বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
অমৃতকথা
 

প্রভূ

হে প্রভূ! তোমার অসীম রচনায় অসংখ্য লোক তোমার জপকরে এবং অসংখ্য লোক তোমায় ভালবাসে। অসংখ্য তোমার পূজা করে এবং যো তপস্যা করে। অসংখ্য লোক মুখে বেদ আদি ধর্ম গ্রন্থের পাঠ করে। অসংখ্য যোগী আছে যারা মনের থেকে সংসারে উদাসীন থাকে। অসংখ্য ভক্ত আছে যারা তোমার গুণ ও জ্ঞানের ওপর বিচার করে। অসংখ্য সাত্ত্বিক আছে আর অসংখ্য দাতা আছে। অসংখ্য যোদ্ধা আছে যারা যুদ্ধভূমিতে তাদের মুখের ওপর প্রহার সহ্য করে। অসংখ্য মৌনি আছে যারা প্রকনিষ্ঠ ভাবে গভীর তপস্যায় মগ্ন। তোমার এবং তোমার প্রকৃতির বিষয়ে একটি বিচার করার ক্ষমতাই বা আমার কোথায়। হে আমার প্রিয়তম! একবার নয় আমি যদি বারংবার তোমাতে মিশে যাই-তাই কম হয়। যা কিছু তোমার ভালো লাগে তা আমার জন্যে উপকারী। হে নিরষ্কার! তুমিই শাশ্বত রূপে সর্বদা বিদ্যামান। হে প্রভূ! তোমার অসীম রচনাতে অসংখ্য অন্ধ এবং মূর্খ রয়েছে যারা যোর অন্ধ কারে পড়ে আছে। অসংখ্য চোর আর বৈইমান। অসংখ্য এমন লোক যারা নিজেদের হুকুম চালিয়ে শাসন করে। অসংখ্য গলকাটা হিংসক যারা নির্দোষ জীবহত্যা করে। অসংখ্য পাপী পাপ করেই চলেছে আর অসংখ্য মিথ্যুক মিথ্যা বলাবার জন্য ঘুরে বেড়াচ্ছে অসংখ্য ম্লেচ্ছ অখাদ্য কুখাদ্য ভক্ষণ করছে আর অসংখ্য নিন্দুক অকারণেই অন্যকে নিন্দারূপী পাপ করে তার ভার নিয়ে ঘুরছে। এই ভাবে বাবা নানক সঙ্গে নিজেকে নীচ বলে বলছেন কি আমি যদি তোমাতে বারংবার নিজেকে বিলিয়ে দিই তাও যেন কম হয়। কিছু তোমা ভালো লাগে তা আমার জন্যে উপকারী। হে নিরংকার! তুমিই শাশ্বত রূপে সর্বদা বিদ্যামান। হে প্রভূ! অসংখ্য তোমার নাম আর অসংখ্য তোমার স্থান। অসংখ্য অজ্ঞাত আর অগম্য লোক আর অসংখ্য কখনও মাথার ওপর বোম নেওয়া হয়। হে প্রভূ! লিখ (আজতা) দ্বারা নীব তোমার নাম জপ করে আর লিখনদ্বারাই জীব তোমার সত্ততি করে। লিখদদ্বারাই জীব জ্ঞান প্রাপ্ত হয় আর লিখনদ্বারাই তোমার গীত ও গুণের কীর্তন করে। লিখনদ্বারাই তোমার বাণী লেখা হয় আর বলা মনুষ্যের কপালের ওপর লিখিত তোমার লিখনই সংযোগের বার্তা দেয় কিন্তু যে বিধাতা প্রভূ জীবের মস্তিষ্কের ওপর এই লিখন লিখে দিয়েছেন, ‘তার’ মস্তিষ্কে ওপর লিখনেই অর্থাৎ ‘সে’ স্বতন্ত্র! হে ভাই! যেমনটি ‘তার’ আজ্ঞা হয় তেমনটি জীব প্রাপ্ত করে। যা কিছু ‘সে’ উৎপন্ন করে, তারই ওপর ‘তার’ নাম অংকিত থাকে। এমন কোন জায়গা নেই যেখানে ‘তার’ নাম (অস্তিত্ব) নেই। হে পরমাত্মা! তোমার ও তোমার প্রকৃতি বিষয়ে একটি বিচার ও অভিব্যক্ত করার শক্তি আমার কোথায়? হে আমার প্রিয়তম! একবার নয় আমি যদি বারংবার তোমাতে নিজেকে বিলিয়ে দিই তাও কম হয়। তোমার যা কিছু ভালো লাগে, তাই আমার জন্যে উপকারী হে নিরংকার! তুমিই শাশ্বত রূপে সর্বদা বিদ্যমান থাক। হে ভাই! শরীরের অংশগুলি- হাত, পা, ইত্যাদিতে ধুলো লাগলে ধূয়ে নিলে তা পরিষ্কার হয়ে যায়। কাপড়ে মুত্রাদিতে ময়লা হলে সাবান দিয়ে ধোয়া হয়। তেমনিই বুদ্ধি যদি পাপে ভরে যায় তাহলে নামের প্রেম রঙে ধোয়া যেতে পারে। শুধু বললেই কেউ পুণ্যাত্মা কিংবা পাপাত্মা হয়ে যায় না। হে ভাই! যা কিছু কর্ম আমরা করি সব লিখে রাখা হয় আর সেগুলির পাপ পূণ্যের দ্যোতক। মনুষ্য স্বয়ং বীজ বপন করে এবং স্বয়ংই সুখ-দুঃখ রূপী ফল পায়।
‘আদি শ্রী গুরু গ্রন্থ সাহেব’ থেকে

9th     September,   2022
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ