বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
বিনোদন
 

মধ্য কলকাতায় করিশ্মা

হিন্দি ওয়েব সিরিজ ‘ব্রাউন’-এর শ্যুটিংয়ে এই মুহূর্তে কলকাতায় রয়েছেন করিশ্মা কাপুর। সম্প্রতি মধ্য কলকাতার বো ব্যারাকস-এ দিনভর শ্যুটিংয়ের ফাঁকে আমাদের ক্যামেরাবন্দি লোলো। সিরিজে গোয়েন্দা অফিসারের চরিত্রে দেখা যাবে তাঁকে।

আল্লু অর্জুনের অভিনয় ডাবিংয়ের
কাজ সহজ করে দিয়েছে

এই অসময়েও দক্ষিণী ছবি ‘পুষ্পা’ শুধু যে সিনেমা হলের ব্যবসা চাঙ্গা করেছে তাই নয়, দর্শকদেরও নির্ভেজাল আনন্দ দিয়েছে। উত্তর কিংবা পূর্ব ভারতেও এই ছবি দর্শক একপ্রকার গোগ্রাসে গিলেছেন। সেই কাজ আরও তরান্বিত হয়েছে হিন্দি ডাবিং আসার ফলে। কেন্দ্রীয় সরকারের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রকের তরফে করোনার সতর্কতামূলক পোস্টে ব্যবহৃত হয়েছে এই ছবির ডায়লগ। খোদ ক্রিকেটার রবীন্দ্র জাদেজা, এমনকী অস্ট্রেলিয়ান তারকা ডেভিড ওয়ার্নার পর্যন্ত এই ছবির নায়ক আল্লু অর্জুনের নকল করে সংলাপ বলেছেন। প্রশ্ন উঠতেই পারে, হিন্দি ডাবিং না এলে গোটা দেশে কি ছবিটি এতখানি জনপ্রিয়তা লাভ করত? এর উত্তরে বিতর্কের অবকাশ থাকবে। শহর কলকাতার এক সিনেমা হলের মালিক বলছিলেন, অর্ধেক দর্শকাসন নিয়ে সিনেমা হল চলার ফলে প্রচুর দর্শক টিকিট না পেয়ে ফিরে গিয়েছেন। ওটিটিতে ছবিটি মুক্তি পাওয়ার পর সকলেই দেখতে পাচ্ছেন।
হিন্দিতে আল্লু অর্জুনের চরিত্রে ডাবিং করেছেন অভিনেতা শ্রেয়স তলপাড়ে। তিনি যে খুব একটা অন্য ছবির ডাবিং করেন, তা নয়। এর আগে ‘দ্য লায়ন কিং’ ছবির হিন্দি ডাবিং করেছিলেন তিনি। সেই ছবিটিও প্রবল জনপ্রিয়তা অর্জন করেছিল। এবার ‘পুষ্পা’তে আল্লু অর্জুনের চরিত্রে ডাবিং করেছেন তিনি। শ্রেয়স বলছিলেন, ‘আল্লু অর্জুনের অসামান্য অভিনয় আমার কাজকে অনেকখানি সহজ করে দিয়েছে। প্রত্যেক অভিনেতারই এইরকম একটি চরিত্রে অভিনয় করার ইচ্ছে থাকে। আমি সেটা কোনওদিনই পাইনি। তবে কণ্ঠের মাধ্যমে দর্শকের কাছে পৌঁছতে পেরেছি।’ ক্যামেরার সামনে থাকার ইচ্ছাই চিরকাল শ্রেয়সের। ডাবিং করে পরিচিতি পাওয়ায় কি খানিক আক্ষেপ রয়ে গেল এই অভিনেতার মনে? থাকলেও বক্স অফিসের ব্যবসা মনে হয় সেই আক্ষেপ মিটিয়ে দেবে। 
ঠান্ডা ঘরে বসে ওইরকম অ্যাকশন নির্ভর ছবিতে গলা দেওয়া তো চাট্টিখানি কথা নয়। কেমন করে পারলেন তিনি? ‘আপনারা পুষ্পার বাচনভঙ্গি, কথাবার্তা, স্টাইলের দিকে লক্ষ করুন। চরিত্রটার মধ্যে একটা অদ্ভুত নিজস্বতা রয়েছে। যে একটা কারখানার শ্রমিক। নিজের মতো করে বড় হয়েছে। আমি শুধুমাত্র আল্লু অর্জুনের অভিনয়কে সঙ্গত দিয়েছি কণ্ঠের মাধ্যমে। ডাবিং ডিরেক্টর আবু আমাকে ছোট ছোট বিষয়গুলো ধরিয়ে দিয়েছেন।’ এই ছবির মাধ্যমে আল্লু অর্জুন হয়ে উঠেছেন গোটা দেশের প্রিয় নায়ক। তাঁকে আর দক্ষিণে ধরে রাখা যাচ্ছে না। কিন্তু এই সাফল্যে শ্রেয়সের ভূমিকাও তো কম নয়!

20th     January,   2022
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ