বর্তমান পত্রিকা : Bartaman Patrika | West Bengal's frontliner Newspaper | Latest Bengali News, এই মুহূর্তে বাংলা খবর
দক্ষিণবঙ্গ
 

খোলাবাজারে রেশন পণ্য বিক্রি বন্ধ করতে উদ্যোগ
উপভোক্তাদের চিহ্নিত করা শুরু খাদ্যদপ্তরের

নিজস্ব প্রতিনিধি, আরামবাগ: খোলাবাজারে রেশনের প্রাপ্ত সামগ্ৰী বিক্রি করে দেওয়া উপভোক্তাদের চিহ্নিত করবে খাদ্যদপ্তর। উপযুক্ত প্রমাণ মিললেই উপভোক্তাদের রেশন কার্ড বাতিলের ব্যবস্থা নেওয়া হবে। দীর্ঘদিন ধরেই রেশন সামগ্ৰী স্থানীয় বাজারে বিক্রি করে দেওয়ার অভিযোগ উঠছিল। বেআইনিভাবে রেশন সামগ্রী মজুতকারী কয়েকজন ধরা পড়তেই প্রকাশ্যে এসেছে গোপন এই কারবার। তারপরেই নড়েচড়ে বসেছে মহকুমা প্রশাসন।
প্রসঙ্গত, গত সোমবার আরামবাগ শহরে এনফোর্সমেন্ট ব্রাঞ্চের হাতে রেশন সামগ্রী মজুতকারী এক ব্যবসায়ী ধরা পড়ে। তার কাছ থেকে বিপুল পরিমাণ রেশনের চাল, গম, আটা বাজেয়াপ্ত করা হয়। মঙ্গলবার প্রদীপ বেতাল নামে ওই ব্যবসায়ীকে আদালতে তুলে চারদিনের হেফাজতে নেন অফিসাররা। তবে শুধু ওই ব্যবসায়ী নয়, এই চক্রে মহকুমার একাধিক ব্যবসায়ী জড়িত আছে বলে মনে করা হচ্ছে। তদন্তে উঠে এসেছে, বড় মজুতকারীরা রেশন সামগ্রী সংগ্রহের জন্য কার্যত এজেন্ট নিয়োগ করেছে। ওই এজেন্টরা মহকুমার বিভিন্ন এলাকায় গিয়ে উপভোক্তাদের কাছ থেকে রেশন সামগ্ৰী সংগ্ৰহ করে। সেখান থেকে চাল, গম, আটা নিয়ে আসা হচ্ছে আরামবাগ শহরের বড় কারবারিদের গুদামে। সেই রেশন সামগ্রী বস্তাজাত করে কখনও স্থানীয় বাজারে, কখনও বাইরে পাচার করে দেওয়া হচ্ছে। এই চক্রের বিষয়ে ওই ব্যবসায়ীকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে।
এমআর ডিলার অ্যাসোসিয়েশনের আরামবাগ শাখার এক সদস্য বলেন, আরামবাগ মহকুমাজুড়ে এই কারবার চলছে। উপভোক্তাদের কাছ থেকে রেশন সামগ্রী কম দামে কিনে তা ফের বিভিন্নভাবে বাজারজাত করা হচ্ছে। এলাকায় এলাকায় হঠাৎ করেই রেশন সামগ্ৰী সংগ্ৰহের ছোট ছোট গোডাউন গজিয়ে উঠেছে। বড় ব্যবসায়ীদের এজেন্টরা পাড়ায় পাড়ায় গিয়ে উপভোক্তাদের কাছ থেকে অল্পদামে রেশন সামগ্ৰী কিনছে। সেই সামগ্ৰী চলে যাচ্ছে বড় গুদামে। গ্ৰামীণ এলাকায় প্রশাসনের নাকের ডগায় প্রকাশ্যেই এই অনিয়ম চলছে। উপভোক্তাদের চিহ্নিতকরণের এই উদ্যোগ কার্যকর হলে  এই কারবার অনেকটাই রোখা যাবে বলে মনে করছি।
রেশন সরবরাহ ব্যবস্থা নিয়ে অনিয়মের অভিযোগ দীর্ঘদিনের। বর্তমানে বায়োমেট্রিক সিস্টেম ও ই-পস যন্ত্রের ব্যবহারে সেই অনিয়ম অনেকটাই নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব হয়েছে। এবার উপভোক্তাদের বিরুদ্ধে রেশন সামগ্ৰী বিক্রি করে দেওয়ার অভিযোগ ওঠায় স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠেছে রেশন বণ্টন ব্যবস্থা নিয়ে। মহকুমা খাদ্য নিয়ামক অভিজিৎ মাইতি বলেন, পর্যাপ্ত খাদ্যের যাতে অভাব না হয়, তারজন্যই রেশন সামগ্ৰী সরবরাহ করা হচ্ছে। যেসব উপভোক্তা রেশন সামগ্ৰী স্থানীয় বাজারে বিক্রি করে দিচ্ছেন, বোঝাই যাচ্ছে তাঁদের এই রেশন সামগ্ৰীর প্রয়োজন নেই। এই উপভোক্তাদের চিহ্নিত করতে দ্রুত পদক্ষেপ নেওয়া হবে। রেশন সামগ্ৰী বিক্রির উপযুক্ত প্রমাণ পেলেই চিহ্নিত উপভোক্তাদের রেশন কার্ড যাতে বাতিল করা হয়, তারজন্য উচ্চ কর্তৃপক্ষের কাছে প্রস্তাব পাঠানো হবে। বেআইনি রেশন মজুতকারিদের ধরতে আমাদের দপ্তর প্রশাসনকে সবরকম সহযোগিতা করছে।

25th     May,   2022
 
 
কলকাতা
 
রাজ্য
 
দেশ
 
বিদেশ
 
খেলা
 
বিনোদন
 
আজকের দিনে
 
রাশিফল ও প্রতিকার
ভাস্কর বন্দ্যোপাধ্যায়
এখনকার দর
দিন পঞ্জিকা
 
শরীর ও স্বাস্থ্য
 
বিশেষ নিবন্ধ
 
সিনেমা
 
প্রচ্ছদ নিবন্ধ