বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
অমৃতকথা
 

লীলাতত্ত্ব

মা লীলাময়ী। লীলা করিতেই মায়ের নানাভাবে আত্মপ্রকাশ। লীলাতত্ত্ব দুর্জ্ঞেয়। সাধারণ মানব উহা অবধারণ করিতে পারে না। কিন্তু ব্রহ্মর্ষি, মহর্ষি ও সিদ্ধর্ষিবৃন্দ লীলাময়ীর ভোগ ও মোক্ষপ্রদ চাতুরী অবধারণ করিবার নিমিত্ত দৃঢ়ভাবে আত্মনিয়োগ করিয়াছিলেন। স্বকীয় হৃদয়কন্দরে বোধ বিকাশের স্তরে স্তরে বিশ্বপ্রকৃতির নিয়ামিকা মা’কে তাঁহারা উপলব্ধি করিতে সক্ষম হইয়াছিলেন বহু অক্লান্ত চেষ্টার ফলে। জীবে জীবে ব্রহ্মশক্তি মায়ের দশবিধ অপ্রাকৃত গুণময় তনু বিস্তারের মোহনরূপ দর্শন করিয়া তাঁহারা হইয়াছিলেন বিদিতবেদ্য-পূর্ণতৃপ্ত সুতরাং আত্মকাম। কাজেই দশমহাবিদ্যা ঋষিদের সত্যানুভূতিরই রূপায়ণ। সাধন অধিকারের ক্রমবিকাশের পথে সাধক যতটুকু অগ্রসর হইতে পারেন মহাবিদ্যা অধ্যয়নের যোগ্যতা তাঁহার লাভ হইয়া থাকে ঠিক্‌ ততটুকু। ইহা অভ্রান্ত সত্য। অতএব ঋষির দিব্য সংবেদনের অনুবেদনবাহী এক একটি প্রতীক সম্বন্ধে যথাযথ জ্ঞান লাভ করিতে হইলে আমাদের বুদ্ধি-সত্তাকে তপোজ্জলা ঐ ঋষিদৃষ্টির তলে তলে পরিচালিত করিতে হয়, নচেৎ ঋষিশিল্পের যথার্থ জ্ঞান অর্জন করা যায় না, অথবা আপন মতি অনুসারে ঋষির আবিষ্কৃত প্রতীক সম্বন্ধে তথ্য উদ্‌ঘাটন করিতে অগ্রসর হইলেই হয় বিপদ। মুখ্য বিষয়কে গ্রহণ করিতে না পারিয়া আমাদের মূল্যবান সময়ের অপচয় করা হয় অযথা ধারণায় ও অযথা কথার অবতারণায়। ইহাতে উদ্দেশ্য সিদ্ধি দূরে থাকুক বিশেষ করিয়া আমাদিগকে নির্ব্বোধ বনিয়া যাইতে হয়। আপনার আচরিত ধর্ম্ম-কর্ম্মের মর্ম্ম কথা যাহারা অবগত নহে তাহারা নিতান্ত অসহায়। বিদ্বজ্জন সমাজে আত্মরক্ষা করিবার মত তাহাদের কোন উপায় নাই। তাহারা অন্যের নিকট হেয় ও কৃপার পাত্ররূপে বিবেচিত হইয়া পড়ে। সে যাহা হউক, তত্ত্বদর্শী ঋষিদের যে পথ—সে পথের অনুসরণ করিয়া শত সহস্রলোক বিদিতবেদ্য হইয়া গিয়াছেন, বহুজন সংসেবিত বহুকাল পরীক্ষিত সেই ঋষিপথের অনুসরণ করাই আমাদের পক্ষে শ্রেয়ঃ। ঋষিপথের অনুগমন করিতে যাইয়া বোধবিকাশের প্রতিটি স্তর অধ্যয়ন করা আমাদের ন্যায় অজ্ঞ জনসাধারণের পক্ষেও যেভাবে সহজ হইয়া যায় অথবা অধ্যয়ন করা সম্ভবপর হইয়া উঠে, তাহারই বিশদ আলোচনা করিতে যাওয়া উচিত। তাই আমাদের আলোচনার বিষয়বস্তু হইতেছে সর্ব্বপ্রথম মহাবিদ্যা ‘মা-কালী’। ভাবময় কালীরহস্যে অবগাহন করিতে হইলে আমাদের দৃষ্টি আকৃষ্ট হয় সর্ব্বাগ্রে শবরূপী ঐ শিবে। শিব চিরশায়িত। জাগে প্রশ্ন এই শবরূপী শিব কি? ঋষি বলেন:—“শিবং শান্তম্‌ অদ্বৈতং সুন্দরং ব্রহ্ম”। অদ্বৈত ব্রহ্মই শিব। কিন্তু এই শান্ত অদ্বৈত ব্রহ্মসত্তাকে ঋষি পুনরায় বলিয়াছেন সুন্দর। নিরঞ্জন ব্রহ্মসত্তাকে সুন্দর বলিবার তাৎপর্য্য কি? ইহার অনুশীলন করিতে গিয়া আমরা দেখিতেছি-সুং দৃণাতীতি সুন্দরম, সু’কে বিদীর্ণ করিয়াই ইনি সুন্দর। 
শ্রীমৎ অদ্বৈতানন্দ পুরীর ‘শ্রীশ্রী দশমহাবিদ্যা’ থেকে

24th     October,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021