বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
শরীর ও স্বাস্থ্য
 

নিষিদ্ধ বাজি নিয়ে কিন্তু
এবারও সতর্ক থাকতে হবে!

আদালতের রায়ে পরিবেশবান্ধব বাজি ছাড়া এবার সব বাজিই নিষিদ্ধ। কিন্তু এই সকল পরিবেশবান্ধব বাজি থেকেও চোখে গুরুতর আঘাত লাগতে পারে। আবার অনেকে আইনভঙ্গ করেও চোরাগোপ্তা বাজি তৈরি করতে পারেন। এই ধরনের বাজি পোড়ানোর সময় দুর্ঘটনার কবলে পড়লে বাজির মশলা, পাথর ইত্যাদি ঢুকে যেতে পারে চোখের অন্দরেও।

চোখের পাতায় আঘাত লাগলে 
চোখের পাতায় আঘাত একটু গুরুতর হলে চোখের লেন্স ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার ভয় এড়ানো যায় না। এমনকী চোখের অন্দরে রক্তপাত হওয়ার আশঙ্কাও থাকে। লেন্স ক্ষতিগ্রস্ত হলে বা রক্তপাত হলে ভিট্রেকটমি অপারেশনের সাহায্যে চোখের ক্ষয়ক্ষতি মেরামত করতে হতে পারে। তবে মনে রাখবেন, সার্জারি হলেও চোখের কার্যকলাপ আগের মতো কখনওই হয় না। 

বিস্ফোরণ ও বড় বিপদে
বিস্ফোরণ এবং তজ্জনিত আঘাতের কারণে রেটিনাল ডিটাচমেন্ট হওয়াও আশ্চর্য নয়। এই ঘটনাকে ট্রমাটিক রেটিনাল ডিটাচমেন্ট বলা হয়। অনেক ক্ষেত্রে বিস্ফোরণ থেকে চোখের নার্ভও ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।

প্রাথমিক চিকিৎসা
১. চোখে আঘাত লাগলে রগড়াবেন না। ২. আগে কলের জলে বা পরিষ্কার পানীয় জলে চোখ ধুয়ে ফেলবেন। বাজির কোনও কণা চোখের কর্নিয়ার উপর পড়ে থাকলে ও তারপর রগড়ে ফেললে স্থায়ী ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা থাকে। ৩. যতবার সম্ভব চোখে জল দিন ও চোখ পরিষ্কার করার চেষ্টা করুন।

কখন চিকিৎসকের কাছে যাবেন?
বাজিতে নানা ধরনের উপাদান ব্যবহার করা হয়। এমনই কতকগুলি উপাদান হল সালফার, অ্যালুমিনিয়াম, লোহার টুকরো ইত্যাদি। বিস্ফোরণ থেকে চোখে ঢুকে যেতে পারে বাজিতে থাকা হলুদ রঙের সালফার গ্র্যানুউলস বা সালফার দানা। লেন্স এবং রেটিনার ড্যামেজ করতে পারে এই ধরনের গ্র্যানুউলস। চোখের ক্ষতি হতে পারে এই ধরনের উপাদান থেকে। আবার বিস্ফোরণের ফলে চোখের ভিতরে অ্যালুমিনিয়াম প্রবেশ করে তৈরি করতে পারে ভয়ঙ্কর সংক্রমণ। এই সংক্রমণকে এন্ডোফথালমাইটিস বলে। এমন সংক্রমণ থেকে চোখকে রক্ষা করা মুশকিল হয়ে যায়। 

চোখে লোহার কুচি ঢুকলে
বাজি পোড়ানোর সময় কিছু ক্ষেত্রে চোখে লোহার কুচি ঢুকে পড়াও আশ্চর্য নয়। আবার চোখে লোহার টুকরো ঢুকে সেই টুকরোয় জং ধরে যাওয়া ও সেখান থেকে সিডেরোসিস বালবাই নামে কঠিন অসুখ হওয়াও আশ্চর্য নয়। এমন সব দুর্ঘটনা ঘটলে সঙ্গে সঙ্গে রেটিনা স্পেশালিস্ট বা সাধারণ চোখের চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে নেওয়া দরকার। তিনি অবস্থা বুঝে চোখের এক্স রে বা আলট্রাসোনগ্রাফি করতে দেবেন।

আলোর বাজি নিয়েও সতর্ক হন
আলোর বাজি জ্বালালেও চোখের সমস্যা হতে পারে। চোখে তীব্র আলোর একটা প্রভাব সবসময় পড়ে। এক্ষেত্রে চোখে সরাসরি কোনও বস্তুর আঘাত লাগে না। তবে বাজির আলোর প্রাবল্যে চোখের ম্যাকুলার ফোভিয়া অংশে ফোটিক ইনজুরি হওয়ার আশঙ্কা থেকে যায়। বাজির তীব্র আলো পড়ে চোখের ওই অংশটি পুড়ে যাওয়ার ভয় থাকে। তার ফলে চোখের স্থায়ী ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কাও থেকে যায়। একই কারণে কিন্তু সূর্যের আলোর দিকে দীর্ঘক্ষণ তাকিয়ে থাকলে আমাদের ফোটিক ইনজুরি হয়। কারণ সূর্যের আলোয় চোখের ফটো রিসেপটরগুলি ক্ষতিগ্রস্ত হয়।
সতর্কতা
আলোর বাজি জ্বালানোর সময় চোখে গাঢ় শেডের চশমা পরে নেওয়া জরুরি। ছোট-বড় সকলেরই এই সাবধানতা অবলম্বন করা অত্যন্ত জরুরি।
লিখেছেন সুপ্রিয় নায়েক

4th     November,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021