বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
খেলা
 

মাঠে উঠুক লাল-হলুদ ঝড়, চাইছেন বিভাস-মনোময়
ইস্ট বেঙ্গলের সঙ্গে জড়িত
বাঙাল-অস্মিতা: শীর্ষেন্দু 

চুক্তিপত্র নিয়ে  নজিরবিহীন মতবিরোধ ভুলে এখনই দল গড়ার কাজে ঝাঁপাতে  শ্রী সিমেন্ট কর্তাদের অনুরোধ করেছেন একঝাঁক প্রাক্তন বিশিষ্ট খেলোয়াড়।  সমাজের অন্য জগতের বিশিষ্ট ব্যক্তিত্বরা এই নিয়ে কী ভাবছেন? তিন সেলিব্রিটি লাল-হলুদ সমর্থকের বক্তব্য শুনলেন জয় চৌধুরি।

শীর্ষেন্দু মুখোপাধ্যায় : আইএসএল এখন দেশের সেরা লিগ। সেই প্রতিযোগিতায় ইস্ট বেঙ্গল না খেলার কথা ভাবতেই পারছি না। কষ্টে বুকের ভিতরটা আনচান করছে। জানি, দল গড়া এবং তা চালানোর জন্য এখন প্রচুর অর্থের প্রয়োজন। তাই লগ্নিকারী সংস্থার প্রয়োজন অবশ্যই আছে। চুক্তিপত্র সম্পর্কিত বিবাদ দূরে রেখে দল গড়তে হবে। তবেই তো আইএসএল এবং কলকাতা লিগ দাপাবে লাল-হলুদ ব্রিগেড। ইস্ট বেঙ্গলের সঙ্গে জড়িত আছে বাঙালদের অস্মিতা। ১৯২০ সালে প্রতিষ্ঠা হলেও দেশভাগের আগে পর্যন্ত ইস্ট বেঙ্গলের পিছনে তেমন জনসমর্থন ছিল না। তারপর ওপার বাংলা থেকে আগত মানুষজন জীবনসংগ্রামে পাথেয় করেছিল লাল-হলুদ মঞ্চকেই। আমার কাছে লড়াই এবং ইস্ট বেঙ্গল, এই শব্দ দু’টি সমার্থক। কিন্তু সেই ক্লাব না খেললে ধূসর হতে বাধ্য লড়াইয়ের ময়দান। ১৯১১ সালে আইএফএ শিল্ডে চ্যাম্পিয়ন হয়ে দেশবাসীকে গর্বিত করেছিল মোহন বাগান। তবে দেশভাগের পর কল্লোলিনী তিলোত্তমায় লাল-হলুদ সমর্থকের সংখ্যা বাড়ল। বাঙালির আবেগে মিশল ইস্ট বেঙ্গল-মোহন বাগান। আইএসএলে সেই প্রতিদ্বন্দ্বিতা না থাকলে সবুজ-মেরুন অনুরাগীরাও নিশ্চয়ই কষ্ট পাবেন।

বিভাস চক্রবর্তী: ওপার বাংলা থেকে আসা উদ্বাস্তুদের অনেকেই আমার মতো নিজের ‘আইন্ডেটিটি’ খুঁজে পেতে আঁকড়ে ধরেছে ইস্ট বেঙ্গলকেই। সমর্থকদের আবেগকে মূলধন করে স্বাধীনতার পর দারুণভাবেই এগিয়ে চলছিল প্রাণের ক্লাব। কিন্তু কালের নিয়মে দল চালাতে আরও বেশি অর্থের প্রয়োজন। তাই বিনিয়োগকারী আনতে গিয়ে তাড়াহুড়ো করে টার্মশিটে সই করেছেন কর্তারা। অবশ্যই তা ভালো করে পড়ে দেখা উচিত ছিল। চুক্তিপত্র আমি দেখিনি। তবে শুনেছি, সমর্থকদের আবেগকে গুরুত্ব দেওয়া হয়নি। যা অনুচিত। এবার প্রতিবেশী ক্লাব এটিকে মোহন বাগান বেশ ভালো দল গড়েছে। ওরা আইএসএল খেলবে আর আমরা থাকব বাইরে? যাবতীয় ভুল বোঝাবুঝি মিটিয়ে দল গড়ুক বিনিয়োগকারীরা। তবেই তো মাঠে লাল-হলুদ ঝড় দেখা যাবে। দলের নিয়ন্ত্রণ থাকুক লগ্নিকারী সংস্থার কাছেই। তবে ক্লাবের ঐতিহ্য বেহাত  না হওয়ার ব্যাপারটি মাথায় রাখতে হবে কর্তাদেরও। আধুনিকতার ছোঁয়া অবশ্যই প্রয়োজন। তবে তা কখনও অতীতকে ভুলে গিয়ে নয়।

মনোময় ভট্টাচার্য:  আমি বাঁকুড়ার ছেলে। এদেশি। কিন্তু ইস্ট বেঙ্গলের সমর্থক। সাদা-কালো টিভিতে সাব্বির আলি-সুরজিৎ সেনগুপ্তদের খেলা দেখেই লাল-হলুদের প্রেমে পড়া। এই দুই রঙের কাপড় কেটে নিজের হাতে জার্সি বানিয়েছিলাম। সুতো দিয়ে লিখেছিলাম ১০ নম্বর। ফুটবল আর ইস্ট বেঙ্গল আমার কাছে সমার্থক। এখনও প্রিয় দলের খেলার দিনক্ষণ দেখে স্টেজ পারফরম্যান্সের সময় বের করি। শুনছি, চুক্তিপত্রের কচকচানিতে  এবার আমার ইস্ট বেঙ্গল দল গড়বে না। ফুটবল রাইটস রয়েছে লগ্নিকারী সংস্থার কাছে। তাই আমার অনুরোধ, বিতর্ক ঝেড়ে ফেলে শক্তিশালী দল গড়ুন। প্রয়োজনে কর্তাদের পরামর্শ নিন। তবেই তো ইস্ট বেঙ্গল ভারতসেরা হবে।

31st     July,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
31st     May,   2021
30th     May,   2021