কলকাতা

দাদার তথ্য নেই রেলের কাছে, শিলিগুড়ি গিয়ে দেহ শনাক্ত করলেন ভাই

নিজস্ব প্রতিনিধি, বিধাননগর: ‘ট্রেন রাইট টাইমেই আছে। রাতে বাড়ি গিয়েই খাব। আমার জন্য রান্না করে রেখো’। কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেসের কামরায় বসে মোবাইলে স্ত্রীকে বলেছিলেন ৩৬ বছরের বিশ্বপ্রতাপ মিশ্র। ‘রান্না করে রেখো’-কথাটা শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই আচমকা ফোন কেটে যায়। স্ত্রী ভেবেছিলেন, নেটওয়ার্কের সমস্যা। তিনি কল ব্যাক করেন। কিন্তু ততক্ষণে মোবাইল সুইচ অফ হয়ে গিয়েছে। পরে তিনি কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেসে দুর্ঘটনা ঘটার খবর পান। পরিবারের লোকজন দৌড়ন শিয়ালদহ স্টেশনে। কিন্তু মৃত ও জীবিত ব্যক্তিদের তালিকায় খুঁজে পাওয়া যায়নি বিশ্বপ্রতাপ মিশ্রের নাম। এমনকী তিনি জীবিত না মৃত রেল সে তথ্যটুকুও জানাতে পারেনি। শেষমেশ শিলিগুড়ি রওনা দেন বিশ্বপ্রতাপের এক ভাই। পৌঁছনোর পর পেলেন দাদার মৃতদেহের খোঁজ। দেহ শনাক্তও করলেন। বুধবার সকালে সে খবর আসার পর কান্নার রোল উঠল বিশ্বপ্রতাপের লেকটাউনের বাড়িতে। দুর্ঘটনার খবরে কার্যত শোকস্তব্ধ গোটা পাড়া।
লেকটাউন থানার দক্ষিণদাঁড়ি অরবিন্দ কলোনি এলাকায় বিশ্বপ্রতাপবাবুর বাড়ি। ইটের গাঁথনির উপর টালির ছাউনি। বাড়িতে অভাবের ছাপ স্পষ্ট। বিশ্ববাবুর পরিবারে রয়েছেন মা, বাবা, স্ত্রী, ১২ বছরের সন্তান ও দু’ভাই। বিশ্ব একটি কনস্ট্রাকশন সংস্থার সুপাইভাইজার পদে ছিলেন। বর্তমানে অসমের গুয়াহাটিতে কাজ চলছে সে সংস্থার। দেড়মাস আগে সেখানে গিয়েছিলেন। সোমবার কাঞ্চনজঙ্ঘা এক্সপ্রেসে ফিরছিলেন বাড়ি। নিউ জলপাইগুড়ি স্টেশন থেকে ট্রেন ছাড়ার পর বিশ্বপ্রতাপ মোবাইলে তাঁর স্ত্রী নিতু মিশ্র’র সঙ্গে গল্প শুরু করছিলেন। দেড়মাস পর বাবা ফিরছে শুনে, আনন্দে ছিল তাঁদের সপ্তম শ্রেণির পড়ুয়া পুত্রও। 
বুধবার বিকেলে তাঁদের বাড়িতে শুধুই কান্নার আওয়াজ। স্ত্রী, মা ও সন্তান কেঁদেই চলেছেন। কিছুক্ষণ আগে এই পরিবারের সঙ্গে দেখা করে গিয়েছেন রাজ্যের দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু। পরিবারের পাশে দাঁড়ানোর আশ্বাস দিয়েছেন তিনি। বিশ্বপ্রতাপের ভাই অঙ্কিত বলেন, ‘দাদার কোনও খোঁজ না পেয়ে শিয়ালদহে ডিআরএম অফিসে গিয়েছিলাম। রেল কোনও তথ্য জানাতে পারেনি। আমরা মৃত ও জখমদের তালিকায় দেখলাম, দাদার নাম নেই। শিয়ালদহেও দেখলাম দাদা নেই। তারপর মেজ ভাই অজিত মঙ্গলবার সকালে রওনা দিয়ে রাতে শিলিগুড়ি পৌঁছয়। স্টেশনে খোঁজখবর করে। কিন্তু কিছু জানতে পারেনি। তবে পরের দিন সকালে মর্গে দেহ শনাক্ত হয়। তারপর জানতে পারি দাদা আর নেই।’ কাঁদতে কাঁদতে তিনি বলেন, ‘পরিবারের একমাত্র ভরসা ছিল দাদা। কীভাবে সংসার চলবে জানি না।’ বিশ্বপ্রতাপের মা সাবিত্রী মিশ্র চোখে জল নিয়ে বলেন, ‘শুনলাম, বাড়ি এসে খাবে। আমি রান্না করতে চলে গিয়েছিলাম। কিন্তু জানতাম না ছেলেটা আর কোনওদিন ফিরবে না।’
1Month ago
রাজ্য
দেশ
বিদেশ
খেলা
বিনোদন
ব্ল্যাকবোর্ড
শরীর ও স্বাস্থ্য
বিশেষ নিবন্ধ
সিনেমা
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
আজকের দিনে
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
mesh

বিকল্প উপার্জনের নতুন পথের সন্ধান লাভ। কর্মে উন্নতি ও আয় বৃদ্ধি। মনে অস্থিরতা।...

বিশদ...

এখনকার দর
ক্রয়মূল্যবিক্রয়মূল্য
ডলার৮৩.২৩ টাকা৮৪.৩২ টাকা
পাউন্ড১০৬.৮৮ টাকা১০৯.৫৬ টাকা
ইউরো৯০.০২ টাকা৯২.৪৯ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
*১০ লক্ষ টাকা কম লেনদেনের ক্ষেত্রে
21st     July,   2024
দিন পঞ্জিকা