বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দক্ষিণবঙ্গ
 

রানাঘাটে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের সামনে
তৃণমূল-বিজেপি ব্যাপক সংঘর্ষ, জখম ৫

সংবাদদাতা, রানাঘাট: ১০০ দিনের কাজ ও আবাস যোজনার প্রকল্পের বিভিন্ন অভাব অভিযোগ খতিয়ে দেখছে কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল। বৃহস্পতিবার রানাঘাট-১ বিডিও অফিসে আসে কেন্দ্রের তিন সদস্যের প্রতিনিধি দল। তাদের কাছে অভিযোগ জানানো নিয়ে তৃণমূল ও বিজেপির সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে বিডিও অফিস চত্বর। সংঘর্ষে উভয়পক্ষের পাঁচজন জখম হয়েছেন। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে এলাকায় পুলিস ও কমব্যাট ফোর্স মোতায়েন করা হয়। পরে দু’পক্ষই রানাঘাট থানায় অভিযোগ দায়ের করে। পুলিস জানিয়েছে, পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে।
প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, গ্রামীণ এলাকার বেশকিছু প্রকল্পের কাজ খতিয়ে দেখতে কেন্দ্রের তিন সদস্যের প্রতিনিধির দল গত ৭ আগস্ট জেলায় আসে। ১২ আগস্ট পর্যন্ত ওই প্রতিনিধি দলের বিভিন্ন গ্রাম পঞ্চায়েত ও বিডিও অফিস পরিদর্শন করার কথা রয়েছে। এদিন সকালে রানাঘাট-১বিডিও অফিসে কেন্দ্রের ওই প্রতিনিধি দলের সদস্যরা হাজির হন। ব্লকের অধীনে থাকা রামনগর-১, কালীনারায়ণপুর পাহাড়পুর, বারাসত গ্রাম পঞ্চায়েত পরিদর্শনের কথা ছিল। তার আগে বিডিও অফিসে বসেই কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের সদস্যরা বেশ কয়েকজন অভিযোগকারীর সঙ্গে কথা বলবেন বলে ঠিক হয়। অভিযোগ, নিজেদের সমস্যার কথা ওই প্রতিনিধি দলকে জানাতে এলে বাধা দেয় তৃণমূলের লোকজন। পাল্টা প্রতিবাদ করে বিজেপি। তাতেই দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ শুরু হয়।(রামনগর-২ গ্রাম পঞ্চায়েতের বিরোধী দলনেতা বিজেপির তাপস রায় বলেন, কেন্দ্রীয় ওই টিমের আসার বিষয়টি আমরা আগে থেকেই জানতাম। সেই জন্য অভিযোগকারী উপভোক্তারা পঞ্চায়েত অফিসে গিয়েছিলেন। অথচ সেখানে আগে থেকেই তৃণমূলের লোকজন লাঠি-সোঁটা নিয়ে হাজির ছিল। অভিযোগকারীদের ওই প্রতিনিধি দলের সঙ্গে দেখা করতে বাধা দেওয়া হয়। আমি এর প্রতিবাদ করি। তার জেরে ব্যাপক মারধর করা হয়। আমার বাঁ হাত ভেঙে গিয়েছে।
রানাঘাট-১ পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি তৃণমূলের তাপস ঘোষ বলেন, রাখিবন্ধন উপলক্ষে একটি অনুষ্ঠান চলছিল। সেখানে পঞ্চায়েত প্রধান, উপপ্রধান ও অন্যান্য জনপ্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন। সেই সময় কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলের সদস্যরা বিডিও অফিসে আসেন। তাঁদের দেখে সরকারি দপ্তরের ভিতরে ঢুকে বিজেপির লোকজন ‘জয় শ্রীরাম’ স্লোগান তোলেন। তারপরই তাঁরা অতর্কিতভাবে আমাদের উপর হামলা চালায়। ওরা আগে থেকেই পকেটে ব্লেড নিয়ে এসেছিল। সেই ব্লেড নিয়ে ওরা আমাদের তিন কর্মীকে জখম করেছে। আমাদের পঞ্চায়েত সমিতির অধীনে থাকা কোনও পঞ্চায়েতে কোনও অনিয়ম বা দুর্নীতির ঘটনা ঘটেনি। আমরা কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দলকে সব সময় স্বাগত জানাই। কিন্তু, বিজেপি এধরনের আচরণ কখনই মেনে নেওয়া যায় না। রানাঘাট-১বিডিও সঞ্জীব সরকার বলেন, কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি দল এসেছিল। আমরা তাদের সাহায্য করেছি। কোনও নির্দেশ আমাদের দেওয়া হয়নি।  জখম বিজেপি নেতা।

12th     August,   2022
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ