বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
অমৃতকথা
 

আত্মা

আমি তোমাকে জ্ঞান দান করিতে পারি না, কেবল কৌতূহল জাগিবার সহায়তা করিতে পারি। তোমার আত্মা তো’ নিজেই সর্ব্বজ্ঞ, তাঁহাকে আবার কি শিখাইতে যাইব? মনে কৌতূহল জাগিলে আত্মায় সাড়া পড়ে। তখন তিনি নিজেই উত্তর দিয়া অশান্ত মনকে শান্ত করিয়া দেন। তোমরা জগৎ-কল্যাণব্রতী, পরার্থে উৎসর্গীকৃতজীবন, ব্রহ্মচারী। তোমাদের কৌতূহলকে অখণ্ড পরমার্থ-তত্ত্বে যেমন জাগাইয়া রাখা প্রয়োজন, আবার ইহজগতের দুঃখ-ক্লেশ-পীড়িত, শোক-তাপ-মর্দ্দিত দীন-দরিদ্র ভ্রাতা-ভগ্নীগুলির দিকেও তেমনই সজাগ করা প্রয়োজন। নিজের মুক্তিই তোমাদের তো’ লক্ষ্য নহে। সবাকার মুক্তি সহজ লভ্য করিবার জন্য নিজের মুক্তিকে তুচ্ছ ও অগ্রাহ্য করিয়াই ত’ তোমরা অন্বর্থনামা ও ধন্যজন্মা। তাই, সেবাধর্ম্ম পালন করিতে যাইয়া তোমাদিগকে জগতের প্রত্যেকেরই সেবক হইতে হইবে। তোমার বিশ্বময় প্রভুকে নিখিল ভুবনের সকল কিছুর মধ্যে দর্শন করিয়া তাঁহার সম্যক সেবা-সাধনের প্রচেষ্টাতেই তোমার মানব-জন্ম লাভের সার্থকতা। তুমি আর তোমার পরমোপাস্যে কোন পার্থক্য নাই। তিনি সেব্য, তিনিই সেবক হইয়াছেন, পুত্রের মধ্যে পিতাই বিরাজ করিতেছেন, পিতার মধ্যেই পুত্র রহিয়াছেন। স্বীকার করিলেই এই দ্বিত্বের পার্থক্য থাকে, স্বীকার না করিলে থাকে না। যখন দ্বিত্ব স্বীকার করিবে, তখন জগৎসেবায় ভগবৎ-সেবা হইবে; যখন ইহা স্বীকার করিবে না, তখন জগৎ-সেবায় আত্মসেবা হইবে। যাহার হিসাবের খাতায় একমাত্র আত্মা ব্যতীত অপর কাহারও নামে কোনও জমা বা কোন কিছুরই অঙ্কপাত থাকে না, তার পক্ষে আত্মসেবাই চরম-চরিতার্থতার সেবা; আবার এক আত্মা ব্যতীত অপর কিছুরই সংবাদ যিনি জানেন না, তিনি আত্মার সেবা করিয়াই জগতের সেবা করেন। জ্ঞানী ব্যক্তি যাহাই বলুন, এই চর্ম্মচক্ষু-গ্রাহ্য জগৎটীও একান্তই মায়া নহে। তোমার অসীম, অমিত, অপার শক্তি সীমাবদ্ধতার সংস্কারজালে ঘেরা পড়িয়াছে,—এই জালের দড়ি তোমাকে ছিঁড়িতে হইবে। জালের আবেষ্টনের মধ্যে থাকিয়াই যেটুকু বল প্রয়োগ সম্ভব, তুমি অবশ্যই তার সবটুকুর সদ্ব্যবহার করিবে। এখন তোমার শক্তি সসীম, কিন্তু জাল ছিঁড়িলেই অসীম হইবে। বর্ত্তমানে তোমার সামর্থ্যের পুঁজি কম থাকিলেও তোমাকে ভাবনায় পড়িলে চলিবে না। নির্ভয় হইয়া, যেটুকু সম্বল আছে বলিয়া অনুভব কর, সেইটুকুকেই কাজে লাগাইয়া তাহাকে নিঃশেষে সার্থক করিতে প্রয়াসী হইবে। দেহ ও মন এই দুইটী যন্ত্র-সহায়ে তোমার আভ্যন্তরীণ শক্তিপুঞ্জ প্রয়োজিত এবং অভিব্যঞ্জিত হইতেছে, দেহ যদি একটী দশ-মর্দ্দা হইয়া থাকে, মন তাহা হইলে একটি বিশ-মর্দ্দা। ‘‘মারো ধাক্কা হেইয়োঁ’’—বলিয়া দশ-মর্দ্দা দিয়া ধাক্কা দাও, গায়ে তৎক্ষণাৎ জোর আসিবে, কার্য্য-সিদ্ধি ত’ হইবেই। প্রয়োগেই শক্তির উপচয় এবং সার্থকতা, অবশ্য অপ্রয়োগে নহে। তোমার দেহে আধ-ছটাকের বেশী সামর্থ্য না থাকিতে পারে, কিন্তু এটুকুই তুমি কাজে লাগাও। কম আছে তো’ আছে, কিন্তু কম বলিয়া কোন কাজে না লাগিয়া সে অব্যবহারে বৃথাই শুকাইয়া মরিয়া যাইবে কেন? ছেঁড়া কাঁথায় রাজা-রাজড়ার সেবা না হইতে পারে, দীন-কাঙ্গালের কি কোন প্রয়োজনে উহা লাগিবে না? 
স্বামী স্বরূপানন্দ পরমহংসদেবের ‘আপনার জন’ থেকে

21st     September,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021