বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
অমৃতকথা
 

কর্মফল

মহারাজ: কর্মফল মারাত্মক—এর মধ্যে ঢুকলেই বিপদ, বেরনো দুষ্কর। শিলেটে একটা কথা আছে—‘করছ পিঠা, খাইলে ফুরায়।’ পিঠে করছ কেন? না খেলে ফুরাবে কী করে? খেতেই হবে। এর মধ্যে ঢুকেছ কেন? কর্মফল সবাইকে ভুগতে হবে। কর্মফল তিন রকম—সঞ্চিত, প্রারব্ধ, ক্রিয়মাণ। যা আমার পূর্ব পূর্ব জন্মের সঞ্চিত, সেটা সঞ্চিত কর্মফল—যেমন সংস্কার। তার থেকে কিছু নিয়ে আমার এই জীবন আরম্ভ হয়েছে—যেটুকু নিয়ে জীবন আরম্ভ করেছি, সেটার নাম প্রারব্ধ। আর ক্রিয়মাণ—যেটা এই জীবনে করছি। ব্যাঙ্কে তোমার অনেক সঞ্চিত টাকা আছে। তার মধ্যে থেকে ১০ হাজার নিয়ে একটা বাড়ি করছ। এটি প্রারব্ধ। এই জীবনটাই প্রারব্ধ নিয়ে—প্রারব্ধের সবটুকু খরচ হবে। যেটুকু খরচ হলো না সেটা এবং ক্রিয়মাণ কর্মের ফলে আবার জন্ম হবে। 
সেবক: আচ্ছা, এই কর্মফল থেকে কি মুক্তি নেই?
মহারাজ: কেবল জ্ঞান হলে মুক্তি। জ্ঞান হলেই সঞ্চিত কর্মফল থেকে রেহাই পায়, তাছাড়া উপায় নেই। প্রারব্ধ ভোগ করতেই হবে। তবে জ্ঞানীর চোখে প্রারব্ধ ভোগ কীরকম? ‘নৈব কিঞ্চিৎ করোমীতি।’
সেবক: আমাদের এই যে সৎকাজ, পরোপকার—এতে কি আমরা মুক্তির পথে চলছি? 
মহারাজ: পুণ্যকর্মে স্বর্গলাভ, তারপর আবার জন্ম। যদি নিষ্কামভাবে করতে পার তবেই মুক্তি, নতুবা নয়। তবে কর্ম ছাড়া চিত্তশুদ্ধি হবে না। চিত্ত শুদ্ধ হলে তবে তাতে জ্ঞানের বিকাশ হবে। ‘শ্রবণাদি শুদ্ধচিত্তে করয়ে উদয়।’ আবার জ্ঞান না থাকলে তাঁতে অনুরাগ থাকবে না। তাঁতে অনুরাগ না থাকলে যোগ তো হবেই না—নিষ্কামভাবে কর্ম ও ঠাকুরের সেবাও হবে না। ফলে কর্মবন্ধন রয়ে যাবে। মনের মূল সুরটি কী তা ধরার চেষ্টা করো। মনকে নিত্য দিনশেষে জিজ্ঞাসা করো, ‘মন কী চাস—কাম, ক্রোধ, লোভ, মান, যশ—কী চাস?’ যদি মনে কর, বেশ আছি, কর্মক্ষেত্রে মর্যাদা হয়েছে, মান হয়েছে, চারিদিকে নাম ছুটেছে আর মনে মনে ভাবছ—প্রভুর কী অসীম কৃপা! আমাকে এত গৌরবের আসনে বসিয়েছেন! জানবে, এসব ভোগেচ্ছা। গৃহস্থরা যে বলে—সুন্দরী স্ত্রী হয়েছে, ছেলে হলো, বেশি মাইনে হলো—প্রভুর কৃপাতেই হয়েছে; জেনো এই দুয়ের মধ্যে কোনো তফাতই নেই। যদি তুমি এতেই সন্তুষ্ট থাক, তবে এই পাবে—এর ফলও পাবে। কেবল যে তাঁকে চায়—সেই কেবল এর বাইরে যেতে পারে। ‘কাম এষ ক্রোধ এষ রজোগুণসমুদ্ভবঃ।’ মনের কোণে কামনা-বাসনা থাকলে, বাধা পেলেই মানুষ চটে ওঠে। অনেকসময় ভাবি—আমি ঠাকুরের সেবাজ্ঞানেই কাজ করছি, আমি নিষ্কাম। কিন্তু চেনা যাবে তোমার মনের খবর—কর্মক্ষেত্রে নিষ্কাম হলে হবে ‘রাগদ্বেষবিযুক্তৈস্তু’।
স্বামী সুহিতানন্দ সম্পাদিত ‘সারগাছির স্মৃতি’ থেকে

23rd     December,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ