বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
সিনেমা
 

অবশেষে একটা বৃত্ত সম্পূর্ণ হল
নো টাইম টু ডাই

অভিনন্দন দত্ত: একটা ছোট্ট তথ্য দিয়ে শুরু করি। জেমস বন্ড সিরিজের ২৫তম ছবি ‘নো টাইম টু ডাই’-এর মুক্তির আগে বন্ডের চরিত্রাভিনেতা ড্যানিয়েল ক্রেগের জার্নিকে কেন্দ্র করে একটা তথ্যচিত্র সকলের দৃষ্টি আকর্ষণ করে। ‘বিইং জেমস বন্ড: দ্য ড্যানিয়েল ক্রেগ স্টোরি’ নামের সেই তথ্যচিত্রে দেখা যাচ্ছে, শ্যুটিংয়ের শেষ দিনে ইউনিটের মাঝে দাঁড়িয়ে ‘অনেকগুলো বছর এই চরিত্রে অভিনয় করলাম। আমি জানি অনেক কিছুই বলা হয়েছিল। কিন্তু এই পাঁচটা ছবির প্রতিটা সেকেন্ড আমি উপভোগ করেছি’— কথাগুলো বলতে বলতে কেঁদে ফেলেছিলেন ড্যানিয়েল। খুবই স্বাভাবিক। ০০৭-এর ভূমিকায় তাঁর শেষ ছবি। ১৫ বছর ধরে একটানা এই আইকনিক চরিত্রে অভিনয় করা এবং প্রতিটা ছবির সঙ্গে তার শেড বদলে ফেলা চাট্টিখানি কথা নয়। অথচ বন্ড হিসেবে তাঁর নাম ঘোষণার পর ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম ড্যানিয়েলকে তীব্র সমালোচনায় বিদ্ধ করেছিল । ‘ব্লন্ড বন্ড!’— শিরোনাম নিশ্চয়ই মনে আছে অনেকের।
ছবির শুরুতেই দেখা যায় জেমস ও তার প্রেমিকা মেডেলিন (লিয়া সিদু) ইতালির এক ছোট্ট শহরে একান্তে সময় কাটাতে ব্যস্ত। জেমস এমআই সিক্স থেকে অবসর নিয়েছে। ০০৭-এর পদ এখন নোমি (লাশানা লিঞ্চ) সামলাচ্ছে। এদিকে সিআইএ-র পুরনো বন্ধু ফেলিক্সের অনুরোধে নতুন মিশনে কিউবাতে হাজির হয় বন্ড। ‘স্পেক্টার’-এর ভিলেন ব্লোফেল্ড (ক্রিস্টোফ ওয়াল্টস) বন্দি। তারই নির্দেশে সাফিন (রামি মালেক) নামে এক সন্ত্রাসবাদী পৃথিবীজুড়ে গণহত্যার ছক কষছে। ডাক পড়ে বন্ডের। ফ্র্যাঞ্চাইজির শর্ত মেনে শুরু হয় চোখ ধাঁধানো অ্যাকশন এবং চেজ সিক্যুয়েন্স।    
‘ক্যাসিনো রয়্যাল’-এর হাত ধরে ড্যানিয়েল যে যাত্রা শুরু করেছিলেন, ‘কোয়ান্টাম অব সোলেস’, ‘স্কাইফল’ ও ‘স্পেক্টার’ পেরিয়ে এখন তিনি আরও পরিণত। এই দীর্ঘ যাত্রায় জেমস এর জীবনে প্রেম এসেছে, আবার প্রিয়জনকে হারানোর সাক্ষীও থেকেছে সে। তাঁর মুখে বয়সের ছাপ স্পষ্ট হলেও ড্যানিয়েল স্বমহিমায় পর্দা কাঁপিয়েছেন। লিয়া এবারে অনেকটাই জায়গা পেয়েছেন। বন্ডের পুরনো সহকর্মীদের মধ্যে এম, কিউ বা মানিপেনিরা চিত্রনাট্য অনুযায়ী ঠিকঠাক। লাশানাও ভালো। স্বল্প পরিসরে মন্দ নন পালোমার চরিত্রে অ্যানা ডে আর্মস। বন্ডের ছবি মানেই দুর্ধর্ষ সব ভিলেনের উপস্থিতি। কিন্তু দুঃখের বিষয়, তুলনামূলক বিচারে এখনও পর্যন্ত সম্ভবত বন্ড ছবির সব থেকে দুর্বল ভিলেন হয়ে থাকলেন রামি। নায়ক ও খলনায়কের সেই টানটান লড়াই এই ছবিতে অনুপস্থিত।
বিগত তিন-চার বছরে ‘নো টাইম টু ডাই’ এর নির্মাণে রীতিমতো ঝড় বয়ে গিয়েছে। প্রথমে পরিচালক ড্যানি বয়েলের বেরিয়ে যাওয়া, ক্রেগের গোড়ালিতে চোট। করোনার জন্য বারবার ছবির মুক্তি আটকেছে। তবুও  পরিচালক ক্যারি জোজি ফুকুনাগা এই ম্যাগনাম ওপাসকে কাঙ্খিত লক্ষ্যে পৌঁছে দিয়েছেন। আসলে এই ছবি অনেক বেশি আবেগতাড়িত। বিগত চারটে ছবিতে তৈরি হওয়া প্রশ্নগুলোর উত্তর মিলিয়ে ড্যানিয়েলের ‘বন্ড’ সফর শেষ করেছেন পরিচালক। বলা যায় একটা অসম্পূর্ণ বৃত্তকে সম্পূর্ণ করেছেন। ছবির সিনেমাটোগ্রাফি বেশ ভালো। বন্ডের ছবিতে এই প্রথম হান্স জিমারের আবহসঙ্গীত অনুরাগীদের কাছে বাড়তি পাওনা। তবে প্রায় তিন ঘণ্টার এই ছবির দৈর্ঘ্যে আরও কাঁচি চালানো যেত।   
জেমস বন্ডের চরিত্রকে আগামীর হাতে ছেড়ে গেলেন ড্যানিয়েল। বিশ্ব সিনেমার অন্যতম লোভনীয় এই চরিত্রের জুতোয় কে পা গলাবেন, তা সময় বলবে। কিন্তু ড্যানিয়েল যে লেগাসি তৈরি করে দিয়ে গেলেন, তা অতিক্রম করা খুব সহজ হবে কি? কারণ পিছনে তাড়া করবে বন্ডের বিখ্যাত উক্তি, ‘আই নেভার লেফট’।

1st     October,   2021
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021