বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দক্ষিণবঙ্গ
 

আউশগ্রাম, মঙ্গলকোট ও
কেতুগ্রামের দায়িত্বে কে? 

নিজস্ব প্রতিনিধি, বর্ধমান: কেতুগ্রাম, মঙ্গলকোট, আউশগ্রাম বিধানসভায় তৃণমূলের সংগঠন নিয়ন্ত্রিত হতো বোলপুর থেকে। এই তিন বিধানসভা পূর্ব বর্ধমান জেলার অধীনে হলেও দেখভাল করতেন অনুব্রত মণ্ডল। পঞ্চায়েত বা পুরসভা নির্বাচনের টিকিট বণ্টনে তিনিই ছিলেন শেষ কথা। ব্লক সভাপতি, পঞ্চায়েত সভাপতি নির্বাচনও তাঁর ইশারা ছাড়া হতো না। কিন্তু তিনি শ্রীঘরে যাওয়ার পর বর্ধমানের ওই ব্লকগুলির দায়িত্ব আদৌ বীরভূমের নেতৃত্বের হাতে থাকবে? এনিয়ে তৃণমূলের অন্দরে জোর জল্পনা শুরু হয়েছে। 
তৃণমূল সূত্রে জানা গিয়েছে, ওই ব্লকগুলির সংগঠনের কাজও এবার পূর্ব বর্ধমান থেকে দেখার সম্ভাবনা বেশি। সেই ইঙ্গিত অনুব্রতবাবুর শিবিরের নেতারাও পেয়েছেন। তাঁরাও বেশ কিছুদিন ধরে পূর্ব বর্ধমান জেলার নেতাদের সঙ্গে যোগাযোগ বাড়িয়েছেন। কেউ কেউ কিছুদিন ধরে জল মাপছিলেন। কিন্তু বৃহস্পতিবারের পর থেকে তাঁদেরও ভোল বদলে গিয়েছে। গুসকরার অনুব্রত ঘনিষ্ঠ এক নেতা বলেন, আমরা রাজনীতি করি। যখন যে দায়িত্বে থাকবেন, তাঁর সঙ্গে যোগাযোগ রাখব। কেষ্টদা ভালোবাসতেন। সেই কারণে তাঁর সব কথা মেনে চলতাম। কিন্তু দলের উপরে কেউ নয়। আগামী দিনে দল যাঁকে দায়িত্ব দেবেন, তাঁর নির্দেশে কাজ করব। 
আউশগ্রামের আরএক নেতা বলেন, এক মাসের বেশি সময় ধরে ‘দাদা’র সঙ্গে যোগাযোগ নেই। সংগঠনের কাজে সমস্যা হচ্ছিল। সংগঠন শক্তিশালী করার জন্য নতুন কাউকে দায়িত্ব দেওয়া উচিত। উনি আমাদের এলাকায় সংগঠনের কাজ দেখভাল করতেন। সেই কারণে তাঁর কথা শুনে চলতাম। দলের ভালোর জন্য আগামী দিনে কাজ করে যাব। 
দলীয় সূত্রে আরও জানা গিয়েছে, ওই এলাকাগুলিতে অনুব্রতবাবু ছড়ি ঘোরালেও দলে তাঁর বিরুদ্ধেও অনেকেই রয়েছেন। এতদিন তাঁরা মুখ খোলার সাহস দেখাতেন না। কেউ কেউ বিরুদ্ধে যাওয়ায় খেসারতও দিতে হয়েছে। অনুব্রতবাবু শ্রীঘরে যাওয়ার পরে তাঁরা উচ্ছ্বসিত। আরএক নেতা বলেন, তিনি সীমা পার করে গিয়েছিলেন। যাঁরা সিপিএমের হাতে মার খেয়ে দল করেছিলেন, তাঁদের তিনি ব্যাকফুটে ঠেলে দিয়েছিলেন। সিপিএম থেকে আসা নেতারাই তাঁর কাছে গুরুত্বপূর্ণ হয়েছিল। ওঁর অনেকদিন আগেই জেলে যাওয়ার কথা ছিল। 
তৃণমূল সূত্রে আরও জানা গিয়েছে, পূর্ব বর্ধমানের ওই ব্লকগুলি নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে চর্চা শুরু হয়েছে। বৃহস্পতিবার থেকে সেই চর্চা তুঙ্গে উঠেছে। রাজ্য তৃণমূলের মুখপাত্র দেবু টুডু বলেন, এখনও পর্যন্ত সিদ্ধান্ত হয়নি। দল যা বলবে তাই হবে।

12th     August,   2022
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ