বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
অমৃতকথা
 

শিক্ষা

ভারতবাসী হিসাবে আমরা তাঁর কাছে জাতীয় শিক্ষাদর্শের ঋণে জড়িয়ে আছি। জাতীয় শিক্ষার সংগ্রামে ও পরিকল্পনা রচনায় যাঁরা সে যুগে অগ্রদূত ছিলেন তাঁদের অন্যতম ছিলেন নিবেদিতা। প্রকৃত শিক্ষা ব্যতিরেকে যে প্রকৃত ভারতীয় হওয়া সম্ভব নয়, তা তিনি মনেপ্রাণে বিশ্বাস করতেন। স্ত্রী-শিক্ষার উজ্জ্বল ভূমিকায় তিনি অবতীর্ণ হয়েছিলেন। তাঁর স্থাপিত বিদ্যালয় জাতীয় ধারায় নির্মিত প্রথম বিদ্যালয়। নারীশিক্ষার ব্যবস্থা ইউরোপীয় মিশনারিরাও করেছেন, করেছেন ব্রাহ্ম চিন্তাবিদেরাও। তাঁর নারীশিক্ষার মূলসুরটি বাঁধা ছিল ভারতীয় সুকুমারী নারী-আদর্শের সঙ্গে ইউরোপীয় দৃঢ়তা ও দৃষ্টিভঙ্গির মেলবন্ধন। তাঁর শিক্ষা-উদ্যোগ কেবল কর্তব্যবোধের মধ্যে শেষ হবার নয়; অজ্ঞানের জন্য, নিরক্ষর মানুষজনের জন্য গভীর প্রেম ও অন্তরীণ ব্যাকুলতা ছিল তাঁর শিক্ষাদর্শনের মূলমন্ত্র। জ্ঞানদানের মধ্যেই কেবল শিক্ষাকে সীমিত না রেখে কর্মকাণ্ডের মাধ্যমে অন্তরমহলে ছড়িয়ে দিয়েছিলেন বলেই বাগবাজারের অখ্যাত এক গলির মধ্যেই তিনি নির্মাণ ক’রে ফেললেন এক অনন্য শিক্ষাতীর্থ। তাঁর ছাত্রীরা তাঁর কাছে হয়ে উঠল ‘My Child’। তাদের সঙ্গে পড়া পড়া খেলে, হিন্দু সংস্কৃতি ও রীতিনীতিকে বজায় রেখে চলল একদেশীয় ঢঙের হৃদয়ের উত্তাপ। বানালেন না তোতাপাখির খাঁচা, গাইলেন না দীর্ঘমেয়াদি বিরাট পরিকল্পনার বিলম্বিত-লয়ের শিক্ষা-গান। বরং সামর্থ্যের প্রয়াস ভারত-রূপ পাখির নারী-পক্ষকে অপরিসীম আনন্দে জুড়ে দিলেন। ভারতবর্ষের দুঃখ-দারিদ্রকে উপেক্ষা ক’রে, এদেশের গ্রীষ্মপ্রধান জলবায়ুকে সহ্য ক’রে, ইউরোপের সুখস্বাচ্ছন্দ্যকে হেলায় দূরে সরিয়ে রেখে তিনি ভারতবাসীর সেবা করেছেন। ১৮৯৯ খ্রিস্টাব্দের কলকাতার প্লেগ রোগ নিবারণে তাঁর কাজ আজও মানুষ শ্রদ্ধার সঙ্গে স্মরণ করে। স্থানীয় স্বেচ্ছাসেবকবৃন্দের কাজকে তিনি কেবল তদারকিই করেননি, নিজেই ঝাঁটা হাতে রাস্তার ময়লা পরিষ্কার করতে নেমেছেন, মুমুর্ষু রোগীদের নিজ হাতে সেবা করেছেন। বানভাসি, মন্বন্তর-দীর্ণ বরিশালে ছুটে গেছেন সেবাসামগ্রী নিয়ে—হতদরিদ্র মানুষের প্রতি সহমর্মিতা জানাতে, একাত্ম হতে ও পাশে দাঁড়াতে। নিবেদিতা ছিলেন ভারতের স্বাধীনতা আন্দোলনের আপোসহীন সংগ্রামী। স্বদেশী আন্দোলনে কতটা যুক্ত হয়ে পড়েছিলেন তার বিবরণ দিয়েছেন সুরেন্দ্রনাথ বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর ‘A Nation in making’ গ্রন্থে। শুধু যে আন্দোলনের জোয়ারে অবগাহন করেছিলেন তাই নয়, অর্থনীতিকে স্বাবলম্বী করতে স্বদেশী পণ্য উৎপাদন ও ব্যবহারের জন্যও মানুষকে প্রভাবিত করেছিলেন। ‘প্রবাসী’ সম্পাদক রামানন্দ চট্টোপাধ্যায় মন্তব্য করেছিলেন, “প্রয়োজনবিশেষে বা স্থলবিশেষে বলপ্রয়োগ ও যুদ্ধ তিনি আবশ্যক মনে করতেন।” বিপ্লবী ভূপেন্দ্রনাথ দত্তের মতে—‘তিনি বিপ্লবীদের উৎসাহ দিতেন, তাদের পড়ার জন্য নানান বই দিতেন এবং বিপ্লবীদের কাজে তাঁর অনুমোদন ছিল।’ বর্তমানে প্রকৃত কাজ হচ্ছে, সর্বপ্রকার তাৎপর্য ও অর্থবোধের সঙ্গে ভারতের সর্বত্র ‘জাতীয়তা’ শব্দটি প্রচার করা। এই বিরাট চেতনা যেন সবসময় ভারতকে সম্পূর্ণভাবে অধিকার ক’রে থাকে।

স্বামী আত্মবোধানন্দের ‘ভারত-সাধিকা নিবেদিতা’ থেকে 

26th     November,   2022
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ