বিশেষ নিবন্ধ
 

উন্নয়নের মোদি বনাম রামভক্ত মোদি
ভোটে বিজেপির পক্ষে লাভজনক কোন জন?
বিশ্বনাথ চক্রবর্তী

পাঁচ রাজ্যে ৬৭৯টি বিধানসভা কেন্দ্রের ভোটের আগেই কর্ণাটকের উপনির্বাচনের ফলাফলে বিজেপি শিবির বড় ধাক্কা খেল। বেলারি লোকসভা কেন্দ্রের পরাজয় ঘটল কংগ্রেসের কাছে। গত ১৪ বছর ধরে এই কেন্দ্রে বিজেপি বড় ব্যবধানে জয়ী হয়ে আসছিল। এবার ২ লক্ষ ৯৭ হাজার ১৬১ ভোটের ব্যবধানে জয়ী হন কংগ্রেস প্রার্থী। মান্ড্য লোকসভা কেন্দ্রে জয়ী হয়েছে জেডিএস, শিমোগা লোকসভা কেন্দ্রে বিজেপির প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী ইয়েদুরাপ্পার ছেলে মাত্র ৫২ হাজার ১৪৮ ভোটের ব্যবধানে জয়ী হয়ে বাবার ছেড়ে আসা আসনটি ধরে রাখতে পেরেছেন। দুটি বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনেও কংগ্রেস ও জেডিএস প্রার্থীরা ব্যাপক ভোটের ব্যবধানে বিজেপি প্রার্থীদের পরাজিত করেছেন। রামনগর বিধানসভা কেন্দ্রে বর্তমান মুখ্যমন্ত্রী কুমারস্বামী স্ত্রীকে প্রার্থী করেছিলেন। ওই কেন্দ্রে ভোটের দুদিন আগে বিজেপির প্রার্থী বিজেপি ত্যাগ করে কংগ্রেসে যোগদান করেন। লিঙ্গায়েত ভোটাররা সাধারণত বিজেপিকে সমর্থন করে থাকেন। এবার লিঙ্গায়েত প্রধান জামকন্ডিতে যে বড় ব্যবধানে কংগ্রেস প্রার্থী জয়ী হয়েছেন তাতে নিশ্চিত করেই বলা যায় কর্ণাটকের উপনির্বাচনে বিজেপির লিঙ্গায়েত ভোটব্যাঙ্কেও ধস নেমেছে।
কর্ণাটকের এবারের উপনির্বাচনের আগে উত্তরপ্রদেশের গোরক্ষপুর, ফুলপুর এবং কৈরানা লোকসভার উপনির্বাচনের ফলাফল বিজেপির বিরুদ্ধে গিয়েছিল। গোরক্ষপুর উত্তরপ্রদেশের বিজেপির হিন্দুত্বের পোস্টার বয় যোগী আদিত্যনাথের ছেড়ে আসা কেন্দ্র। ফুলপুর লোকসভা কেন্দ্রটি ছিল উত্তরপ্রদেশের বর্তমান উপমুখ্যমন্ত্রী কেশবপ্রসাদ মৌর্যের ছেড়ে-আসা কেন্দ্র। একইসঙ্গে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী এবং উপমুখ্যমন্ত্রীর ছেড়ে-আসা আসনে পরাজয় এবং কিছুদিনের মধ্যে জাঠ প্রধান কৈরানাতে বিজেপির পরাজয়ের ইঙ্গিত মিলেছিল। বিরোধীরা ঐক্যবদ্ধভাবে বিজেপির বিরুদ্ধে প্রার্থী দিলেই মোদি-অমিত শা-র ম্যাজিক অকার্যকারী হয়ে পড়ে। এবারের কর্ণাটকের উপনির্বাচনেও জয়ের পেছনে রয়েছে কংগ্রেস এবং জেডিএসের নির্বাচনী আঁতাত। এর আগে বিহারের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপির পরাজয় ঘটেছিল কংগ্রেস—জেডিইউ এবং আর-জেডির মহাজোটের কাছে।
মাত্র ৩১.৩৪ শতাংশ মানুষের সমর্থন নিয়ে মোদি ২০১৪-র লোকসভা নির্বাচনে ২৮২টি লোকসভার আসন পেয়েছিল। অবিজেপি দলগুলির ভোট বিভাজনের সুযোগ নিয়ে। যখনই বিজেপির বিরুদ্ধে থাকা ৬৯ শতাংশ ভোটারের একটা বড় অংশকে বিজেপির বিরুদ্ধে থাকা দলগুলি ঐক্যবদ্ধ করতে পেরেছে তখনই বিজেপিকে পরাজয়ের সম্মুখীন হতে হয়েছে বারবার।
২০১৪-র লোকসভা নির্বাচনে নরেন্দ্র মোদি বিকাশের যে স্বপ্ন কমবয়সি ভোটারদের সামনে রেখেছিলেন তাতে প্রায় পুরো ‘এক্স জেনারেশন’-এর সমর্থন জোগাড় করতে পেরেছিলেন। দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াইয়ের ডাকে বিজেপির বাইরে থাকা বহু মানুষও মোদির সমর্থনে এগিয়ে এসেছিলেন। ২০১৪-র লোকসভা নির্বাচনের প্রচারে মোদির উন্নয়নের বার্তায় প্রভাবিত হয়েছিলেন মহিলা, জনজাতির মানুষ এমনকী সংখ্যালঘুদের একাংশ। গত লোকসভা নির্বাচনে সংখ্যালঘু ভোটাররা বিজেপির বিরুদ্ধে কোথাও ঐক্যবদ্ধভাবে ভোটদান করেননি। উত্তরপ্রদেশের মতো রাজ্যেও সংখ্যালঘু ভোটাররা বিভক্ত হয়ে বিভিন্ন দলকে ভোট দিয়েছিলেন। এতে বিজেপির জয় সুগম হয়েছিল। উত্তরপ্রদেশে বিজেপি একাই ৭১টি আসন পেয়েছিল। উন্নয়নের স্লোগানে দেশের বিভিন্ন বর্গের মানুষ (যাদের মধ্যে অনেকেই বিজেপির মতাদর্শের সঙ্গে ভিন্ন মত প্রকাশ করেন) মোদিকে গত লোকসভা নির্বাচনে সমর্থন জানিয়েছিলেন।
উন্নয়নের স্লোগানকে মুখ্য রেখে বিজেপি যতবার সাম্প্রতিককালে ভোটে গিয়েছে ততবারই আসন বাড়াতে পেরেছে। অন্যদিকে, হিন্দুত্বের প্রচারকে প্রাধান্য দিয়ে ভোটে লড়াই করে বারবার আসন সংখ্যা কমিয়েছে। এই পর্যবেক্ষণ অবশ্যই রামমন্দির-রথযাত্রা-উত্তর সময়ের নিরিখে করা। রামমন্দির-রথযাত্রা-উত্তর পর্যায়ে অটলবিহারী বাজপেয়ির নেতৃত্বে জোট গড়ে কংগ্রেসকে হারানোর ডাকে ১৯৯৬ সালের নির্বাচনে বিজেপি—১৬১টি লোকসভার আসন পেয়েছিল। ১৩ দিনের সরকার অভিজ্ঞতার নিরিখে সংসদীয় রাজনীতি ও জোটবদ্ধভাবে লড়াইয়ের ডাক দিয়ে ১৯৯৮-র লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি পেয়েছিল ১৮২টি আসন। ১৯৯৮-এর পর ১৩ মাসের সরকার পড়ে গেলে ১৯৯৯-এর লোকসভা নির্বাচনে বাজপেয়ি রামমন্দির ইস্যুকে বাদ দিয়েই ভোটে লড়েছিলেন এবং ১৮২টি আসন পেয়ে ৫ বছরের জন্য জোট সরকার কেন্দ্রে চালান। আবার গুজরাত দাঙ্গার পর নরেন্দ্র মোদি দলের ভেতর হিন্দুত্বের পোস্টার বয় হয়ে উঠলে আরএসএস-সমেত হিন্দুত্ববাদী সংগঠনগুলির চিন্তাভাবনা লোকসভা নির্বাচনে শাইনিং ইন্ডিয়ার ভাবনাকে ঢেকে দিয়েছিল। ফলস্বরূপ অটলবিহারী বাজপেয়ির সরকার পরিচালনার সাফল্য থাকা সত্ত্বেও সংখ্যালঘু ভোটের ঐক্য এবং বিরোধী ভোটের ঐক্যের প্রভাবে বিজেপির ২০০৪-এর লোকসভা নির্বাচনে ১৮২ থেকে আসন ১৩৮-এ নেমে আসে। পাঁচবছর পর ২০০৯-এর লোকসভা নির্বাচন বিজেপি লড়েছিল লালকৃষ্ণ আদবানির নেতৃত্বে। আদবানি ৯০-এর দশকে রামমন্দির রথযাত্রা ধাঁচে নির্বাচনের প্রাক্কালে জনসংযোগ যাত্রা করেছিলেন রামের ভাবনাকে উস্কে ভোটে জয়ের প্রত্যাশায়। কিন্তু, ওই নির্বাচনের ফলাফল থেকে দেখা যায় ভোটাররা আর রামমন্দিরের স্লোগানে নতুন করে সাড়া দিতে রাজি ছিলেন না। ২০০৯-এ বিজেপির আসন সংখ্যা আরও কমে ১১৬-তে দাঁড়ায়। পরবর্তী ২০১৪-র নির্বাচনে মোদি ম্যাজিকের মূল মন্ত্রই ছিল বিকাশ, দুর্নীতিমুক্ত আধুনিক ভারতের স্বপ্ন। আর তাতেই বিজেপি বাজিমাত করে ১৯৮৪ সালের পর একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে সরকার গঠন করে। ১৯৮৪-এর নির্বাচনে শেষবার রাজীব গান্ধীর নেতৃত্বে কংগ্রেস সরকার লোকসভায় একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা পেয়েছিল। সুতরাং রামমন্দির রথযাত্রা-উত্তর বিজেপির নির্বাচনী সাফল্যের যে প্রবণতা ধরা পড়ে তাতে দেখা যাচ্ছে উন্নয়নের প্রশ্ন সামনে রেখে বিজেপি অধিক সাফল্য পেয়েছে। আবার নির্বাচনী প্রচারে হিন্দুত্ব বিষয়কে যখনই বিজেপি প্রাধান্য দিয়েছে তখনই নির্বাচনে ভরাডুবি হয়েছে।
এই প্রবণতার পেছনে মূল কারণ হল, উন্নয়নের প্রশ্নে বিজেপি সমাজের নানা বর্গের মানুষের সমর্থন লাভ করতে সক্ষম হচ্ছে। এর ফলশ্রুতি হিসেবে দলের আসন বাড়ছে। আবার দল যখনই কঠোর হিন্দুত্বের ভাবনাকে নির্বাচনী প্রচারের কেন্দ্রে আনছে তখনই বিজেপির বিরুদ্ধে সংখ্যালঘুরা ঐক্যবদ্ধভাবে বিজেপি-বিরোধী কোনও দলকে ভোট দিচ্ছে। একইসঙ্গে উগ্র হিন্দুত্বকে ঠেকানোর জন্য অবিজেপি দলগুলি ঐক্যবদ্ধভাবে বিজেপির বিরুদ্ধে লড়াই করছে। যেমন ২০০৪ সালে কংগ্রেসকে সামনে রেখে বেশিরভাগ বিরোধী দল ঐক্যবদ্ধ হয়েছিল। এবারও কিন্তু রামমন্দিরকে সামনে রেখে উগ্র হিন্দুত্বের লাইনে বিজেপি ২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচনের বৈতরণি পেরতে চাইছে। ফলস্বরূপ কৈরানা থেকে বেলারি পর্যন্ত নির্বাচনের ফলাফলে সংখ্যালঘুদের পাশাপাশি বিরোধী ভোটারদের বিজেপির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ ভোটদানের প্রবণতা লক্ষ করা যাচ্ছে। আর এই প্রবণতাই বিজেপির পক্ষে বিপজ্জনক।
বিজেপি নেতৃত্বকে ‘বিকাশ-মোদি’ বনাম ‘রামভক্ত মোদি’র মধ্যে কোনটা অধিক ফলদায়ক তা বাস্তবের মাটিতে দাঁড়িয়ে আরও একবার পর্যালোচনা করার প্রয়োজনীয়তা রয়েছে। রামমন্দির আন্দোলনোত্তর পর্যায়ে ভারতবাসী কিন্তু বিজেপিকে কংগ্রেসের বিকল্প সর্বভারতীয় সংসদীয় দল হিসেবেই দেখতে চাইছে। নির্বাচনী বৈতরণি পেরনোর জন্য বারবার উগ্র হিন্দুত্বের ভাবমূর্তি বিজেপির পক্ষে যে লাভজনক হচ্ছে না তা অন্তত বিগত কুড়ি বছরের দেশের নির্বাচনী প্রবণতা থেকে স্পষ্ট। নরেন্দ্র মোদি উন্নয়নের যে স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন তা পূরণ করতে পারেননি। তাতে ভোটারদের যে আশাভঙ্গ হয়েছে তাকে অন্য পথে পরিচালিত করবার জন্য বিজেপি ফৈজাবাদকে বদলে অযোধ্যা বা রামের বাবা দশরথের নামে মেডিক্যাল কলেজ বা রামমন্দির তথা হিন্দুত্ব নিয়ে যতই তৎপর হবে ততই কিন্তু সংখ্যালঘু ভোটাররা এবং বিরোধীরা বিজেপির বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ লড়াইয়ের ডাক দেবে। তাই আরও বড় বিপর্যয় ঠেকাতে উন্নয়নের ইস্যুকেই বিজেপির নির্বাচনের হাতিয়ার করা উচিত। এতে সমাজের নানা বর্গের সমর্থনের রাস্তা খোলা থাকতে পারে। অন্যথায় উগ্র হিন্দুত্বের ইস্যুকে সামনে আনলে ঐক্যবদ্ধ বিরোধিতার সম্মুখীন হয়ে আসনসংখ্যা কমে যাওয়ার আশঙ্কাই থাকছে।
 লেখক রবীন্দ্রভারতী বিশ্ববিদ্যালয়ে রাষ্ট্রবিজ্ঞানের অধ্যাপক
08th  November, 2018
জঙ্গি হানার পর
সমৃদ্ধ দত্ত

 সেনাপ্রধান স্যাম মানেকশকে ডেকে ইন্দিরা গান্ধী বললেন, জেনারেল, আমার মনে হয় ইস্ট পাকিস্তানি (পরবর্তী বাংলাদেশ) বেঙ্গলিদের রক্ষা করতে আমাদের মিলিটারি অ্যাকশনে যেতে হবে। ইস্ট পাকিস্তান থেকে স্বৈরাচারী আর্মি রুলকে সরাতে হবে। সেটা ইন্ডিয়ার সুরক্ষার জন্যও খুব দরকার।
বিশদ

শিশুদের বাজেট
শুভময় মৈত্র

 একশো ত্রিশ কোটির দেশে আশি কোটি প্রাপ্তবয়স্ক ভোটার, বাকি পঞ্চাশ কোটি বয়সে ছোট। যার ভোট নেই তার জন্যে লোকসভা নির্বাচনের মাস তিনেক আগে ভাবার সময় থাকে না শাসকদলের। সেই জন্যেই বাজেট বক্তৃতায় শিশুদের কথা খুঁজতে গেলে দূরবিন প্রয়োজন। তবে চশমা ছাড়াই দেখতে পাওয়া যাচ্ছে এবারের বাজেটের বিশালাকার অক্ষরের ভীষণ চমক ‘ভিশন ২০৩০’। আজ থেকে এগারো বছর পর দেশ ঠিক কোথায় পৌঁছবে তার চালচিত্র। কোথাও কিন্তু আজকের শিশুদের কথা নেই।
বিশদ

আর একটি ৮ ফাগুনের প্রতীক্ষায়...
অতনু বিশ্বাস

ওদিকে বাংলাভাষার তৃতীয় ভুবনে অসমের বারাক উপত্যকায় বাংলাভাষার অধিকার রক্ষার সত্যাগ্রহীদের উপরে পুলিসের নির্বিচার গুলিতে ১৯৬১-র ১৯ মে, রবীন্দ্র শতবর্ষের কবিপক্ষের মাঝেই, জন্ম হল একাদশ শহিদের।
বিশদ

21st  February, 2019
যুগজাগরণে যুগাচার্য স্বামী প্রণবানন্দজি মহারাজ
স্বামী নীলেশ্বরানন্দ

যুগজাগরণ এক যুগাচার্যের সাধনসিদ্ধির প্রাক্কালীন শ্রীমুখ নিঃসৃত যুগমহাবাণী। এ জাগরণ মানব জীবনের উন্নয়ন উদ্বোধনের আকাশবার্তা। ১৯১৬ সনের পুণ্যময়ী মাঘী পূর্ণিমার শুভ লগ্নে এক সাধক সাধন সমাহিত অবস্থা থেকে উত্থিত হয়েই জগৎবাসীর কল্যাণে উৎসর্গ করলেন এক মহাআশ্বাস বাণী—এ যুগ মহাজাগরণের তথা মহাসমন্বয়ের।
বিশদ

19th  February, 2019
ইসলামাবাদের ইসলামি ঐক্যের ফাঁদে কাশ্মীর
হারাধন চৌধুরী

ঘটনাটিকে বাসি বলার সময় এখনও হয়নি। বলিউডের নামজাদা অভিনেতা নাসিরউদ্দিন শাহের এক সংকীর্ণ মন্তব‌্যে উৎসাহিত হয়ে পাকিস্তানের নতুন প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান দাবি করে বসলেন, ‘‘সংখ‌্যালঘুদের সঙ্গে কেমন আচরণ করতে হয় তা মোদি সরকারকে দেখিয়ে দেবে পাকিস্তান।’’
বিশদ

19th  February, 2019
বধ্যভূমি কাশ্মীর: আমরা কি
কেবল মার খেতেই থাকব!

শুভা দত্ত

 গত বৃহস্পতিবার আবার জঙ্গি তাণ্ডবে কেঁপে উঠল ভূস্বর্গ, দেশপ্রেমিক জওয়ানদের রক্তে ভিজে গেল কাশ্মীর উপত্যকার মাটি। পুলওয়ামার অবন্তীপোরায় জয়েশ জঙ্গিদের আত্মঘাতী হামলায় সিআরপিএফের ৪৪ জন জওয়ান শহিদ হলেন।
বিশদ

17th  February, 2019
মার্কিন মুলুকে (-) ৬০,
সন্ধিক্ষণ কিন্তু পরিবর্তনেরই
শান্তনু দত্তগুপ্ত

পোলার ভর্টেক্সের প্রভাব কি ভারতেও পড়েছে? এবার উত্তর ভারতের দীর্ঘস্থায়ী ঠান্ডার জন্য আবহাওয়াবিদরা কিছুটা হলেও পোলার ভর্টেক্সকে দায়ী করছেন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, পোলার ভর্টেক্স দুর্বল হয়ে ঠান্ডাটাকে আমেরিকা ও ইউরোপের উত্তরভাগে প্রবেশ করিয়ে দিয়েছে। আর তার ধাক্কায় দক্ষিণের দিকে চলে এসেছে পশ্চিমী ঝঞ্ঝা। এমনিতে বছরে চার থেকে ছ’টি পশ্চিমী ঝঞ্ঝা ভারতীয় উপমহাদেশে এসে ধাক্কা খায়। চলতি বছর সেই সংখ্যাটা সাত। যার জন্য শীতের প্রকোপ বেড়েছে ভারতে। মূলত হিমালয় এবং তার সংলগ্ন রাজ্যগুলিতে।
বিশদ

16th  February, 2019
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কেন এগিয়ে?
সমৃদ্ধ দত্ত

গত পাঁচ বছরে সিপিএম একবারও কি রেলমন্ত্রীর ইস্তফা দাবি করে রাস্তায় নেমেছে? পশ্চিমবঙ্গ কেন বঞ্চিত হচ্ছে, এই প্রশ্ন তুলে কখনও সিপিএমকে প্রেস কনফারেন্স করতে দেখেছে কেউ? কেন কিছু করেনি সিপিএম? কারণ এখন আর রেলমন্ত্রীর নাম মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় নয়। বিশদ

15th  February, 2019
রাফাল না সিবিআই, মোদি-বিরোধিতায় সবচেয়ে শক্তিশালী ইস্যু কোনটি?
বিশ্বনাথ চক্রবর্তী

 রাফাল ইস্যুকে সামনে রেখে পাঁচ রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনের প্রচারে নরেন্দ্র মোদির ভাবমূর্তির ওপর প্রশ্ন তুলে দিয়েছিলেন রাহুল গান্ধী। ধারাবাহিকভাবে রাফাল ইস্যু প্রচারের কেন্দ্রে রাখতে পেরেছিলেন রাহুল। হিন্দি বলয়ে তিন রাজ্য—মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান ও ছত্তিশগড়-এ বিজেপি’র পরাজয়ের পিছনে অন্য সমস্ত কারণের মধ্যে রাহুল গান্ধীর তোলা রাফাল যুদ্ধ বিমান দুর্নীতির প্রচার বিজেপি’র বিরুদ্ধে গিয়েছিল বলে অনেকে মনে করেন।
বিশদ

14th  February, 2019
স্মার্ট সিটি এবং সুশাসন
রঞ্জন সেন

স্মার্ট হওয়া ভালো, কিন্তু আরও ভালো হল সুশাসিত হওয়া। আর এটা হয় না বলেই রাতারাতি স্মার্ট বলে দেগে দেশের স্মার্ট সিটিগুলিতে হঠাৎ প্রয়োজনে জরুরি পরিষেবা পাওয়া কঠিন হয়ে পড়ে। অন্যদিকে তার প্রশস্ত রাজপথে চরে বেড়ায় গোরু। তার পরিণতিতে মানুষের প্রাণও যায়।
বিশদ

12th  February, 2019
ভোটের কৈফিয়ত
পি চিদম্বরম

একটা আত্মবিশ্বাসী সরকার স্বাভাবিক অন্তর্বর্তী বাজেট পেশ করত আর এটাই করা উচিত, কিন্তু আত্মবিশ্বাসের মতো জিনিসটার ঘাটতি রয়েছে বিজেপি নেতৃত্বাধীন এনডিএ সরকারের মধ্যে। শুধু বিজেপি এমপিদের বিষণ্ণ মুখগুলোর দিকে তাকান বিশেষত যাঁরা রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, ছত্তিশগড় ও উত্তরপ্রদেশ থেকে এসেছেন এবং আপনি আমার সঙ্গে একমত হবেন।
বিশদ

11th  February, 2019
ফাঁকা অভিযোগ করে বা সিবিআই জুজু দেখিয়ে কি মমতার গতিরোধ করা যাবে?
শুভা দত্ত

২০১৯ যুদ্ধের দামামা বেশ ভালোমতোই বেজে উঠেছে। বোঝাই যাচ্ছে লোকসভা ভোট আর দূরে নেই। মাঝে বড়জোর মাস দুই-আড়াই। তারপরই এসে পড়বে সেই বহু প্রতীক্ষিত মহাসংগ্রামের দিন। দেশের শাসনক্ষমতার মসনদ দখলের যুদ্ধে মুখোমুখি হবে শাসক এবং বিরোধী শিবিরের রথী-মহারথীবৃন্দ।
বিশদ

10th  February, 2019
একনজরে
 নিজস্ব প্রতিনিধি, হাওড়া: কাশ্মীরে জঙ্গিহানায় শহিদ সিআরপিএফ জওয়ান বাবলু সাঁতরার বাড়িতে গিয়ে রাজ্য সরকারের দেওয়া ৫ লক্ষ টাকার চেক তুলে দিলেন সমবায়মন্ত্রী অরূপ রায়। বৃহস্পতিবার বিকেলে বাউড়িয়ার চককাশি গ্রামে গিয়ে অরূপবাবু শহিদের মা বনলতা সাঁতরা ও স্ত্রী মিতাদেবীর হাতে চেক ...

 ন্যাশনাল স্টক এক্সচেঞ্জে যেসব সংস্থার শেয়ার গতকাল লেনদেন হয়েছে শুধু সেগুলির বাজার বন্ধকালীন দরই নীচে দেওয়া হল। ...

ব্রিজটাউন, ২১ ফেব্রুয়ারি: জ্যাসন রয় ও জো রুটের সেঞ্চুরির সুবাদে রেকর্ড রান তাড়া করে প্রথম একদিনের ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ৬ উইকেটে হারাল ইংল্যান্ড। সেই সঙ্গে ...

 বার্লিন, ২১ ফেব্রুয়ারি (এপি): জার্মানির মিউনিখে গুলিতে প্রাণ গেল দু’জনের। পুলিস বৃহস্পতিবার জানিয়েছে, এখন ‘পরিস্থিতি সম্পূর্ণ নিয়ন্ত্রণে’। মিউনিখের সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, শহরের এক বহুতলে গুলি চালানোর ঘটনা ঘটে। ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

হঠাৎ জেদ বা রাগের বশে কোনও সিদ্ধান্ত না নেওয়াই শ্রেয়। প্রেম-প্রীতির যোগ বর্তমান। প্রীতির বন্ধন ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

১৭৩২: মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম রাষ্ট্রপতি জর্জ ওয়াশিংটনের জন্ম
১৯০৬: অভিনেতা পাহাড়ি সান্যালের জন্ম
১৯৪৪: মহাত্মা গান্ধীর স্ত্রী কস্তুরবা গান্ধীর মৃত্যু
১৯৫৮: স্বাধীনতা সংগ্রামী আবুল কালাম আজাদের মৃত্যু
২০১৫: বাংলাদেশে নৌকাডুবি, মৃত ৭০

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৭০.২৯ টাকা ৭১.৯৯ টাকা
পাউন্ড ৯১.২০ টাকা ৯৪.৪৯ টাকা
ইউরো ৭৯.২৫ টাকা ৮২.২৫ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩৪,০৪৫ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩২,৩০০ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩২,৭৮৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৪০,৪৫০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৪০,৫৫০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]

দিন পঞ্জিকা

৯ ফাল্গুন ১৪২৫, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, শুক্রবার, তৃতীয়া ১১/৪৬ দিবা ১০/৫০। হস্তা ৪৫/২৪ রাত্রি ১২/১৭। সূ উ ৬/৭/৫৪, অ ৫/৩২/৪৪, অমৃতযোগ দিবা ৭/৩৮ মধ্যে পুনঃ ৮/২৪ গতে ১০/৪২ মধ্যে পুনঃ ১২/৫৮ গতে ২/২৯ মধ্যে পুনঃ ৪/১ গতে অস্তাবধি। রাত্রি ৭/১৩ গতে ৮/৫৪ মধ্যে পুনঃ ৩/৩৬ গতে ৪/২৬ মধ্যে, বারবেলা ৮/৫৯ গতে ১১/৫০ মধ্যে, কালরাত্রি ৮/৪১ গতে ১০/১৫ মধ্যে।
৯ ফাল্গুন ১৪২৫, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, শুক্রবার, তৃতীয়া ৩/১১/২৬। উত্তরফাল্গুনী নক্ষত্র প্রাতঃ ৬/১৯/১৫ পরে হস্তা নক্ষত্র রাত্রিশেষ ৫/৭/০, সূ উ ৬/৯/২৪, অ ৫/৩০/৪৯, অমৃতযোগ দিবা ৭/৪০/১৫ মধ্যে ও ৮/২৫/৪১ থেকে ১০/৪১/৫৮ মধ্যে ও ১২/৫৮/১৫ থেকে ২/২৯/৬ মধ্যে ও ৩/৫৯/৫৮ থেকে ৫/৩০/৪৯ মধ্যে এবং রাত্রি ৭/১১/৩৮ থেকে ৮/৪২/৫৬ মধ্যে ও ৩/৩৭/২১ থেকে ৪/২৭/৫৫ মধ্যে, বারবেলা ৮/৫৯/৪৫ থেকে ১০/২৪/৫৬ মধ্যে, কালবেলা ১০/২৪/৫৬ থেকে ১১/৫০/৭ মধ্যে, কালরাত্রি ৮/৪০/২৮ থেকে ১০/১৫/৩ মধ্যে।
১৬ জমাদিয়স সানি

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
গঙ্গায় ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা দম্পতির, মৃত প্রৌঢ় 
মাঝ গঙ্গায় ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করল এক প্রৌঢ় দম্পতি। ...বিশদ

01:20:18 PM

উত্তরপ্রদেশের সাহারনপুর থেকে ২ সন্দেহভাজন জইশ জঙ্গি ধৃত 

01:17:02 PM

আইসিআইসিআই ব্যাঙ্কের প্রাক্তন সিইও চন্দা কোচারের বিরুদ্ধে লুকআউট নোটিস জারি করল সিবিআই

12:51:01 PM

চন্দ্রকোণায় ৬০ নম্বর জাতীয় সড়কে আলু ফেলে অবরোধে কৃষক সভা 

12:40:32 PM

সিওল শান্তি পুরস্কারে ভূষিত প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি 

11:56:15 AM

আজ মুক্তি 
নগরকীর্তন: কৌশিক গঙ্গোপাধ্যায় পরিচালিত ছবিটি মুক্তি পাচ্ছে আইনক্স, আরডিবি, ...বিশদ

11:09:40 AM