Bartaman Patrika
রাজ্য
 

 মৃত্যুহীন জীবন...

একজন জন্মসন্ন্যাসী, ঠাকুর যাঁকে এই বলে বিশ্বাস করতেন, যে এই মহাপ্রাণটি জগতের হিতের জন্যে অবতীর্ণ হয়েছেন অনন্তের পরিমণ্ডল থেকে। ঠাকুর এও জানতেন তাঁর এই ধ্রুব শিষ্যটির শরীর বেশি দিন থাকবে না। স্বামীজিও সেকথা জানতেন কিন্তু তিনি সাধারণ পরিবেশে, সাধারণের মতো সাধারণ। তখন তাঁর কোনও অহঙ্কারই থাকত না। সাধারণের সঙ্গে সাধারণের মতোই নিজের বৃহৎ সত্তাকে গুটিয়ে আনতেন।

অপূর্ব চট্টোপাধ্যায়: সদ্য স্বামীহারা মিসেস সেভিয়ারকে সান্ত্বনা দিয়ে স্বামীজি ফিরে এলেন বেলুড় মঠে। সেইসময় তাঁর শরীর একদম ভালো ছিল না। তিনি তখন মুক্তির আকাশে মুক্ত বিহঙ্গের মতো ওড়ার জন্য ছটফট করছেন। একদিন তিনি তাঁর গুরুভ্রাতাদের বললেন, দেখ আমি তো মায়ের জন্য কখনও কিছু করলুম না; আমার শরীরের যেরকম অবস্থা তাতে দু-এক বছরের বেশি বাঁচব বলে মনে হয় না। তাই আমার ইচ্ছা মাকে কিছু তীর্থ করাই। তাহলে তবু তাঁর কিছু করা হবে। তা তোমরা যদি আমায় এ বিষয়ে সাহায্য কর তো ভালো হয়; আমার নিজের শরীরের তো এই অবস্থা।
এরপরই মা-দিদিমা ও দু-একজন গুরুভ্রাতাকে সঙ্গে নিয়ে স্বামীজি তীর্থভ্রমণে বেরলেন। তাঁরা যাবেন পূর্ববঙ্গ ও আসামের দিকে। শিলং-এ পৌঁছে স্বামীজি আবার অসুস্থ হয়ে পড়লেন। শুরু হল প্রবল শ্বাসকষ্ট। এক ফোঁটা বাতাসের জন্য তিনি তখন ছটফট করছেন। গুরুভ্রাতারা স্বামীজির অবস্থা দেখে অত্যন্ত বিচলিত হয়ে পড়লেন। ভয়ানক শ্বাসকষ্ট উপেক্ষা করেই স্বামীজি তাঁদের বলেছিলেন, ‘যাক, মৃত্যুই যদি হয়, তাতেই বা কি আসে যায়? যা দিয়ে গেলুম, দেড়হাজার বছরের খোরাক।’
এই তীর্থভ্রমণে বেরিয়ে বেশ কয়েকটি মজার ঘটনা ঘটেছিল। একদিন ভুবনেশ্বরী দেবী তাঁর জগৎবিখ্যাত পুত্র স্বামী বিবেকানন্দকে বলেছিলেন, ‘দেখ এসব তো অনেক হলো, বেশ ভাল, এইবার একটা বিয়ে কর।’ উত্তরে স্বামীজি বলেছিলেন, ‘দেখো মা, বিয়ে করবার কি দরকার? এই দেখনা আমার সব কত বড় বড় ছেলে (শিষ্যদের দেখিয়ে) রয়েছে।’ কিন্তু এই বিয়ের প্রসঙ্গ দিদিমা তুললেই, স্বামীজি মজা করে হাসতে হাসতে বলতেন, ‘দেখ দিদিমা, এখনও আমার হাতে কিছু টাকা আছে; তুমি এই বেলা মর, আমি তোমার বেশ ঘটা করে শ্রাদ্ধ করি।’
একজন জন্মসন্ন্যাসী, ঠাকুর যাঁকে এই বলে বিশ্বাস করতেন, যে এই মহাপ্রাণটি জগতের হিতের জন্যে অবতীর্ণ হয়েছেন অনন্তের পরিমণ্ডল থেকে। ঠাকুর এও জানতেন তাঁর এই ধ্রুব শিষ্যটির শরীর বেশি দিন থাকবে না। স্বামীজিও সেকথা জানতেন কিন্তু তিনি সাধারণ পরিবেশে, সাধারণের মতো সাধারণ। তখন তাঁর কোনও অহঙ্কারই থাকত না। সাধারণের সঙ্গে সাধারণের মতোই নিজের বৃহৎ সত্তাকে গুটিয়ে আনতেন। রঙ্গ রসিকতা ,মেয়েলি কথাবার্তাতেও তাঁর আপত্তি ছিল না। এখানে তিনি পবিত্র এক অস্তিত্বকে বহন করে নিয়ে চলেছেন— তাঁর গর্ভধারিণীকে। এই পরিক্রমা বৃত্তাকারে ফিরে আসবে উৎসে। আর সেইখান থেকেই ঘটবে তাঁর আবার ফিরে যাওয়া অনন্তে।
তিনি যে চলে যাবেন এই তথ্যটি তিনি নিজের মধ্যে সঙ্গোপনে রেখে দিয়েছিলেন। কেউ যেন বুঝতে না পারে অগ্নিনির্বাপিত হতে চলেছে। ঘটনাটি এত আকস্মিক যে তাঁর ঘনিষ্ঠ গুরুভ্রাতারাও বুঝতে পারেননি। সেইদিন তিনি দেখিয়ে গেলেন তাঁর লীলা। সম্পূর্ণ সুস্থ সেদিন। একমাইলেরও অধিক পথ হেঁটে এলেন। তারপর নিঃশব্দে নিজের শক্তি দিয়ে যেন জ্বালালেন আর একটি বৃহৎ হোমকুণ্ড, আহুতি দিলেন নিজেকে।
ঠাকুর বলতেন, যাবার আগে হাটে হাঁড়ি ভেঙে দিয়ে যাব। অর্থাৎ আমি কে, সাধারণ ও অসাধারণ মানুষ উভয়েই বুঝতে পারবে। তাঁরই প্রধান শিষ্য স্বামী বিবেকানন্দ সিমুলিয়ার ‘বিলেটি’কে তা অগ্নিআখরে আকাশের গায়ে লিখে রেখে যাবেন। সেই কারণেই প্রথম দিনেই শেষ দিনের কথা বলার চেষ্টা। রবীন্দ্রনাথ বড় সুন্দর একটা লাইন রেখে গেছেন— ‘যা পেয়েছি প্রথম দিনে তাই যেন পাই শেষে।’ স্বামীজির শেষ কোথায়! তিনি তো অনন্ত, তিনি তো ব্রহ্মস্বরূপ। তিনি বলতেন অহং ব্রহ্মাষ্মি। হাজার বার বললেও, ব্রহ্মস্বরূপ হওয়া যায় না।
স্বামীজি আবার বলতেন ব্রহ্মের আবার অসুখ কী? শ্বাসকষ্ট, মধুমেহ— এসবই তো শরীরের। ঠাকুর যাকে বলতেন খাঁচা। ঠাকুরও তো বলতেন, রোগ জানুক আর দেহ জানুক। আমেরিকা ভ্রমণের শেষের দিকে স্বামীজি অত্যন্ত অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন কিন্তু পাত্তা দেননি। পূর্ববঙ্গ ভ্রমণের সময় শরীর সহযোগিতা করেনি। তিনি সেসব গ্রাহ্যের মধ্যেই আনেননি। পরিব্রাজক অবস্থায় হৃষীকেশে গুরুভাইরা মনে করেছিলেন তিনি দেহ ছেড়ে দিয়েছেন। বরাহনগর মঠে একবার ভীষণ অসুস্থ হয়ে পড়েছিলেন। স্বামীজির অসুখ করে না, কারণ তিনি মুহূর্তে নিজেকে দেহাতীত অবস্থায় নিয়ে যেতে পারেন। তাঁর শেষের দিনটি স্পষ্ট করে দিয়ে গেছে — দেহ নয় তিনি ছিলেন একটি অগ্নিশিখা। পাশ্চাত্যের পাদরিরাও বারে বারে সে প্রমাণ পেয়েছিলেন।
ফিরে আসি শেষ দিনটির কথায়। সেদিন তিনি ভীষণ সুস্থ। ঠাকুরও চলে যাবার কয়েক ঘণ্টা আগে তাঁর সেবকদের বড় আনন্দ দিয়েছিলেন। সুস্থ মানুষের মতো গলা অন্ন সহজে গ্রহণ করে (স্বামীজিই খাইয়ে দিয়েছিলেন) বড় আরামে বালিশে মাথা রেখে শুয়েছিলেন। আনন্দের হিল্লোল বয়ে গিয়েছিল।
শেষদিনে স্বামীজি কী করলেন! যেটিকে বলা যেতে পারে একটু অন্যরকম। রুদ্ধদ্বার ঠাকুরঘরে দীর্ঘক্ষণ ধ্যানে বসে রইলেন। তারপর বারান্দায় পায়চারি করতে করতে একটি গান বারে বারে গাইলেন। বিকেলে ভ্রমণ শেষে তিনি তাঁর নিজের ঘরে মেঝেতে শুয়ে পড়লেন, সেবককে বললেন বাইরে থাক। সেবক বাইরে থেকে একসময় একটি আর্ত কন্ঠস্বর শুনলেন। এসে দেখলেন স্বামীজি চিরনিদ্রায় নিদ্রিত। এখানেই শেষ নয়, তিনি তাঁর দেহের বাইরে বিচরণ করছিলেন। তা নাহলে তিনি নিবেদিতার প্রার্থনা কেমন করে শুনতে পেলেন। সিস্টার একটি স্মারক নিজের কাছে রাখতে চাইছিলেন। অগ্নি সমন্বিত একটি বস্ত্রখণ্ড পূতচিতাগ্নি থেকে উড়ে এসে তাঁর শরীর স্পর্শ করল। বিদেশিনী স্তম্ভিত। কে কী বুঝলেন জানা নেই, তাঁর এই মানস কন্যা হয়তো রবীন্দ্রনাথের এই লাইনটির অর্থ আর একবার বুঝলেন— এনেছিলে সাথে করে মৃত্যুহীন প্রাণ...।
12th  January, 2019
রং বদলাবে ভাগ্যের চাকা

আজ হোলি, রঙের উৎসব। চারিদিকে লাল-নীল-সবুজ রঙের বাহার। উৎসবের এই দিনটির জন্য মুখিয়ে থাকেন আপামর দেশবাসী। ইতিমধ্যেই জোরকদমে হোলির প্রস্তুতি শুরু হয়ে গিয়েছে। কিন্তু রাশি অনুযায়ী কোন রং আপনার জন্য পারফেক্ট। কোন রং আপনাকে এনে দিতে পারে সৌভাগ্যের চাবিকাঠি তা জেনে নিয়ে হাতে তুলে নিন রংয়ের প্যাকেট। বিশদ

পিএফ গ্রাহকদের হাউজিং
স্কিমে সাড়া পড়ল না রাজ্যে

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: যাঁদের আর্থিক অবস্থা ততটা ভালো নয়, তাঁদের অকেকেই গৃহ ঋণ দিতে চায় না বহু ঋণদাতা সংস্থাই। সেই অসুবিধার কথা মাথায় রেখেই পিএফ দপ্তর হাউজিং স্কিম চালু করে কয়েক বছর আগে। বলা হয়, তিন বছর ধরে যদি কেউ পিএফ গ্রাহক থাকেন, তাহলে তিনি ওই স্কিমে সুবিধা পাওয়ার যোগ্য। কিন্তু বাস্তবে দেখা যাচ্ছে, সেই স্কিমে তেমন সাড়া পাওয়া যাচ্ছে না। এ রাজ্যে স্কিমটিতে সাড়া দেননি কেউই, এমনটাই খরব। বিষয়টি নিয়ে চিন্তিত কেন্দ্রীয় শ্রম মন্ত্রকও। বিশদ

ক্রেতা টানল জ্যাকশন টুপি, রাক্ষুসে মুখোশও
সবুজ-গেরুয়া-লাল সমান
জনপ্রিয় দোলের বাজারে

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: ভোটের বাজারে যাই হোক না কেন, দোলের বাজারে কিন্তু লাল-সবুজ-গেরুয়া— কম যায় না কেউই। বুধবার দোলের আগের দিন বড়বাজারের রঙের সার দেওয়া দোকানগুলি অন্তত সে কথাই বলেছে। এদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত দেদার বিকিয়েছে সবুজ-লাল-গেরুয়া আবির।
বিশদ

21st  March, 2019
বাংলায় ভোট যুদ্ধে নামার আগেই
সংশয়-বিভ্রান্তিতে জেরবার বিজেপি

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: আসন্ন লোকসভা ভোটে প্রচারের কৌশল কী হবে জানা নেই। কোন বিরোধী দলের নেতা-নেত্রীর বিরুদ্ধে আক্রমণের ঝাঁঝ কতটা চড়ানো হবে, তা নিয়ে বিভ্রান্তি। কারণ, যে কোনও দিন সংশ্লিষ্ট সেই নেতা-নেত্রী শিবির বদল করতে পারেন।
বিশদ

21st  March, 2019
অনুব্রতকে শো-কজ
নির্বাচন কমিশনের

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বিতর্কিত মন্তব্যের জেরে শো-কজ করা হল বীরভূম তৃণমূল কংগ্রেসের জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলকে। নির্বাচন কমিশনের নির্দেশে বুধবার বীরভূমের জেলাশাসক মৌমিতা গোদারাবসু তাঁকে শো’কজের চিঠি পাঠিয়েছেন। সেই সঙ্গে তাঁকে সতর্ক করা হয়েছে বলেও জেলাশাসক জানিয়েছেন।
বিশদ

21st  March, 2019
এবার রায়গঞ্জ-মুর্শিদাবাদ থেকে দীপা-হেনাকে সরাতে চাপ, কংগ্রেসের জেতা ২ আসনে প্রার্থী বামেদের

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: তাদের জেতা দুটি আসন থেকে প্রার্থীপদ প্রত্যাহারের জন্য কংগ্রেসের উপর ধাপে ধাপে চাপ বাড়ানোর কৌশল নিয়েছে বামফ্রন্ট। এই কৌশলের পরবর্তী ধাপ হিসেবে বুধবার তারা কংগ্রেসের জেতা চারটির মধ্যে দুটি আসনে প্রার্থী দেওয়ার কথা ঘোষণা করল।
বিশদ

21st  March, 2019
অভিমত কার্ডিওলজিস্টদের
মাঠে নামার আগে খেলোয়াড়দের
ইকো-ইসিজি আবশ্যিক হোক

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বালিগঞ্জ স্পোর্টিং-এর সোনু যাদব এবং ক্যামেরুনের মার্ক ভিভিয়ান ফো—মিল কোথায়? খেলাধুলোর সঙ্গে নিত্য যোগাযোগ রাখা মানুষজন নিঃসন্দেহে একটু চিন্তার পর বলবেন—মৃত্যুতে, মর্মান্তিক মৃত্যুতে।
বিশদ

21st  March, 2019
প্রথম ও দ্বিতীয় পর্যায়ের মনোনয়ন জমার প্রক্রিয়া শুরু হয়ে গিয়েছে
এখনও চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশ না
হওয়ায় বেজায় অস্বস্তিতে বঙ্গ বিজেপি

 নিজস্ব প্রতিনিধি, নয়াদিল্লি, ২০ মার্চ: লোকসভা নির্বাচনের প্রথম, দ্বিতীয় পর্যায়ের মনোনয়ন জমার প্রক্রিয়া ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে। এখনও পর্যন্ত প্রার্থী তালিকা ঘোষণা না হওয়ায় বেজায় চাপে পড়েছে বঙ্গ বিজেপি। এই পরিপ্রেক্ষিতেই আজ এখানে দলের রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেছেন, ‘বরাবরই ওস্তাদের মার শেষ রাতেই হয়।
বিশদ

21st  March, 2019
রায়গঞ্জ-মুর্শিদাবাদ
বাম-কংগ্রেসের মধ্যে জোটের
জট ফিরে গেল পুরনো অবস্থায়

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: বামেদের ঘোষিত পাঁচ আসনে প্রার্থী না দিতে প্রস্তুত কংগ্রেস। কিন্তু গত লোকসভা ভোটে সিপিএমের জেতা দুই আসনেই প্রার্থী দেওয়ার ব্যাপারে অনড় অবস্থান নেওয়ায় এবার সংঘাতের পথে যেতে বসেছে বাম-কংগ্রেস।
বিশদ

21st  March, 2019
  ধর্মতলায় অনশনকারী শিক্ষক
চাকরিপ্রার্থীদের গণ সম্মেলন

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: স্কুল সার্ভিস কমিশনের (এসএসসি) মাধ্যমে শিক্ষকদের চাকরি পাওয়ার দাবিতে লাগাতার অনশন আন্দোলনের সমর্থনে বুধবার অরাজনৈতিক গণ সম্মেলনের ডাক দেওয়া হয়েছিল। ধর্মতলায় প্রেস ক্লাবের সামনে সেই অরাজনৈতিক সম্মেলনে যোগ দিতে স্লোগান দিতে দিতে মিছিল করে আসেন সিটু সমর্থকরা।
বিশদ

21st  March, 2019
রাজ্যে বিজেপি-তৃণমূল বিরোধী বৃহৎ ঐক্যের আশা
অঙ্কুরেই নষ্ট, লিবারেশন-পিডিএস ভোটের আসরে

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: লোকসভা ভোটকে সামনে রেখে রাজ্যে যে বৃহত্তর বাম ও গণতান্ত্রিক ঐক্যের মঞ্চ তৈরির সম্ভাবনা দেখা দিয়েছিল, তা অঙ্কুরেই বিনষ্ট হয়েছে। কেবল মাত্র কংগ্রেসের সঙ্গে সিপিএমের বোঝাপড়া ভেঙে যাওয়াই এর একমাত্র কারণ নয়।
বিশদ

21st  March, 2019
কেন্দ্রীয় বাহিনী: কমিশনের
দপ্তরে উচ্চপর্যায়ের বৈঠক

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: আগামী সপ্তাহেই প্রথম দফার ভোটের জন্য কেন্দ্রীয় বাহিনী আসতে চলেছে রাজ্যে। সাত দফার ভোটে কত সংখ্যক কেন্দ্রীয় বাহিনী আসছে, তা নিয়ে বুধবার আইজি বিএসএফের সঙ্গে আলোচনা করেন মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক আরিজ আফতাব।
বিশদ

21st  March, 2019
কাল রাজ্যে ছুটি থাকলেও
পেশ করা যাবে মনোনয়ন

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: কাল শুক্রবার দোল উৎসব উপলক্ষে রাজ্য সরকার অতিরিক্ত ছুটি দিলেও ওইদিন লোকসভা নির্বাচনের মনোনয়নপত্র পেশ করা যাবে। নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানানো হয়েছে, শুক্রবার এনআই অ্যাক্ট অনুযায়ী রাজ্যে ছুটি নয়।
বিশদ

21st  March, 2019
গান রেকর্ডিং নিয়ে
ব্যাখ্যা দিলেন বাবুল

 নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: কেন্দ্রীয়মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয় নিজের গান রেকর্ডিং নিয়ে ব্যাখ্যা দিলেন। বুধবার বিজেপির রাজ্য দপ্তরে এক সাংবাদিক সম্মেলনে তিনি বলেন, আনুষ্ঠানিকভাবে সেই গান বাজারে মুক্তি পায়নি। রেকর্ডিং করার সময় কিছু সংবাদমাধ্যম তা রেকর্ড করে।
বিশদ

21st  March, 2019

Pages: 12345

একনজরে
সম্প্রতি নেতাজী নগর ডে কলেজের শিক্ষক ও শিক্ষাবন্ধু কর্মীদের একাংশ পৌঁছে গিয়েছিলেন সুন্দরবনের গোসাবা ব্লকের সাতজেলিয়া দ্বীপের লাহিড়িপুর অঞ্চলের চরঘেরী প্রাথমিক বিদ্যালয় এবং সোনাগাঁ, গোসাবা ...




আজকের দিনটি কিংবদন্তি গৌতম
৯১৬৩৪৯২৬২৫ / ৯৮৩০৭৬৩৮৭৩

ভাগ্য+চেষ্টা= ফল
  • aries
  • taurus
  • gemini
  • cancer
  • leo
  • virgo
  • libra
  • scorpio
  • sagittorius
  • capricorn
  • aquarius
  • pisces
aries

কর্মপ্রার্থীদের বেসরকারি বা সরকারি উভয়ক্ষেত্রে যোগাযোগের সম্ভাবনা প্রবল। অংশীদারী ব্যবসায় যুক্ত হলেও শুভ। কোনও রোগের ... বিশদ


ইতিহাসে আজকের দিন

আন্তর্জাতিক জল দিবস
১৭৩৯- দিল্লি জয় করে নাদির শাহ ময়ূর সিংহাসনের মণিরত্ন লুট করে নিয়ে গেলেন
১৮৮৩ - বাঙালি সাহিত্যিক এবং গবেষক যোগেন্দ্রনাথ গুপ্তের জন্ম
১৮৯৪- বিপ্লবী মাস্টারদা সূর্য সেনের জন্ম।
১১৯৪৭ - লর্ড মাউন্ট ব্যাটেন ভাইসরয় পদে নিযুক্ত হয়ে ভারতে আসেন।
১৯৬৩- বিটলস-এর প্রথম অ্যালবাম ‘প্লিজ প্লিজ মি’ প্রকাশিত হয়
১৯৯২- আলবেনিয়ায় কমিউনিজমের পতন। পার্লামেন্ট নির্বাচনে ব্যাপক সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে জয়ী হয় ডেমোক্র্যাটিক পার্টি অব আলবেনিয়া
১৯৯৭- হেল-বপ নামে ধুমকেতু পৃথিবীর কাছাকাছি চলে আসে

ক্রয়মূল্য বিক্রয়মূল্য
ডলার ৬৮.৩৩ টাকা ৭০.০২ টাকা
পাউন্ড ৯০.০২ টাকা ৯৩.৩০ টাকা
ইউরো ৭৭.০৪ টাকা ৮০.০০ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
21st  March, 2019
পাকা সোনা (১০ গ্রাম) ৩২,৩৪০ টাকা
গহনা সোনা (১০ (গ্রাম) ৩০,৬৮৫ টাকা
হলমার্ক গহনা (২২ ক্যারেট ১০ গ্রাম) ৩১,১৪৫ টাকা
রূপার বাট (প্রতি কেজি) ৩৮,০০০ টাকা
রূপা খুচরো (প্রতি কেজি) ৩৮,১০০ টাকা
[ মূল্যযুক্ত ৩% জি. এস. টি আলাদা ]
21st  March, 2019

দিন পঞ্জিকা

আজ দোলযাত্রা উৎসব
৬ চৈত্র ১৪২৫, ২১ মার্চ ২০১৯, বৃহস্পতিবার, পূর্ণিমা ৩/৪২ দিবা ৭/১৩ পরে (ফাল্গুন কৃষ্ণপক্ষ) প্রতিপদ ৫৫/২২ রাত্রি ৩/৫৩। উত্তরফাল্গুনী ১৯/৩৪ দিবা ১/৩৪। সূ উ ৫/৪৪/১৩, অ ৫/৪৪/৩, অমৃতযোগ রাত্রি ১২/৫৫ গতে ৩/১৯ মধ্যে, বারবেলা ২/৪৪ গতে অস্তাবধি, কালরাত্রি ১১/৪৩ গতে ১/১৪ মধ্যে।
আজ দোলযাত্রা উৎসব
৬ চৈত্র ১৪২৫, ২১ মার্চ ২০১৯, বৃহস্পতিবার, পূর্ণিমা ৭/২৩/৪৩ পরে প্রতিপদ রাত্রিশেষ ৫/১৯/৫৬। উত্তরফাল্গুনীনক্ষত্র ২/১৬/০, সূ উ ৫/৪৪/৩৫, অ ৫/৪৩/১২, অমৃতযোগ রাত্রি ১২/৫৬/২ থেকে ৩/২০/১৮ মধ্যে, বারবেলা ৪/১৩/২৩ থেকে ৫/৪৩/১২ মধ্যে, কালবেলা ২/৪৩/৩৩ থেকে ৪/১৩/২৩ মধ্যে, কালরাত্রি ১১/৪৩/৫৩ থেকে ১/১৪/৪ মধ্যে।
১৩ রজব

ছবি সংবাদ

এই মুহূর্তে
ফের সংঘর্ষবিরতি লঙ্ঘন পাকিস্তানের, পুঞ্চ সীমান্তে পাক সেনার গোলাগুলি 

05:38:13 PM

দমদমে রঙ খেলে স্নান করতে নেমে জলাশয়ে তলিয়ে গেল যুবক 

05:07:00 PM

আজ বিকালে কলকাতা সহ দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলায় ঝড়-বৃষ্টির সম্ভাবনা 

04:53:34 PM

২২২ পয়েন্ট পড়ল সেনসেক্স 

04:04:52 PM

রবীন্দ্রনাথ ঘোষকে শো-কজ কমিশনের 
কেন্দ্রীয় বাহিনী নিয়ে উত্তরবঙ্গ উন্নয়নমন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষকে শো-কজ করল নির্বাচন ...বিশদ

03:07:29 PM

চাড্ডিও এবার অক্সফোর্ড অভিধানে
বেশ কিছু দেশীয় শব্দ ইতিমধ্যেই স্থান পেয়েছে অক্সফোর্ড ইংরাজি অভিধানে। ...বিশদ

02:55:02 PM