বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
শরীর ও স্বাস্থ্য
 

চাঁদিফাটা রোদ লেগে শরীর
অসুস্থ লাগলে কী করবেন?

পরামর্শে বিশিষ্ট মেডিসিন বিশেষজ্ঞ ডাঃ আশিস মিত্র।

সূর্যের ম্যারাথন ইনিংস এখনও চলছে। তাপমাত্রার পারদ ঊর্ধ্বমুখী। এই পরিস্থিতিতে সকালের দিকে কিছুক্ষণের জন্য বাড়ির বাইরে বেরলেই গলদঘর্ম অবস্থা। ঘামের সঙ্গে শরীরের জল তো বেরচ্ছেই, পাশাপাশি বেরিয়ে যাচ্ছে সোডিয়াম, পটাশিয়ামের মতো অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ সব খনিজ। এই অবস্থায় প্রথমেই সতর্ক না হলে দেখা দিতে পারে মারাত্মক সমস্যা। তাই প্রথমেই সচেতন হন।
সমস্যা ও সমাধান
১. মাসল ক্র্যাম্প— রোদে বেরিয়ে পেশিতে টান ধরছে, জিভ শুকিয়ে যাচ্ছে, এই উপসর্গ মাসল ক্র্যাম্পের দিকে ইঙ্গিত করে। পাশাপাশি দুর্বলতা, অবসন্নতাও আসতে পারে। এমন লক্ষণ ফুটে উঠলে প্রথমেই সতর্ক হন।
সমাধান— ছায়ায় গিয়ে বসুন। এরপর এক লিটার জলে এক প্যাকেট ওআরএস মিশিয়ে খান। ওআরএস-এর মধ্যে শরীরের দরকারি সব খনিজ উপস্থিত রয়েছে। পাশাপাশি জলও যাচ্ছে শরীরে। ফলে সমস্যা মেটে। তবে মনে রাখবেন, এমন লক্ষণ দেখা দেওয়ার পর খুব বেশি পরিমাণে জল পান করবেন না। সেক্ষেত্রে সমস্যা আরও বাড়তে পারে। প্রথমে ওআরএস (ORS) শুদ্ধ জল পান করুন। তারপর শরীর ভালো লাগলে নিজের ইচ্ছেমতো জল পান করুন। এছাড়া এমন অবস্থায় কোল্ডড্রিংকস বা গ্লুকোজ মেশানো জলও পান করা উচিত নয়। ওআরএস না মিললে বোতলবন্দি ফ্রুটজ্যুস পান করা যায়। তবে রাস্তার কাটা ফলের ফ্রুট জ্যুস একদমই পান করা চলবে না।
২. হিট এক্সজর্শন— গরমের দাপটে শরীর থেকে খুব বেশি মাত্রায় জল ও খনিজ বেরিয়ে গেলে এই সমস্যা হয়। এক্ষেত্রে রক্তচাপ অনেকটাই  কমে যায়। অবসন্ন লাগে। দুর্বলতা গ্রাস করে।
 সমাধান— এক্ষেত্রেও প্রথমেই ছায়ায় গিয়ে বসুন। ভালো হয় পাখা বা এসির হাওয়ায় বসতে পারলে। ঘাড়ে, পিঠে বা গোটা শরীরে ঠান্ডা জল দিন। সঙ্গে ওআরএস জলে মিশিয়ে পান করুন।
 ৩. হিট সিনকোপ— তীব্র গরম থেকে রক্তচাপ অনেকটা কমে গেলে মানুষ অজ্ঞান হয়ে যেতে পারেন বা মাথা ঘুরিয়ে পড়ে যেতে পারেন।
সমাধান— এই পরিস্থিতিতে মানুষটিকে প্রথমে ছায়ায় নিয়ে গিয়ে শুইয়ে দিতে  হবে। ভালো হয় পাখার হাওয়ায় বা এসি আছে এমন ঘরে শুইয়ে দিতে পারলে। শুইয়ে দিলে মাথায় রক্ত সঞ্চালন বাড়ে। জ্ঞান ফেরে। এরপর পরনের পোশাক আলগা করতে হবে। ঠান্ডা জলে কাপড় ভিজিয়ে শরীর মুছিয়ে দিতে হবে। পাশাপাশি ওআরএস জল পান করানো দরকার। রোগী একটু সুস্থ হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে। মনে রাখবেন, রোগী তিন-চার মিনিটের বেশি সময় ধরে অজ্ঞান থাকলে অবশ্যই তাঁকে নিকটবর্তী চিকিৎসাকেন্দ্রে নিয়ে যান।
৪. হিট স্ট্রোক (Heat Stroke)— গ্রীষ্মের সবথেকে খারাপ সমস্যার নাম হিট স্ট্রোক। এক্ষেত্রে রোগীর শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করার ক্ষমতা একেবারেই চলে যায়। অজ্ঞান হয়ে যাওয়া, শরীরের তাপমাত্রা খুব বেড়ে যাওয়া, গা-হাত-পা শুকনো দেখানো এই সমস্যার উপসর্গ।
সমাধান—রোগীকে অজ্ঞান অবস্থায় ওআরএস জল পান করাতে যাবেন না। এমনটা করতে গিয়ে শ্বাসনালীতে জল প্রবেশ করলে প্রাণ নিয়ে টানাটানি পড়ে যেতে পারে। বরং কোনও ঝুঁকি না নিয়ে রোগীকে হাসপাতালে আনুন। হাসপাতালে প্রথমেই স্যালাইন দেওয়া হয়। পাশাপাশি রোগীর শরীর ঠান্ডা করার প্রক্রিয়াও চলে। ঠিক সময়ে ব্যবস্থা নিলে রোগী সুস্থ হয়ে ওঠেন।
কাদের বেশি হয়?
‌ রোদে কাজ করতে হয়  বয়স্ক লোকেদের।
রোগ প্রতিরোধ
 সকাল দশটা থেকে বিকেল চারটে পর্যন্ত বাইরে বেরতে যাবেন না।
 একান্তই বাইরে বেরতে হলে রোদের বদলে যতটা সম্ভব ছায়ায় থাকার চেষ্টা করুন।
 সুতির ঢিলেঢালা জামাকাপড় পরুন।
 সঙ্গে এক বোতল ওআরএস মেশানো জল রাখুন। বারবার পান করুন।
 বাইরে ডাব পেলে খান।
 সঙ্গে নিন ছাতা।
 যতটা সম্ভব ছাওয়ায় থাকার চেষ্টা করুন।
 কোনও সমস্যা হলে অবশই সতর্ক হন।
লিখেছেন সায়ন নস্কর

31st     May,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
কিংবদন্তী গৌতম
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021