বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দক্ষিণবঙ্গ
 

মতুয়া অনুষ্ঠানে বাম প্রার্থী, শঙ্কিত গেরুয়া শিবির

নিজস্ব প্রতিনিধি, রানাঘাট: রাজনৈতিক অনুষ্ঠানে ডঙ্কা, নিশান, কাঁসর সহযোগে মতুয়াদের নিয়ে আসা কিংবা মতুয়া মহা সম্মেলনে অংশ নেওয়া তৃণমূল ও বিজেপি শিবিরে পরিচিত দৃশ্য ছিল। কিন্তু মতুয়াদের অনুষ্ঠানে দেখা মিলত না বামেদের। এবারের লোকসভা নির্বাচনের আগে সেই ছবিটাই পাল্টে যাচ্ছে। রানাঘাট লোকসভা কেন্দ্রের সিপিএম প্রার্থী অলকেশ দাসকে সাম্প্রতিক সময়ে বেশ কয়েকবার মতুয়াদের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে দেখা গিয়েছে। শুধু তাই নয়, গলায় ফুলের মালা পরিহিত বাম প্রার্থীকে ঘিরে মতুয়াদের ভিড়ও হচ্ছে। এতেই শঙ্কিত গেরুয়া শিবির।
গতমাস থেকেই বামপ্রার্থী অলকেশবাবুকে চাকদহের বিভিন্ন মতুয়া সম্মেলন কিংবা অনুষ্ঠানে অংশ নিতে দেখা গিয়েছে। নাগরিকত্ব আইন থেকে বিজেপির সাম্প্রদায়িক রাজনীতির বিরুদ্ধে মতুয়াদের লড়াইকে প্রচারে অন্যতম হাতিয়ার হিসেবে ব্যবহার করছে বামেরা। চাকদহ ছাড়াও রানাঘাট দক্ষিণ, রানাঘাট উত্তর-পূর্ব এমনকী কৃষ্ণগঞ্জের মতুয়া সমাজের একটা বড় অংশ গেরুয়া শিবির থেকে মুখ ঘুরিয়ে বামেদের দিকে ঝুঁকছে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ। তাদের মতে, মতুয়া বলয় বলে পরিচিত নদীয়া দক্ষিণের একটা বড় অংশে চব্বিশের লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির মতুয়া ভোটব্যাঙ্কে ব্যাপক ধস নামার সম্ভাবনা রয়েছে। নিঃশর্ত নাগরিকত্বের দাবিতে মতুয়াদের পাশে থেকে তৃণমূল বরাবরই আন্দোলন চালিয়ে গিয়েছে। তার উপর এবার বামেদের সিএএ বিরোধী প্রচার। ফলে কার্যত জোড়া ফলায় বিদ্ধ হচ্ছে পদ্ম শিবির।
মালা গলায় জড়িয়ে মতুয়া আসরে সিপিএম প্রার্থীর দেখা পাওয়া নিয়ে অবশ্য রাজনৈতিক মহলে চর্চার শেষ নেই। এনিয়ে অনেকে কটাক্ষও ছুড়ে দিচ্ছেন। তবে সিপিএম প্রার্থী বলেন, মতুয়ারা নিজেদের অধিকারের জন্য বরাবর বামেদের সমর্থন করে এসেছে। বামেরাও তাদের পাশেই ছিল। সেটা এতদিন আমাদের আলাদা করে প্রচারের প্রয়োজন ছিল না। তাহলে ভোটের আগে নতুন করে মতুয়া মন জয়ের চেষ্টা কেন? তিনি বলেন, মতুয়াদের কাছে গিয়ে আমরা আলাদা করে রাজনীতির কথা বলছি না। গুরুচাঁদ ঠাকুর বরাবর ব্রাহ্মণ্যবাদের বিরুদ্ধে উদার মতুয়াবাদ প্রতিষ্ঠা করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু, বিজেপি মনুবাদ নীতিতে বিশ্বাস করে। হরিচাঁদ ঠাকুর নারী ও শূদ্রদের সমানাধিকারের কথা বলেছিলেন। কিন্তু, বিজেপি নারী ও শূদ্রকে নীচের স্থানে রাখে। বিজেপি সরকারের নয়া শিক্ষা নীতিতে মতুয়াদের উদার শিক্ষাতত্ত্ব কোথায়?
২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে প্রায় ৯৭হাজার ভোট পেয়ে রানাঘাট লোকসভা কেন্দ্রে তৃতীয় স্থানে ছিল সিপিএম। পরবর্তীতে একুশের বিধানসভা নির্বাচনে নবদ্বীপ, চাকদহ, রানাঘাট দক্ষিণ এবং কৃষ্ণগঞ্জে তৃতীয় স্থানে থাকে বামেরা। শান্তিপুর উপনির্বাচনেও তারা তৃতীয় হয়। তবে পুর নির্বাচনে তাহেরপুরে ক্ষমতায় আসে বামেরা। এককালের সাংসদ এবং অভিজ্ঞ বাম মুখ অলকেশবাবুকে সিপিএম ফের রানাঘাট লোকসভা আসনে প্রার্থী করেছে। তাঁর হাত ধরে রামে যাওয়া ভোট বামে ফিরবে বলে প্রত্যয়ী সিপিএম। 
রানাঘাট কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী জগন্নাথ সরকার বলেন, বামেরা তো কোনওদিন মতুয়াদের সঙ্গেই ছিল না।  এখন যতই ওরা মতুয়াদের মন জয়ের চেষ্টা করুক না কেন, কোনও লাভ হবে না। তৃণমূল প্রার্থী মুকুটমণি অধিকারী বলেন, বামেদের মুখে মতুয়া নাম এবার প্রথম শোনা যাচ্ছে।

14th     April,   2024
 
 
অক্ষয় তৃতীয়া ১৪৩১
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ