কলকাতা

মোবাইল সারানোর দোকানের আড়ালে 
চলত অন্তর্দেশীয় পাচার চক্র, ধৃত তিন

সংবাদদাতা, বনগাঁ: আদতে মোবাইল সারানোর দোকান। প্রতিদিনই সেখানে লোকজনের আনাগোনা লেগে থাকে। এই মোবাইল সারানোর দোকানের আড়ালেই চলত আন্তর্দেশীয় মোবাইল পাচার চক্র। চুরি যাওয়া মোবাইল কম দামে কিনে নিত দোকান মালিক। পরে সেগুলি পাচার করা হতো বাংলাদেশে। এভাবেই চলছিল ব্যবসা। কিন্তু শেষ রক্ষা হল না। পুলিসের জলে ধরা পড়ে গেল এই চক্রের মূল পান্ডা। তাকে জেরা করে চক্রের আরেক মাথা এক বাংলাদেশি যুবককে গ্রেপ্তার করেছে পুলিস। পাকড়াও করা হয়েছে এদের লিঙ্কম্যানকেও। ধৃতদের কাছ থেকে উদ্ধার হয়েছে ৩০টি চোরাই মোবাইল। তাদের কাছে মিলেছে ভারত ও বাংলাদেশের টাকা ও দু’টি পাসপোর্ট।
উত্তর ২৪ পরগনার গোপালনগর থানার পুলিস গোপন সূত্রে খবর পেয়ে এক বাংলাদেশি যুবক সহ তিন পাচারকারীকে গ্রেপ্তার করে। ধৃতরা হল মহম্মদ শেহবাজ আহমেদ, শাহিন আলি ও শুভদীপ সাহা। শাহিন বাংলাদেশের বেনাপোলের বাসিন্দা। শেহবাজের বাড়ি বাগুইআটিতে। শুভদীপ থাকে বনগাঁয়। ধৃতদের কাছ থেকে ৩০টি চোরাই মোবাইল, ১০ হাজার ভারতীয় টাকা, ২৩০০ বাংলাদেশি টাকা এবং দু’দেশের দু’টি পাসপোর্ট উদ্ধার হয়েছে। শেহবাজ ও শাহিন পাচার চক্রের মূল পান্ডা। শুভদীপ লিঙ্কম্যান হিসেবে কাজ করত বলে পুলিস জানতে পেরেছে।
গত ২৬ মে বনগাঁ থানা এলাকা থেকে মহম্মদ শেহবাজ আহমেদকে গ্রেপ্তার করে পুলিস। সেদিনই বনগাঁ থেকে ধরা পড়ে শাহিন। এই দু’জনকে জেরা করে শুভদীপকে পাকড়াও করা হয়। শেহবাজের মোবাইল সারানোর দোকান রয়েছে। এই দোকানেই চুরির মোবাইল বিক্রি হতো। শেহবাজ সেগুলি কম দামে কিনে বাংলাদেশে পাচার করত। শাহিন ওইদিনই চোরাই মোবাইল কিনতে বনগাঁয় এসেছিল। শুভদীপ তাকে আশ্রয় দিত বলে জানা গিয়েছে। বনগাঁর এসডিপিও স্পর্শ নিলাঙ্গি বলেন, পাচার চক্রে আর কেউ যুক্ত কি না, তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে।
13Months ago
রাজ্য
দেশ
বিদেশ
খেলা
বিনোদন
ব্ল্যাকবোর্ড
শরীর ও স্বাস্থ্য
বিশেষ নিবন্ধ
সিনেমা
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
আজকের দিনে
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
mesh

গৃহ পরিবেশে হঠাৎ আসা চাপ থেকে মানসিক অস্থিরতা। ব্যবসা ভালো চলবে। অনুকূল আয় ভাগ্য।...

বিশদ...

এখনকার দর
ক্রয়মূল্যবিক্রয়মূল্য
ডলার ৮২.৭৬ টাকা৮৪.৫০ টাকা
পাউন্ড১০৭.০০ টাকা ১১০.৫২ টাকা
ইউরো৮৯.৮৮ টাকা৯৩.০৪ টাকা
[ স্টেট ব্যাঙ্ক অব ইন্ডিয়া থেকে পাওয়া দর ]
*১০ লক্ষ টাকা কম লেনদেনের ক্ষেত্রে
দিন পঞ্জিকা