বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
খেলা
 

বিয়ে করব ক্রিকেট ছাড়ার পর,
জানালেন ঝুলন গোস্বামী 

চাকদহের গলি থেকে সাফল্যের রাজপথ। ভারতীয় মহিলা দলের প্রাক্তন অধিনায়ক ঝুলন গোস্বামীর উত্থান হার মানাবে রূপকথাকেও। পাড়ার ছেলেদের সঙ্গে ক্রিকেট খেলার জন্য একটা সময় তাঁকে গঞ্জনা শুনতে হয়েছিল। আর সেই তিনিই এখন বাকিদের অনুপ্রেরণার উৎস। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে সিরিজ শেষ করে সদ্য শহরে ফিরেছেন একদিনের ক্রিকেটে সর্বাধিক উইকেট শিকারি ঝুলন। ব্যস্ততার ফাঁকে সময় বের করে ‘চাকদহ এক্সপ্রেস’ একান্ত সাক্ষাৎকার দিলেন ‘বর্তমান’কে।

সুকান্ত বেরা , কলকাতা: প্রশ্ন: ২০০২ সাল থেকে ছুটেই চলেছে। ‘চাকদহ’ এক্সপ্রেস কবে থামবে?
ঝুলন: (হেসে বললেন) যতদিন উপভোগ করব খেলা চালিয়ে যাব। অবসরের কোনও পরিকল্পনা নেই। দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে সিরিজ খেলার সময় ডানহাতের আঙুলে চিড় ধরেছে। তাই কিছুদিন বিশ্রাম নিতে হবে। ফিট হলেই মাঠে ফিরব।
প্রশ্ন: টি-২০ থেকে আগেই অবসর নিয়েছেন। টেস্টেও অনিয়মিত। সেই কারণেই কি ওয়ান ডে’কে আঁকড়ে ধরা?
ঝুলন: না, না। টেস্ট আমার অন্যতম প্রিয় ফরম্যাট। সাদা জার্সি গায়ে মাঠে নামার আনন্দই অন্যরকম। সমস্যা হল, মেয়েদের ক্রিকেটে টেস্ট ম্যাচ খুব বেশি হয় না। এত বছরে আমি মাত্র দশটি টেস্ট খেলতে পেরেছি। সেখানে ওয়ান ডে’র সংখ্যা ১৮৫। শুনছি, এই বছরেই নাকি ইংল্যান্ডের বিরুদ্ধে টেস্ট সিরিজ হবে। তার মধ্যে ফিট হয়ে উঠলে অবশ্যই খেলব।
প্রশ্ন: একদিনের ফরম্যাটে সর্বাধিক উইকেট আপনার দখলে। এই ঘটনা কতটা তৃপ্তি দেয়?
ঝুলন: ২০০২ সালে যখন প্রথম ওয়ান ডে খেলেছিলাম, তখনও ভাবিনি কোনওদিন ২৩৫টি উইকেটের মালিক হব। এই সাফল্য খুবই তৃপ্তিদায়ক। সেই সঙ্গে তাগিদও বাড়িয়েছে। তবে রেকর্ডের কথা ভেবে খেলি না। লক্ষ্য থাকে ভালো পারফর্ম করে দলকে জেতানো। গত ১৯ বছর ধরে সেটাই করে যাচ্ছি।
প্র: এত সাফল্য, এত সম্মান। তার পরেও কি কোনও আপসোস তাড়া করে?
ঝুলন: চাওয়া-পাওয়ার হিসেব কখনও মিলিয়ে দেখিনি। তবে দু’বার বিশ্বকাপ ফাইনালে (ওডিআই) উঠে খালি হাতে ফিরতে হয়েছে। সেটাই বড় আপসোস। কারণ, বিশ্বকাপ তো ফি বছর হয় না। তাই হতাশাটা বেশি। সব কিছু ঠিক থাকলে ভবিষ্যতে আরও একবার বিশ্বকাপ জেতার চেষ্টা করব।
প্রশ্ন: চাকদহের শিকড় কি এখনও টানে?
ঝুলন: শিকড়ের টান কী সহজে যায়। সবই মনে আছে। এগুলোই তো আমাকে ভালো খেলতে অনুপ্রেরণা জোগায়। মনে পড়ে, ভোর পাঁচটার লোকালে কলকাতায় প্র্যাকটিসে আসার দিনগুলি। সুযোগ পেলে এখনও চাকহদ যাই। তবে কলকাতায় দু’টি ফ্ল্যাট রয়েছে। জাতীয় দলের খেলা না থাকলে সেখানেই থাকি। বাবা-মা’ও চলে আসেন।
প্র: ক্রিকেটপ্রেমীরা আপনাকে নিয়ে ভীষণ উৎসুক। আপনার ‘সেকেন্ড ইনিংস’ কবে শুরু হবে তা জানতে চান অনেকেই। কী বলবেন?
ঝুলন: (হেসে বললেন) কে বলল বিয়ে করব না? নিশ্চয়ই করব। তবে ক্রিকেট ছাড়ার পর।
প্র: অনুষ্কা শর্মা অভিনীত ঝুলনের বায়োপিক কবে রিলিজ করছে?
ঝুলন: শ্যুটিং শুরু হয়েছিল। কিন্তু করোনার জন্য এখন কাজ বন্ধ। পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলে আবার নিশ্চয়ই শুরু হবে।
প্র: ছেলেদের আইপিএলের বহর ও উন্মাদনা দেখে খারাপ লাগে না?
ঝুলন: খারাপ লাগার কিছু নেই। আগে তো মেয়েদের ক্রিকেটই কেউ দেখত না। এখন দেখছে। বাড়ছে আগ্রহও বাড়ছে। আমার বিশ্বাস, মেয়েদের আইপিএলও ক্রমশ জনপ্রিয় হবে।

10th     April,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
কিংবদন্তী গৌতম
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
12th     May,   2021