বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
বিকিকিনি
 

হাতের বন্ধু
হাতঘড়ি

টিক টিক করে কেবল সময় দেওয়াই নয়, সাজ ও ফ্যাশনে সঙ্গ দেওয়াও ঘড়ির অন্যতম কাজ। উপহারেও এর জুড়ি মেলা ভার। কোন সংস্থার কী কী হাতঘড়ির চাহিদা বেশি? দাম পড়বে কত? জানালেন মনীষা মুখোপাধ্যায়। 

সময় নাকি কেনা যায় না। প্রবাদ ধরলে, সে বয়ে যায় নদীর স্রোতের প্রায়। কিন্তু সময় না কেনা গেলেও শখ ও শৌখিনতা বজায় রেখে কিনতেই পারেন সময় দেখার  বস্তুটিকে। হাতঘড়ি কেনার এই শখ কিন্তু অনেকটা নেশার মতো। হলি-বলি তারকা থেকে শুরু করে চারপাশের কিছু মানুষও পাবেন, যাঁরা হাতঘড়ির প্রেমে মাতোয়ারা। প্রয়োজনের বাইরেও তাই এমন ঘড়ির চাহিদা বিপুল। ঘড়ি  কেনার পরিকল্পনা থাকলে প্রথমেই ঠিক করে নিন বাজেট। তারপর ভেবে ফেলুন কোন ধরনের ঘড়ি চাইছেন। ফ্যাশনসচেতকরা মনে করেন হাতের গড়ন, কব্জির ধরন ইত্যাদি মাথায় রেখে হাতঘড়ির নকশা বাছা উচিত। সরু হাতে চওড়া ডায়াল ও চওড়া কব্জিতে একটু মোটা ব্যান্ড মানানসই। ছিপছিপে চেহারার হাতে দু’রকমই মানায়। তবে আজকাল মেয়েরা কেউ কেউ বড় ডায়াল ও সরু ব্যান্ডের দিকে ঝুঁকছেন। পুরুষদের বেলায় আবার বরাবরই একটু ভারী ডায়াল ও ধাতব ব্যান্ডের চাহিদা বেশি। আজকাল ম্যাট ফিনিশের একটা আলাদা বাজার তৈরি হয়েছে। মেয়েদের বেলায় আলাদা ভাবে চোখ টানছে রোজ ডায়াল। আর যে বিশেষ ঘড়ি উভয়েরই পছন্দের তালিকায় রয়েছে, তা হল ডিজিটাল স্মার্ট ওয়াচ। ব্যক্তিগত পছন্দ ও চাহিদা বুঝে কিনে ফেলুন সাধের ঘড়িটি। কেনার সময় কিন্তু কব্জির স্বাস্থ্যের সঙ্গে খেয়াল রাখতে হবে পকেটের স্বাস্থ্যের দিকটিও। কত বাজেট রাখতে হবে, নকশা কেমন হবে, আজ রইল সেসব টিপস। 

স্মার্ট ওয়াচ: কতটা পথ হাঁটলে তবে পথিক বলা যায় সে উত্তর না এলেও, কতটা পথ হেঁটে কতখানি ক্যালোরি ঝরালেন, সে জবাব এ ঘড়ি তৈরি রাখে রোজ। শুধু তা-ই নয়, ক’পা হাঁটা হল, ব্লাড প্রেশার কত, হার্ট রেট, শরীরে অক্সিজেন স্যাচুরেশন কত, ওজন কত, ঘুম কতক্ষণ হল, কতটা ঘুম সেদিন দরকার ছিল এসব নানা তথ্য জুগিয়ে যাবে এই ঘড়ি। এখানেই শেষ হয়, মনে ও মগজে স্ট্রেস কতটা চেপে বসেছে, মনিটরে দেখাবে সেটাও। এ তো গেল শরীরের খোঁজ। এ ঘড়ি ওস্তাদ আবহাওয়ার খবর জানাতেও। সোশ্যাল মিডিয়ার নোটিফিকেশন থেকে শুরু করে স্মার্টফোন ব্যবহার— সবটা হতে পারে এই ঘড়ি দিয়েই। এখনকার ব্যস্ত জীবনে নারী ও পুরুষ উভয়ের মধ্যেই এই ধরনের ঘড়ির একটা আলাদা চাহিদা তৈরি হয়েছে। ফ্যাশন স্টেটমেন্ট হিসেবেও এই ঘড়ির জনপ্রিয়তা বাড়ছে।   সাধারণত নয়েজ, বোট, ম্যাক্সিমা, টাইটান, ফায়ার বোল্ট, রিয়েলমি এরা সকলে এই ধরনের ঘড়ির বিশ্বস্ত ব্র্যান্ড। এগুলো নানারকম আকারের ডিসপ্লে-তে মেলে। তবে ১.৩ ইঞ্চি থেকে ১.৭ ইঞ্চির মধ্যে ডিসপ্লে হলে তা ব্যবহার সুবিধাজনক। নয়েজের বেলায় এই ধরনের ঘড়ির দাম শুরু ২৪৯৯ টাকা থেকে। নকশা, ডিসপ্লে ও অ্যাক্টিভিটির উপর এর দাম নির্ভর করে। ২৪৯৯ টাকার মডেলটি ১.৪ ইঞ্চির এইচডি ডিসপ্লে যুক্ত। এর কাছাকাছি আর একটি মডেলের নাম কালারফিট প্রো ২। এর ডিসপ্লে এলসিডি-র। দাম পড়বে ২৭৯৯ টাকা। নয়েজ কালারফিট আল্ট্রা বিভাগের মডেল পাবেন ৩৯৯৯ টাকায়।  ৬০টি স্পোর্টস মডেল, স্টক মার্কেটের নানা তথ্য ইত্যাদি পাবেন এই মডেলে। ১.৭৫ ইঞ্চির এইচডি ডিসপ্লে সহ পাওয়া যাচ্ছে। 
নয়েজ ছাড়াও বোট এই ধরনের ঘড়ির জগতে জনপ্রিয়। এদের এক্সটেন্ড বিভাগের ঘড়িগুলো বেশ আকর্ষণীয়। ৩০০০-৪০০০ টাকার মধ্যে দাম ঘোরাফেরা করে। ১.৬৯ ইঞ্চির এইচডি ডিসপ্লের এই মডেলগুলি নারী-পুরুষ উভয়েই পরতে পারেন। 
ইদানীং স্মার্ট ওয়াচের জগতে টাইটান তাদের মডেল বাজারজাত করেছে। টাইটান স্মার্ট নামের মডেলটি তিন রকমের রঙে পাওয়া যাবে। তবে এদের বেলায় বাজেট বেশ কিছুটা বাড়াতে হবে। পাবেন ১.৩২ ইঞ্চির ফুল টাচ ক্রিস্টাল ডিসপ্লে। অ্যালুমিনিয়াম বডির এই মডেলের দাম পড়বে ৯০০০ টাকার আশপাশে। এদের এক্স হাইব্রিড মডেলটি পুরুষদের জন্য তৈরি। এর দাম ৮০০০ টাকা। 
ম্যাক্স প্রো এক্স ৪। এই মডেলটি বাজারজাত করে স্মার্ট ওয়াচের দুনিয়ায় বেশ সাড়া ফেলে দিয়েছিল ম্যাক্সিমা। একটানা ১৫ দিনের ব্যাটারি লাইফ, ১.৩ ইঞ্চির ক্রিস্টাল ডিসপ্লে, আকর্ষণীয় নকশা এই মডেলের ইউএসপি। নারী-পুরুষ উভয়েই পরতে পারেন। গোল ডায়ালের সঙ্গে সিলিকনের তৈরি ব্যান্ড রয়েছে। দাম পড়বে ৩৫০০ টাকার কাছাকাছি।
ফাস্টট্র্যাক:  একটা সময় ছিল যখন অ্যানালগ ঘড়ির দুনিয়ায় ভারী মেটাল ব্যান্ড বলতে ফাস্টট্র্যাক ছিল স্টাইল আইকনে অন্যতম সেরা। তবে বিগত কয়েক বছর ধরে এরা লেদার ব্যান্ডের মডেলেও বেশ নজরকাড়া নকশা আনছে। এই সংস্থার সাধারণ নকশার মেটাল ব্যান্ডের দাম শুরু ১৪০০ টাকা থেকে। গোল ভারী ব্যান্ড ছাড়াও চৌকো আকারের স্টিল ব্যান্ডের ঘড়ির কালেকশনও রয়েছে এদের। দাম ৩০০০ টাকার আশপাশে। রাধাবাজার অঞ্চলে ঘড়ির পুরনো ব্যবসায়ী শেখ আসিফ খান জানালেন, আজকাল ছেলেদের ঘড়িতে এই সংস্থার কালো ডায়াল ও কালো ব্যান্ডের ঘড়ির চাহিদা বেশ ঊর্ধ্বমুখী। কোনও কোনও মডেলে অ্যানালগ ও ডিজিটাল দুই বৈশিষ্ট্যই রয়েছে। কালো ঘড়ির দাম একটু চড়া। বাজেট রাখুন ৫০০০-৬০০০ টাকার মধ্যে। মেয়েদের ক্ষেত্রে চামড়ার ব্যান্ডের উপর ফাস্টট্র্যাকের নানা মডেল বেশ জনপ্রিয়। তবে এদের বেশিরভাগ মডেলে চওড়া ব্যান্ড ও বড় ডায়ালের সহাবস্থান চোখে পড়ে। দাম শুরু ১১৯৫ টাকা থেকে। চৌকো ডায়াল ও চওড়া ব্যান্ডের অ্যানালগ ব্ল্যাক ডায়ালের মডেলটির চাহিদাও বেশ ভালো। দাম পড়ে ২৫০০ টাকার কাছাকাছি।

টাইটান রাগা: মানুষের পকেট বুঝে ব্র্যান্ডেড ঘড়ির পসরা সাজিয়েছে টাটা। তাদেরই ব্র্যান্ড টাইটান বরাবর ঘড়ির দুনিয়ায় নিজের মান ও নাম বজায় রেখেছে। ব্রেসলেট স্টাইলের ঘড়ি। এই ভাবনাকে মাথায় রেখে মেয়েদের ঘড়িতে রাগা বিভাগকে জনপ্রিয় করে তুলতে চেয়েছিল এই সংস্থা। পরে এই বিভাগের নকশায় ব্রেসলেটের চেয়ে একটু চওড়া আকারের ঘড়ি এলেও এসব ঘড়ির নকশা ও স্টাইল অনেকটা গয়নাসদৃশ। মূলত বিভিন্ন কেতার মেটাল ব্যান্ড ও তার সঙ্গে খাপ খাইয়ে ওভাল, গোল বা লম্বাটে ডায়াল। কাঁটাও নানা আকার ও নকশার। রাগার জনপ্রিয় মডেলগুলির অন্যতম গোলাপি ডায়ালের রাগা মোমেন্টস অব জয়। উজ্জ্বল পাথর বসানো ব্যান্ড ও গোল্ড প্লেটেড ডায়ালের এই মডেলের দাম ৭০০০ টাকার কাছে। আবার ডায়াল ও ব্যান্ড পুরোটাতেই পাথর বসানো চাইলে রাগা অ্যানালগ অব হোয়াইটকে ভাবতে পারেন। দাম পড়বে ৮০০০ টাকার কাছাকাছি। মিলবে অন্যান্য নকশাও। এছাড়াও রোজ গোল্ড বিভাগে রাগার মডেলগুলি বেশ জনপ্রিয়। 
বাজেট যখন বেশি: ঘড়ি কেনার বাজেট যদি ৪০০০ টাকার উপর হয় তাহলে পুরুষরা পছন্দ করতে পারেন ফসিল, ক্যাসিও, টাইটান ও টাইমেক্সের কিছু মডেল। মেটাল ও লেদার দু’রকম ব্যান্ডের উপরেই ফসিলের নতুন কিছু নকশা পাবেন। ডিন ক্রোনোগ্রাফ ব্ল্যাক ডায়ালের ঘড়িটিতে অ্যানালগ ও ডিজিটাল দুই ভার্সনই একসঙ্গে পাবেন। কালো ডায়ালের চারপাশে গোল্ড প্লেটেড নকশা মডেলটিকে আকর্ষণীয় করেছে। দাম ৯৯৯৫ টাকা। এই সময় অফারে মিলবে ৭০০০ টাকার কাছাকাছি দামে। আর একটি মডেল গ্রান্ট ক্রোনোগ্রাফ। কালো স্টিল ব্যান্ড ও কালো ডায়ালের এই মডেলেও অ্যানালগ ও ডিজিটাল একসঙ্গে মিলবে। দাম ১২,০০০ টাকার একটু বেশি। তবে এখন ছাড়ে ৮০০০ টাকার কাছাকাছি দামে মিলছে।
টাইমেক্সের ই-ক্লাস সার্জিকাল স্টিল মডেলের ঘড়িগুলোও দেখতে খুব সুন্দর। দাম ঘোরাফেরা করবে ৮,০০০-১০,০০০ টাকার মধ্যে। স্টিল ব্যান্ডে ক্যাসিও কিনতে চাইলে বাজেট রাখুন ৭০০০ টাকার কাছে। 
মহিলাদের জন্য বেশি বাজেটের ঘড়ির মধ্যে পছন্দ করতে পারেন সুইস ঈগল, ফসিল, টাইটান রাগা, টমি হিলফিগার ইত্যাদি ব্র্যান্ডকে। রোজ গোল্ড স্টিল ব্যান্ডে সাদা ডায়াল, বছর দুই তিন আগে এমন ঘড়ি বাজারজাত করে সাজের অধ্যায়ে নিজেদের মান বজায় রেখেছিল ক্যাসিও। এমন ঘড়ির দাম পড়বে ৬৫৯৫ টাকা। সিলভার চেন বেল্ট ও হালকা গোলাপি আভা দেওয়া ডায়ালে ফুলেল নকশা করা ঘড়িটি টমি হিলফিগারের।  দাম ৬৯৯৫ টাকা। আবার সিলভারের বদলে গোল্ডেন চেন, অ্যানালগ ও ডিজিটাল ভার্সন ও দুর্দান্ত নকশার সাদা ডায়ালের ঘড়িকে ওয়ার্ডরোবে রাখতে চাইলে ভরসা রাখুন টাইটানে। দাম পড়বে ৬০০০ টাকার কাছাকাছি।

বাজেট যখন পকেটসই: বাজেট একটু কম, কিন্তু চাই ফ্যাশনেবল নকশা। চাহিদা এমন হলে ভরসা রাখুন হেলিক্স, টাইমেক্স, সোনাটা, ড্যানিয়েল ক্লিনের উপর। নীল ডায়ালের উপর রুপোলি ও সোনালি নকশার ব্র্যান্ড সঙ্গে গোল্ড প্লেটেড ডায়াল বর্ডার। এমন ঘড়ি পছন্দ হলে ভরসা রাখুন সোনাটার উপর। টাইটানের অপর একটি ব্র্যান্ড সোনাটা ১৫০০-৪০০০ টাকার মধ্যে নানা নকশার ঘড়ি প্রস্তুত করে। মেয়েদের বেলাতেও এদের দাম ঘোরাফেরা করে ৮০০-৩০০০ টাকার মধ্যে। তাতে গোল, চওড়া ও লম্বাটে ডায়ালের নানা নকশা পাবেন। চামড়া ও মেটাল দু’রকম ব্যান্ডই পাবেন। ড্যানিয়েল ক্লিন ও হেলিক্সের লেদার ব্যান্ডের অ্যানালগ ঘড়ি পাবেন ২০০০-৩০০০ টাকা বাজেটে। মেয়েরা একটু অন্যরকম লুকের ঘড়ি চাইলে পছন্দ করতে পারেন চুম্বক, ফ্রেঞ্চ কানেকশনের মতো ট্রেন্ডি ব্র্যান্ডকে। ডায়াল ও ব্যান্ডের গায়ে রকমারি নকশা, থিম বেসড মডেল, চওড়া ডায়াল ইত্যাদি আকর্ষণীয় বৈশিষ্ট্যে ভরা এই ঘড়িগুলো অনলাইনে সহজেই পাবেন। টিউলিপ গার্ডেন, সানি সাইড আপ, ট্রাইবাল এলিফ্যান্ট এমন নানা থিমে চুম্বকের ঘড়ি পাবেন। দাম পড়বে ১১০০-১৪০০ টাকার মধ্যে। স্টেনলেস স্টিলের চেন ব্যান্ড ও নানা আকারের গোল্ডেন ডায়ালের নকশা মিলবে ফ্রেঞ্চ কানেকশনে। দাম পড়বে ২৫০০-৪০০০ টাকার মধ্যে।

পছন্দ যখন রোজ গোল্ড: আজকাল নারী-পুরুষ উভয়ের পছন্দের তালিকাতেই রোজ গোল্ড ঘড়ির কদর বেড়েছে। ছোট-বড় নানা ঘড়ি প্রস্তুতকারী সংস্থাই তাই এমন রোজ গোল্ড ঘড়ি তৈরি করছে। ছেলেদের ঘড়িতে এমন নকশা পাবেন টাইটান, ফসিল, ক্যাসিও ইত্যাদি ব্র্যান্ডে। মেয়েদের বেলায় টাইটান রাগা-য় এমন ঘড়ির এক বিপুল সম্ভার মিলবে। সংস্থা ও নকশাভেদে দামের তারতম্য হবে। সাধারণত, ছেলেদের অ্যানালগ ঘড়ির বেলায় দাম ঘোরাফেরা করবে ২৪০০-৬০০০ টাকা রেঞ্জে। ব্র্যান্ডেড সংস্থা হলে অ্যানালগ-ডিজিটাল দুই ভার্সন সহ রোজ গোল্ড ঘড়ির দাম পড়বে ৫০০০-৯০০০ টাকা। 
মেয়েদের রোজ গোল্ডে বাজেট কম হলে ৭-সেভেন, টাইমেক্স, সোনাটা-র মতো ব্র্যান্ডে ভরসা করতে পারেন। দাম ঘোরাফেরা করবে ১৫০০-২৫০০ টাকার মধ্যে। অনলাইনে অফার থাকলে দাম শুরু হয় ৭০০ টাকার আশপাশ থেকে। আর একটু দামি ব্র্যান্ডের রোজ গোল্ড চাইলে ভাবতে পারেন ড্যানিয়েল সাগা, টাইটান রাগা, ফসিল ইত্যাদি ব্র্যান্ডকে। দারুণ নকশা ও নয়নাভিরাম লালচে সোনালি রঙের এই ঘড়িগুলোর দাম ঘোরাফেরা করবে ৪০০০-১০,০০০ টাকা মূল্যের মধ্যে। এর চেয়ে বেশি বাজেটের রোজ গোল্ড চাইলে তারও নানা মডেল পাবেন।
নকশা ও দরদাম জানা সারা। এবার সাধের ঘড়িটি হাতে বেঁধে প্রিয়জনের হাতে হাত রাখার পালা শুরু। 

8th     January,   2022
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ