বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
অমৃতকথা
 

ধর্ম

‘ধর্ম ও শান্তি’ এ দু’টি শব্দের ভাবার্থ অনুধাবন করতে গেলে একটি বাদ দিয়ে আর একটি অস্তিত্বহীন। তবে এর মধ্যে কোনটি মানুষের জীবনে সবচেয়ে বেশি প্রভাব বিস্তার করে তার প্রাধান্য মেনে নেওয়া হয়তো সংগত। ধর্ম মানুষের স্বরূপ উদ্‌ঘাটনে জীবনের নিম্নতর প্রকৃতি থেকে তার উচ্চতর স্বভাব উপলব্ধির শিক্ষা দেয়। আসলে মানুষ তো একটি জীব। আবার এদিকে জীবশ্রেষ্ঠ। কাজেই দায়িত্ব অনেক মানুষের। মনুষ্যেতর জীব সর্বশক্তি নিয়োগ করে দেহভোগে, খাদ্য-অন্বেষণে। এর বিঘ্ন ঘটলে দ্বন্দ্ব অনিবার্য। উচ্চতর অবস্থায় পোঁছানোর সামর্থ্য নেই এদের। অনেক সময় পোষা ইতরপ্রাণী সংহত স্বভাবের পরিচয় দিলেও, তা সে দৈহিক সুখ ও ক্ষুন্নিবৃত্তির জন্য করে। মানুষ অনেক মৌল সূক্ষ্মাংশে আবৃত। এগুলি পঞ্চকোষ বা আত্মার আবরণ, যেমন—অন্নময়, প্রাণময়, মনোময়, বিজ্ঞানময় এবং আনন্দময় কোষ। এ আবরণ উন্মোচনে নিম্নতর প্রকৃতি থেকে উচ্চতর অবস্থায় উন্নীত হতে পারে মানুষ, যা ইতর প্রাণীর পুরোপুরি সুযোগ নেই। মনোময় কোষ অর্থাৎ মনঃশক্তির অনুশাসনে মানুষ তার শ্রেষ্ঠত্ব প্রতিপন্ন করে। বিজ্ঞানময় ও আনন্দময় উচ্চ অবস্থায় উন্নীত হয়ে মানুষ জীবনের তাৎপর্য উপলব্ধি করে দেবত্বে প্রতিষ্ঠিত হতে পারে; এই সুযোগ কেবল মানুষের জন্য। সভ্যতার ঊষালগ্ন থেকে মানুষ যেন কোন এক অনুশাসনের মধ্যে থাকতে চেয়েছে এক অজানা বরদাতার কথা ভেবে। এ ভাবনা পরিপুষ্টি লাভ করেছে কিছু শ্রদ্ধাযুক্ত কর্মে। এ কর্মই তার ধর্ম। বিভিন্ন ভৌগোলিক পরিবেশে এ অনুশাসনের ধারার কিছু তারতম্য রয়েছে। আমরা দেখি একই বস্তু নির্ণয়েও পরিভাষার পার্থক্য রয়েছে। অবস্থার প্রেক্ষাপটে একই জল ঠাণ্ডা বা উষ্ণ সেবনের ব্যবস্থা; তেমনি পোশাক-পরিচ্ছদে ও চলন-বলনেও পার্থক্য। এ যেন নানারূপে এক-কে মানা। বৈচিত্র্যের মধ্যেও এক অজানা অনুশাসনের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে মানব একটি সুন্দর ও সফলকাম জীবন-চর্চার প্রতি যত্নবান। এ অনুশাসনের একজন নিয়ামক থাকা অস্বাভাবিক নয়। এই নিয়ামকই জগৎ স্রষ্টা। জগৎ স্রষ্টার প্রতি আনুগত্য অনেকের না জেনেও হয়। মানুষ ভৌগোলিক অবস্থার প্রেক্ষাপটে নিজের জৈব প্রয়োজন মিটানোর সাথে সে একটা অনুশাসনের মধ্যে থাকতে ভালবাসে। তার এ মানসিকতায় সে একটা নির্ভরশীল অবলম্বনের কথা ভাবে। বিভিন্ন অঞ্চলের মানুষ এ উপলব্ধিকে সত্য, স্রষ্টা, বুদ্ধত্ব, ঈশ্বর, গড, আল্লাহ্‌ বা আরও কত নামে প্রকাশ করার চেষ্টা করেছে। এ সত্য আবিষ্কারে যে নানাবিধ প্রক্রিয়া অবলম্বন করা হয়েছে তা-ই বিভিন্ন ধর্ম নামে অভিহিত হয়েছে জগতে। এক পরম নির্ভরতায় ধর্মের কথা বললেও মানুষ আজও দ্বিধাগ্রস্ত ধর্মীয় বিভিন্নতায়। এ ধর্মীয় বিভিন্ন ধারার পেক্ষাপটে শ্রীরামকৃষ্ণের প্রতীতি একটি পুকুর। সকলে ভরে নিচ্ছে তরল পদার্থ তার পাত্রে; হিন্দু বলছে জল, মুসলমান বলছে পানি, ইংরেজ বলছে ওয়াটার ইত্যাদি। বিভিন্ন নামে একই বস্তুকে চাইছে।
স্বামী অক্ষরানন্দের ‘মহাশক্তির বিচিত্র প্রকাশ’ থেকে 

4th     August,   2022
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ