কলকাতা

যাত্রী আর্জি শিকেয়, ১১টার পরিবর্তে শেষ মেট্রো রাত ১০.৪০

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: রাতের বিশেষ মেট্রো পরিষেবা লোকসানে চলছে মঙ্গলবারই জানিয়েছিল মেট্রো। তারপরই অভিযোগ ওঠে যাত্রীদের দীর্ঘদিনের দাবি কৌশলে উপেক্ষা করতে বিশেষ মেট্রো পরিষেবা বন্ধ করতে সক্রিয় হয়েছে রেল। বাস্তবে দেখা গেল, যাত্রীদের আশঙ্কাই সত্যি হতে চলেছে। কবি সুভাষ থেকে দমদম রুটে আগামী সোমবার থেকে বিশেষ মেট্রো রাত ১১টার বদলে ১০টা ৪০ মিনিটে চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে রেল। এছাড়াও যাত্রীদের জন্য অপেক্ষা করছে চূড়ান্ত ভোগান্তি। কারণ প্রতিদিন শেষ মেট্রো ন’টা ৪০ মিনিটে ছেড়ে যাওয়ার পর গোটা রুটের সমস্ত স্টেশনের টিকিট কাউন্টার বন্ধ করে দেওয়া হবে। যদিও বর্তমানে রাত ১১টার বিশেষ মেট্রো পরিষেবা চলাকালীন প্রতিটি স্টেশনের একটি করে টিকিট কাউন্টার খোলা থাকে। কিন্তু সোমবার থেকে একমাত্র স্মার্ট কার্ড ব্যবহারকারী যাত্রীরাই সহজে এই বিশেষ পরিষেবা পাবেন। যদিও প্রতি স্টেশনে থাকবে অটোমেটিক স্মার্ট কার্ড রিচার্জ মেশিন (এএসসিআরএম)। সেখান থেকে টোকেন সংগ্রহ করতে হবে স্মার্ট কার্ড না থাকা যাত্রীদের। 
তবে মেট্রো ভবনের এক আধিকারিকই জানান, নর্থ সাউথ করিডরের অধিকাংশ মেট্রো স্টেশনে পর্যাপ্ত এএসসিআরএম মেশিন নেই। বহু স্টেশনে মেশিন খারাপ হয়ে পড়ে রয়েছে। যাত্রীদের অধিকাংশই এই মেশিন ব্যবহার করতে পারেন না। সবথেকে সমস্যার বিষয়, পুরনো নোট এই মেশিনে কাজ করে না। এর ফলে টোকেন পেতে দুর্ভোগে পড়বেন যাত্রীরা। তিনি বলেন, ‘কলকাতা মেট্রোর ইতিহাসে পরিষেবা চলাকালীন টিকিট কাউন্টার বন্ধ রাখার ঘটনা আগে ঘটেনি। যাত্রী পরিষেবা বৃদ্ধির লক্ষ্যে দেশের রেলমন্ত্রী অশ্বিনী বৈষ্ণব সমস্ত রেল জোনগুলিকে উপযুক্ত পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছেন। সেখানে কলকাতা মেট্রো স্পেশাল নাইট সার্ভিস চলাকালীন টিকিট কাউন্টার বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যা খোদ রেলমন্ত্রীর নির্দেশকেই ছুড়ে দিয়েছে চ্যালেঞ্জ।’ 
মেট্রোর কর্মী সংগঠনের এক প্রভাবশালী নেতার বক্তব্য, কর্মী শূন্যতায় ভুগছে রেল। কলকাতা মেট্রোর অবস্থা আরও শোচনীয়। একজন স্টেশন মাস্টারকে দিয়ে একাধিক স্টেশনের কাজ করানো হচ্ছে। দিনের অধিকাংশ সময় কর্মীর অভাবে সিংহভাগ টিকিট কাউন্টার বন্ধ থাকছে। ব্যস্ত সময় যাত্রীদের লম্বা লাইন পড়ছে স্টেশনগুলিতে। পরিষেবার মান তলানিতে ঠেকলেও কিছু মেট্রো কর্তা রেলের টাকার অপব্যবহার করেন। মেট্রোর কিছু অফিসারের সঙ্গে বেসরকারি সংস্থার অশুভ আঁতাত গড়ে উঠেছে। মেট্রো স্টেশনগুলি বিভিন্ন বেসরকারি সংস্থার সামগ্রীতে ভরে উঠেছে। কাউন্টার বন্ধ রেখে সাধারণ মানুষকে স্মার্ট কার্ড কিনতে বাধ্য করছেন মেট্রো কর্তারা। এই কার্ডে রেলের কাছে গচ্ছিত (ডিপোজিট মানি) টাকার অঙ্ক কয়েক মাস আগেই বহুগুণ বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। কার্ডে থাকছে বিভিন্ন সংস্থার বিজ্ঞাপনও।
উল্লেখ্য, হাইকোর্টে দায়ের হওয়া এক জনস্বার্থ মামলার পর স্পেশাল নাইট সার্ভিস চালু করতে একপ্রকার বাধ্য হয় মেট্রো। ২৪ মে থেকে এই পরিষেবা চালু হয়েছিল। সোম থেকে শুক্র রাত ১১টায় এই বিশেষ পরিষেবা চলছে। যাত্রীদের দাবি ছিল, দিনের শেষ মেট্রো ন’টা চল্লিশে পাওয়া যায়। 
শেষ মেট্রোর সময়সীমা খানিক বাড়ানো হোক। গত কয়েক বছরে যাত্রীদের এই দাবির প্রতি কর্ণপাত করেনি মেট্রো। কিন্তু অভিযোগ, কলকাতা হাইকোর্টের চাপে লোক দেখানো নাইট সার্ভিস চালু করতে বাধ্য হয়। তবে ইচ্ছাকৃতভাবে অযৌক্তিক সময়সূচী তৈরি করে। স্বাচ্ছন্দ্যেরও দফারফা করে ছেড়েছে। পরিষেবা বন্ধ করার লক্ষ্যেই এ পদক্ষেপ নিয়েছে কলকাতা মেট্রো।
1Month ago
রাজ্য
দেশ
বিদেশ
খেলা
বিনোদন
ব্ল্যাকবোর্ড
শরীর ও স্বাস্থ্য
বিশেষ নিবন্ধ
সিনেমা
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
আজকের দিনে
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
mesh

পারিবারিক সম্পত্তি সংক্রান্ত আইনি কর্মে ব্যস্ততা। ব্যবসা সম্প্রসারণে অতিরিক্ত অর্থ বিনিয়োগের পরিকল্পনা।...

বিশদ...

এখনকার দর
ক্রয়মূল্যবিক্রয়মূল্য
ডলার৮৩.২৩ টাকা৮৪.৩২ টাকা
পাউন্ড১০৬.৮৮ টাকা১০৯.৫৬ টাকা
ইউরো৯০.০২ টাকা৯২.৪৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
*১০ লক্ষ টাকা কম লেনদেনের ক্ষেত্রে
21st     July,   2024
দিন পঞ্জিকা