রাজ্য

টাওয়ার থেকে চুরি যাচ্ছে যন্ত্রাংশ, মোবাইল পরিষেবা নিয়ে ভোগান্তি

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: মোবাইল টাওয়ার থেকে ধারাবাহিকভাবে চুরি হয়ে যাচ্ছে যন্ত্রাংশ। তথ্য বলছে, গত ছ’ মাসে দেশে চুরি যাওয়া যন্ত্রাংশের সংখ্যা ১৭ হাজার। সেই তালিকায় আছে পশ্চিমবঙ্গও। এই চুরি আটকাতে কেন্দ্রীয় সরকারের দ্বারস্থ হয়েছে বেসরকারি টেলিকম সংস্থাগুলি। তাদের সংগঠন সেলুলার অপারেটর্স অ্যাসোসিয়েশন অব ইন্ডিয়া বা কোয়াই চাইছে বিষয়টির নিষ্পত্তি করতে হস্তক্ষেপ করুক কেন্দ্র। তাদের দাবি, যেভাবে মোবাইল টাওয়ার থেকে যন্ত্রাংশ চুরি যাচ্ছে, তার দায় চোকাতে হচ্ছে সাধারণ গ্রাহককে। কারণ, টাওয়ারে থাকা বেস ট্রান্সিভার স্টেশন বা বিটিএসগুলি সঠিকভাবে কাজ করছে না। তাতে সুষ্ঠুভাবে কথা বলা বা অন্যান্য পরিষেবা পেতে সমস্যা হচ্ছে গ্রাহকদের।
কোয়াইয়ের দাবি, মোবাইল টাওয়ার থেকে চুরি যাচ্ছে রেডিও রিমোট ইউনিট, যেগুলি ফোন কল এবং মেসেজের সিগন্যালিং ব্যবস্থাকে নিয়ন্ত্রণ করে। সংগঠনটির দাবি, গোটা দেশে ছ’মাসে এই চুরির কারণে ক্ষতির অঙ্ক প্রায় ৮০০ কোটি টাকা। মোবাইল টাওয়ারের যন্ত্রাংশগুলি পাচার হয়ে যাচ্ছে চীন সহ প্রতিবেশী দেশগুলিতে। কোয়াইয়ের হিসেব, ছ’মাসে এয়ারটেলের ১৪ হাজার ৯৯০টি, রিলায়েন্স জিও’র ১ হাজার ৭৪৮টি এবং ভিআইয়ের ৩৬৮টি রেডিও রিমোট ইউনিট চুরি গিয়েছে। সবচেয়ে বেশি চুরি হয়েছে যে রাজ্যগুলিতে সেই তালিকায় আছে তামিলনাড়ু, মধ্যপ্রদেশ, অসম, মণিপুর, ওড়িশা প্রভৃতি। পশ্চিমবঙ্গে সেই হার তুলনামূলক কম। ইতিমধ্যেই সংশ্লিষ্ট রাজ্য সরকারগুলিকে পদক্ষেপ করার জন্য আর্জি জানিয়েছে কোয়াই। পশ্চিমবঙ্গ সরকারকেও এই ব্যাপারে আর্জি জানাবে সংগঠনটি, এমনটাই জানা গিয়েছে।
বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বিপুল অঙ্কের মোবাইল যন্ত্রাংশ চুরি যাওয়ায় শুধু যে গ্রাহক পরিষেবা ব্যাহত হচ্ছে, তা নয়। সেই ক্ষতির ভার ঘুরপথে বহন করতে হচ্ছে গ্রাহকদের। বিষয়টি নিয়ে চিন্তিত কেন্দ্রীয় সরকারও। রাজ্য প্রশাসনগুলি যাতে এই চুরি আটকাতে উদ্যোগী হয়, তার জন্য চিঠি লিখেছে তারা।
26d ago
কলকাতা
দেশ
বিদেশ
খেলা
বিনোদন
ব্ল্যাকবোর্ড
শরীর ও স্বাস্থ্য
বিশেষ নিবন্ধ
সিনেমা
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
আজকের দিনে
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
mesh

গুরুজনের থেকে অর্থকড়ি লাভ হতে পারে। স্বার্থান্বেষী আত্মীয়-স্বজনের সঙ্গে দূরত্ব রেখে চলুন। মনে চাঞ্চল্য।...

বিশদ...

এখনকার দর
ক্রয়মূল্যবিক্রয়মূল্য
ডলার৮২.৮১ টাকা৮৪.৫৫ টাকা
পাউন্ড১০৬.৫৫ টাকা১১০.০৬ টাকা
ইউরো৮৯.৫৫ টাকা৯২.৭১ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
*১০ লক্ষ টাকা কম লেনদেনের ক্ষেত্রে
দিন পঞ্জিকা