বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
খেলা
 

ইতিহাসই সাহস
জোগাচ্ছে নাইটদের

 

চেন্নাই: বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়কের হাত ধরে সাফল্যের খোঁজে কলকাতা নাইট রাইডার্স। গতবারের মতো প্রতিযোগিতার মাঝপথে নয়, এবার শুরু থেকেই নাইটদের দলপতির ভূমিকায় ইয়ন মরগ্যান। রবিবার চিপকে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে আইপিএল অভিযান শুরুর আগে নেতা মরগ্যানের জাদুর দিকেই তাকিয়ে সমর্থকরা।
নতুন মরশুমে দলে ভারসাম্য আনাই চ্যালেঞ্জ নাইটদের। সেই জন্য ফেরানো হয়েছে সাকিব-আল হাসানকে। নেওয়া হয়েছে বর্ষীয়ান হরভজন সিংকেও। কেকেআরের ওয়েবসাইটে মরগ্যান বলেওছেন, ‘নিলামে আমরা গভীরতা বাড়ানোর দিকেই নজর দিয়েছিলাম। আশা করি, সুফল মিলবে।’ মনে করা হচ্ছে যে, কলকাতার ওপেনিংয়ে শুভমান গিলের সঙ্গী হবেন রাহুল ত্রিপাঠি। গিলকে নিয়ে উচ্ছ্বসিত মরগ্যান বলেছেন, ‘কেরিয়ারের শুরুতে অস্ট্রেলিয়ায় টেস্ট সিরিজ জয়ে বড় অবদান রাখতে পারাটা দারুণ কৃতিত্বের ব্যাপার। ওর মতো প্রতিভাবান ক্রিকেটার আমাদের স্কোয়াডের বড় সম্পদ। ওকে নিয়ে আমি দারুণ আশাবাদী।’ ব্যাটিং অর্ডারে পরপর আসবেন নীতীশ রানা, অধিনায়ক মরগ্যান, দীনেশ কার্তিক, আন্দ্রে রাসেলরা। গত মরশুমে রাসেল একেবারেই ছন্দে ছিলেন না। নয় ইনিংসে তাঁর গড় ছিল মাত্র ১৩। তবু স্লগ ওভারে রাসেলের পেশিশক্তির দিকে তাকিয়ে থাকছে কেকেআর শিবির। 
সুনীল নারিন বা সাকিবের মধ্যে খেলবেন কোনও একজন। নারিন ক্রমশ অতীতের ছায়া হয়ে উঠেছেন। তাই সাকিবের সম্ভাবনাই বেশি বলে মনে করা হচ্ছে। যদিও তাঁদের চয়নের বিষয়টি রহস্যাবৃতই রেখেছেন মরগ্যান। তিনি বলেছেন, ‘চাপের মুহূর্তে আমরা বল তুলে দিই নারিনের হাতে। এমন পরিস্থিতিতে ও আগেও সাফল্য পেয়েছে। কঠিন মুহূর্তে দলকে জেতানোর ক্ষমতা রাখে সে। অন্যদিকে, সাকিবের মতো স্পিন বোলিং অলরাউন্ডার থাকা মানে দলের শক্তি ও গভীরতা বেড়ে যাওয়া। সুযোগ পেলে সেও নিশ্চিতভাবেই সফল হবে।’ পেসার হিসেবে প্যাট কামিন্স ও প্রসিদ্ধ কৃষ্ণ দলে থাকছেনই। বাড়তি পেসার খেলানো হলে সুযোগ পেতে পারেন লকি ফার্গুসন, শিবম মাভি ও কমলেশ নাগরকোটির মধ্যে কোনও একজন। তবে চিপকের পিচ মন্থর। তাই স্পিনাররা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে পারেন। স্কোয়াডে নারিন-সাকিব তো আছেনই। এছাড়া দলে আসার লড়াইয়ে ভাজ্জি, কুলদীপ যাদবের সঙ্গে টেক্কা দিচ্ছেন গত মরশুমে নজরকাড়া মিস্ট্রি স্পিনার বরুণ চক্রবর্তীও।
সানরাইজার্স হায়দরাবাদ অবশ্য ধারে-ভারে রীতিমতো শক্তিশালী। ডেভিড ওয়ার্নারের নেতৃত্বে গত কয়েক মরশুম ধরেই তারা ধারাবহিক। ওয়ার্নারের সঙ্গে জনি বেয়ারস্টোর ওপেনিং জুটি বিপক্ষ শিবিরের কাছে ত্রাস হয়ে উঠেছে আইপিএলে। মণীশ পাণ্ডে, কেন উইলিয়ামসন, বিজয় শঙ্কর, কেদার যাদব, প্রিয়ম গর্গরা বাড়াচ্ছেন ব্যাটিং গভীরতা। স্লগ ওভারে ছয় মারার জন্য থাকছেন আব্দুল সামাদ। গত মরশুমে যথেষ্ট নজর কেড়েছিলেন তিনি। আর আছেন বাংলার ঋদ্ধিমান সাহা। আমিরশাহিতে ওপেনার হিসেবে প্রতিযোগিতার পরের দিকে নেমে ঝড় তুলেছিলেন পাপালি। এবারও নিজেকে চেনানোর বাড়তি তাগিদ রয়েছে তাঁর। কিন্তু বেয়ারস্টো থাকায় ঋদ্ধির ওপেন করা নিয়ে থাকছে সংশয়।
কমলা জার্সিধারীদের শক্তি আরও বেড়েছে চোট সারিয়ে ভুবনেশ্বর কুমার ফেরায়। তিনি যে দারুণ ছন্দে আছেন, তা বোঝা গিয়েছে ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে সদ্যসমাপ্ত সিরিজেই। পেস আক্রমণে ভুবির সঙ্গী হিসেবে রয়েছেন উদীয়মান বাঁ-হাতি পেসার টি নটরাজন। লেগস্পিনার রশিদ খান আবার মিডল ওভারে উইকেট নিতে দক্ষহস্ত। তবে কাগজকলমে সানরাইজার্সকে যতই ওজনদার দেখাক, পরিসংখ্যানে এগিয়ে নাইটরা। দুই দলের মুখোমুখি সাক্ষাতে কেকেআর ১২-৭ ফলে এগিয়ে। ওয়ার্নারদের বিরুদ্ধে গত মরশুমে দুটি ম্যাচেই জিতেছিল নাইটরা। সেই ইতিহাসই আত্মবিশ্বাস জোগাচ্ছে মরগ্যানদের।
 ম্যাচ শুরু সন্ধ্যা ৭-৩০ মিনিটে।
স্টার স্পোর্টসে সরাসরি দেখা যাবে।

11th     April,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
কিংবদন্তী গৌতম
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
12th     May,   2021