বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দক্ষিণবঙ্গ
 

সৌমেন্দু গভর্নিং বডির চেয়ারম্যান থাকাকালীন বিল্ডিং নির্মাণে অনিয়ম
হাইকোর্টের স্থগিতাদেশ উঠে যাওয়ায়
নতুন করে তদন্ত শুরু করল পুলিস

নিজস্ব প্রতিনিধি, তমলুক: কাঁথির পিকে কলেজে বিল্ডিং নির্মাণে অনিয়মের ঘটনায় আদালতের স্থগিতাদেশ উঠে যাওয়ায় ফের তদন্ত শুরু করল পুলিস। সৌমেন্দু অধিকারী গভর্নিং বডির প্রেসিডেন্ট থাকাকালীন ওই অনিয়ম হয় বলে অভিযোগ ওঠে। বৃহস্পতিবার আদালতের রায়ের পরেই পুলিস দিয়ে গোটা কলেজ ঘিরে রাখা হয়। যদিও পুলিস নির্দেশের কপি দেখাতে না পারায় কলেজের অধ্যক্ষ বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা পর্যন্ত অরিজিনাল ডকুমেন্টস দেননি।
তৃণমূলের সংখ্যালঘু সেলের সাধারণ সম্পাদক আবু সোহেল কলেজে বিল্ডিং নির্মাণে অনিয়মের অভিযোগে সরাসরি কাঁথি এসিজেএম আদালতে মামলা করেন। সেই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে আদালত থানায় এফআইআর রুজু করে তদন্ত করতে নির্দেশ দেয়। সেইমতো কলেজের তৎকালীন গভর্নিং বডির প্রেসিডেন্ট সৌমেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে গত ১৮ ফেব্রুয়ারি কাঁথি থানায় এফআইআর হয়। তারপর তদন্ত শুরু করে পুলিস। যদিও কিছুদিনের মধ্যে হাইকোর্ট সেই তদন্তে স্থগিতাদেশ দেয়। তাতে পুলিসি তদন্ত বন্ধ হয়ে যায়। এরপর ব্যক্তিগত কারণ দেখিয়ে হাইকোর্টের বিচারপতি ওই মামলা থেকে সরে দাঁড়ান। যার ফলে মামলা অন্য বেঞ্চে যায়। বৃহস্পতিবার হাইকোর্টে ওই মামলায় পুলিসি তদন্তে স্থগিতাদেশ উঠে যায়। তারপরই পুলিসি তৎপরতা শুরু হয়।
২০১৭ থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত কাঁথি প্রভাতকুমার কলেজে বেশকিছু বিল্ডিং নির্মাণের কাজ হয়েছে। তারমধ্যে চারতলা গার্লস হস্টেল, চারতলা পোস্ট গ্র্যাজুয়েট বিল্ডিং, প্রশাসনিক ভবন, লাইব্রেরি ও ক্লাসরুম এবং অধ্যাপকদের কোয়ার্টার রয়েছে। অভিযোগ, ওইসব বিল্ডিং নির্মাণের জন্য‌ পুরসভা থেকে কোনও প্ল্যান পাশ হয়নি। পুরসভার খাতায় এইসব বিল্ডিং নির্মাণের কোনও তথ্য নেই। বিল্ডিং নির্মাণের টেন্ডার প্রক্রিয়াতেও স্বচ্ছতা ছিল না বলে অভিযোগ। এভাবে প্রচুর সরকারি অর্থ নয়ছয় হয়েছে বলে মামলাকারীর অভিযোগ।
এদিন হাইকোর্টের নির্দেশ আসার পরই কাঁথি পিকে কলেজের দখল নেয় পুলিস। কোনওভাবে নথি যাতে এদিক-ওদিক না হয় তারজন্য রেকর্ড রুমের দায়িত্ব নেয় তারা। দুপুর আড়াইটা থেকেই তদন্ত শুরু হয়। সংশ্লিষ্ট সকলকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চায় পুলিস। এদিন কলেজের অধ্যক্ষ অমিতকুমার দে-র অফিসের সামনে র‌্যাফ মোতায়েন করা হয়। কলেজের গেটেও পুলিস মোতায়েন করা হয়। কাঁথি থানার এক পুলিস অফিসার অধ্যক্ষের কাছে গিয়ে বিল্ডিং নির্মাণের যাবতীয় তথ্য‌ চান। জবাবে অধ্যক্ষ জানান, এর আগেই তিনি পুলিসি তদন্তে যাবতীয় নথিপত্র দিয়েছেন। তদন্তকারী অফিসার জানান, সেবার অরিজিনাল ডকুমেন্টস দেওয়া হয়নি। এবার অরিজিনাল সব ডকুমেন্টস দিতে হবে। জবাবে অধ্যক্ষ জানান, এরজন্য কোর্টের অর্ডার দেখাতে হবে। তদন্তকারী অফিসার জানান, দ্রুত অনুমতির কপি আনা হচ্ছে। যদিও সন্ধ্যা পর্যন্ত অরিজিনাল ডকুমেন্টস দেওয়ার জন্য কোনও অনুমতি দেখানো যায়নি। কাঁথি থানার আইসি অমলেন্দু বিশ্বাস বলেন, গত ফেব্রুয়ারি মাসে বিল্ডিং নির্মাণে অনিয়ম নিয়ে মামলা হয়েছিল। আমরা তদন্ত শুরু করি। তারপর স্থগিতাদেশ হওয়ায় তদন্ত প্রক্রিয়া বন্ধ হয়। বৃহস্পতিবার কোর্ট স্থগিতাদেশ প্রত্যাহার করে নেয়। যে কারণে আমরা এদিন থেকেই ফের তদন্ত শুরু করেছি। অধ্যক্ষ বলেন, আমি এর আগে যাবতীয় নথিপত্র তুলে দিয়েছি। এদিন একজন এএসআই এসে ফের বিল্ডিং নির্মাণের তথ্য চান। কিন্তু কোর্ট অর্ডার দেখাতে পারেননি। কলেজে বসে রয়েছি। বাইরে পুলিস মোতায়েন করে দেওয়া হয়েছে।

12th     August,   2022
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ