিয়েছেন, আমরা সুধা পদ্ধতিতে আমন চাষের সুপারিশ করছি। অন্যথায় ড্রাম সিডার পদ্ধতিতে মুড়ি অঙ্কুর বীজ বোনার জন্য বলছি কৃষকদের। সাধারণ পদ্ধতিতে এক একর জমিতে চাষের জন্য প্রায় ১৫ কেজির মতো বীজ লাগে। কিন্তু ড্রাম সিডারের সাহায্যে বুনলে ৪-৫ কেজি বীজে হয়ে যায়। ড্রাম সিডার প্লাস্টিকের চার মুখ বিশিষ্ট একটি যন্ত্র। এই যন্ত্রের সাহায্যে একজন কৃষক একদিনে সাড়ে সাত বিঘা জমিতে ধানের বীজ বুনতে পারবেন। প্রচলিত পদ্ধতিতে ধানের বীজ বা চারা বুনতে গেলে এক বিঘায় প্রায় ২২০০-২৪০০ টাকা খরচ হয়। সেখানে ড্রাম সিডার যন্ত্রটি ২০০ টাকায় ভাড়া পাওয়া যেতে পারে। তবে বীজ বোনার সময় বৃষ্টি হলে জমিতে ধান এলোমেলো হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা থাকে। ড্রাম সিডারে ধানের বীজ বুনতে সমতল জমি হলে সবসময় ভালো। তবে জমিতে ভালোভাবে আগাছা নিয়ন্ত্রণ করতে হবে।
পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার মেদিনীপুর সদর মহকুমায় মূলত লালমাটি ও দোঁয়াশ মাটির আধিক্য। কৃষিজমি উঁচু। ফলে এখানে মূলত স্বল্প মেয়াদি ধানের চাষ হয়ে থাকে। সেক্ষেত্রে কৃষকরা এমটিইউ-১০১০, গোটরা বিধান, স্বর্ণ ও ললাট প্রজাতির ধানের চাষ করে থাকেন। অনেকে বাংলাদেশের জাত ‘বঙ্গবন্ধু’ চাষ করেন। এছাড়াও কিছু হাইব্রিড ধানের চাষ হয়।
ঘাটাল মহকুমায় কৃষি জমি নিচু হওয়ায় দীর্ঘমেয়াদি ধান যেমন স্বর্ণ ও স্বর্ণ সাবওয়ান, সুগন্ধী ধান হিসেবে ব্ল্যাক রাইস ও বাদশাভোগ চাষ হয়ে থাকে। খড়্গপুর মহকুমার মোহনপুর, পিংলা, নারায়ণগড় এলাকার অনেকটা অংশে বাদশাভোগ ও গোবিন্দভোগ চাষ হয়। এছাড়া শতাব্দী, এমটিইউ-১০১০ এবং স্থানীয় জাত হিসেবে শঙ্কর, শ্যামাশ্রী চাষ হয়ে থাকে। কিছু হাইব্রিড জাতেরও চাষ হয়ে থাকে। সরকারি তরফে ডিআর-৪২ প্রজাতির ধানের বীজ দেওয়া হচ্ছে।  
05th  June, 2019
 অল্প খরচেই কম্পোস্ট সার

 অলোক বন্দ্যোপাধ্যায়: অল্প খরচে কম সময়ে কম্পোস্ট সার তৈরি করে চাষিরা তাঁদের চাষের কাজে ব্যবহার করতে পারেন। একইসঙ্গে অতিরিক্ত কম্পোস্ট সার বিক্রি করে তাঁরা আর্থিকভাবে লাভবানও হতে পারেন।
বিশদ

19th  June, 2019
 বাজারে সারাবছরই চাহিদা, মুগ ডাল চাষে মিলবে লাভ

  সংবাদদাতা: মুগ ডালের চাষ খুবই লাভজনক। বাজারে মুগডালের চাহিদা সবচেয়ে বেশি থাকে। সেইসঙ্গে দামও বেশি থাকে। রাজ্যের বিভিন্ন জেলায় মুগডালের চাষ কম হওয়ায় অন্য রাজ্য থেকে মুগ নিয়ে আসা হয় আমাদের রাজ্যে মুগডালের চাহিদা মেটানোর জন্য।
বিশদ

19th  June, 2019
 তেহট্টে শুঁয়োপোকার দাপটে পাটে ক্ষতির শঙ্কা

 সৌরভ ভট্টাচার্য : তেহট্ট মহকুমাজুড়ে পাটগাছে ব্যাপকভাবে শুঁয়োপোকার আক্রমণ ঘটেছে। এলাকার বহু পাটের জমিতে শুঁয়োপোকা ভরে গিয়েছে। চাষিরা বলেন, শুঁয়োপোকার উপদ্রব না কমলে আগামীদিনে পাটচাষে ব্যাপক ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা থাকছে। গোটা জেলার সঙ্গে তেহট্ট মহকুমাতেও ভালো পাটচাষ হয়।
বিশদ

19th  June, 2019
 একাঙ্গী চাষে খরচ কম, বিঘায় আয় লাখ টাকা

ব্রতীন দাস: একাঙ্গী একটি লাভজনক চাষ। এ রাজ্যের যেকোনও অঞ্চলে এটি চাষ করা যায়। একাঙ্গী কন্দযুক্ত ভেষজ উদ্ভিদ। কন্দ মাটির নীচে হয়। এটি চন্দ্রমূলি নামেও পরিচিত। দেখতে অনেকটা কচুরিপানার মতো। সবুজ রঙের বড় পাতা হয়। গাছের গোড়া থেকে একসঙ্গে ৮-১০টি পাতা বের হয়। সাত থেকে নয় মাসে ফসল তোলা যায়।
বিশদ

19th  June, 2019
সুন্দরবনেও যন্ত্রের সাহায্যে ধান চাষের উদ্যোগ 

নিজস্ব প্রতিনিধি: এবার সুন্দরবন এলাকার কৃষকরাও যন্ত্রের সাহায্যে ধান চাষ শুরু করতে চলেছেন। উত্তর ২৪ পরগনার সন্দেশখালি ২ নম্বর ব্লকে কৃষি দপ্তরের উদ্যোগে মেকানাইজড প্যাডি ট্রান্সপ্লান্টার মেশিনের সাহায্যে আমন ধানের চারা রোপণের প্রস্তুতি শুরু হয়েছে।   বিশদ

12th  June, 2019
ব্ল্যাক রাইস চাষে আগ্রহ হারাচ্ছেন কৃষকরা 

ব্রতীন দাস: শরীর সুস্থ রাখতে এবং ক্যান্সার, ডায়াবেটিসের মতো রোগ প্রতিরোধে কালো চালের গুরুত্ব অপরিসীম। কিন্তু সেই ধান উৎপাদন করেও বাজার না পাওয়ায় আগ্রহ হারাচ্ছেন কৃষকদের অনেকেই। কৃষি দপ্তরের পক্ষ থেকে ব্ল্যাক রাইস চাষের জন্য উৎসাহিত করা হলেও চাষিদের অভিযোগ, ব্ল্যাক রাইস ভাঙানোর জন্য যে বিশেষ ধরনের মিল দরকার তা বেশিরভাগ জায়গাতেই নেই।  বিশদ

12th  June, 2019
সঠিক পরিচর্যায় টবেও ফলবে স্ট্রবেরি 

নিজস্ব প্রতিনিধি: সঠিক জাত নির্বাচন করে ভালোভাবে পরিচর্যা করতে পারলে উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গের মাটি ও আবহাওয়ায় স্ট্রবেরি সাফল্যের সঙ্গে চাষ করা সম্ভব। এমনকী টবেও স্ট্রবেরি ফলানো সম্ভব বলে জানাচ্ছেন উদ্যানপালন আধিকারিকরা।  বিশদ

05th  June, 2019
নিয়ম মেনে অড়হর ডাল চাষ করলে ভালো আয়ের সম্ভাবনা 

সংবাদদাতা : অড়হর একটি ভালো অর্থকরি ফসল। সঠিক নিয়ম মেনে চাষ করতে পারলে যে কোনও ফসলের থেকে বেশি লাভ পাওয়া যায়। কারণ, বাজারে সারাবছরই মুগডালের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে অড়হর ডালের দামও যেমন ভালো থাকে, তেমনই চাহিদাও ভালো থাকে।  বিশদ

05th  June, 2019
কম খরচে বছরে ২বার সয়াবিন চাষ 

অলোক বন্দ্যোপাধ্যায়: সয়াবিনের চাষ ভালো লাভজনক। চাষিরা কম খরচে সয়াবিনের চাষ করতে পারেন। বাজারে সবসময় সয়াবিনের চাহিদা থাকে। দামও ভালো পাওয়া যায়। সয়াবিন বাজারে সবসময় নির্দিষ্ট দামের মধ্যে বিক্রি হয়।  বিশদ

05th  June, 2019
আধুনিক পদ্ধতিতে চাষ করে লাভবান বোরো ধান কৃষকরা 

সংবাদদাতা: আধুনিক সুধা-বোরো অর্থাৎ সুনিশ্চিত ধান চাষ প্রযুক্তির পর নদীয়া জেলার জল ও সেচ ব্যবহার গবেষণা কেন্দ্র কৃষকের জমিতে নিয়ে এসেছে উন্নততর শুকনো কর্ষণে সুধা বোরো প্রযুক্তি। এই অত্যাধুনিক প্রযুক্তিতে বোরো ধান চাষ করে উপকৃত হয়েছেন নদীয়া জেলার রানাঘাট মহকুমা আর হুগলি জেলার শ্রীরামপুর মহকুমার বহু অগ্রণী চাষি। 
বিশদ

05th  June, 2019
টার্কি পালন করে স্বনির্ভর হচ্ছেন মহিলারা 

নবজ্যোতি সরকার: টার্কি পালন করে দক্ষিণ ২৪ পরগনার বিভিন্ন স্বনির্ভর গোষ্ঠীর মহিলারা আর্থিকভাবে স্বনির্ভর হচ্ছেন। টার্কির বিক্রিযোগ্য ওজন ৫ কেজি হতে সময় নেয় ২০-২৫ সপ্তাহ। এরা এই সময় মোট খাবার খায় ১৮ কেজি।  বিশদ

05th  June, 2019
 গরমে পাটের রোগপোকা দমনে ব্যবস্থা না নিলে কমবে ফলন, তন্তুর মান বৃদ্ধিতে পরিচর্যা জরুরি

পাটের প্রধান রোগ ডাঁটা পচা হলেও হুগলি উইল্ট ও সুতো কৃমি ক্ষেত্র বিশেষে মারাত্মক ক্ষতি করে। রস পচা রোগ ফসলের শেষ পর্যায়ে দেখা যায়। তবে মিঠা পাটে খুব বেশি ক্ষতি করতে পারে না। ইদানীং ক্ষেত্র বিশেষে ডগা ধসা ও গাঁট রোগ দেখা যাচ্ছে। ডাঁটা পচা রোগ বলা হলেও এই রোগের ছত্রাক পাটের চারা থেকে বীজ পর্যন্ত যে কোনও সময় গাছের যে কোনও অংশে আক্রমণ করতে পারে। এবং চারা ধসা, চারা পচা, ডাঁটা পচা বা শিকড় পচার লক্ষণ সৃষ্টি করে। এজন্য এই রোগকে অনেকে বহুরূপী রোগও বলে থাকেন। - ড. রাজীব কুমার দে , প্রধান বিজ্ঞানী, কেন্দ্রীয় পাট ও সহজাত তন্তু গবেষণা সংস্থা বারাকপুর শাখার
বিশদ

29th  May, 2019
ফলের গাছের চারা তৈরি করে স্বনির্ভর বহু যুবক

নবজ্যোতি সরকার: উত্তর ২৪ পরগনা জেলার হাবড়া এক নম্বর ব্লকের পৃথিবা গ্রাম পঞ্চায়েতের বদর অঞ্চলের বহু নার্সারিতে চলছে পরীক্ষাগার ছাড়া গ্রাম্য পরিবেশ ও পদ্ধতিতে বিভিন্ন ফলের গাছের গ্রাফটিং। এক মাস বাদেই তৈরি হচ্ছে চারাগাছ। বিক্রি বেড়েছে বহুগুণ। বিক্রিতে লাভও মিলছে। তৈরি হচ্ছে আপেল পেয়ারা।
বিশদ

29th  May, 2019
 ধানের সহনশীল জাত স্বর্ণ সাব-১ সুন্দরবনের উপযোগী

  সংবাদদাতা: কৃষিক্ষেত্রে প্রতিকূল পরিবেশ সহনশীল ধানবীজের ব্যবহার আর রাসায়নিক সারের ব্যবহার কমিয়ে বা বন্ধ করে নতুন ভাবনায় এগিয়ে যেতে চাইছে রাজ্যের কৃষি দপ্তর ও জৈব প্রযুক্তি পরিকল্পনা বিভাগ। রাজ্যের প্রধান ফসল ধানচাষে প্রথাগত বীজ ব্যবহার হয়ে থাকত। এর ফলে প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে চাষিদের ক্ষতির মুখে পড়তে হতো।
বিশদ

29th  May, 2019

Pages: 12345

একনজরে
নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ইস্ট-ওয়েস্ট পথে বাণিজ্যিকভাবে ট্রেন চালানোর চূড়ান্ত অনুমোদনের জন্য ‘কমিশনার অব রেলওয়ে সেফটি’ (সিআরএস)-র কাছে আবেদনের করল ‘কলকাতা মেট্রো রেল কর্পোরেশন লিমিটেড’ (কেএমআরসিএল)। সংস্থা সূত্রের খবর, কয়েকদিন আগে সিআরএসের কাছে এই আবেদন করা হয়েছে।  ...

 সাদাম্পটন, ২৩ জুন: মন্থর ব্যাটিং নিয়ে অনেক সমালোচনা হচ্ছে ঠিকই, তবে উইকেটের পিছনে মহেন্দ্র সিং ধোনির উপস্থিতি কতটা জরুরি সেটা আরও একবার প্রমাণ হল আফগানিস্তান ...

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ভারত সরকার এবং জাপানের যৌথ উদ্যোগে বেঙ্গালুরুতে গত বছর গড়ে ওঠে জাপান-ইন্ডিয়া স্টার্ট আপ হাব। সেখানে সাফল্য পাওয়ার পাশাপাশি ওই হাব রাজ্যের অন্যত্র নিয়ে আসার উদ্যোগ নেওয়া শুরু হয়েছে। পশ্চিমবঙ্গে যাতে এমন হাব তৈরি করা যায়, তার ...

সংবাদদাতা, রঘুনাথপুর: শনিবার রাতে পাড়া থানার পুলিস ঝাপড়া গ্রামে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় এক অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষকের মৃতদেহ উদ্ধার করে। তাঁর রহস্যজনক মৃত্যুর ঘটনায় এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। পুলিস জনিয়েছে, মৃতের নাম বাণেশ্বর কুমার সাহাবাবু(৮২)।   ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মপ্রার্থীদের নতুন কর্মসংস্থানের সুযোগ আছে। সরকারি বা আধাসরকারি ক্ষেত্রে কর্ম পাবার সুযোগ আছে। ব্যর্থ প্রেমে ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৮৮৩- অস্ট্রীয়-মার্কিন পদার্থ বিজ্ঞানী ভিক্টর ফ্রান্সিস হেসের জন্ম
১৯০৮- প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট গ্রোভার ক্লিভল্যান্ডের মৃত্যু
১৯৫০- বাংলাদেশি কবি তথা মুক্তিযোদ্ধা আবিদ আনোয়ারের জন্ম
১৯৮৭- আর্জেন্তিনার ফুটবলার লায়োনেল মেসির জন্ম
 

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৮.৯৫ টাকা ৭০.৬৪ টাকা
পাউন্ড ৮৭.১২ টাকা ৯০.৩১ টাকা
ইউরো ৭৭.৪০ টাকা ৮০.৩৫ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
22nd  June, 2019
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৪,৫৫০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩২,৭৮০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩৩,২৭০ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৭,৯৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮,০৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
23rd  June, 2019

দিন পঞ্জিকা

৯ আষা‌ঢ় ১৪২৬, ২৪ জুন ২০১৯, সোমবার, সপ্তমী ৫৩/৯ রাত্রি ২/১৩। পূর্বভাদ্রপদ ৫৫/১১ রাত্রি ৩/২। সূ উ ৪/৫৭/১৩, অ ৬/২০/১৭, অমৃতযোগ দিবা ৮/৩১ গতে ১০/১৮ মধ্যে। রাত্রি ৯/১০ গতে ১২/০ মধ্যে পুনঃ ১/২৫ গতে ২/৫০ মধ্যে, বারবেলা ৬/৩৭ গতে ৮/১৮ মধ্যে পুনঃ ২/৫৯ গতে ৪/৪০ মধ্যে, কালরাত্রি ১০/১৯ গতে ১১/৩৯ মধ্যে। 
৮ আষাঢ় ১৪২৬, ২৪ জুন ২০১৯, সোমবার, সপ্তমী ৪৬/৭/৫৫ রাত্রি ১১/২৩/২৬। পূর্বভাদ্রপদনক্ষত্র ৫০/২৩/৩২ রাত্রি ১/৫/২১, সূ উ ৪/৫৫/৫৬, অ ৬/২৩/৪১, অমৃতযোগ দিবা ৮/৩৫ গতে ১০/২৩ মধ্যে এবং রাত্রি ৯/১৩ গতে ১২/৩ মধ্যে ও ১/২৮ গতে ২/৫৪ মধ্যে, বারবেলা ৩/১/৪৫ গতে ৪/৪২/৩৩ মধ্যে, কালবেলা ৬/৩৪/৫৪ গতে ৮/১৭/৫২ মধ্যে, কালরাত্রি ১০/২০/৪৭ গতে ১১/৩৯/৪৯ মধ্যে।
 
মোসলেম: ২০ শওয়াল 

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
বিশ্বকাপ: আফগানিস্তানকে ২৬৩ রানের টার্গেট দিল বাংলাদেশ 

07:00:44 PM

বিশ্বকাপ: বাংলাদেশ ১৯৩/৪ (৪০ ওভার) 

06:10:23 PM

দেউলিয়া বরিস বেকার, নিলামে উঠল ট্রফি 
কিংবদন্তি জার্মান লন টেনিস প্লেয়ার বরিস বেকার দেউলিয়া। না, মোটেই ...বিশদ

06:01:43 PM

বিশ্বকাপ: বাংলাদেশ ১৪৩/৩ (৩০ ওভার) 

05:22:32 PM

বিজেপিতে যোগ দিলেন আরও দুই তৃণমূল নেতা 
বিজেপিতে যোগ দিলেন দক্ষিণ দিনাজপুরের প্রাক্তন জেলা সভাপতি তথা প্রবীণ ...বিশদ

05:16:00 PM

বিশ্বকাপ: বাংলাদেশ ১০৩/২ (২০ ওভার) 

04:41:32 PM