উত্তরবঙ্গ

মহানন্দার চরে ভবানীপুরের জল সমস্যা মেটাতে উদ্যোগী বিধায়ক

সংবাদদাতা, চাঁচল: মহানন্দা নদীর মাঝে চরে থাকা গ্রামে জল সঙ্কট মেটাতে উদ্যোগী চাঁচলের বিধায়ক নীহাররঞ্জন ঘোষ। মালদহের চাঁচল ১ ব্লকের খরবা গ্রাম পঞ্চায়েতের মহানন্দা নদীর চরে থাকা ভবানীপুর গ্রামে পরিস্রুত পানীয় জল সরবরাহের জন্য পিএইচই প্রকল্প হবে। ইতিমধ্যে জায়গা পরিদর্শন করে জনস্বাস্থ্য ও কারিগরি দপ্তরের মন্ত্রী পুলক রায়ের হাতে মঙ্গলবার আবেদনপত্র জমা দিয়েছেন বিধায়ক। প্রকল্পটি চালু হলে ২৫০ টি পরিবার ও একটি প্রাইমারি স্কুলের পড়ুয়ারা পরিস্রুত পানীয় জলের সুবিধা পাবে। মহানন্দা নদীর মাঝে চরে রয়েছে ভবানীপুর গ্রাম। সকালে নদী পার হয়ে এপাড়ে এসে কাজ করে বিকেলে গ্রামে ফিরে যান তাঁরা। বর্ষা হোক বা খরা- জলসঙ্কট পিছু ছাড়ে না চরের বাসিন্দাদের।
পঞ্চায়েত সূত্রে জানা গিয়েছে, ২৫০ টি পরিবারের পানীয় জলের জন্য ১ টি মাত্র সাবমার্সিবল ও দুটি গভীর নলকূপ বসানো হয়েছে। তারমধ্যে দুটি নলকূপ দীর্ঘদিন ধরে বিকল বলে অভিযোগ। উপপ্রধান মলয় বসাক বলেন, বছরের বেশিরভাগ সময় ওই এলাকায় জল সঙ্কটের মতো পরিস্থিতি তৈরি হয়। বিষয়টি বিধায়ককে জানিয়েছিলাম। তিনি আবেদনে সাড়া দিয়ে উদ্যোগী হয়ে এলাকা পরিদর্শন করেছেন। 
ভবানীপুরের ইয়াসিন আলির কথায়, আর্সেনিকযুক্ত জল পান করে অনেকেই অসুস্থ হচ্ছেন। সবথেকে বেশি চর্মরোগের মতো অসুখ হচ্ছে। সেখানকার আর এক বাসিন্দা রৌশনা বিবি বলেন, বিদ্যুৎ বিভ্রাট হলে সাবমার্সিবল থেকে জল আসে না। একই বক্তব্য হেনা বিবিরও। বলেন, বাড়িতে ৬০ ফুট লেয়ারে নলকূপ বসানো হয়েছে। সেই জল পান করার যোগ্য না। কাপড় কাচা ও অন্যান্য কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। বিধায়ক নীহাররঞ্জন বলেন, জনস্বাস্থ্য ও কারিগরি দপ্তরের মন্ত্রীর হাতে আবেদন জমা করেছি। আশা করছি, দ্রুত এলাকায় পরিস্রুত পানীয় জল সরবরাহ হবে।
10d ago
কলকাতা
রাজ্য
দেশ
বিদেশ
খেলা
বিনোদন
ব্ল্যাকবোর্ড
শরীর ও স্বাস্থ্য
বিশেষ নিবন্ধ
সিনেমা
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
আজকের দিনে
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
mesh

গুরুজনের থেকে অর্থকড়ি লাভ হতে পারে। স্বার্থান্বেষী আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে দূরত্ব রেখে চলুন। মনে চাঞ্চল্য।...

বিশদ...

এখনকার দর
ক্রয়মূল্যবিক্রয়মূল্য
ডলার৮৩.২৩ টাকা৮৪.৩২ টাকা
পাউন্ড১০৬.৮৮ টাকা১০৯.৫৬ টাকা
ইউরো৯০.০২ টাকা৯২.৪৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
*১০ লক্ষ টাকা কম লেনদেনের ক্ষেত্রে
দিন পঞ্জিকা