বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
খেলা
 

প্রিয় ক্লাব স্পোর্টিং
ইউনিয়নে ব্রাত্য পঙ্কজ রায়

সৌগত গঙ্গোপাধ্যায়, কলকাতা: ১৯৫২ সালের ১০ ফেব্রুয়ারি। প্রথমবার টেস্ট ম্যাচ জয়ের স্বাদ পেয়েছিল ভারত। উল্টোদিকে ছিল ইংল্যান্ড। চিপকে ঐতিহাসিক সেই জয়ের অন্যতম কারিগর ছিলেন এক বাঙালি— পঙ্কজ রায়। তাঁর ১১১ রানের ইনিংসে ভর করেই এসেছিল সাফল্য। চশমাধারী সুদর্শন ব্যাটসম্যান দেখিয়েছিলেন, বাঙালিরাও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে দাপট দেখাতে পারে। এরপর ১৯৫৫-৫৬ মরশুমে চেন্নাইয়েই নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে ওপেনিংয়ে ভিনু মানকড়ের সঙ্গে ৪১৩ রান যোগ করেন তিনি। সেই রেকর্ড আজও অমলিন ক্রিকেটপ্রেমীদের মনে। হতে পারে বাঙালির বর্তমান ‘রোল মডেল’ সৌরভ গাঙ্গুলি, কিন্তু বাইশ গজে প্রথম বঙ্গযোদ্ধা ছিলেন পঙ্কজ রায়ই। দুঃখের বিষয়, প্রাপ্য সম্মান কখনও পাননি তিনি। এমনকী, প্রিয় ক্লাব স্পোর্টিং ইউনিয়নেও আজ তিনি উপেক্ষিত। ক্লাব তাঁবুতে তাঁর একটি ছবিও চোখে পড়ল না। 
ঘরোয়া ক্রিকেটে এক সময় বড় দলের মর্যাদা পেত স্পোর্টিং ইউনিয়ন। ক্লাব ক্রিকেটে পঙ্কজ রায় সেই ঐতিহ্যশালী ক্লাবেরই জার্সি গায়ে চাপিয়েছিলেন। আজীবন ছিলেন ক্লাব অন্তপ্রাণ। বার বার ফিরিয়েছেন মোহন বাগান-ইস্ট বেঙ্গলের প্রস্তাব। সেই প্রিয় ক্লাবই তাঁকে সেভাবে মনে রাখেনি! কেন এই অবহেলা? স্পোর্টিং ইউনিয়ন কর্তাদের বক্তব্য, ২০২০ সালের উমপুন ঝড়ে উড়ে গিয়েছিল ক্লাব তাঁবুর ছাউনি। তখনই পঙ্কজ রায়ের ছবি সহ ক্লাবের আরও অনেক সম্পদ নষ্ট হয়ে যায়। কিন্তু সেই প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের পর দীর্ঘ দু’বছর অতিক্রান্ত। নতুন সাজে সেজেছে তাঁবু। কিন্তু ফেরেনি পঙ্কজ রায়ের কোনও স্মৃতিচিহ্ন। অভিমান ঝরে পড়ল পঙ্কজ রায়ের পুত্র প্রণব রায়ের কণ্ঠে। প্রাক্তন এই টেস্ট ক্রিকেটারের কথায়, ‘সত্যিই খুব দুর্ভাগ্যজনক। স্পোর্টিং ইউনিয়নের সঙ্গে বহু স্মৃতি জড়িয়ে রয়েছে আমাদের পরিবারের। কত কিছুই না দিয়েছি আমরা। শুধু বাবা একাই নন, অম্বর রায় ও নিমাই রায়, এমনকী আমি নিজেও দীর্ঘদিন স্পোর্টিংয়ের হয়ে খেলেছি। কাউকেই ওরা যোগ্য সম্মান দেয়নি। তবে এটা নিয়ে আর ভাবি না।’ এই প্রসঙ্গে ক্লাবের চিফ প্যাট্রন শিবাজি রায় জানান, ‘পঙ্কজ রায়ের প্রতি আজও আমার অগাধ সম্মান রয়েছে। আসলে উমপুন ঝড়ে সব ছবি নষ্ট হয়ে গিয়েছে। নতুন করে আবার ছবি বসানোর চেষ্টা চলছে।’ 
কালের নিয়মে অতীতের জৌলুস হারিয়েছে স্পোর্টিং। তাদের ফুটবল টিম আগেই প্রথম ডিভিশন থেকে নেমে গিয়েছে। গত মরশুমে ক্রিকেট টিম অবনমন এড়িয়েছে কোনওক্রমে। ক্লাব কর্তাদের অবহেলাতেই এই করুণ দশা। সবই এখন বেদনায় ভরা মধুর স্মৃতি!

4th     July,   2022
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ