বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
খেলা
 

শততম টেস্টে নেতৃত্বের
প্রস্তাব ফেরান বিরাট

নয়াদিল্লি: চাইলেই শততম টেস্টে নেতৃত্ব দিতে পারতেন বিরাট কোহলি। ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড সেই প্রস্তাব দিয়েওছিল তাঁকে। কিন্তু তা গ্রহণ করেননি তিনি। চাননি, শততম টেস্ট হোক অধিনায়ক হিসেবে তাঁর বিদায়ী ম্যাচ। মাইলস্টোন ম্যাচে কোনওরকম জাঁকজমকও চান না অভিমানী ভিকে। 
ফেব্রুয়ারির শেষের দিকে বেঙ্গালুরুতে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে টেস্ট হতে চলেছে বিরাটের শততম ম্যাচ। অর্থাৎ, আইপিএলে যা তাঁর নিজের মাঠ, সেই চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামেই ২৫ ফেব্রুয়ারি শততম টেস্ট খেলতে নামবেন তিনি। খবরে প্রকাশ, শুক্রবার তিনি বোর্ড কর্তাদের জানিয়েছিলেন টেস্টের নেতৃত্ব ছাড়ার সিদ্ধান্ত। তখন তাঁকে নিজের শততম টেস্টে শেষবার অধিনায়কত্ব করার অনুরোধ জানানো হয়। আশ্বাস দেওয়া হয়, শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে সেই টেস্ট ম্যাচ জমকালোভাবে আয়োজন করা হবে। কিন্তু তিনি তা একেবারেই চাননি। উল্টে কর্তাদের মুখের উপর বলে দেন, ‘একটা ম্যাচ নেতৃত্ব দিয়ে আর কী হবে! আমি এমন মানসিকতার মানুষ নই।’ বিশেষ সূত্রে জানা গিয়েছে যে, কোহলির অটল মনোভাবের পরিপ্রেক্ষিতে সেই ভাবনা পরিত্যাগ করতে বাধ্য হয় বিসিসিআই। শোনা যাচ্ছে, কেপ টাউনে সিরিজ হারের পরই ড্রেসিং রুমে প্রধান কোচ রাহুল দ্রাবিড়কে নিজের সিদ্ধান্তের কথা প্রথম জানান কোহলি। গোটা দল তখন সিরিজ হারের যন্ত্রণায় মুহ্যমান। তারপর বিসিসিআইকে এই ব্যাপারে অবহিত করেন বিরাট। বলেন যে, টেস্ট সিরিজ হারের হতাশা গ্রাস করেছে তাঁকে। নেতৃত্বের যাবতীয় দায়িত্ব থেকে মুক্ত হয়ে এখন শুধুই ব্যাটসম্যান হিসেবে খেলতে চান তিনি।
সাত বছর আগে অ্যাডিলেড টেস্টে অধিনায়ক হিসেবে অভিষেক হয়েছিল কোহলির। একসময় তাঁর অঙ্গুলি হেলনেই চলেছে ভারতীয় ক্রিকেট। নিজের পছন্দমতো দল চালিয়েছেন তিনি। কিন্তু ক্রমশ বোর্ডের সঙ্গে সম্পর্ক তলানিতে এসে ঠেকে। কোহলি বুঝতে পারেন, নেতা হিসেবে আগের মতো দাপট দেখানো সম্ভব নয় তাঁর পক্ষে। ব্যাটেও দীর্ঘদিন ধরে রান খরা দেখা দিয়েছে। দু’বছরের বেশি সময় আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আসেনি শতরান। পাশাপাশি আইসিসি টুর্নামেন্টে কোনও সাফল্য না পাওয়াটাও তাঁকে ক্রমশ কোনঠাসা করেছে। তারই জেরে কুড়ি ওভারের ফরম্যাটে স্বেচ্ছায় নেতৃত্ব ছেড়ে দেওয়ার আগাম ঘোষণা করেছিলেন তিনি। এরপর ওয়ান ডে’র নেতৃত্ব থেকে ছেঁটে ফেলা হয় তাঁকে।দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে রওনা হওয়ার আগে বোর্ড প্রেসিডেন্ট সৌরভ গাঙ্গুলির মন্তব্যের বিরোধিতা করে সংঘাতের রাস্তাই বেছে নেন বিরাট। টেস্ট সিরিজ জিতলে হয়তো আচমকা নেতৃত্ব ছাড়ার কথা ভাবতেন না তিনি। কিন্তু এই পরাজয়ের পর উদ্যমেও টান পড়ে কোহলির। তাই ভেবে নেন যে, আর বোর্ডের সঙ্গে ছায়াযুদ্ধ করে লাভ নেই। তার চেয়ে ব্যাট হাতে চাপমুক্ত পারফরম্যান্সে মন দেওয়াই শ্রেয়। সেজন্যই সরে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন টেস্টে ভারতের সফলতম অধিনায়ক।

18th     January,   2022
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ