বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
খেলা
 

রক্ষণ আগলে জয়ে
চোখ হাবাসের

নিজস্ব প্রতিনিধি, কলকাতা: নর্থ ইস্ট ইউনাইটেডের বিরুদ্ধে প্রথম লেগে শেষপর্বে গোল হজম করেছিল এটিকে মোহন বাগান। রক্ষণের সেই ভুল কিছুতেই মানতে পারছেন না কোচ আন্তোনিও লোপেজ হাবাস। শেষ তিনটি ম্যাচে জয় না পাওয়ায় তাঁর দুশ্চিন্তার ভাঁজ চওড়া হয়েছে। মঙ্গলবার ‘ডু অর ডাই’ ম্যাচের আগে তিনি বলেছেন, ‘রক্ষণ আরও জমাট করতে হবে। শেষ তিনটি ম্যাচে আমরা পাঁচ গোল হজম করেছি। এই বদভ্যাস থেকে বেরতেই হবে। ফুটবলে অবশ্য এমন মাঝেমধ্যেই হয়ে থাকে। তবে শনিবারের ম্যাচের থেকে শিক্ষা নিয়ে আমরা মঙ্গলবার নামব। ফুটবলারদের খোশমেজাজে রাখার দায়িত্ব আমারই। গত মরশুমে দ্বিতীয় সেমি-ফাইনালে এমনই পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছিল। তা সত্ত্বেও বেঙ্গালুরু এফসি’কে হারিয়ে ফাইনালে উঠেছিলাম। তবে ম্যাচটি হয়েছিল কলকাতায়। দর্শকদের উপস্থিতি ছিল আমাদের বাড়তি পাওনা।’
শৃঙ্খলাবদ্ধ রক্ষণের কথা বললেও এই ম্যাচে সন্দেশ ঝিংগানকে পাচ্ছে না সবুজ-মেরুন ব্রিগেড। তবে তিরি এখন ফিট। সোমবার প্র্যাকটিসও করেছেন। কিন্তু ডিপ ডিফেন্সে তাঁর সঙ্গী কে হবেন? এই ভূমিকা পালন করার জন্য এগিয়ে প্রীতম কোটালই। দলে সালামরঞ্জন সিং থাকলেও তাঁর উপর তেমন ভরসা নেই হাবাসের। এটিকে মোহন বাগান কোচ জানালেন, ‘পেশির চোটের কারণে এডু গার্সিয়াকে এই ম্যাচে অনিশ্চিত। তবে পেশাদার ফুটবলে এই সমস্যাকে সঙ্গে নিয়েই এগিয়ে যেতে হবে। প্রতিপক্ষ নর্থ ইস্ট এই মুহূর্তে দারুণ ছন্দে আছে। তাই ম্যাচ মোটেই সহজ হবে না।’ উল্লেখ্য, টানা ১১টি ম্যাচে অপরাজিত নর্থ ইস্ট। মঙ্গলবার নির্ধারিত ৯০ মিনিটের মধ্যে ম্যাচ শেষ না হলে হবে টাই-ব্রেকার। তবে এটিকে মোহন বাগান কোচ ম্যাচের আগের দিন এই নিয়ে ভাবতে রাজি নন। তাঁর কথায়, ‘পরিকল্পনা মতো খেলতে পারলে নির্ধারিত সময়ের মধ্যেই জয় তুলে নেওয়া সম্ভব। এরজন্য প্রয়োজন বাড়তি তাগিদ। আর মনকে শান্ত রাখা। পেনাল্টি শ্যুট আউট তো পরের ব্যাপার।’
এদিকে, ইতিহাসের সামনে দাঁড়িয়ে নর্থ ইস্ট ইউনাইটেড। তাদের কাছে রয়েছে প্রথমবার আইএসএল ফাইনালে যাওয়ার সুযোগ। কোচ খালিদ জামিলের বক্তব্য, ‘সমর্থকদের প্রত্যাশার চাপ আছে। তা নিয়েই এমন বড় ম্যাচ খেলতে হয়। ছেলেদের বলেছি, ম্যাচ উপভোগ করতে। অ্যাওয়ে গোলের নিয়ম থাকায় ওপেন খেলা হবে।’
মোহন বাগানের উইঙ্গার ডেভিড উইলিয়ামস জানিয়েছেন,‘প্রতিপক্ষ কোচ দারুণ দল সাজাচ্ছেন। সেমি-ফাইনালের প্রথম লেগে আমি কিংবা রয় কৃষ্ণা ওপেন স্পেস পাইনি। তাই মঙ্গলবার অন্য পরিকল্পনা অনুযায়ী খেলতে হবে।’ উল্লেখ্য, প্রথম পর্বে ডি ব্রাউনকে খেলায়নি নর্থ ইস্ট। তবে মঙ্গলবারের ম্যাচে তিনি খালিদের অন্যতম প্রধান অস্ত্র হতে পারেন। ২০১৬-১৭ সালে আইজলের কোচ হিসেবে খালিদ জামিল আই লিগের খেতাব নির্ধারক ম্যাচে শেষ মুহূর্তের গোলে মোহন বাগানকে হারিয়ে দিয়েছিলেন। ফাতোরদার নেহরু স্টেডিয়ামে তারই পুনরাবৃত্তির আশায় রয়েছেন তিনি।

9th     March,   2021
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
কিংবদন্তী গৌতম
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ
 
হরিপদ
 
10th     April,   2021