বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
খেলা
 

মোহন বাগানের সামনে মাজিয়া
গোকুলামের হার প্রার্থনায় মগ্ন প্রীতমরা

অভিজিৎ সরকার, কলকাতা: অঙ্ক তো জীবনের পরতে পরতে। ফুটবলেই বা থাকবে না কেন? এএফসি কাপে গ্রুপ-ডি’র ভাগ্য নির্ধারণ অনেকটাই অঙ্কের উপর দাঁড়িয়ে। মঙ্গলবার যুবভারতী ক্রীড়াঙ্গনে গ্রুপের শেষ দু’টি ম্যাচ। প্রত্যেকের ঝুলিতে তিন পয়েন্ট। এমনই একটা পরিস্থিতি, প্রত্যেকটি দলেরই জোনাল সেমি-ফাইনালে খেলার সুযোগ রয়েছে। 
মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে চারটেয় খেলবে গোকুলাম কেরল ও বসুন্ধরা কিংস। রাত সাড়ে আটটায় মুখোমুখি মালদ্বীপের মাজিয়া ও এটিকে মোহন বাগান। প্রথম ম্যাচে কেরলের দলটি জিতলে ফেরান্দোর দলের কাছে ম্যাচটি হবে নিয়মরক্ষার। সেক্ষেত্রে রয় কৃষ্ণাদের জিতেও কোনও লাভ হবে না। কারণ ‘হেড টু হেডে’ এগিয়ে থেকে গোকুলাম পরবর্তী রাউন্ডে উঠবে। কিন্তু বসুন্ধরা জিতলে বা ম্যাচটি ড্র হলে জয়ের জন্য মরিয়া হবে সবুজ-মেরুন ব্রিগেড। বাংলাদেশ ও কলকাতার দল জিতলে ‘হেড টু হেড’ নিয়মের সুবিধা পাবে মোহন বাগান। আর দু’টি ম্যাচই ড্র হলে চারটি দলের পয়েন্ট সমান (৪) হবে।  সেক্ষেত্রে বিজয়ী দলের ভাগ্য নির্ধারণ হবে গোল পার্থক্যে। লিস্টনরা আপাতত এই অঙ্কে এগিয়ে রয়েছেন (+২)। 
সাধারণত এমন পরিস্থিতিতে একই সময়ে দু’টি ম্যাচ শুরু করা উচিত। কিন্তু ম্যাচ কমিশনার বলছেন, বিকল্প ভেন্যু নেই। এটিকে মোহন বাগান কোচ হুয়ান ফেরান্দোর কথায়, ‘প্রথম ম্যাচে বসন্ধুরা জয় পেলে আমাদের মানসিক প্রস্তুতি নিয়ে মাঠে নামতে সুবিধা হবে। কলকাতার ফুটবলপ্রেমীরা নিশ্চয়ই  গোকুলামের হার প্রার্থনা করছেন। আমি জয় ছাড়া কিছু ভাবছি না। তারপর যা হওয়ার হবে।’ অধিনায়ক প্রীতম কোটালের গলায়ও এক সুর, আগে জয়। তারপর অঙ্ক।
গোকুলামের কাছে হারের বেদনা এখনও রয়েছে মোহন বাগান ফুটবলারদের। ওই ম্যাচ জিতলে এই পরিস্থিতিতে পড়তে হতো না সবুজ-মেরুন ব্রিগেডকে। প্রীতম বলছেন, ‘গোকুলামের বিরুদ্ধে তিরির চোট পাওয়াটা বড় ফ্যাক্টর হয়ে গেল। বসুন্ধরার বিরুদ্ধে সন্দেশ ঝিংগান রক্ষণে নির্ভরতা দিয়েছে। ওর সঙ্গে অনেকদিন ধরে খেলছি। বোঝাপড়া ভালো।’
রবিবার রাতে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের খেতাবি লড়াইয়ে ম্যাঞ্চেস্টার সিটির মেজাজি জয় দেখে উদ্বুদ্ধ মোহন বাগান কোচ ফেরান্দো। পুরো ম্যাচটি দেখেছেন তিনি। তাঁকে প্রশ্ন করা হয়, মাজিয়ার খেলার ধরন অনেকটা আপনার দলের মতো। এতে কি সুবিধা পাওয়া যাবে? স্প্যানিশ কোচ বলছেন, ‘পরিস্থিতি অনুযায়ী পরিকল্পনার তারতম্য ঘটে। ম্যান সিটি শেষ ২০ মিনিটে ছারখার করেছে অ্যাস্টন ভিলাকে। ঝড়ের গতিতে উইং স্ট্রেচ করে অ্যাটাকিং থার্ডে ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছে। প্রতিটি দলেরই কিছু না কিছু বিশেষত্ব থাকে। মাজিয়া শক্তিশালী প্রতিপক্ষ। তবে ওদের চ্যালেঞ্জ সামলাতে তৈরি আমরা।’ 
চোটের কারমে হুগো বোমাস এই ম্যাচেও নেই। তাই মোহন বাগানের উইনিং কম্বিনেশন অপরিবর্তিত থাকার সম্ভাবনাই বেশি। মাজিয়ার সার্বিয়ান কোচ  মিওড্রাগ জেসিচ বলছেন, ‘এটিকে মোহন বাগান রক্ষণের দুর্বলতা কাজে লাগিয়ে জিততে চাই। তার আগে তো গোকুলামের জয় বা ড্র প্রয়োজন।’ সবমিলিয়ে দু’টি দলের কাছেই ফ্যাক্টর আই লিগ জয়ী ক্লাবটি। তাদের ইতালিয়ান কোচ ভিনসেঞ্জো আলবার্তোর সাফ কথা, ‘কার কী সুবিধা-অসুবিধা, তা বোঝার প্রয়োজন নেই। জিতে পরের রাউন্ডে যাওয়াই লক্ষ্য।’

24th     May,   2022
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ