বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
বিকিকিনি
 

পুজোর শাড়ি রংবাহারি

বাঙালির সবচেয়ে বড় উৎসব কড়া নাড়ছে দোরগোড়ায়। কিন্তু শাড়ি ছাড়া কি উৎসবের সাজ হয়? তাই কোন দোকানে এবার পুজোর কেমন কালেকশন এল, কার জমি কেমন? বাজেটই বা কত ধরে এগবেন, জানাচ্ছেন মনীষা মুখোপাধ্যায়।

শ্রীনিকেতন : কলকাতা ও শহরতলিতে পোশাকের দুনিয়ায় অত্যন্ত ভরসার নাম শ্রীনিকেতন। এবার পুজোয় হালকা ওজনের অথচ আকর্ষণীয় এমন নানা শাড়িতে নিজেদের সাজিয়েছে শ্রীনিকেতন। খাদি সিল্ক, মাদুরাই কটন, পাঠান পাটোলা, বালুচরি, মসলিন কটন, নকশাদার সাউথ হ্যান্ডলুম, আম্রপালী হ্যান্ডলুম, আরনি, টিস্যু রেন ড্রপ, বোমকাই, কাশ্মীরি কানি সিল্ক, ডিজিটাল প্রিন্টেড সিল্ক, ঘিচা, ইক্কত, কনকলতা, মসলিন, গাদোয়াল ইত্যাদি নানা শাড়িতেই সেজেছে এরা। এবছরও কোভিড আমাদের ছেড়ে যায়নি। তাই বাজারের হাল ও মধ্যবিত্তের বাজেট বুঝে শাড়ির ধরন ও দাম নির্ধারিত হয়েছে। খুব দামি পৈঠানি, গাদোয়াল, অরগ্যাঞ্জা বা খাদি সিল্ক যেমন এখানে পাবেন, তেমনই কম বাজেটের সুতির ছাপা, লিনেনও মিলবে।  সাধারণ ছাপা শাড়ির দাম শুরু হয়েছে ৫০০ টাকা থেকে। মান ও ধরন অনুযায়ী সে দাম বেড়েছে। অন্য কিছু দেখতে চাইলে তারও বেশ বৃহৎ সম্ভার এখানে পাবেন। 
পাঠান পাটোলা পছন্দ হলে খরচ পড়বে ৮০০০-৮৫০০ টাকা। মসলিন ও মাদুরাই কটনের সংগ্রহ মিলবে ৯০০-১২০০ টাকার নানা রেঞ্জে। আর একটু বাজেট বাড়লে ফ্যান্সি সাউথ হ্যান্ডলুম পাবেন ১৫০০ টাকার মধ্যে। অনেকে এবার মটকা মসলিনের নানা নকশা খুঁজছেন। এই ধরনের শাড়ির বিরাট সম্ভার মিলবে এখানে। দাম পড়বে ৩৮০০-৪৫০০ টাকা। বাজেট যদি ২-৩ হাজারের মধ্যে হয়, তাহলে খোঁজ করতে পারেন আম্রপালী হ্যান্ডলুম বা আরনি কটন। আরও কম বাজেট হলে লিনেনের উপর নানারকম ডিজিটাল প্রিন্টের শাড়ি দেখতে পারেন। খোঁজ করতে পারেন কোয়েম্বাটুর কটন। টিস্যু রেন ড্রপ শাড়ি এবার পুজোর অন্যতম আকর্ষণ। দাম পড়বে ৪২০০ টাকার মধ্যে। একটু দামি শাড়ির মধ্যে পছন্দ করতে পারেন সিল্ক ব্যোমকাই, খাদি সিল্ক, অসম সিল্ক, পৈঠানি সিল্কের মতো শাড়ি। বাজেট মোটামুটি ১০-১২ হাজার হলে এই ধরনের শাড়ি পছন্দ করতে পারেন। গাদোয়াল কিনতে চাইলে বাজেট বাড়িয়ে ১৫-১৬ হাজার করুন। যাঁদের বাজেট দুই হাজারের আশপাশে ঘোরাঘুরি করবে, তাঁরা পছন্দ করতে পারেন ঘিচা বা কাশ্মীরি কানি সিল্ক। কাঁথাকাজের শাড়িরও ভালো বিকল্প পাবেন এখানে। দাম শুরু ৭০০০ টাকা থেকে।
(সোদপুর, হাইল্যান্ড পার্ক, কাঁচড়াপাড়া, গড়িয়াহাট, বারাসত, শ্রীরামপুর। যোগাযোগ, ৯৮৩১৫৬৩৩৬৭)

খাদি সিল্ক এম্পোরিয়াম : বাংলার শাড়ি মানেই খদ্দরের প্রতি আলাদা টান। খাদির শাড়ি বঙ্গজীবনে সেই নস্টালজিয়া ও আকর্ষণকে আলাদা করে জাত চেনায়। হাতে বোনা শাড়ি হোক বা কাঁথাকাজ, তসর প্রিন্টেড কিংবা তসর হ্যান্ড বাটিক এমন নানা শাড়ির সম্ভার নিয়ে পুজোর পসরা সাজিয়েছে খাদি সিল্ক এম্পোরিয়াম। এবার পুজোয় তাঁদের বিশেষ সম্ভার গুজরাটি স্টিচ শাড়ি ও হাতে করা মধুবনী নকশা আঁকা শাড়ি। মধুবনী নকশার এমন বিশেষ শাড়িগুলো পাবেন ৪৮০০ থেকে ৬০০০ টাকার মধ্যে। তসর হ্যান্ড বাটিক কিনতে হলেও এমন দামেই মিলবে।  গুজরাটি স্টিচের শাড়ি পছন্দ করলে বাজেট রাখুন ৬২০০-৮০০০ টাকার মধ্যে। খাঁটি সিল্কের উপর কাঁথাস্টিচের কাজ করা শাড়িগুলোর দামও এমনই। এবছর সিল্কের উপর হাল্কা বা জংলা নকশার হ্যান্ড বাটিকও খুব চলছে। টুকটাক বেরনো, স্কুল-কলেজ, রোজের অফিস অথবা কাজের জায়গার কোনও ফর্মাল মিটিংয়ের সাজে এই শাড়ি বেশ খাপ খেয়ে যায়। দাম পড়বে ৩৬০০-৪৫০০ টাকার মধ্যে। তবে বাজেট যদি দুই-আড়াই হাজারের মধ্যে হয়, তাহলে পছন্দ করতে পারেন কিছু ব্লক প্রিন্ট সিল্ক ও কটন মসলিন জামদানি। তসরের উপর ব্লক, আজরাখ বা প্রিন্টেড কোনও শাড়ি চাইলে বাজেট রাখুন ৪১০০-৫৬০০ টাকার ভিতর। বালুচরি ও স্বর্ণচরি নকশার শাড়িরও এক বিপুল সম্ভার রয়েছে এখানে। খরচ পড়বে ৭০০০-১১০০০ টাকা। গরদেরও খুব ভালো সংগ্রহ এখানে মিলবে। দু’ধরনের গরদ পাবেন। একটি পুরাতনী নকশায় সাদা, ঘিয়ে ও তসর রঙের। অন্যটি রংচঙে। প্রথম ধরনের চিরায়ত নকশার গরদ খুঁজলে খরত হবে ৪০০০-৭০০০ টাকা। আর রঙে  মজলে বাজেট রাখুন ৫০০০-৮০০০ টাকার মধ্যে।
(শপ নং : জি ৯৫-৯৭, সিআইটি কমপ্লেক্স, দক্ষিণাপণ মার্কেট। যোগাযোগ : ৯৪৩৩২৪৫৬১২)

আরএমজিসি বসাক : নানারকম ফ্যান্সি শাড়ির সঙ্গে বাংলার তাঁত ও হ্যান্ডলুম ভালোবাসেন যাঁরা, এই দোকান তাঁদের অন্যতম বাছাই।  শুধু পুজোর জন্য কেনা পাটভাঙা শাড়িটাই নয়, রোজের ব্যবহারের শাড়িটাও যাতে সমান আভিজ্যত্যের হয়, সে ভাবনাই ভাবে আরএমজিসি বসাক। সুতি ও লিনেন দু’ধরনের হ্যান্ডলুমই এবার পুজোয় এদের নয়া সংগ্রহ। নতুন নকশার মসলিন ও জামদানি শাড়ি এবার এদের বিপুল সংগ্রহের অন্যতম। হালকা ও গা‌ঢ় দু’রকম রঙের বিকল্পেই পাবেন এমন শাড়ি। শাড়িজুড়ে ফুলেল নকশার খোঁজ মিলবে ২৭৫০ টাকা থেকেই। মসলিন শাড়ির বাহারে নিজেকে সাজাতে চাইলে বাজেট রাখুন ৩৫০০-৪০০০ টাকা।  হ্যান্ডওয়ার্ক জামদানি পছন্দ করলে বাজেট একটু বাড়িয়ে ১০-১১ হাজার করুন। নকশাকাটা তসর পাড়ের জন্য বাজেট রাখুন ৫ হাজার টাকা। দামি ঘিচারও এক বিপুল সম্ভার এখানে পাবেন। বাজেট ধরে রাখুন ১১-১২ হাজার টাকা। তবে ৮০০-১০০০ টাকার মধ্যেও দুর্দান্ত নানা নকশার সুতির হ্যান্ডলুম পাবেন। শুধু সুতিই নয়, লিনেনের ওপর হ্যান্ডলুমেও মনকাড়া নকশা মিলবে ২০০০ টাকা থেকেই। একটু দামি সুতির হ্যান্ডলুম চাইলেও নিরাশ হবেন না। বরং তাও মিলবে মাত্র ১৩০০ থেকে ২০০০ টাকার মধ্যে। 
(১/১, নন্দী স্ট্রিট, গড়িয়াহাট, কলকাতা ৭০০০২৯ এবং ১৪৭/এল, রাসবিহারী অ্যাভিনিউ, কলকাতা ৭০০০১৯।  যোগাযোগ, ০৩৩ ২৪৬১৭২৭৭ /০৩৩ ২৪৬০২১৬০)

4th     September,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021